Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

রাম রহিম প্যারোলে ছাড়া পেয়েই তলোয়ার হাতে!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৬৬জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক; প্যারোলে মুক্তি পেয়ে ফের বিতর্কের মুখে ভারতের ডেরা সাচ্চা সওদা নামের ধর্মীয় গোষ্ঠীর প্রধান গুরমিত রাম রহিম সিংহ। জেল থেকে বেরিয়েই ‘স্বাধীনতা উদ্‌যাপন’ করতে তলোয়ার দিয়ে কেক কাটতে দেখা গেছে দেশটির স্বঘোষিত এই ধর্ম গুরুকে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ধর্ষণ ও খুনের অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত রাম রহিম ৪০ দিনের জন্য প্যারোলে মুক্তি পাওয়ার পর গত শনিবার বাগপতের বারনাওয়া আশ্রমে পৌঁছান। সেখানেই তাকে কেক কাটতে দেখা গেছে। সেই দৃশ্যের ছবি প্রকাশ্যের আসতে ভারতজুড়ে শোরগোল পড়েছে।

এর আগেও গুরমিতকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া নিয়ে দিল্লির মহিলা কমিশনসহ একাধিক সংগঠন হরিয়ানা সরকারের নিন্দা করেছে। এর মধ্যেই তার তলোয়ার দিয়ে কেক কাটার ছবি আরও বিতর্ক বাড়িয়ে দিয়েছে। অস্ত্র আইনের অধীনে তরবারি দিয়ে কেক কাটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। তাই নিয়েও সরব হয়েছেন অনেকে।

সম্প্রতি রাম রহিমের অনেক অনুগামী তার এই ‘স্বাধীনতা উদ্‌যাপন’ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হরিয়ানার অনেক বিজেপি নেতারাও। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যসভার সাংসদ কৃষাণলাল পানওয়ার এবং সাবেক মন্ত্রী কৃষাণকুমার বেদীও। তানিয়েও বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

গত বছর ১৪ অক্টোবর গুরমিতকে প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়। হরিয়ানার রোহতক জেলার সুনারিয়া জেলে ফেরত পাঠানো হয় ২৫ নভেম্বর। ডেরার ম্যানেজার রঞ্জিত সিংহকে খুন ও সিরসার আশ্রমে দুই শিষ্যকে ধর্ষণের অভিযোগে ডেরা সাচা সৌদা প্রধানকে দোষী সাব্যস্ত করে ২০ বছর কারাবাসের রায় দিয়েছিল দেশটির আদালত।


আরও খবর

সোনার খনি ধসে ভেনেজুয়েলায় নিহত ২৩

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ভারতের ফুটবল লিগে ১০ নম্বর জার্সিতে সানজিদার অভিষেক

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৭জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:শেখ আসলাম বাংলাদেশের তারকা ফুটবলার, পুরুষ দলের হয়ে অনেক আগেই খেলেছেন প্রয়াত মোনেম মুন্না, রুমি, গাউসরা ইস্ট বেঙ্গল । প্রায় ৩২ বছর পর বাংলাদেশের কোনো ফুটবলার ইস্ট বেঙ্গলের হয়ে খেলতে যাচ্ছেন। সানজিদার সঙ্গে তিন মাসের জন্য চুক্তি করেছে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

১৯৭১ সালের পর বাংলাদেশের অষ্টম ও প্রথম নারী হিসেবে ইস্ট বেঙ্গলে খেলছেন সানজিদা।

সাবিনা খাতুন ও কৃষ্ণা রানী সরকারের পর বাংলাদেশের তৃতীয় নারী ফুটবলার হিসেবে বিদেশি লিগে অভিষেক ঘটল ২২ বছর বয়সী সানজিদার।

ভারতে যাওয়ার আগে এই ফুটবলার বলেছিলেন, ‘প্রথমবার বলে কিছুটা নার্ভাস লাগছে। তবে, আমার চেষ্টা থাকবে ভালো খেলার।’

অবশেষে মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) ইস্ট বেঙ্গলের হয়ে অভিষেক হয়ে গেল তার। দশ নম্বর জার্সি পরে মাঠে নামেন তিনি। অবশ্য ভারতীয় নারী লিগে অভিষেক ম্যাচে জয় পায়নি তার দল। যদিও মনে রাখার মতো কিছু হয়নি, ড্রয়ে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। একাদশে শুরু থেকে খেললেও গোল পাননি তিনি।

স্পোর্টস ওডিশার সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছে তার দল। প্রথমার্ধে দুর্দান্ত খেলেছেন তিনি। যদিও দ্বিতীয়ার্ধে তার সাপ্লাই লাইন কেটে দেয় ওড়িশা। আর পুরো ম্যাচেই এলেমেলো ফুটবল খেলেছে ইস্ট বেঙ্গল। সানজিদার দেয়া কিছু পাস কাজে লাগাতে পারেনি তার সতীর্থরা। আবার তাকে ক্লিয়ার পাসও দেওয়া যায়নি। তিনি নিজেও অনেক সময় পাসিংগুলো শতভাগ নিখুঁত করত পারেননি। কিংবা বল নিয়ে প্রতিপক্ষের বক্সের দিকে এগিয়ে গেলেও শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হতে হয়েছে।

পঞ্চম মিনিটে ভালো সুযোগ তৈরি করেছিলেন সানজিদা। বক্সে ঢুকে একজনকে কাটিয়ে শট নিয়েছিলেন। সেটি অবশ্য পোস্ট ঘেঁষে চলে যায় বাইরে।

২৮ মিনিটে আবারও বক্সে ঢুকে সুযোগ তৈরির চেষ্টা করলেও ফিনিশিং ব্যর্থতায় কাজের কাজ কিছু হয়নি। বিরতির পরও ছিল একই চিত্র। দুই দল শত চেষ্টা করেও প্রতিপক্ষের জাল কাঁপাতে পারেনি।

৭ দলের এই লিগে ৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ওড়িশা। ইস্ট বেঙ্গল ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৬ নম্বরে আর সাবিনার দল ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিনে অবস্থান করছে। পরের ম্যাচে আগামী সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) আবার মাঠে নামবে ইস্ট বেঙ্গল। সেই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ কিক স্টার্ট।

উল্লেখ্য, একই লিগে বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন খেলছেন কর্নাটকের দল কিকস্টার্টের হয়ে। ভারতের লিগে আগেও খেলেছেন সাবিনা। তবে সানজিদা এই প্রথম গেছেন দেশের বাইরে খেলতে।


আরও খবর



ধর্ষণের পরে প্রতিবন্ধীর সন্তান জন্ম, ১৮ বছর পর অপরাধীর যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image
রাকিব সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে এক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. সোনাউল্যাহ (৫৫) নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসাথে তাকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। ধর্ষণের শিকার হয়ে সেই ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী নারীর গর্ভে জন্ম নেওয়া ছেলের বয়স এখন ১৭ বছর।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে সিরাজগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিচারক বেগম সালমা খাতুন আসামির উপস্থিতিতে এই রায় দেন।   

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিরাজগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বেঞ্চ সহকারী (পেশকার) মো. মুক্তার হোসেন বলেন, আসামি এই মামলায় জামিনে ছিলেন। আজ রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত হন। আসামির উপস্থিতিতে আদালত এই রায় দিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার এজাহার ও বিচার কার্যক্রমের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ২০০৫ সালে বাড়িতে একা পেয়ে প্রতিবেশী ২০ বছরের মানসিক প্রতিবন্ধী এক নারী কে ধর্ষণ করেন সোনাউল্যাহ। কিন্তু ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী হওয়ায় বিষয়টি সামনে আসেনা। এরপর অনেকদিন কেটে গেলে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়লে বিষয়টি সবার নজরে আসে। তখন নারী ইতোমধ্যেই ২৮ সপ্তাহের গর্ভবতী। এরপর ভুক্তভোগীর বাবা আদালতে মামলার আবেদন দিলে আদালত কাজিপুর থানা পুলিশকে মামলাটি (এফআইআর) এজাহার হিসেবে নিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন। এরপর পুলিশ মামলাটি নিয়ে তদন্ত করে আসামিকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। 

তিনি বলেন, এর মধ্যেই সেই প্রতিবন্ধী নারী একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন (যার বর্তমান বয়স ১৭ বছর)। এভাবেই মামলাটি চলতে থাকে। মাঝখানে বাদি-বিবাদি হয়তো আপোষ মীমাংসাও করে নেন। আদালতের বর্তমান বিচারক এই আদালতে দায়িত্ব পাওয়ার পরে তিনি অভিযুক্ত ও ধর্ষণের ফলে জন্ম নেওয়া ছেলের ডিএনএ পরীক্ষা করার নির্দেশ দেন। এর মাঝেই সকল সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। এর মাঝে বাদি আপোষ হয়ে গেছেন বলেও জানান।

মুক্তার হোসেন বলেন, এর মধ্যে তাদের ডিএনএ পরীক্ষার রিপোর্ট আসলে পর্যালোচনা করে দেখা যায়, তাদের ডিএনএ ম্যাচ করে। এরপর ডাক্তারের সাক্ষ্য নেওয়া হলে তিনিও বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তখন সকল সাক্ষ্য ও সাক্ষীর বক্তব্য পর্যালোচনা করে অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় আদালত আজ এই রায় ঘোষণা করেন।

তিনি যোগ করেন, তারা আপোষ মীমাংসা হলেও যেহেতু অপরাধ সংঘটিত হয়েছে এবং সেটা প্রমাণ হয়েছে তাই এই রায় দেওয়া হলো। মামলা হওয়ার প্রায় দেড় যুগ পরে এমন রায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পরে হলেও ভুক্তভোগী ন্যায় বিচার পেলেন। এছাড়াও ভুক্তভোগী নারীর গর্ভে জন্ম নেওয়া সন্তানটি তার মায়ের হেফাজতেই আছে বলেও জানান তিনি। 

আরও খবর



পুনম পাণ্ডে মারা গেছেন!

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:ভারতীয় অভিনেত্রী পুনম পাণ্ডে মারা গেছেন। তার ইনস্টাগ্রামে খবরটি নিশ্চিত করা হয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে, জরায়ু ক্যানসারে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর।

ইনস্টাগ্রামে লেখা হয়েছে, ‘আজ সকালটা আমাদের জন্য কঠিন। আপনাদের গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আমরা আমাদের প্রিয় পুনমকে সার্ভিকাল ক্যানসারে হারিয়েছি। দুঃখের এই সময়ে, আমরা আপনাদের কাছে সবরকম গোপনীয়তার জন্য অনুরোধ করব। আমরা স্নেহের সঙ্গে ওকে স্মরণ করব।’

কখন-কোথায় মারা গেছেন, সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি ওই লেখায়। তবে হঠাৎ এমন খবরে বিস্মিত নেটিজেনরা। এর সত্যতা নিয়েও সন্দিহান তারা। ধারণা করা হচ্ছে, অভনেত্রী ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে।

বর্ণময় জীবন পুনমের। বরাবরই গোপন উন্মাদনা তাকে নিয়ে। পোশাক থেকে অঙ্গভঙ্গি বিভিন্ন কারণে বার বার তিনি উঠে এসেছেন শিরোনামে। সাহসী পোশাকে লাইভে আসা, কিংবা মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে স্বামীর নামে নির্যাতনের অভিযোগ আনায়, সবসময় চর্চায় ছিলেন পুনম। এবার অভিনেত্রীর মৃত্যু খবরেও তোলপাড় নেটদুনিয়া।

কয়েক সপ্তাহ আগে, পুনম পাণ্ডে হঠাৎ করে মালদ্বীপের একটি শুটিং বাতিল করে শিরোনামে এসেছিলেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের স্ক্রিনশট শেয়ার করেছিলেন, যেখানে তিনি দেশটির প্রতি নিজের ভালোবাসা জাহির করেছিলেন। সঙ্গে জানান, সেখানে আর শুটিং করতে যেতে চান না তিনি। বরং যেতে চান লাক্ষাদ্বীপে, দেশের প্রতি নিজের ভালোবাসার কারণে।

২০১৩ সালে ‘নাশা’ দিয়ে বলিউডে পা রেখেছিলেন পুনম পাণ্ডে। তবে সাহসী, খোলামেলা অভিনয়ের কারণে কিছুদিনের মধ্যেই তার গায়ে সেঁটে যায় ‘অ্যাডাল্ট স্টার’র তকমা।


আরও খবর



আগামী ১০০ দিনের কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করলেন পরিবেশমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী বলেছেন, মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অগ্রাধিকারমূলক কর্মকাণ্ড অন্তর্ভুক্ত পূর্বক এক শ’ দিনের কর্মপরিকল্পনা করে বাস্তবায়ন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী এ কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, কর্মপরিকল্পনায় স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকারের নির্বাচনি ইশতেহার-২০২৪ এ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা ও পরিবেশ সুরক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, বায়ুদূষণ, প্লাস্টিক দূষণ, পাহাড় কাটা ও জলাধার ভরাট রোধসহ পরিবেশ সুশাসনের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে। এ কর্মপরিকল্পনা জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতি দ্রুত সাড়া দিতে মন্ত্রণালয়ের সক্ষমতা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, সদিচ্ছা এবং অঙ্গীকারের প্রতিফলন হবে।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণ এবং কৃষিজমি রক্ষার্থে সরকারি নির্মাণে ১০০ শতাংশ ব্লক ব্যবহারে সংশোধিত রোডম্যাপ অনুমোদন দেওয়া হবে এবং বায়ুদূষণের প্রতিটি উৎস থেকে সৃষ্ট দূষণ মোকাবিলায় ন্যূনতম একটি করে কার্যক্রম নেওয়া হবে।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, প্রস্তুতকারক ও আমদানিকারকদের পণ্য থেকে সৃষ্ট বর্জ্য সুষ্ঠুভাবে ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে বর্ধিত প্রযোজক জবাবদিহিতার (ইপিআর) খসড়া চূড়ান্ত করা হবে। এ ছাড়া শিল্প কারখানার ইটিপি কার্যকরভাবে চালু রাখতে স্মার্ট প্রযুক্তির মাধ্যমে অনলাইন মনিটরিংয়ের উদ্যোগ নেওয়া হবে।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২০২৪ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৭৮জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার,স্টাফ রিপোর্টার:বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২০২৪ আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকাস্থ বানৌজা শেখ মুজিব ঘাঁটিতে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যারাথনের সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের(বিওএ) সভাপতি ও সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

এর আগে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ নাজমুল হাসান আজ ভোরে ঢাকাস্থ বানৌজা শেখ মুজিব ঘাঁটি, শেখ হাসিনা সরণিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন।এসময় ম্যারাথন আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, সেনাবাহিনীর প্রাক্তন চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাগণ, এ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের কর্মকর্তাগণ,বিওএ কর্মকর্তাগণ  বিভিন্ন স্পন্সরবৃন্দ, বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর জানুয়ারি মাসে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস স্মরণে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথনের আয়োজন করা হয়ে থাকে।ম্যারাথনটি ভোর  পাঁটায়  বানৌজা শেখ মুজিব, শেখ হাসিনা সরণি হতে শুরু হয়ে ৩০০ ফিট রাস্তা দিয়ে কাঞ্চন ব্রীজ হয়ে একই রাস্তায় ফেরত এসে শেখ হাসিনা সরণিতে শেষ হয়। ফুলম্যারাথনে এলিট দৌঁড়বিদদের মধ্যে পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন কেনিয়ার যোসে ফকিয়েংগো মুনিয়োকি এবং মহিলা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন ইথিওপিয়ার লেনসাদেবে লেজালেটা। ফুলম্যারাথনে সাফ দৌঁড় বিদদের মধ্যে পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন ভারতের আনিশ থাপামাগার এবং মহিলা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন নেপালের সন্তোশি শ্রেষ্ঠা। ফুলম্যারাথনে বাংলাদেশি দৌঁড়বিদদের মধ্যে পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন মোঃ আল আমিন এবং মহিলা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন পাপিয়া খাতুন। হাফম্যারাথনে বাংলাদেশি দৌঁড়বিদদের মধ্যে পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন মোঃ সোহেল রানা এবং মহিলা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হন পৃথি আকতার।
সমাপনী অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনী প্রধান তার বক্তব্যের শুরুতেই বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি এবং সর্বকালের সর্ব শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এছাড়াও তিনি   প্রধানমন্ত্রীকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২০২৪- এ সার্বিক সহযোগিতা এবং প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে দিক নির্দেশনা প্রদানের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।এ ম্যারাথন বাংলাদেশের সর্বস্তরের জনসাধারণের মাঝে সামাজিক এবং স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সবশেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২০২৪ এ অংশগ্রহণকারী দেশি-বিদেশি অংশ গ্রহণকারী সকল অ্যাথলেট এবং এই আয়োজনকে সাফল্য মন্ডিত করার পেছনে সংশ্লিষ্ঠ সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

আরও খবর

আইপিএল শুরুর তারিখ প্রকাশ হলো

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪