Logo
আজঃ বুধবার ২২ মে ২০২৪
শিরোনাম

১৩৯ উপজেলায় ভোট আজ

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১৩৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ প্রথম ধাপে ১৩৯টি উপজেলায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। আজ বুধবার (৮ মে) সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। 

এর মধ্যে ২২টি উপজেলায় ইভিএম এবং বাকি উপজেলাগুলোতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হবে।

ইসি সূত্রে জানায়, এই ধাপে মোট ১ হাজার ৬৩৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫৭০, ভাইস চেয়ারম্যান ৬২৫ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪৪০ জন প্রার্থী রয়েছেন। প্রথম ধাপে চেয়ারম্যান পদে ৮, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১০ করে অর্থাৎ মোট ২৮জন প্রার্থী ইতিমধ্যে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন।

নির্বাচনে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রতি ভোটকেন্দ্রে ১৭ থেকে ১৮ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ ছয়জন অস্ত্রধারী সদস্য থাকবেন। একই সঙ্গে প্রতিটি ইউনিয়নে ও উপজেলায় একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন।

এদিকে ভোটগ্রহণ উপলক্ষে বুধবার সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। গত সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. কামরুজ্জামানের সই করা প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের চাহিদা অনুযায়ী ১৪১টি উপজেলা পরিষদের (সংযুক্ত তালিকা অনুযায়ী) সাধারণ নির্বাচন উপলক্ষে ভোট গ্রহণের দিন ৮ মে (বুধবার) সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হল।

এছাড়া নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংশ্লিষ্ট ১৪১ উপজেলায় মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইসি। ৭ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ৮ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত ট্যাক্সি ক্যাব, পিকআপ, মাইক্রোবাস ও ট্রাক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকবে। এদিকে ৬ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ৯ মে মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

আইন অনুযায়ী ভোটগ্রহণের ৩২ ঘণ্টা আগে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা শেষ করতে হয়। সে অনুযায়ী সোমবার মধ্যরাতে ১৪১ উপজেলায় নির্বাচনি প্রচারণা শেষ হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন ভোট অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে নিজ কার্যালয়ের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশন কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, উপজেলা নির্বাচনে কোনো মন্ত্রী-এমপি প্রভাব বিস্তার করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



আমরা আইন শৃঙ্খলা মেনে শান্তিপূর্ণভাবে সহাবস্থানে বসবাস করতে চাই-পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম সরকারের আইন-শৃঙ্খলা অনুসরণ করেই পরিচালিত হয়ে আসছে। তিনি বলেন, ব্রিটিশ আমল থেকেই পার্বত্য অঞ্চল বিশেষ অঞ্চল হিসেবে পরিচিত। তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চুক্তির ফলস্বরূপ পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠিত হয়েছে। এ অঞ্চলের সকল সংস্থাগুলো আইন শৃঙ্খলার মাধ্যমেই পরিচালিত হয়। তিনি জোর দিয়ে বলেন, আইন-শৃঙ্খলার ব্যত্যয় হলে সরকারের উন্নয়ন কাজেরও ব্যত্যয় ঘটবে। আমরা আইন শৃঙ্খলা মেনে শান্তিপূর্ণভাবে সহাবস্থানে বসবাস করতে পারলেই আমাদের স্বার্থকতা বাস্তবায়ন হবে। 

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ এনেক্স ভবনে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ২য় সভায় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এসব কথা বলেন।

বৈঠক শেষে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের অদৃশ্য শক্তি বলে কোন কথা নেই কাপ্তাই হ্রদের ড্রেজিংএর বিষয়টি একনেক সভায় উপস্থাপন করা আছে, পাশ হলেই আগামী অর্থ বছরে কাজ শুরু হবে। পার্বত্য অঞ্চলের শান্তি শৃঙ্খলা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সরকারের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করছে। পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা কারো একার পক্ষে সম্ভব নয়। সম্মিলিতভাবে সকলেরই এতে অংশগ্রহণ থাকতে হয়। তিনি বলেন, আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সকল জনগণ ও জনপ্রতিনিধিদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি আরও বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের সকল সম্প্রদায়, সকল গোষ্ঠী সহাবস্থানের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের মুল স্রোতধারার সাথে আমাদের এক হয়ে এগুতে হবে। তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চল শুধু নয়, পুরো বাংলাদেশকে একটি ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসাবে গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এখানে জাতি গোষ্ঠী সম্প্রদায় আলাদা কিছুই থাকবে না। বাংলাদেশের উন্নয়নে সকল সম্প্রদায়কে একসাথে কাজ করতে হবে। 

পার্বত্য অঞ্চলে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান চলমান রয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, আগামী দিনগুলোতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার আরো বেশী তরান্বিত করা হবে। 

সাংবাদিকদের অন্য এক প্রশ্নের জবাবে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, দীর্ঘ বছর পর সাজেকের রাস্তাঘাট হচ্ছে। এটা সম্পূর্ণই বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার অবদান। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা না থাকলে দুর্গম অঞ্চল সাজেকের মতো জায়গায় এতো তরিৎ গতিতে রাস্তাঘাট নির্মাণ করা ও বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া এবং সীমান্ত বর্ডার রোড তৈরী করা চারর্টিখানি কথা না। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা থাকলে এই রাস্তা আরো দ্রুতগতিতে সম্পন্ন হবে।

বৈঠক শেষে পার্বত্য রাঙ্গামাটি জেলার চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সরেজমিনের পরিদর্শন করেন সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য মন্ত্রী  বীর_বাহাদুর_উশৈসিং_এমপি’র সভাপতিত্বে  পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, বন ও পরিবেশ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি  দীপংকর তালুকদার এমপি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের এমপি  মোঃ মঈন উদ্দিন, যশোর-১ আসনের এমপি  শেখ আফিল উদ্দিন,  সংরক্ষিত মহিলা আসন-৪৮ এমপি  জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যাঁ, উপজাতীয় শরণার্থী ও অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান  সুদত্ত চাকমা (সিনিয়র সচিব), পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আমিনুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, প্রাথমিক ও গণশিক্ষার মহাপরিচালক  শাহ রেজওয়ান হায়াত (অতিরিক্ত সচিব), পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব  আমিনুল ইসলাম (অতিরিক্ত সচিব), পার্বত্য মন্ত্রণালয় স্থায়ী কমিটির সচিব  অমলেন্দু সিংহ (যুগ্ন সচিব), পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান  হারুন-অর_রশিদ (যুগ্ন সচিব), তিন পার্বত্য জেলা পরিষদের সিইও বৃন্দ, আঞ্চলিক পরিষেদের প্রতিনিধি সহ বিভিন্ন দপ্তরে দায়িত্বরত উপসচিব এবং বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের কর্মকর্তাবৃন্দ।
উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



শার্শা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:২য় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শার্শা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করেছেন নির্বাচন কমিশন।

২ মে বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসার এস এম শাহীন প্রার্থীদের মাঝে এ প্রতীক বরাদ্দ করেন। চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপিত ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান মিন্নু ( মটরসাইকেল), যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রহিম খলিল (ঘোড়া), উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অহিদুজ্জামান অহিদ (আনারস) ও উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সোহারাব হোসেন (দোয়াত কলম) মার্কা।

বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী আলেয়া ফেরদৌস (হাঁস), নাজমুন নাহার (ফুটবল), জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শামিমা আলম সালমা (কলস) মার্কা।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সরদার সাহরিন আলম বাদল (টিউবওয়েল), সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার (তালা), যুবলীগ নেতা তরিকুল ইসলাম মিলন (টিয়া পাখি)। শফিকুল ইসলাম মন্টু (চসমা) মার্কা। আগামী ২১ মে শার্শা উপজেলার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



রংপুরে পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের বীমাদাবীর ৪ কোটি ১২ লক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর ও বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম, জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃপপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের রংপুর অঞ্চলের মেয়াদ উত্তীর্ণ গ্রাহকদের বীমাদাবীর ৪ কোটি ১২ লক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর ও বার্ষিক সম্মেলন  অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সকালে রংপুর চেম্বার ভবন মিলনায়তনে এ  বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের আল বারাকা ডিপিএস প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও বার্ষিক সম্মেলনে  প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের  ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ- ব্যবস্থাপনা  পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও উর্দ্ধতন প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসন, আল আমিন বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক বিল্লাল হোসেনের।

এ সময়ে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, একক বীমা প্রকল্পের প্রকল্প ইনচার্জ আফজাল হোসেন, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের প্রকল্প ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম রাশেদ, আল আমিন বীমা প্রকল্পের প্রকল্প ইনচার্জ  জসিম উদ্দিন।

সম্মেলন শেষে ৪ কোটি ১২ লক্ষ টাকার বীমা দাবীর চেক গ্রাহকদের হাতে হস্তান্তর করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের  ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নি

আরও খবর



মিল্টন সমাদ্দার ভুয়া মৃত সনদ নিজেই তৈরি করতো: ডিবি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ মে 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানিয়েছেন, রাতের আঁধারে ‘চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এজ কেয়ার’ আশ্রমের চেয়ারম্যান মিল্টন সমাদ্দার প্রায় ৯০০ মরদেহ দাফনের ভুয়া মৃত সনদ নিজেই তৈরি করেছেন বলে।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়েজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

ডিবিপ্রধান বলেন, আপনারা জানেন মিল্টন সমাদ্দারকে আমরা বুধবার রাতে গ্রেপ্তার করেছি। ইতোমধ্যে তার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে। এরমধ্যে রাতের আঁধারে সিটি করপোরেশনের সনদ ছাড়াই মৃতদেহ দাফন করার অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। এই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

হারুন অর রশীদ বলেন, রাতের আঁধারে মিল্টন সমাদ্দার মরদেহ দাফন করতেন। সিটি করপোরেশনের সিল নিজেই মারতেন। সেই কাগজগুলো আমরা উদ্ধার করেছি। লাশ দাফন করার ক্ষেত্রে সিটি করপোরেশনের সনদ সে নিতো না। নিজেই লিখে সই করতো। সিলসহ কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, মিল্টনকে রিমান্ডে আনার পরে তার স্ত্রীকেও ডাকা হবে। তবে কোনো ভুক্তভোগী যদি মামলা করেন তাহলে তার স্ত্রীকেও আমরা গ্রেপ্তার করব।


আরও খবর



খাগড়াছড়িতে সাড়ে ৬কোটি টাকা ব্যয়ে পিসি গার্ডার ব্রীজ উদ্বোধন করেন-পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার বীজিতলা বাজার খাগড়াছড়ি সদর হেডকোয়ার্টার (বটতলী) এলাকায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে চেংগী নদীর উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর খাগড়াছড়ি এলজিইডির বাস্তবায়নে নবনির্মিত   ৯৬ মিটার দৈর্ঘ্য পিসি গার্ডার ব্রীজ উদ্বোধন করা হয়েছে। 

রোববার (১৯ মে) দুপুরের দিকে বীজিতলা বাজার সংলগ্ন চেঙ্গীনদীর উপরে  নবনির্মিত ৯৬মি: পিসি গার্ডার ব্রীজ  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী তৃপ্তি শংকর চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে ফিতা কেটে ব্রিজের উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয় এর প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা এমপি।

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা প্রকৌশলী মো.রাজু আহম্মেদ এর সঞ্চালনায় খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো.শানে আলম,খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাঈমা ইসলাম, খাগড়াছড়ি স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর এলজিইডির সিনিয়র  সহকারী প্রকৌশলী মো.বেলাল হাসান, খাগড়াছড়ি সদর থানার ওসি মো.তানভীর হাসান, ঠিকাদার এস অনন্ত বিকাশ এিপুরা, কমলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেম্বারসহ এলাকার  গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

খাগড়াছড়ি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এলজিইডির অর্থায়নে  তিন পার্বত্য জেলায় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রন্থ পল্লী সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প (DDRRIP-3HD) প্রকল্পের সাড়ে ৬ কোটি ৪৭হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে  খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার বীজিতলা বাজার সংলগ্ন চেঙ্গী নদীর ওপর ৯৬ মিটার দৈর্ঘ্য পিসি গার্ডার ব্রিজ।২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে  ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এস অনন্ত বিকাশ এিপুরা ৯৬ মিটার দৈর্ঘ্য গার্ডার ব্রিজের কাজ সম্পন্ন করেছেন বলে জানান খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা প্রকৌশলী মো:রাজু আহমেদ।

খাগড়াছড়ি স্থানীয় সরকার  প্রকৌশল অধিদপ্তর এর  নির্বাহী প্রকৌশলী তৃপ্তি শংকর চাকমা বলেন, বর্তমান সরকার সারা দেশে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)'র অর্থায়নে খাগড়াছড়ি জেলার চেঙ্গী নদীর উপর অবস্থিত। সেতুটি রাঙ্গামাটি আরএইচডি (বীজিতলা বাজার) থেকে শুরু করে গড়গজ্যাছড়ি- গুগড়াছড়ি হয়ে খাগড়াছড়ি সদরের বটতলী পর্যন্ত সড়কটিকে সংযোগ সাধন করেছে। ফলশ্রুতিতে কমলছড়ি ইউনিয়ন ও খাগড়াছড়ি সদর হেডকোয়ার্টার গমনকারী ব্যক্তি সহজে যাতায়াত করতে পারবে। ব্রীজটি নির্মিত হওয়ার ফলে গড়গজ্যাছড়ি- গুগড়াছড়ি এলাকার জনগন সহজেই কম সময়ে (প্রায় ৮কি:মি: দুরত্ব কমে যায়) যাতায়াত করতে পারবে। ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় প্রচুর পরিমাণে কৃষি জমি ও ফলজ বাগান থাকায় উৎপাদিত ফসল বাজারজাতকরণ বর্তমানে সহজতর হবে যা সংলগ্ন এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

প্রধান অতিথি,র বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা এমপি
বলেন, পাহাড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারে আমলে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।
স্মার্ট বাংলাদেশ ও স্মার্ট জাতি গঠনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে।ব্রীজটি নির্মিত হওয়ার ফলে গড়গজ্যাছড়ি- গুগড়াছড়ি এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থার  উন্নয়ন সাধিত হবে। কৃষক তার উৎপাদিত পন্য যথা সময়ে বাজার জাত করতে পারবে। মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়নে- নবদিগন্তের দ্বার উম্মোচিত হবে।

আরও খবর