Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ভালোবাসার দিন আজ

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫৭৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:‘আজ বসন্ত,ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক ’। বিদায় জানানো হয়েছে শীতের রুক্ষতাকে । প্রকৃতি সেজেছে ফুলে ফুলে। একই দিনে বিশ্বজুড়ে উদযাপিত হচ্ছে ভালোবাসার দিন, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। ভালোবাসা দিবস আর বসন্তের রঙ মিলেছে একই দিনে। সবার মুখে মুখে তাই আজ উচ্চারিত হচ্ছে, বসন্তে রঙিন ভালোবাসার দিন। আজ বসন্ত, আজ ভালোবাসার দিন।

ঋতুরাজকে স্বাগত জানাতে প্রকৃতি সেজেছে বর্ণিল সাজে। প্রকৃতিতে ফাল্গুনের হাওয়া, বাতাসে বসন্তের উন্মাদনা বিরাজমান। গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলার দিন আজ। প্রকৃতিও আগুনরঙা ভালোবাসার রঙে নিজেকে রাঙিয়ে নিয়েছে। সবমিলিয়ে প্রকৃতি জানান দিচ্ছে আজ পহেলা ফাল্গুন।

একই দিনে বিশ্বজুড়ে উদযাপিত হচ্ছে ভালোবাসার দিন। ভালোবাসা দিবস আর বসন্তের রঙ যেন মিলেমিশে এক হচ্ছে আজ (১৪ ফেব্রুয়ারি)। ফাল্গুনের হাত ধরেই ঋতুরাজ বসন্তের আগমন। সেই সঙ্গে ঋতুরাজের হাত ধরে এবারও এলো ভালোবাসার বিশেষ দিনটি। একদিকে বাসন্তী রঙ, অন্যদিকে ভালোবাসার রঙের জোয়ারে প্রকৃতি একাকার আজ।

ফাগুনের আগুনে মন রাঙিয়ে বাঙালি তার দীপ্ত চেতনায় উজ্জীবিত হবে আজ। বাসন্তী রঙের শাড়ি, কপালে টিপ, হাতে চুড়ি, পায়ে নূপুর, খোঁপায় ফুল অথবা রিং জড়িয়ে আজ বেরিয়ে পড়বেন তরুণীর দল। প্রকৃতির সঙ্গে নতুন সাজে সাজবেন তারাও। তাদের উচ্ছ্বাস মনে করিয়ে দেয় কবির কবিতার লাইন, ‘ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক, আজ বসন্ত’।

বেশ কয়েক বছর ধরে ঋতুরাজের হাত ধরে আসছে ভালোবাসার দিন। যদিও ভালোবাসা ক্ষণিকের নয়, চিরন্তন। ভালোবাসা শুধু প্রেমিক-প্রেমিকার নয়, শুধু স্বামী-স্ত্রীর নয়, এ ভালোবাসা বয়সের ফ্রেমে বাঁধা নয়, এটা প্রসারিত হয় বন্ধু-বান্ধব, পরিচিতজনসহ সবার মাঝে। ইংরেজি বর্ষপঞ্জির ১৪ ফেব্রুয়ারি দিনটি ভালোবাসা দিবস হিসেবে পরিচিত সারা বিশ্বে। বাংলাদেশেও দিবসটি ঘিরে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আজ ঋতুরাজ বসন্ত বরণের আয়োজন করেছে। পহেলা ফাল্গুন বসন্তবরণ উৎসব। ২২৫ নৃত্যশিল্পীর পরিবেশনার মধ্য দিয়ে বসন্তবরণের আয়োজন করেছে একাডেমি। রাজধানী রমনায় বিকেল সাড়ে ৩টায় শতায়ু অঙ্গনের পাশের মঞ্চে পরিবেশিত হবে শিশু-নৃত্যদল ও শিশু সঙ্গীত দলের বিশেষ পরিবেশনা।

অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে বিকাল সাড়ে ৪টায় বসন্তের রঙিন শোভাযাত্রা শুরু হবে। শোভাযাত্রাটি রমনা পার্ক থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে সমবেত হবে। বিকাল সাড়ে ৫টায় একাডেমির উন্মুক্ত মঞ্চে আয়োজন করা হচ্ছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

ঋতুরাজ বসন্ত বরণের উন্মুক্ত মঞ্চের আয়োজনে শুরুতে পরিবেশিত হবে দলীয় ‘ঢাক-নৃত্য’। পরিবেশন করবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নৃত্যদল। পরে তারা পরিবেশন করবে দলীয় নৃত্য ‘শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা’। এরপর দলীয় সংগীত ‘আনন্দ লোকে’ পরিবেশন করবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি শিশু সংগীত দল। দ্বৈত আবৃত্তি ‘রুমঝুম কে বাজায়’ পরিবেশন করবেন ডালিয়া আহমেদ ও জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়। একক সংগীত ‘যেথা রামধনু ওঠে হেসে’ পরিবেশন করবেন মেহরিন মাহমুদ।


আরও খবর



দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থানের কারণেই আমাকে হত্যার পরিকল্পনা: ব্যারিস্টার সুমন

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার কারণেই আমাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে, বলেছেন হবিগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন। ‘অজ্ঞাতনামা একটি শক্তিশালী মহল’ আমাকে হত্যার জন্য মাঠে নেমেছে এমন তথ্য পাওয়ার পর থানায় জিডি করেছি।

শনিবার (২৯ জুন) দিবাগত রাত ১২টার দিকে সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ব্যারিস্টার সুমন।এর আগে, শনিবার রাতে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন ব্যারিস্টার সুমন।

জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) দিবাগত রাত ২টার দিকে চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাকে সরকারি মোবাইল থেকে হোয়াটসঅ্যাপে ফোন করেন। ফোনে ওসি জানান, তাকে হত্যা করতে অজ্ঞাতনামা একটি শক্তিশালী মহল তিনদিন আগে একটি টিম নিয়ে মাঠে নেমেছে। এ সময় পুলিশের ওই কর্মকর্তা সুমনকে সাবধানে চলাচল ও রাতে বের না হওয়ার অনুরোধ করেন। জিডিতে এ নিয়ে মারাত্মক নিরাপত্তাহীনতায় থাকার কথাও উল্লেখ করেছেন সুমন।

পরে ব্যারিস্টার সুমন জানান, একজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি চুনারুঘাট থানার ওসিকে ফোন দিয়ে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানায়। পরে ওই অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। অজ্ঞাতনাম ব্যক্তি সুমনকে জানান, তাকে হত্যায় একটি গ্রুপকে কন্ট্রাক্ট কিলিংয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং সেই গ্রুপটি সক্রিয়ভাবে কাজ করছে।

সুমন আরও জানান, এর আগেও তিনি অনেকবার হুমকির শিকার হয়েছেন। তবে, এবার থানার ওসির মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারায় তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

সম্প্রতি দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান এবং সংসদে এ নিয়ে বক্তব্য রাখায় প্রভাবশালীদের কেউ তাকে হত্যা করতে চাইতে পারে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



পুঠিয়ায় মাছ ভর্তি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image
পুঠিয়া (রাজশাহী)প্রতিনিধিঃরাজশাহীর পুঠিয়ায় মাছ বোঝাই ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে নাসির আলী (৪৫) নামের মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২ জুলাই) বিকেল  ৪ টার সময় পুঠিয়া-তাহেরপুর সড়কের ধোকড়াকুল বাজারে ঈদগাহ ময়দানের নিকটে ও নিজ বাড়ির প্রায় ২শ গজ দূরে এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিহত ব্যক্তির নাম মোঃ নাসির উদ্দিন (৪৫)। তিনি ধোকড়াকুল সড়ক পাড়া এলাকার মোকসেদ আলীর ছেলে। এ ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন ট্রাকটি ও চালকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাসিরের ধোকড়াকুল বাজারে মুদিখানার দোকান আছে। তিনি মোটরসাইকেলে করে দোকানে আসার সময় ধোকড়াকড়াকুল বাজারে যাচ্ছিলেন। এসময় বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে মাছ বোঝাই করে মিনি ট্রাক ধোকড়াকুল ঈদগাহ এর কাছে এসে মোটরসাইকেল কে সজরে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয় জনতা ঘাতক ট্রাকটিকে ধাওয়া করে গাড়িটির ড্রাইভার ও হেলপার সহ ধোকড়াকুল বাজারে এসে আটক করে।

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদুর রহমান জানান, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। এলাকার লোকজন ট্রাক ও তার ড্রাইভারকে আটক করেছে। নাসিরের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

আরও খবর



নওগাঁয় ফুটবল খেলা নিয়ে যুবককে কুপিয়ে হত্যা: গ্রেফতার ১

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯০জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা; নওগাঁ:নওগাঁর মান্দায় ফুটবল খেলা নিয়ে বিরোধের জেরে  শরিফ উদ্দিন সোনার (২৩) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার কশব ইউপি'র তুড়ুকবাড়িয়া গ্রামের আকন্দ পাড়ায় নৃশংস হত্যাকান্ডের এ ঘটনাটি ঘটে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ। 

নিহত শরিফ সোনার কশব ইউপি'র তুড়ুকবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা গ্রাম পুলিশ সাহাবুদ্দিন ওরফে সাহেব আলীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি ছিলেন। অভিযুক্ত যুবকেরা হলেন, একই গ্রামের সুলতান আকন্দ (২৩) ও পারভেজ আকন্দ (২৪)।ঘটনায় নিহতের পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।  বর্তমানে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।                     

হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহত শরিফের বাবা গ্রাম পুলিশ সাহাবুদ্দীন সোনার বাদি হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৩ থেকে ৪জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। 

নিহতের বাবা সাহাবুদ্দীন সোনার বলেন, গত বৃহস্পতিবার (৪জুলাই) তুড়কবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে আমার ছেলে শরিফের সাথে প্রতিবেশি সুলতান ও পারভেজের বিরোধ শুরু হয়। পরে স্থানীয়রা মীমাংসার চেষ্টা করেন। এ অবস্থায় মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ছেলে শরিফ স্থানীয় জানবক্সের মোড়ে চা খেয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় শরিফের উপস্থিতি টের পেয়ে একই গ্রামের আহম্মদ আলী আকন্দের ছেলে সুলতান আকন্দ, জিয়াউর রহমানের ছেলে পারভেজ আকন্দ ধারালো হাসুয়া দিয়ে পেছন থেকে শরিফের পিঠে কোপ দেয়। কোপ খেয়ে আহত শরিফ সেখান থেকে দৌড় দিলে রাস্তার ওপর পড়ে যায়। এরপর আবারও শরিফের পিঠে ধারালো হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।বাদি সাহাবুদ্দীন সোনার আরও বলেন, ছেলে শরিফ উদ্দিন জীবন বাঁচাতে দৌড়ে বাড়ির বারান্দায় এসে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে ছেলে শরিফ মারা যায়। এদিকে শরিফের  মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সুলতান ও পারভেজের বাড়ি ঘেরাও করে রাখে।               
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় অভিযুক্ত সুলতান আকন্দের মা সেলিনা ওরফে সেলি বিবিকে (৪৫) গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক কাজী বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। রাতেই নিহত যুবকের লাশ উদ্ধার করে বুধবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

ওসি আরও বলেন, ঘটনায় নিহতের বাবা সাহাবুদ্দীন সোনার পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় আসামি সুলতানের মা সেলিনা বিবিকে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে নওগাঁ জেলহাজতে  পাঠানো হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



বয়স্কভাতার টাকা মেরে দিল আলহেরার সুমন, তদন্তে মিলল সত্যতা

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৮জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার কোলা ইউনিয়নের কোলা গ্রামের ফুল মোহাম্মদ দম্পতি। বাড়িঘরের অবস্থা দেখলেই অনুমান করা যায় তাদের জীবন জীবিকার মান কেমন, অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা কেমন হতে পারে। সরকারি সুবিধাভোগীর আওতায় তিনি বয়স্ক ভাতা পান। মোবাইলের নগদ এ্যাকাউন্টের টাকা তুলতে গিয়েছিল আলহেরা টেলিকম নামক নগদ এজেন্টের দোকানে। অভিযোগ সুকৌশলে তার ভাতার টাকা মেরে দিয়েছে সেই দোকানের মালিক জুয়েল আরমানের ভাই সুমন হোসেন। এক মাস যাবৎ এর প্রতিকার না পেয়ে অবশেষে গত ২৬ জুন সমাজসেবা অফিসসহ একাধিক জায়গায় অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর টনক নড়ে সকলের।


গত ২৯ ও ৩০ জুন এলাকায় সরেজমিনে গেলে স্থানীয়রা গত ২৮ মে’র দুটি ট্রানজেকশনে দেখিয়ে বলেন, বিকেল ৫টা ১৮ মিনিটে ১ম বার ফুল মোহাম্মদের নগদ আকাউন্ট থেকে আলহেরার নগদের উদ্দোক্তার নাম্বারে ১৮১৪ টাকা ১৯ পয়সা ক্যাশ আউট করা হয় এবং পরে ৫টা ১৯মিনিটে একই নাম্বারে ১৮০০টাকা ক্যাশ আউট করা হয়। কিন্তু সুমন ১৮০০টাকা ভাতাভোগীর হাতে দেন এবং বাঁকি ১৮১৪ টাকা ১৯ পয়সা সুমন কৌশলে আতœসাৎ করেন। এদিকে ১৮১৪ টাকা ১৯ পয়সা ক্যাশ আউট করা নিয়ে সুমনের ইচ্ছাকৃতভাবে প্রতারণা বলে মনে করছেন তারা।

ফুল মোহাম্মদের জরাজীর্ণ বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় দরজার সামনে বসে আছেন প্রতিবন্ধী স্ত্রী শরিফা। তিনিও সরকারি সুবিধাভোগীর আওতায় প্রতিবন্ধী ভাতা পান। তিনি জানালেন, শেখ হাসিনা টাকা দেয়। ওই সুমন সেই টাকা দেওয়ার সময় খরচ কেটে নেয়।

অভিযোগে জানা যায়, গত ২৮শে মে আলহেরা কসমেটিক্সের একটি আলহেরা টেলিকম নামক নগদ এজেন্ট এর দোকানে ভাতার টাকা উঠাতে যায় ভূক্তভোগী ফুল মোহাম্মদ। সুমন একবারের ভাতার টাকা বের করে দেন ভাতাভোগীকে। কিন্তু দুই বারের প্রাপ্য ভাতার টাকা তার মোবাইলের নগদ এ্যাকাউন্টে জমা ছিল। জানতে গেলে সুমন সেই টাকার কোনো খোঁজ নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন। এরপর ভূক্তভোগী বিভিন্ন মাধ্যমে তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করে সুমনের বিরুদ্ধে আত্মসাতের অভিযোগ দায়ের করেন। এছাড়া তাদের এমন কর্মকান্ডের কারণে নগদ লেনদেন বন্ধ ছিল। তারপরও সুদরায়নি তারা। তাই তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক বিচার হওয়া উচিত।

ফুল মোহাম্মদ বলেন, সুমনের কাছে গেলে সে আমাকে ১ হাজার ৮শ টাকা ধরিয়ে দেয়। কিন্তু আমার মোবাইলে দুই বার ভাতার টাকা এসেছে। তিনি বলেন, বাপো হামার ভাতার ট্যাকা মেরে দিসে দোকানদার। হ্যামি গরীব মানুষ বাপু। হামার সাথে সুমন এমনডা করলো ক্যানো? হ্যামি হামার ভাতার ট্যাকা ফেরত চাই!

আলহেরা মোবাইল টেলিকমে কথা হয় সুমনের সাথে। ভিডিও বক্তব্য দিতে রাজি না। এক পর্যায়ে গর্বের সহিত জানালেন আমি এই সেক্টরে খুব দক্ষ। কারো পিন কোডের সমস্যা হলে আমার কাছেই আসে। ফুল মোহাম্মদের আগের টাকা ছিল, সেটা আমার জানা ছিল না। আমি ইচ্ছে করে করিনি, কোনো কারণে হয়তো আমার ভুল হয়েছে। এদিকে এই প্রতিবেদক তার দোকানে অবস্থাকালে এক ব্যক্তি আসলেন তার মেয়ের উপবৃত্তির টাকা উঠাতে। মোবাইলটা দিয়ে দিলেন সুমনের হাতে। কোনো কিছু না বলাতেই কিছু টাকা বের করে দিলেন।

একইভাবে ভিডিও বক্তব্য দিতে রাজি না জুয়েল আরমান। তবে তিনি এক সময় স্বীকার করলেন পিন না দেওয়া এটা একটা ব্যবসায়িক কৌশল। কারণ পিন না দিলে এই দোকানেই আসবে তারা। এছাড়া এটা একটা অনাকাঙ্খিত ঘটনা বলে জানালেন তিনি। এবং বিষয়টি নিয়ে কিছু করার দরকার নেই বলে অনুরোধ করেন। ১৮০০ টাকার জায়গায় ১৮১৪ টাকা ১৯ পয়সা কিভাবে ক্যাশআউট হয় এই প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। বিষয়টি বারবার এড়িয়ে গেলেন।  

স্থানীয়রা জানান, সুমনের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ ওঠার পরপরই পানের দোকান থেকে জুয়েলের অর্থ সম্পদ নিয়ে নানা জল্পনা কল্পনা চলছে সর্বত্র! তাদের ধারণা বছরের পর বছর এই ভাবে প্রতারণা করে সে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে।

স্থানীয় জনি নামের এক নারী জানালেন, তাদের আগে ছিল পানের দোকান। এখন কোটি টাকার মালিক হয়ে গেছে।

ব্যবসায়ী শামিম জানালেন, আমরা বহুদিন থেকে তার বিরুদ্ধে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ শুনছিলাম। কিন্তু সঠিক কোনো প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছিল না। এবার প্রমাণ পাওয়া গেছে। যেটা সে সুকৌশলে প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎ করেছে।

আরেক ব্যবসায়ী ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী হতদরিদ্রদের জন্য বিভিন্ন ভাতার ব্যবস্থা করে নগদ এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে দিচ্ছেন। আর সহজ সরল ওই সব হতদরিদ্রদের পিন কোড নিজের কাছে রেখে বছরের পর বছর কৌশলে টাকা আত্মসাৎ করছে। মেসেজ ডিলিট করে দেওয়া ও পিন নং না দেওয়া তাদের বদঅভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

কোলা ইউপি চেয়ারম্যান শাহীনুর ইসলাম স্বপন মুঠোফোনে বলেন, তাদের বিরুদ্ধে এর আগেও মৌখিক অনেক অভিযোগ ছিল, কিন্তু প্রমাণ ছিলনা। এবার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। আর সুমনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা হওয়া উচিত বলে তিনিও মন্তব্য করেন।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রাজীব আহম্মেদ বলেন, ভাতাভোগী ফুল মোহাম্মদের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে গিয়ে আমরা প্রাথমিকভাবে তার সত্যতা পেয়েছি। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আমরা পেয়েছি। তিনি বলেন, এরকম হতদরিদ্রদের টাকা যারা মেরে দেয়, তাদের বিচার হওয়া উচিত। আমরা বিষয়টি নগদ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি, এখন তারা পদক্ষেপ নিবেন।

আরও খবর



নন্দীগ্রামে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের বরণ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

মনিরুজ্জামান মনির নন্দীগ্রাম (বগুড়া):বগুড়ার নন্দীগ্রামে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের উৎসবমুখর পরিবেশে বরণ অনুষ্ঠিত  হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গাজীউল হকের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম রেজাউল করিম তানসেন, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন রানা, নন্দীগ্রাম পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র মহন্ত ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রাবণী আকতার বানু, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তোফাজ্জল হোসেন মন্ডল, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা কল্পনা রাণী রায়, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রোহান সরকার, থানার অফিসার ইনচার্জ আজমগীর হোসাইন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আজিজার রহমান ও ভাটরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারী প্রমুখ।

পরে উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন রানার সভাপতিত্বে নবগঠিত ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের প্রথম মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।


আরও খবর