Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৩৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবসে উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী।

পুষ্পস্তবক অর্পণের পর প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। পরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা দলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আরেকবার পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ বছর ৭ জুন তথা ছয় দফা দিবসের ৫৭তম বার্ষিকী। বঙ্গবন্ধুর সম্মোহনী নেতৃত্বের অধীনে আওয়ামী লীগ পাকিস্তান কেন্দ্রীয় সরকারের শোষণ-বঞ্চনার বিরুদ্ধে এবং পরাধীনতার অবসান ঘটিয়ে স্বায়ত্বশাসনের দাবিতে ১৯৬৬ সালের ৭ জুন দিনব্যাপী হরতাল আহ্বান করা হয়। আওয়ামী লীগের ডাকে এ হরতালে টঙ্গী, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে পুলিশ ও ইপিআরের গুলিতে মনু মিয়া, শফিক ও শামসুল হকসহ ১১ জন শহীদ হন।

ছয় দফার মূল বক্তব্য ছিল: প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র বিষয় ছাড়া সব ক্ষমতা প্রাদেশিক সরকারের হাতে থাকবে; পূর্ববাংলা ও পশ্চিম পাকিস্তানে দুটি পৃথক ও সহজ বিনিময়যোগ্য মুদ্রা থাকবে; সরকারের কর, শুল্ক ধার্য ও আদায় করার দায়িত্ব প্রাদেশিক সরকারের হাতে থাকাসহ দুই অঞ্চলের অর্জিত বৈদেশিক মুদ্রার আলাদা হিসাব থাকবে এবং পূর্ববাংলার প্রতিরক্ষা ঝুঁকি কমানোর জন্য এখানে আধা-সামরিক বাহিনী গঠন ও নৌবাহিনীর সদর দপ্তর স্থাপন করতে হবে।


আরও খবর



নবীনগর থানা প্রেসক্লাবের ত্রিবার্ষিক কমিটি গঠন, সভাপতি জসিম উদ্দিন, সম্পাদক মমিনুল হক রুবেল

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪২জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি:নবীনগর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের পরিশ্রমী ও মাঠের সংবাদকর্মীদের আস্থা ভরসার নাম নবীনগর থানা প্রেসক্লাব।

আমরা কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী এমন আত্মপ্রত্যয়ী একঝাঁক তরুণ সম্মেলিত ভাবে  প্রতিষ্ঠা করেন নবীনগর থানা প্রেসক্লাব। তারপর থেকেই প্রত্যন্ত অঞ্চলের সব ধরণের সংবাদ সংগ্রহে অবিরত পথচলা।

আজ শুক্রবার ১২/০৭ সকালে নবীনগর থানা প্রেসক্লাবের সর্বাধিক সদস্যের উপস্থিতিতে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা পরিষদ ডাকবাংলোতে সকলের মতামতের ভিত্তিতে পুর্বের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

পরে গঠনতন্ত্র মোতাবেক সবার পরামর্শে আগামী তিন বছরের জন্য কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক পরিস্থিতি বিবেচনায় কমিটিতে কয়েকটি পদে রদবদল করা হয়েছে। সকলের মতামতের ভিত্তিতে উক্ত কমিটিতে থানা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দৈনিক আমার বার্তা'র উপজেলা প্রতিনিধি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিদিন ডটকম এর সম্পাদক এম কে জসিম উদ্দিনকে পূনরায় সভাপতি ও দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি ও নুরনগর নিউজ এর সম্পাদক মমিনুল হক রুবেলকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. হেদায়েতুল্লাহ (দৈনিক আমার কাগজ), সহ-সভাপতি মোঃ মাহফুজ (কালের খবর),সহ-সভাপতি বিপ্লব নিয়োগী তন্ময় (দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ), ( যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাবেদ আহমেদ জীবন (দৈনিক একুশের সংবাদ), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আক্তারুজ্জামান (বার্তা বাজার), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুম মির্জা (দৈনিক ভোক্তা সমাচার),  সাংগঠনিক সম্পাদক কাউছার আলম (দৈনিক জবাবদিহি), সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম অলিউল্লাহ (দৈনিক স্বাধীন বাংলা), অর্থ ও দপ্তর সম্পাদক মোঃ সোহেল মিয়া (দৈনিক গণমানুষের আওয়াজ, প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম জামাল (দৈনিক আজকের বসুন্ধরা, সহ-প্রচার সম্পাদক নিজাম উদ্দিন (দৈনিক বাংলার নবকন্ঠ), ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মনির হোসেন শাহীন (দৈনিক গণকন্ঠ) আপ্যায়ন ও বিনোদন সম্পাদক আবু হাসান আপন (দৈনিক নাগরিক ভাবনা), তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক মোঃ হোসাইন ইসলাম (দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ),কার্যকরী সদস্য নুর মোহাম্মদ জয় (এশিয়ান টিভি), কার্যকরী সদস্য সাদ্দাম হোসেন (নূরনগর নিউজ)।

 -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



আ.লীগের অবদান রয়েছে দেশের প্রতিটা অর্জনে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আওয়ামী লীগকে বারবার নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। বারবার আঘাতের পরও ফিনিক্স পাখির মতো আবারও জেগে উঠেছে দলটি, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।রোববার (২৩ জুন) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগের অবদান রয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই স্বাধীনতা অর্জিত হয়।সরকারপ্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করেছে। এদেশের মানুষকে ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা অবশ্যই দেবে। স্মার্ট সোনার বাংলা ইনশাআল্লাহ আমরা গড়ে তুলবো।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা হয়েছেই তো বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য। যা আমরা প্রমাণ করেছি। ৭৫-এর আগস্টের পর বারবার ক্ষমতা বদল হয়েছে। কিন্তু ক্ষমতা বদল হয়েছে অস্ত্রের মাধ্যমে এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ছিল না, মানুষের মৌলিক অধিকার ছিল না। মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তনই তারা করতে পারেনি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আওয়ামী লীগ ছাড়া যারা ক্ষমতায় এসেছে তারা দুর্নীতি করেছে। তারা জনগণের শক্তি ভুলে গিয়েছিল। আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করে।


আরও খবর



জলঢাকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫৫জন দেখেছেন

Image
লেলিন,নীলফামারী,জলঢাকা,প্রতিনিধিঃনীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা ও পৌর শাখা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন  অনুষ্ঠিত হয়েছে।(১৩জুলাই) শনিবার  স্থানীয় ডাক বাংলো মাঠে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে  জাতীয়, দলীয় পতাকা উত্তোলন,  বেলুন ও  পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের নীলফামারী জেলা শাখার সভাপতি  মহসিন মন্ডল মিঠু। 

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক সালাহউদ্দিন কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নীলফামারী জেলা শাখার  সভাপতি দেওয়ান কামাল আহম্মেদ, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের নীলফামারী জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক  রাশেল আমিন স্বপন।

অন্যন্যদের মধ্যে   বক্তব্য রাখেন, নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক এ্যাড,মমতাজুল  হক, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, নিলফামারী (০৩)আসনের এমপি সাদ্দাম হোসেন পাভেল,  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনছার আলী মিন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ শামীম,  উপজেলা আওয়ামিলীগ সহ-সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহীদ হোসেন রুবেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নাফিউল করিম নাফা, কেন্দ্রীয় নেতা আরিফুর রহমান টিটু,  সদস্য রাকিবুল হাসান, মজনুর রহমান মজনু, ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান,উপজেলা  আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সারোয়ার হোসেন সাদের,  পৌর মেয়র নাসিব সাদিক হোসেন নোভা,  সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব আলহাজ্ব মশিউর রহমান বাবু, হাসানুজ্জামান সিদ্দিক হাসান প্রমুখ।

সম্মেলনে বক্তরা বলেন, উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই,দেশ অনেক এগিয়ে গেছে, ভবিষ্যতে আরো এগিয়ে যাবে।জলঢাকায় স্বেচ্ছাসেবকলীগ সুশৃঙ্খল ও গতিশীল রাজনৈতিক সংগঠন। তাই সংগঠনকে আরো গতিশীল করতে হলে, সকল দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে  দলের স্বার্থে নেতাকর্মীদের   ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান বক্তারা  । পরে দ্বিতীয় অধিবেশনে উপজেলা ও পৌরসভার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে  বিভিন্ন পদপ্রত্যাশীদের সঙ্গে দফায় দফায় মিটিং শেষে কেন্দ্র থেকে পরে কমিটি ঘোষনা করা হবে বলে জানান সংশিষ্ট নেতারা।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ছাত্রলীগ ও কোটা আন্দোলনকারীদের পালাপাল্টি কর্মসূচি আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ আজ পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন করবে।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে কর্মসূচি ডেকেছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন। অপরদিকে, আন্দোলনকারীদের হামলায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী আহতের ঘটনায় কর্মসূচি পালন করবে ছাত্রলীগ।

বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক নাহিদুল ইসলাম জানান, শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকেল ৩টায় দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করবেন তারা। তিনি বলেন, এরপরও যদি কোটা বাতিল করা না হয় তবে সারাদেশে অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এদিকে, নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুর দেড়টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

সোমবার রাতে এক ব্রিফিংয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে সোমবার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় সংগঠনটির ৫০০ জনের বেশি আহত হয়েছেন। বিভিন্ন হলের ১০০টির বেশি রুম ভাঙচুর করা হয়েছে। যারা কোটা আন্দোলনকে ইস্যু করে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে, তাদের প্রতিহত না করা পর্যন্ত ছাত্রলীগ মাঠ ছাড়বে না।

এর আগে, সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মুখোমুখি অবস্থান নেয় কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ। পরে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে দুই পক্ষের শতাধিক আহত হন বলে জানা যায়। এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার খবর পাওয়া যায়।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



পত্নীতলায় সাঁওতাল বিদ্রোহ দিবস পালিত

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১২জন দেখেছেন

Image
দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পত্নীতলায় জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আয়োজনে সাঁওতাল বিদ্রোহের মহানায়ক সিধু ও কানুর স্মরণে ১৬৯তম ঐতিহাসিক সাঁওতাল বিদ্রোহ দিবস পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার দুপুরে নজিপুর পুরাতন বাজার পত্নীতলা প্রেসক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভানেত্রী বিচিত্রা তির্কীর সভাপতিত্বে ও জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নরেন চন্দ্র পাহান এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন পত্নীতলা প্রেসক্লাব ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি সভাপতি আলহাজ্ব বুলবুল চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক দিলীপ চৌহান, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধক্ষ্য মার্টিন মুরমু।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ নওগাঁ সদর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নিতাই চন্দ্র পাহান, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ পত্নীতলা  উপজেলা শাখা সাধারণ সম্পাদক পরেশ টুডু, মান্দা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নিপেন মুন্ডা, মহাদেবপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল পাহান, জেলা আদিবাসী ছাত্র পরিষদ সভাপতি মিঠুন পাহান, দপ্তর সম্পাদক শাকিল পাহান, জাতীয় আদিবাসী ছাত্র পরিষদ পত্নীতলা উপজেলা শাখা সভাপতি পলাশ পাহান, সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত পাহান,  উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মমতা রানী মহন্ত, দিলীপ কুমার দাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন এ বছর সাঁওতাল বিদ্রোহের ১৬৯ বছর পূর্ণ হচ্ছে। ইংরেজদের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ফিরিয়ে আনার সংগ্রামের নাম সাঁওতাল বিদ্রোহ। এ বিদ্রোহই ছিল ইংরেজদের দেশ থেকে বহিষ্কার করার প্রথম আন্দোলন। আজ থেকে ১৬৯ বছর আগে ১৮৫৫ সালের এই সাঁওতাল সম্প্রদায়ের চার ভাই সিদু-কানহু-চানদ ও ভাইরোর নেতৃত্বে সাঁওতালরা ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল। এ যুদ্ধের উদ্দেশ্য ছিল ব্রিটিশ সৈন্য ও তাদের দোসর অসৎ ব্যবসায়ী, মুনাফাখোর ও মহাজনদের অত্যাচার, নিপীড়ন ও নির্যাতনের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করা। কিন্তু বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও সাঁওতালরা অধিকার থেকে বঞ্চিত।

আরও খবর