Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ঢাকার যেসব মার্কেট ও দোকানপাট বন্ধ বুধবার

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৯৩জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :রাজধানী ঢাকা। এই শহরে সপ্তাহের একেক দিন একেক এলাকার মার্কেট, দোকানপাট বন্ধ থাকে। আপনি হয়তো প্রস্তুতি নিচ্ছেন আপনার পছন্দের কোন মার্কেটে যাবেন আজ বুধবার। কিন্তু সেই মার্কেট খোলা আছে কিনা তা হয়তো জানেন না। তাই আগে জেনে নিন ঢাকার কোন মার্কেট বন্ধ এবং খোলা রয়েছে। না হলে কষ্ট করে গিয়ে ফিরে আসতে হতে পারে।

আসুন জেনে নেই, বুধবার রাজধানীর কোন এলাকার দোকানপাট ও মার্কেট বন্ধ থাকবে।

যেসব এলাকার দোকানপাট বন্ধ

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, মধ্য এবং উত্তর বাড্ডা, জগন্নাথপুর, বারিধারা, সাঁতারকুল, শাহজাদপুর, নিকুঞ্জ-১, ২, কুড়িল, খিলক্ষেত, উত্তরখান, দক্ষিণখান, জোয়ার সাহারা, আশকোনা, বিমানবন্দর সড়ক ও উত্তরা থেকে টঙ্গী সেতু।

যেসব মার্কেট বন্ধ থাকবে

যমুনা ফিউচার পার্ক, নুরুনবী সুপার মার্কেট, পাবলিক ওয়ার্কস সেন্টার, ইউনিটি প্লাজা, ইউনাইটেড প্লাজা, কুশল সেন্টার, এবি সুপার মার্কেট, আমির কমপ্লেক্স, মাসকট প্লাজা।


আরও খবর

"নোবেলের ম্যাজিক শুধু প্রতারণা"

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24

ভালোবাসার দিন আজ

বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফন্টু-মিলনসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে সোহাগ হত্যা মামলার চার্জগঠন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৪৪জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:যশোরের শরিফুল ইসলাম সোহাগ (২৬) হত্যা মামলায় যুবলীগ নেতা তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু, পৌর কাউন্সিলার জাহিদ হাসান মিলনসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেছে আদালত। গত মঙ্গলবার যশোরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সুরাইয়া সাহাব আসামিদের আইনজীবীদের ডিসচার্জের আবেদন না মঞ্জুর করে চার্জগঠন করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আসামি পক্ষের আইনজীবী আর এম মঈনুল হক খান ময়না, গাজী আব্দুল কাদির ও মিলন আহম্মেদ। এসময় সকল আসামিরা উপস্থিত ছিলেন।

আইনজীবী আর এম মঈনুল হক খান বলেন, এ মামলার সাত আসামির আইনজীবী। তার মধ্যে রয়েছেন কাউন্সিলার জাহিদ হাসান মিলনও। মামলার চার্জগঠনের পর সকল আসামিকেই জামিন প্রদান করেছেন আদালত। তবে, মিলন আরেকটি মামলায় আটক থাকায় তাকে কারাগার থেকে এ মামলার আসামি হিসেবে আদালতে আনা হয়। পরবর্তিতে এ মামলায় তিনি জামিন পান। আগের মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৮ আগস্ট রাত সোয়া ১২টার দিকে যশোর শহরের কাজীপাড়ায় নিজ বাড়ির সামনে খুন হন যুবলীগ কর্মী সোহাগ। এ ঘটনায় নিহতের ভাই ফেরদাউস হোসেন সোমরাজ ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েক জনকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের বিদায়ী ওসি মারুফ আহম্মদ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটে অভিযুক্ত অন্য ৯ জন হলেন শহরের কাজীপাড়া গোলামপট্টির আব্দুল খালেকের ছেলে ইয়াসিন মোহাম্মদ কাজল, ধর্মতলার কালিমের ছেলে টিপু, কাজীপাড়া গোলামপট্টির আবুল কাশেম ওরফে পিকুলের ছেলে সাগর, সিরাজের ছেলে তরুণ, আব্দুল বাকেরের ছেলে আলামিন, কাজীপাড়ার মোহাম্মদ আলীর ছেলে ডাবলু, কাজীপাড়া আমতলার এসএম আকাশ, ঘোপ জেল রোডের এসএম মহিউদ্দিন এবং সদর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের লিটন।


আরও খবর



আবারো সাড়া ফেলছে তরুণদের প্রিয় ব্র্যান্ড রিয়েলমি

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে তরুণদের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি’র বহুল কাঙ্ক্ষিত ডিভাইস ‘সি৬৭’। ‘আস্থা’ ও ‘নির্ভরযোগ্যতা’র মাপকাঠিতে রিয়েলমি এর ‘সি’ সিরিজ গ্রাহকদের কাছে সবসময়ই বিশেষ কিছু, এবার রিয়েলমি ‘সি৬৭’ টেকপ্রেমীদের আবারো সেই অভিজ্ঞতার সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে। ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে স্মার্টফোনটি পাওয়া যাচ্ছে সারা দেশজুড়ে। স্মার্টফোনটি ২২ হাজার ৯৯৯ টাকার আকর্ষণীয় মূল্যে কেনা যাবে রিয়েলমি অথরাইজড সব আউটলেট-এ।     

‘সানি ওয়েসিস’ এবং ‘ব্ল্যাক রক’ এই দুইটি মনোমুগ্ধকর রঙে পাওয়া যাচ্ছে ‘সি৬৭’। ডিভাইসটিতে রয়েছে- ৩এক্স ইন-সেন্সর জুমসহ ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, সি সিরিজ এর ফার্স্ট স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর এবং একই ধাঁচের অন্য ব্র্যান্ডের ডিভাইস সমূহের মধ্যে সবচেয়ে পাতলা অবয়ব। রিয়েলমি সি৬৭ ব্যবহারকারীদের আরো দেবে- ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরায় নান্দনিক ফটোগ্রাফির অভিজ্ঞতা, যা অন্য ব্র্যান্ডগুলোর ৫০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার চেয়ে বেশ উন্নত। ক্যামেরার প্রতিটি পিক্সেল ইমেজ প্রসেসিং ভূমিকা রাখে, যা ছবির অসাধারণ মান নিশ্চিত করে। রিয়েলমি এর ‘সি’ সিরিজ এর ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে  ‘সি৬৭’ প্রথম ডিভাইস যেখানে ৩এক্স ইন-সেন্সর জুম এর এডভান্সড ক্যামেরা প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এতে সেন্সর ছবির ডেপথ ও ক্লিয়ারিটি নিশ্চিত করে; এতে স্বাভাবিকভাবেই ‘বোকেহ’ ইফেক্ট লক্ষ্য করা যায়, যেটি ছবির কোয়ালিটি বৃদ্ধি করে।              

এছাড়া- স্মার্টফোনটির স্ন্যাপড্রাগন ৬৮৫ ৬এনএম চিপসেট নিশ্চিত করে- ‘নেক্সট-লেভেল পাওয়ার’, ‘ইফিসিয়েন্সি’ এবং ‘রিলায়াবিলিটি’। এটির অনতুতু বেঞ্চমার্ক স্কোর ছাপিয়ে গেছে ৩ লাখ ৩০ হাজার কে+, যা নির্ভরযোগ্য পারফরম্যান্সের নিশ্চয়তা দেয়। এছাড়া- ডিভাইসটির ৮ জিবি র‌্যাম স্মুথলি ডিভাইসটি অপারেট করতে ভূমিকা রাখে, যেখানে ১২৮ জিবি রম দেয় ভাবনাহীন স্টোরেজ সল্যুশন।

রিয়েলমি সি৬৭ এর ৩৩ ওয়াট সুপারভুক ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি চার্জিং দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তি দেবে, মাত্র ২৬ মিনিটেই ৫০ শতাংশ চার্জ সম্ভব।  ৫০০০এমএএইচ  ব্যাটারি সম্পন্ন  এ ফোনটি  নির্ভরযোগ্য শক্তি প্রদানে সক্ষম।

গুণগতমান ও নির্ভরযোগ্যতা ধরে রাখার প্রতি রিয়েলমি’র প্রতিশ্রুতি পুনরায় নিশ্চিত করতে ব্রান্ডটি নিয়ে এসেছে রিয়েলমি সি৬৭ যা এই সি সিরিজের নতুন গুণমান এবং নির্ভরযোগ্যতা পূরণে সক্ষম। বাংলাদেশের বাজারে  গর্বিত ইতিহাস ধরে রেখে, রিয়েলমি ব্যবহারকারীদের প্রয়োজনকে ভালোভাবে উপলব্ধি করে আরও সমৃদ্ধ স্মার্টফোন ডিভাইস তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছে। ।

রিয়েলমি সি৬৭ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করতে পারেন রিয়েলমি বাংলাদেশের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে https://www.facebook.com/realmeBD/


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৫ বছরে অবিশ্বাস্য উন্নয়নের নজির সৃষ্টি হয়েছে: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ১৫ বছরে অবিশ্বাস্য উন্নয়নের নজির সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত। 

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উন্মুক্ত স্থানসমূহের আধুনিকায়ন, উন্নয়ন ও সবুজায়ন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় উন্নয়নকৃত শহীদ ডা. ফজলে রাব্বি পার্কের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ভিশন, রুচি ও চেষ্টা থাকলে অনেক কিছু করা যায়। অনেক সময় বড় কিছু করতে গেলে অনেকে অনুৎসাহিত করার চেষ্টা করবে, আটকে দেয়ার চেষ্টা করবে। অনেক বড় কিছু করার চিন্তা ও তা চেষ্টা করা হলে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি বদল হয়। দৃষ্টিভঙ্গি বদল হলে অনেক বড় কিছু অর্জন করা যায়। গত ১৫ বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তার বিভিন্ন নজির আমরা দেখেছি। দেশের মানুষ যা কিছু চিন্তা করতে পারেনি সে ধরণের উন্নয়নের ঘটনা বাংলাদেশে ঘটে গেছে। ১৫ বছর আগে যদি বলা হতো, ঢাকা শহরে মেট্রোরেল চলবে, সেটা কেউ বিশ্বাস করতো না। যদি বলা হতো বাংলাদেশের শতভাগ মানুষের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছাবে, সেটা কেউ বিশ্বাস করতো না। পদ্মা সেতু আমরা নিজের টাকায় করবো, বাংলাদেশের মানুষ এটাও বিশ্বাস করেনি।

তিনি আরও বলেন, গত ১৫ বছরে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন ঘটে গেছে। আমরা অনেক সাহসী হয়েছি, আমরা এখন অনেক বড় স্বপ্ন দেখতে পারি এবং তা বাস্তবায়ন করতে পারি। সেই জায়গা থেকেই ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশে রূপান্তরের বিষয় চলে এসেছে। 

শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ডা. ফজলে রাব্বির নামে পার্কের নামকরণ করায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে সম্পৃক্ত নামগুলো আমরা আরও স্মরণ করতে চাই, স্বর্ণাক্ষরে লিখে রাখতে চাই এবং আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে নজির হিসেবে রাখতে চাই। যখনই শহীদ ডা. ফজলে রাব্বির বিষয়ে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম প্রশ্ন করবে, জানবে তখন আরও দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হবে এবং সেভাবেই আগামী দিনের ইতিহাস রচিত হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো.মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মীর খায়রুল আলম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে নিকেতন সোসাইটির সভাপতি ডা. এম. এ. বাসার, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী ব্রি. জেনারেল মুহাম্মদ আমিরুল ইসলাম পিএসসি, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আমেনা বেগম, শহীদ ডা. ফজলে রাব্বির ছেলে ওমর রাব্বি প্রমুখ বক্তব্য প্রদান করেন।

পরে উন্নয়নকৃত শহীদ ডা. ফজলে রাব্বি পার্কের উদ্বোধনী ফলক উন্মোচনে অংশগ্রহণ করেন প্রতিমন্ত্রী। এছাড়াও বৃক্ষরোপণ,পার্ক পরিদর্শন এবং নবনির্মিত পুলিশ বক্স উদ্বোধনে অংশগ্রহণ করেন তিনি।

আরও খবর



স্কুল ব্যাগে গাঁজার চালান সরবরাহের সময় ৪জন গ্রেফতার

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image

রিয়াজুল ইসলাম,দিনাজপুর প্রতিনিধি:মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে কুমিল্লা থেকে দিনাজপুরে এসে সরবরাহের অভিযোগে ১৫কেজি গাঁজাসহ চার মাদককারবারিকে গ্রেফতার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর দিনাজপুর(ডিএনসি)।

দিনাজপুরের পার্বতীপুর মডেল থানা এলাকার জাকেরগঞ্জ জগন্নাথপুর এলাকায় একটি ফিলিংস্টেশনের সামনে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকে থাকা আসামীদের কাছ থেকে দুটি স্কুলব্যাগ তল্লাশী চালিয়ে স্কচটেপ পেঁচানো ১৫কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার সকালে পার্বতীপুর-সৈয়দপুর সড়কে পার্বতীপুর মডেল থানা এলাকার জাকেরগঞ্জ জগন্নাথপুর এলাকায় তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, মোঃ সুজন (৩৬) কুমিল্লার ব্রাক্ষনপাড়া উপজেলার দুলালপুর গ্রামের মৃত নান্নু মিয়ার ছেলে, আব্দুল আলী (৫২) কাহারোল উপজেলার দশমাইল এলাকার ইটুয়া গ্রামের মৃত সামাউন আলী ছেলে, মমিনুল ইসলাম(২৬) দিনাজপুর জেলা সদরের দরবারপুর গ্রামের মজিবুল হকের ছেলে, সোহাগ আলী(৩০) কাহারোলের দশমাইল এলাকার পূর্ব সাদিপুর (মেম্বারপাড়া) গ্রামের সামসুল হকের ছেলে।

ডিএনসি দিনাজপুর জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক মোঃ শহিদুল মান্নাফ কবীর জানান, মোঃ সুজন কুমিল্লা থেকে মাদককারবারি মমিনুলের সহযোগিতায় দুটি স্কুল ব্যাগে করে গাঁজার চালান দিনাজপুরের পার্বতীপুরে সরবরাহ করতে যায়। এসময় মাদকের এসব চালান গ্রহন করতে আসে স্থানীয় মাদককারবারি আব্দুল আলী ও সোহাগ আলী। এসময় পার্বতীপুর উপজেলার জাকেরগঞ্জ জগন্নাথপুরে তারা ইজিবাইকের যাত্রী সেজে এসব মাদকের কেনা

বেচা করছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওৎ পেতে থাকা ডিএনসির একটি দল সন্দেহজনক ইজিবাইক থামিয়ে মাদক সরবরাহের সময় ৪জনকেই গ্রেফতার করে। এসময় স্কুল ব্যাগে থাকা ১৫কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক সংক্রান্ত একাধিক মামলা রয়েছে।তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা হয়েছে, নিশ্চিত করে মাদকের চোরাচালান ও বিস্তার রোধে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার আহ্ধসঢ়;বান জানান তিনি।


আরও খবর



নাসিরনগরের কুখ্যাত মাদক সম্রাজ্ঞী হেনাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৬জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান:ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়নের কাহেতুরা গ্রামের কুখ্যাত মাদক সম্রাজ্ঞী পলাশ খানের স্ত্রী হেনা বেগম(৪৫)কে গ্রেপ্তার করেছে নাসিরনগর থানা পুলিশ।নাসিরনগর থানা পুলিশের  এস আই রুপন নাথ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে  ভোর রাতে অভিযান পরিচালনা করে হেনাকে ইয়াবা সহ তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে।জানা গেছে হেনার বিরোদ্ধে থানা ও আদালতে একাদিক মামলা চলমান রয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগে জানা গেছে,হেনা তার মেয়ে হৃতু বেগম ও ছেলে নয়ন মিলে এলাকায় তৈরী করেছে মাদক আর চোরাই মোবাইল বেচাকেনার অভয়াশ্রম।তাদের যন্ত্রনায় এলাকার সাধারণ মানুষ অতিষ্ট।ধ্বংসের পথে যুব সমাজ।হেনা তার মেয়ে হৃতু ও ছেলে নয়নকে নিয়ে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর টনক  নড়ে থানা পুলিশের।এ পর্যন্ত পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে বেশ কয়েকজন চোর,ডাকাত আর মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণের খবর পাওয়া গেছে।এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর