Logo
আজঃ বুধবার ২২ মে ২০২৪
শিরোনাম

আর্জেন্টিনার দাপুটে জয় মেসিকে ছাড়াই

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৩৪২জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:এই মাঠে আর্জেন্টিনার অতীত পরিসংখ্যানও খুব একটা সুখকর নয়। এর ওপর খেললেন না অধিনায়ক লিওনেল মেসি। তবে জয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সামনে।ফুটবলের পসরা মেলে বলিভিয়ার বিপক্ষে ২০২৬ বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ম্যাচে দুর্দান্ত জয় তুলে নিলেন লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে বলিভিয়াকে তাদেরই মাঠে ৩-০ গোলে হারিয়েছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। এই জয়ে দুই ম্যাচ থেকে পূর্ণ ৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে আলবিসেলেস্তারা।

ইকুয়েডরের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ১-০ গোলের জয়ের নায়ক লিওনেল মেসি। ওই ম্যাচে একমাত্র গোল করার পর একেবারে শেষ দিকে মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয় তাকে। তখন থেকেই বলিভিয়ার বিপক্ষে তাকে পাওয়া নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়। তাই শেষমেশ মেসিকে নিয়ে ঝুঁকি নেয়নি স্কালোনি। তবু কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়নি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। জয় এসেছে বড় ব্যবধানে।

আর্জেন্টিনা ম্যাচের শুরুর ৩০ মিনিটে অবশ্য অগোছালো ছিল বেশ। তবে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে মাঠের অত্যাধিক উচ্চতার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার পরই ছন্দে ফেরেন তারা, সুযোগ পান গোলের। ম্যাচের ৩১তম মিনিটে ডান পাশ থেকে আক্রমণে যাওয়া অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া নিচু ক্রস করেন বক্সের মাঝে। যা দুই ডিফেন্ডারের ফাঁক গলে খুঁজে পায় এঞ্জো ফার্নান্দেজকে। দারুণ ফিনিশিংয়ে বলটা স্বাগতিকদের জালে পাঠান। তার এই গোলেই ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় তিনবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।


বিরতির আগে ফের বড়সড় ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। ম্যাচের ৩৯তম মিনিটে বলিভিয়া ১০ জনের দলে পরিণত হয়। ক্রিশ্চিয়ান রোমেরোকে ফাউল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখে বসেন রবের্তো ফার্নান্দেজ। আর্জেন্টিনা ব্যবধানটা দ্বিগুণ করার কিছুক্ষণ পরেই, প্রথম গোলের মতো আবারও গোলের জোগান দেন ডি মারিয়া। বক্সের অনেক বাইরে ফ্রি কিক পায় আকাশি-সাদারা। ডি মারিয়ার ফ্রি কিকে মাথা ছুঁইয়ে বল জালে পাঠান নিকোলাস তাগলিয়াফিকো।

২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয়ার্ধে আকাশি সাদারা খেলেছে অনেকটা রয়ে সয়ে। বোনাস হিসেবে পেয়েছে আরও একটি গোল। ম্যাচের ৮২তম মিনিটে স্কোরশিটে নাম লেখান নিকোলাস গঞ্জালেস। এই গোলেই ৩-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে বেপরোয়া মাটিবাহী ট্রাকের ধাক্কা,অল্পের জন্য রক্ষা ঘুমন্ত দোকানদার

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বেপরোয়া গতির মাটিবাহী ট্রাকের ধাক্কায় একটি চা দোকান, বেশ কয়েকটি গাছ ও একটি বৈদ্যুতিক খুটি ভেঙ্গে পড়েছে। রোববার ভোরে উপজেলার কুটামনি বড় পুকুরপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন ঘুমন্ত চা দোকানের মালিক। এছাড়াও গুরুতর আহত হয়েছেন ওই ট্রাকের চালক।

এলাকাবাসী, ভুক্তভোগী পরিবার ও পল্লীবিদ্যুৎ অফিস সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে মাটি খেকোরা। দিনে-রাতে সমান তালে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে তাদের মাটিবাহী অবৈধ ড্রামট্রাক গুলো। ভেঙ্গেচুরে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কোটি কোটি টাকার নির্মিত সড়কগুলো। প্রায়  প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এর ধারাবাহিকতায় রোববার ভোর পৌণে ৪টার দিকে বেপরোয়া গতির একটি ড্রাম ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো-ট ১৫৭৩৪৫) ধাক্কায় উপজেলার কুটামনি বড় পুকুরপাড় এলাকায় নুর ইসলামের চা-দোকানের কিছু অংশ ভেঙ্গে যায়। এসময় ওই ট্রাকের ধাক্কায় ভেঙ্গে যায় ইউপি প্রদত্ত পাশের সফিপুর- পাইকপাড়া সড়কের সড়ক বাতির সৌর শোলার, লাইটসহ কিছু গাছপালা। এরপর ওই ট্রাকটি সরাসরি সজোরে ধাক্কা দেয় পল্লী বিদ্যুতের ৩৩কেভি ভোল্টেজের লাইনের একটি বৈদ্যুতিক খুটিও।বিকট শব্দে ঘুম থেকে আতকে জেগে উঠেন ঘুমন্ত চা-দোকানদার নুর ইসলাম। কিন্তু গুরুতর আহত হন ওই ট্রাকের চালক আবুল হোসেন।

ততক্ষণে আশ-পাশের লোকজন এগিয়ে গেলে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাক থেকে বেড়িয়ে দৌড়ে একজন পালিয়ে যায়। তাৎক্ষনিক ভাবে তার নাম-ঠিকানা জানা যায়নি। এলাকাবাসী ওই চালককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়। খবর পেয়ে তার স্বজনরা ও মাটি খেকোরা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ দুর্ঘটনার পর ওই সড়কে যান চলাচলে বিঘœ ঘটে। পরে খবর পেয়ে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ বৈদ্যুতিক খুটি পরিবর্তন করে। অল্পের জন্য রক্ষা পাওয়া দোকানদার নুর ইসলাম জানান, পুরো দোকানের ওপর ট্রাক উঠে গেলে ঘুমন্ত অবস্থায় আমি মারা যেতাম। কিন্তু গাছপালা, দোকান ভেঙ্গে প্রায় ২০হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও দোকানের পাশের সৌরশক্তি, সড়ক বাতি ও বৈদ্যুতিক খুটি ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।

এসব বিষয়ে জানতে একাধিক মাটি ব্যবসায়ীকে ফোন দিলে তারা রিসিভ করেননি। তবে ওই ট্রাকের মালিক রবিন সরকার জানান, আমি তো ট্রাক চালাই না, মাটি ব্যবসায়ীরা ট্রাক চালায়। এসব ড্রাম ট্রাক আঞ্চলিক সড়কে চলাচলে নিয়মকানুনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সারা দেশে ড্রাম ট্রাক চলে। তবে ওই দুর্ঘটনার বিষয়ে মাটি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলতে বলেন তিনি।

ফুলবাড়িয়া সাব জোনাল অফিসের ইনচার্জ (এজিএম) হোসেন মোহাম্মদ রায়হান জানান, আমাদের ক্ষতিগ্রস্থ খুটি পরিবর্তন করা হয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাক সংশ্লিষ্টদের খবর দেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ খুটি ও মেরামত বাবদ পল্লীবিদ্যুৎ অফিসে টাকা পরিশোধ না করলে এ ঘটনায় মামলা করা হবে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাউছার আহম্মেদ জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



রূপগঞ্জে ভূমি দস্যু জমি দখল বালু ভরাটের প্রতিবাদে মানববন্ধ

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়নগঞ্জ প্রতিনিধিঃ-

নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে কৃষকের ফসলি জমি ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে জোর করে বালু ভরাট করে দখল করে নেয়ার প্রতিবাদে ভূমি দস্যু রাজ্জাক বিন ইউসুফের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় কৃষকরা।বুধবার (১৫মে ) দাউদপুর ইউনিয়নের বির  হাটাবো গ্রামের আল -জামি আহ আস- সালাফিয়্যাহ মাদ্রাসার সামনে  শতাধিক ভুক্তভুগী জমির মালিক ও কৃষকরা এ মানববন্ধন করে 


মানববন্ধনপূর্বক সভায় কৃষক ও জমির মালিকরা বলেন , দীর্ঘদিন ধরে বালু ভরাট জোর পূর্বক দখল করে  স্থাপনা নির্মাণ করে আসছে আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ করে তিনি এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব করে বেড়ায়। কেউ তার বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায় না বলে জানা যায়।  রূপগঞ্জ থানা সহ প্রশাসনিক বিভিন্ন দপ্তরে একাধিকবার অভিযোগ করেও কোন কাজে আসেনি বলে জানিয়েছেন আব্দুর রহমান  নামে ভুক্তভুগী কৃষক এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে কৃষকদের মাঝে।



একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে জানা যায়,  রাজ্জাক বিন ইউসুফ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের  বিভিন্ন জায়গা থেকে সন্ত্রাসী ভাড়া করে বির হাটাবো দেবগ্রাম, বির  হাটাবো,আমদিয়া মৌজার চার একর তের শতাংশ জায়গা জোর করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে দখল নেয়। ভুক্তভোগী আব্দুর রহমান বলেন, রাজ্জাক বিন ইউসুফ আমার দেবগ্রাম মৌজার ৪৬ শতাংশ জায়গা বিভিন্নভাবে দখল করে বালু ভরাট করে।জমি দখল ও বালু ভরাটের কথা জানতে কথা বলতে চাইলে , গণমাধ্যম কর্মীদের রাজ্জাক বিন ইউসুফের প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মির্জাপুরে প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা শুরু, ভোট ৫ জুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৪১জন দেখেছেন

Image

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ ২০২৪ এর চতুর্থ ধাপের নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা শুরু হয়ে গেছে। ২০ মে সোমবার সকালে টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের মিলনায়তনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করেন।মির্জাপুরের ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ৯ জন প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অংশগ্রহণ করছে। তাদের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম মনির প্রতীক-কাপ পিরিচ, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, মির্জাপুরের সাবেক এমপি প্রয়াত  একাব্বর হোসেনের ছেলে ব্যারিস্টার তাহরীম হোসেন সীমান্ত প্রতীক-আনারস, টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাবেক সদস্য ফিরোজ হায়দার খান প্রতীক-মোটরসাইকেল। মির্জাপুরের প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা শিল্পপতি নুরুল ইসলাম নুরুর ছোট ভাই রেজাউল করিম বাবুল ঋণ খেলাপির দায়ে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান থাকায় প্রতীক বরাদ্দ পাননি।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন, আওয়ামী লীগ নেতা ও ব্যবসায়ী মোঃ শওকত মিয়া প্রতীক- টিউবওয়েল এবং বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম প্রতীক-তালা।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা প্রতীক-ফুটবল, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং অভিনেতা ডি এ তায়েবের সহধর্মিনী মাহবুবা শাহরীন প্রতীক- কলস, অপরজন হলেন, টাঙ্গাইল মহিলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক চাঁদ সুলতানা প্রতীক-হাঁস। ইতিমধ্যে আরেক প্রার্থী জি এস সেলিম এর সহধর্মিনী রুবি আক্তার কনা ১৯ তারিখে মাহবুবা শাহরীনকে সমর্থন জানিয়ে নিজের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। আগামী ৫ জুন বুধবার প্রার্থীরা ভোট যুদ্ধে শরিক হবেন।


আরও খবর



মধুপুরে সড়ক দখল করে চলছে ধান মাড়াই ও খড় শুকানোর মহোৎসব

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইলঃ- টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার বিভিন্ন ব্যস্ততম ও কাঁচাপাকা সড়ক দখল করে ধান মাড়াই ও খড় শুকানোর কাজ করছেন স্থানীয় কৃষাণ-কৃষাণিরা। ফলে একদিকে রাস্তা যেমন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তেমনি বৃদ্ধি পেয়েছে সড়ক দুর্ঘটনা। মধুপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ব্যস্ততম সড়ক সহ পাড়া মহল্লার কাঁচা-পাঁকা রাস্তায় চলছে ধান মাড়াই ও খড় শুকানোর মহোৎসব।


যানবাহন ও সর্বসাধারণে যাতায়াতের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে কতিপয় কৃষাণ-কৃষাণী ধান মাড়াই সহ খড়ের স্তুপ ফেলে সাধারণ পথচারীদেরকে মারাত্মক দুর্ঘটনার মুখে ঠেলে দিচ্ছেন।বিশেষ করে মধুপুর কাঁঠাল তলী মোড় হতে চাপড়ী বাজারে হয়ে গারো বাজার, কুড়ালিয়া মোড় হতে বাগানবাড়ি চৌরাস্তা, রক্তিপাড়া বাসস্ট্যান্ড হতে চাপড়ী, কাকরাইদ হতে গারো বাজার সহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লার রাস্তা গুলো বর্তমানে খড় ও ধান মাড়াই মেশিন মালিকদের দখলে।


এসব ব্যস্ততম সড়কপথে বাস, ট্রাক, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল ছাড়াও রিকশাভ্যান এবং ইজিবাইক চালকরা সার্বক্ষণিক দুর্ঘটনার আতঙ্কের মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছে।খানাখন্দে ভরা রাস্তাগুলোতে ঝুঁকি নিয়ে বিভিন্ন যানবাহন চলাচলে যেমন দুর্ভোগ বাড়ছে তেমনি রাস্তায় ধান মাড়াই ও খড় শুকানোর কাজে বাড়ছে দুর্ঘটনার শঙ্কা।


এই খড়ের গাদায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বেশ কয়েকজন মোটরসাইকেল চালক ও পথচারী হাত পা ভেঙে পঙ্গু হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। এমনও পরিবার রয়েছে যে পরিবারের একমাত্র উপার্জনের মানুষটি আজ পঙ্গু হয়ে বিছানায় পড়ে আছে, এই অসহায় পরিবারের দায়ভার কে নিবে?সাধারণ মানুষের নিরাপদে পথচলায় যারা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবার ও জনসাধারণ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



দেশের আকাশে জিলকদ মাসের চাঁদ দেখা গেছে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:১৪৪৫ হিজরি সনের পবিত্র জিলকদ মাসের চাঁদ দেশের আকাশে দেখা গেছে। ফলে শুক্রবার (১০ মে) থেকে পবিত্র জিলকদ মাস গণনা করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) সন্ধ্যায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মু. আ. হামিদ জমাদ্দারের সভাপতিত্বে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় ১৪৪৫ হিজরি সনের জিলকদ মাসের চাঁদ দেখা সম্পর্কে সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়গুলো, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর এবং মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠান হতে প্রাপ্ত তথ্য নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। এমতাবস্থায়, শুক্রবার থেকে ১৪৪৫ হিজরি সালের পবিত্র জিলকদ মাস গণনা শুরু হবে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ড. মহা. বশিরুল আলম, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম-সচিব মো. সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, সিনিয়র উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবদুল জলিল, বাংলাদেশ ওয়াকফ প্রশাসনের ওয়াকফ প্রশাসক আবু সালেহ মো. মহিউদ্দিন খাঁ, বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠানের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আজিজুর রহমান, ঢাকা জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আমিনুর রহমান, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব রুহূল আমীন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের সহকারী পরিচালক মো. নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।


আরও খবর