Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

ডেমরায় বাল্কহেড ড্রেজারে সন্ত্রাসী হামলা পাইপ ভাঙচুর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১০৩২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব সংবাদদাতাঃরাজধানীর ডেমরায় পাওনা টাকা চাওয়ায় বাল্কহেড ড্রেজারে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে কর্মচারীকে হত্যা চেষ্টা ও পাইপ ভাঙচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানা গেছে।এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বাল্কহেড ড্রেজারের মালিক আনিসুর রহমান ডেমরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার  অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হলেন আকবর হোসেন রিপন(৪৬) পিতা-ছাদেক আলী মাতব্বর,সাং-৭৪/১ মাদারটেক (চৌরাস্তা) থানা সবুজবাগ,ঢাকা। রাজ্জাক হোসেন (৪৬) পিতা-মোশারফ,সাং-ভাইগদিয়া মাতব্বর বাড়ি, ওমর ফারুক (৩৮) পিতা-আকবর আলী মেম্বার,সাং- নন্দীপাড়া ব্যাংক কলোনি, মোশাররফ হোসেন (৫৫) পিতা-মৃত রুফ মিয়া সহ অঞ্জাত আরো ১০/১২ জন।

ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর রহমান (পিপিএম) ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী আনিসুর রহমান দৈনিক সকালের সময়কে জানান, মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সাথে আমার বালু ভরাটের টাকা নিয়ে বিরোধ চলছিল, পাওনা টাকা চাইলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে উল্টা-পাল্টা কথা বলতে থাকে,এর জের ধরে গত ২১ মে রবিবার বিকেল সাড়ে তিনটায় ডেমরা থানা এলাকার আমুলিয়াস্থ নুন্না ভিটা খেলার মাঠে বালুভরাটের সময়  আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে, আমি নিষেধ করলে তারা সকলে মিলে আমার বাল্কহেড ড্রেজারের ৪টি রাবারের পাইপ কেটে আনুমানিক তিনলক্ষ বিশ হাজার টাকা ক্ষতি সাধন করে। পরবর্তীতে গত ২৪ মে সকাল সাড়ে পাঁচটায় ডেমরা থানা এলাকার মেন্দিপুরস্থ ম্যাক্সিম গ্রুপের প্রধান ইয়ার্ডের দক্ষিণ পাশে আমার বাল্কহেড ড্রেজারের কাজ করাকালীন সময়ে ১,২,৩,৪ নং বিবাদী ও তাদের সহযোগী ১০/১২জন অঞ্জাত লোক এসে ১৬ টি লোহার পাইপ ভাঙচুর করে দুই লক্ষ টাকা ক্ষতি সাধন করে।এ সময় ১ নং বিবাদী আকবর হোসেন রিপনের হাতে থাকা ধারালো রাম-দা দিয়ে আমার বাল্কহেড ড্রেজারের ষ্টাফ মিজান(৩৮) কে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কোপ দিলে সে সরে যায় এতে রাম-দায়ের আঘাত লেগে তার পিঠে জখম হয়।২ নং বিবাদী রাজ্জাক হোসেন ষ্টাফ মিজান এর প্যান্টের ডান পকেটে  থাকা মেশিনের তেল খরচের ৭৩০০ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।এ সময় তারা মিজান কে এলো পাতারিভাবে মারপিট করে নীলাফুলা জখম করে। তার ডাক-চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামিরা বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

তিনি আরো জানান,অভিযুক্ত আকবর হোসেন রিপন সবুজবাগ থানার এজাহারভুক্ত মামলার আসামি সে গত ২০১৮ সালে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে হাজত বাস করে জামিনে মুক্ত হয়।এ বিষয়ে ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর  রহমান (পিপিএম) বলেন,এ ঘটনায় ডেমরা থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে।



আরও খবর



মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিদেশী মদ উদ্ধার, গ্রেপ্তার দুই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে সাজ্জাদুর রহমান আশিক (২১) ও মো. জুয়েল (২২)কে অবৈধ মাদকদ্রব্য বিদেশী মদ সহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার (৭ফেব্রুয়ারি)দুপুরের দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  মানিকছড়ি থানা পুলিশের এসআই(নিঃ) মো.আশিকুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ  থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান ডিউটি করাকালীন মানিকছড়ি  থানাধীন  যোগ্যাছোলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের গরমছড়ি  খাগড়াছড়ি টু চট্টগ্রামগামী আঞ্চলিক মহাসড়কের পূর্ব পাশে পাকা রাস্তার  উপর  হইতে আসামী সাজ্জাদুর রহমান আশিক(২১) ও মো. জুয়েল (২২) কে তল্লাশী চালিয়ে তাদের    নিকট হইতে ১৬ বোতল  বিদেশী মদ সহ গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামী -সাজ্জাদুর রহমান আশিক(২১) পিতা-মাহবুবুর রহমান, জুয়েল (২২), পিতা-মৃত মো. হাবিব উভয় চট্রগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার সাধনপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের  বানীগ্রাম এলাকার বাসিন্দা। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন । গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে বিধি মোতাবেক যথাসময়ে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হইবে।

আরও খবর



এমবাপে রেকর্ড করে ম্যাচ জিতালেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:কিলিয়ান এমবাপে গতকাল আবারও গোল করেন। ম্যাচে ধারাবাহিক গোল করে রেকর্ডও করলেন তিনি। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ঘরের মাঠে টানা ১০ ম্যাচে গোল করে রেকর্ড করলেন ফরাসি বিশ্বকাপজয়ী তারকা এমবাপে।

এমবাপের গোল-রেকর্ডের দিনে জিতেছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। গতকাল বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম লেগে রিয়াল সোসিয়েদাদকে ২-০ গোলে হারিয়েছে এমবাপের পিএসজি।

সোসিয়েদাদ এই আসরে দারুণ ফর্মে ছিল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ-ডি থেকে অপরাজিত থেকেই শেষ ষোলোতে জায়গা করেন তারা। গ্রুপসেরাও হয়েছিল। গতকাল অ্যাওয়ে ম্যাচে খেলতে নেমে প্রথমার্ধে নিজেদের জালকে অক্ষত রেখেছিলো তারা। দ্বিতীয়ার্ধে তরুণ এমবাপেকে আর থামাতে পারেনি স্প্যানিশ ক্লাবটি।

ম্যাচের ৫৮ মিনিটে মারকুইনেসের কর্নার থেকে বল পেয়ে সুযোগ হাত ছাড়া করেনি এমবাপে। এতে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্সের ক্লাবটি।

৭০ মিনিটে পুরো ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় পিএসজি। গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ব্রাডলি বারকোলা। শট করে সোসিয়েদাদের গোলরক্ষক অ্যালেক্স রেমিরোর পায়ের মাঝখান দিয়ে জালে বল জমা করেন তিনি।


আরও খবর

আইপিএল শুরুর তারিখ প্রকাশ হলো

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গাংনীতে লাউ ক্ষেতের সাথে শত্রুতা চাষির দু’লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৭জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃআঃ কুদ্দুস নামের এক কৃষকের এক বিঘা জমির লাউ ক্ষেত উপড়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে অন্ততঃ দুই লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেছেন ভুক্তভোগি। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহষ্পতিবার দিবাগত রাতে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বাঁশবাড়িয়া কলোনীপাড়ার মাঠে। সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আব্বাস আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী জমির মালিক মৃত আঃ আজিত মন্ডলের ছেলে কৃষক আব্দুল কুদ্দুস জানান, তিনি এক বিঘা জমিতে ২২০ টি লাউ গাছ রয়েছে। নিজের গচ্ছিত টাকা ছাড়াও এনজিও এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে প্রায় এক লাখ টাকা ঋণ নিয়ে লাউ চাষ করছেন। আশা ছিল দুই লক্ষাধিক টাকা পাবেন লাউ বিক্রি করে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর তিনি লাউ ক্ষেতে কাজ শেষে বাড়ি আসেন। শুক্রবার সকালে গিয়ে তিনি গোটা লাউ ক্ষেত উপড়ানো দেখতে পান। উপায়ান্তর না দেখে বিষয়টি তিনি স্থানীয় সাহারবাটি ইউপি সদস্য আব্বাস আলীকে জানান।

স্থানীয়রা জানান, মাস খানেক আগে এক রাতে স্থানীয় কিছু যুবক ছেলেদের সাথে উচ্চ শব্দে সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে ভুক্তভোগী কৃষকের সাথে বাকবিত-ার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার জেরে কিশোরগ্যাংয়ের সদস্যরা এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। সেই সাথে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক ক্ষতিপূরণ আদায় ও অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান জানান, মানুষের সাথে মানুষের শত্রুতা থাকতে পারে সেটা ফসলের ওপরে গিয়ে প্রভাব পড়বে এটা কখনো কাম্য নয়। যারা এ ধরনের ঘৃণ্যতম ঘটনা ঘটিয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে ক্ষতিপূরণ আদায়সহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি। গাংনী থানার ওসি (তদন্ত) মনোজিৎ কুমার নন্দী জানান, বিষয়টি খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। এখনও কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর



গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৪জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃমেহেরপুরের গাংনীর কৃষকেরা বছরে তিনটি মৌসুমে সবজি উৎপাদন করেন। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে সবজির একটি বড় অংশ পাঠানো হয় রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে। কৃষি বিভাগ থেকে বিষমুক্ত সবজি চাষের কথা ও পরামর্শ দেয়া হলেও সেটি মানা হচ্ছে না। উৎপাদন থেকে শুরু করে ভোক্তার খাবার টেবিলে পৌঁছানো পর্যন্ত সহনীয় মাত্রার চেয়ে বেশি সার ও বালাইনাশকসহ ব্যবহার করা হয়। তবে কৃষি অফিস বলছে চাষিদেরকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বালাই নাশক ব্যবহারে সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসার।

কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, গাংনী উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৫০০ হেক্টর বাঁধাকপি, ৫৫৫ হেক্টর ফুলকপি, ১১৫ হেক্টর পালং শাক, ১১০ হেক্টর সীম, ১৬০ হেক্টর বেগুনসহ ২ হাজার ১০০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সবজি রয়েছে। সাধারণত রোগবালাইয়ের ধরন বুঝে শাকসবজিতে বিভিন্ন ধরনের বালাইনাশক ব্যবহার করা হয়ে থাকে। মোড়কের গায়ে জমি ও ফসল অনুযায়ী পরিমাপ লেখা থাকে। সে অনুযায়ি তা ব্যবহার করতে হবে। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে বালাইনাশক প্রয়োগের পর খাওয়ার জন্য অন্ততঃ এক সপ্তাহ থেকে ১৫ দিন পর ক্ষেত থেকে সবজি তুলতে হয়।

কৃষি বিভাগের এই পরামর্শ মানছেন না কৃষকরা। তারা বিকেলে ক্ষেতে বালাইনাশক ছিটিয়ে পরদিন সকালেই সবজি বাজারে নিয়ে আসেন। অপেক্ষমাণকাল না মানায় শাকসবজির সঙ্গে সরাসরি বিষ শরীরে প্রবেশ করছে, যা আমাদের জীবনকে ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলছে। শুধু ভোক্তা বা ক্রেতা নয়, উৎপাদন কাজে নিয়জিত কৃষকরাও আক্রান্ত হচ্ছেন নানা ধরনের রোগে। তবুও দেখা দেখি ছাড়াও বিভিন্ন বিষ কোম্পানী ও কীটনাশক বিক্রেতাদের পরামর্শে কৃষকরা বালাইনাশক ব্যবহার করছেন মাত্রাতিরিক্ত।

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক এমকে রেজা জানান, এমন কতগুলো বালাইনাশক বা রাসায়নিক পদার্থ আছে যা শাক সবজিতে স্প্রে করার পর ভালো করে ধুলেও সবজি শতভাগ পরিষ্কার ও নিরাপদ হয় না। ওই সবজি খেলে কিডনি, লিভার, স্তন, ফুসফুস, পাকস্থলী, প্রস্টেট, অগ্নাশয় ও ব্লাড ক্যানসারের ঝুঁকিও বেড়ে যায়। খাদ্য উৎপাদনের সঙ্গে যাঁরা যুক্ত, তাঁদের রাসায়নিক ব্যবহারের ক্ষতিকর দিক নিয়ে সচেতন করতে হবে। অর্গানিক উপায়ে খাবার উৎপাদনে গুরুত্ব দিতে হবে। ভোক্তাদেরও সচেতন হতে হবে।

গাংনীর সহড়াবাড়িয়া মাঠে শনিবার সন্ধ্যায় কথা হয় বেগুন চাষি আব্দুর রশিদের সাথে। তিনি দেড় বিঘা জমিতে বেগুন চাষ করেছেন। বেগুন ক্ষেতে বালাই নাশক স্প্রে করছিলেন তিনি। পরদিন সকালে বেগুন তুলে বাজারে আনবেন বলে জানান। দুই ধরনের বালাই নাশক ছিটিয়েছেন বেগুন ক্ষেতে। এগুলো ব্যবহারে তেমন ক্ষতি নেই এবং সকলেই বালাইনাশক ব্যবহার করছেন বলেও জানান তিনি।

কৃষক রফিকুল ইসলাম জানান, তিনি ২৫ কাঠা জমিতে শিম চাষ করেছেন। পাঁচ দিন আগে চার ধরনের বালাইনাশক মিশিয়ে ক্ষেতে দিয়েছেনতার দাবী, বালাইনাশক ক্ষেতে দিলে কোন ক্ষতি হয় না।রাতে শিশির পড়ে তা ধুয়ে যায়। একই কথা জানালেন যুগিরগোফা গ্রামের সবজি চাষি আবু বকর ও আলম। দুজনই কফি চাষ করছেন।

গাংনী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আব্দুর রউফ জানান, বীজ থেকে শুরু করে বীজতলা এবং পরবর্তী অন্য সব পরিচর্যায় বালাইনাশক ব্যবহারের যে ক্ষতিকর দিকগুলো আছে সে বিষয়ে সচেতন করতে কর্মকা- পরিচালনা করা হচ্ছে। বালাইনাশকের প্যাকেটে একটি ওয়েটিং পিরিয়ড (ব্যবহারের সময়সীমা) লেখা থাকে। অনেক ক্ষেত্রে কৃষক তা যথাযথভাবে মানেন না। তাই উৎপাদন থেকে ভোক্তাপর্যায়ে সবাই যদি সচেতন না হলে নিরাপদ সবজি পাওয়া যাবে না। তাই কৃষক ভাইদের পরামর্শ অনুসরণ করে ফসল ফলানোর অনুরোধ জানান তিনি।


আরও খবর



সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

দেশে বিচারাধীন মাদক মামলা ৮২ হাজারের বেশি

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন দেশের আদালতগুলোতে বর্তমানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের দায়েন করা মাদক সংক্রান্ত বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৮২ হাজার ৫০৭টি বলে। তবে গত ৫ বছরে এ সংক্রান্ত ১০ হাজার ২৫৯টি মামলা নিষ্পন্ন হয়েছে বলেও তিনি জানান।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে স্বতন্ত্র সদস্য মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন বিচারিক আদালতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মাদক সংক্রান্ত বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৮২ হাজার ৫০৭টি।

তিনি জানান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ (সংশোধিত-২০২০) অনুসারে মাদকসহ আটক হওয়ার তারিখ থেকে ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে মামলার তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করার বিধান রয়েছে।

যার আলোকে অধিদপ্তরের দায়ের করা মামলাগুলোর তদন্ত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করে বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত জিরো টলারেন্স বাস্তবায়নে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ সকল আইন-প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বিগত ৫ বছরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের দায়ের করা মামলার মধ্যে ১০ হাজার ২৫৯টি মামলা বিচারিক আদালতে নিষ্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরও জানান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ (সংশোধিত-২০২০) এর আলোকে মহানগর দায়রা জজ, দায়রা জজ, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের এখতিয়ারাধীন এলাকার জন্য এক বা একাধিক এখতিয়ার সম্পন্ন আদালত নির্দিষ্ট করার বিধান রাখা হয়। এ বিধানের আলোকেই বর্তমানে মাদক মামলার বিচারিক কার্যক্রম চলমান রয়েছে।


আরও খবর