Logo
আজঃ সোমবার ২০ মে ২০24
শিরোনাম

ভারতকে হারিয়ে শেষটা রঙিন করল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২০ মে ২০24 | ৩৪০জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:ম্যাচটা বাংলাদেশ অবশেষে নিজেদের করে নিলো । ভারতের বিপক্ষে জয় দিয়ে শেষ করল এশিয়া কাপ। সুপার ফোরে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার কাছে হারের পর মানসিক ভাবে অনেকটা দুর্বল হয়ে গেলেও শেষ ম্যাচে ভারতকে ৬ রানে হারিয়েছে টাইগাররা। 

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের দেওয়া ২৬৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৫৯ রানে অল-আউট হয়েছে ভারত।

দুপুরে টস হেরে ব্যাট করার আমন্ত্রণ পায় বাংলাদেশ। দুই দলই নামে পাঁচ পরিবর্তন নিয়ে। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা হয়েছিল যাচ্ছেতাই। টপ অর্ডারের তিন ব্যাটার লিটন দাস (০), তানজিম হাসান সাকিব (১৩) এবং আনামুল হক বিজয় (৪) ফেরেন দলীয় ২৮ রানের ভেতর।

মেহেদী হাসান মিরাজ ১৩ রান করে ফিরলে আরো চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। তবে তাওহীদ হৃদয়কে নিয়ে ধাক্কাটা সামাল দেন সাকিব আল হাসান। ১০১ রানের জুটি বেঁধে সাকিব তুলে নেন ফিফটি। 

জুটি ভাঙার আগে সাকিব খেলেন ৮৫ বলে ৮০ রানের ইনিংস। এরপর শামিম পাটোয়ারি ১ রান করে ফিরলে আবারও চাপে পড়ে বাংলাদেশ। এখান থেকেই নাসুম আহমেদকে নিয়ে স্কোরবোর্ডে আরো ৩২ রান যোগ করেন হৃদয়।

হৃদয় তুলে নেন ফিফটি। তবে বেশিদূর আর যেতে পারেননি, থামতে হয় ৫৪ রানের ইনিংস খেলে। এরপর নাসুমের ৪৪, শেখ মেহেদীর ২৯ ও অভিষিক্ত তানজিম সাকিবের ১৪ রানের ক্যামিওতে ২৬৫ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

ভারতের পক্ষে ৩ উইকেট নেন শার্দুল ঠাকুর। ২ উইকেট নেন মোহাম্মদ শামী ও ১উইকেট করে নেন প্রসিদ্ধ, প্যাটেল এবং জাদেজা।

বাংলাদেশের দেওয়া লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তানজিম হাসানের করা ইনিংসের প্রথম ওভারেই খেই হারান রোহিত শর্মা। পয়েন্টে থাকা বিজয়ের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ০ রানে।

তানজিম দ্বিতীয় ওভার করতে এসে আবারও তুলে নেন উইকেট। এবার তিলক বর্মাকে (৫) ফেরান সোজা বোল্ড করে। এরপর একপাশ আগলে রেখে লড়াই চালিয়ে যান শুভমান গিল। এর মাঝে বিদায় নেন লোকেশ রাহুল (১৯), ইষান কিষান (৫)।

গিল খেলেছেন আপন মনে। কখনো দ্রুত রান তুলে বিপদে ফেলেন বাংলাদেশকে, আবার কখনও বেশ সাবধানে চালান ব্যাট। শেষ পর্যন্ত তাকে ফেরান শেখ মেহেদী। ১২১ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন দলকে অনেকটা জয়ের নাগালে পৌঁছে দিয়ে।

গিল তার কাজ করে দিলেও বাকিরা সেটি আর পারলেন কই। অভিজ্ঞ মোস্তাফিজ তার ধার দেখিয়েছেন। শেখ মেহেদী প্রমাণ দিয়েছেন অধিনায়কের আস্থার। তানজিম সাকিব প্রথম ওভারের মতো শেষ ওভারেও বোলিং করেছেন অভিজ্ঞদের মতোই।

শেষ ওভারে যখন ১২ রান লাগে, তানজিম খেই হারাননি। প্রথম তিন বলে কোনো রান না দিলেও চতুর্থ বলে দেন বাউন্ডারি। তবে পঞ্চম বলটায় মোহাম্মদ শামীকে রান আউট করে সব হতাশা ভুলিয়ে দেন লিটন দাস।

এশিয়া কাপের সব ব্যর্থতা যেন এক নিমিষেই শেষ বাংলাদেশের। টাইগারদের পক্ষে ৩ উইকেট নেন মোস্তাফিজ, ২টি করে উইকেট নেন তানজিম ও শেখ মেহেদী। ১টি করে উইকেট নেন সাকিব এবং মিরাজ।


আরও খবর



তেঁতুলিয়ায় বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশী যুবক নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | ৭৬জন দেখেছেন

Image

আশরাফুজ্জামান খোকন বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলা সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) ছোড়া গুলিতে দুই বাংলাদেশী যুবক নিহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। বুধবার (৮ মে) সকালে উপজেলার খয়খাটপাড়া এলাকার সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ভারতীয় থানা পুলিশ মরদেহ দু’টি নিয়ে গেছে।

নিহত ইয়াসিন আলী(২৩) পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলা ব্রহ্মতোল গ্রামের কেতাব আলীর ছেলে এবং আব্দুল জলিল(২৪) একই উপজেলার সদর ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের জুনু মিয়ার ছেলে। স্থানীয়, পুলিশ, বিজিবি ও স্থানীয়রা জানান, বুধবার সকালে জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলা রনচন্ডি বিওপি আওতাধীন এলাকা সীমান্ত পিলার ৪৪৬/১৪ আর এর নিকট খয়খাটপাড়া এলাকার দরগাসিং সীমান্তে ভারতের ১৭৬/ফকির পাড়া এলাকায় হঠাৎ ঐ যুবকদের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পরে তারা বিজিবি ও পুলিশকে খবর দেয়। তেঁতুলিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুজয় কুমার রায় বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিজিবির মাধ্যমে ঘটনাটি জানতে পেরেছি। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে নিহত ওই দুই যুবক গরু চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পঞ্চগড় ১৮ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল জুবায়েদ হাসান বলেন, ভারতের অভ্যন্তরে দুইজন বাংলাদেশী যুবক মারা গেছেন এমন খবর পেয়েছি। তবে এখন পর্যন্ত পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ পাইনি। বিষয়টি আমরা দেখতেছি।


আরও খবর



তীব্র গরমে রূপগঞ্জে পথচারীদের মাঝে ঠান্ডা পানি ও শরবত বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২০ মে ২০24 | ১২১জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তীব্র গরমে পথচারীদের মাঝে একটু প্রশান্তির জন্য বিনামূল্যে সুপ্রিয় ঠান্ডা পানি ও শরবত  বিতরণ করা হয়েছে।

৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার উপজেলার গোলাকান্দাইল ও ভুলতা গোলচত্বর এলাকায় এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এ সময় ওসকল এলাকায় তৃষ্ণার্ত গাড়ি চালক, রিক্সা চালক, অটো চালক ও পথচারীদের বিনামূল্যে সুপ্রিয় ঠান্ডা পানি ও শরবত পান করানো হয়েছে।

রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেনের নিজস্ব অর্থায়নে যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরাম রূপগঞ্জ এর উদ্যোগে চলমান এই বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এসময়  উপস্থিত থাকেন উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, মীর শফিকুল ইসলাম, মনজুর এলাহী, পারভেজ, আলম হোসাইন, আল-আমিন, সিরাজুল ইসলাম, সোহেল কবির, রনি, রাকিবুল ইসলাম, নিলয় আহমেদ রাফি সহ সকল সাংবাদিকবৃন্দ। 

বিতরণী অনুষ্ঠানে  রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন বলেন, তীব্র গরম থেকে পথচারী, গাড়ি চালক ও উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরে সেবা নিতে আসা লোকজনদেরকে  স্বস্তি দিতে বিশুদ্ধ শীতল পানি ও স্যালাইন বিতরণের করা হচ্ছে। এ বিশুদ্ধ শীতল পানি ও স্যালাইন বিতরণের আজ দ্বিতীয় দিন চলছে। আগামীতেও এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



খেলাধুলা মানুষের শারীরিক ও মানসিক শক্তি জোগায়: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ মে ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:যখনই সরকারে এসেছি তখনই চেষ্টা করেছি খেলাধুলার প্রতি আমাদের ছেলেমেয়েদের আরও বেশি অনুরাগী করতে,বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । কারণ খেলাধুলা মানুষের শারীরিক ও মানসিক শক্তি দেয়। দেশপ্রেম শেখায়, আনুগত্য শেখায় এবং একই সঙ্গে দেশেপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করে।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২৩ এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২৩ এর চূড়ান্ত পর্যায়ের খেলা ও পুরস্কার বিতরণ হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি চাই ছেলেমেয়েরা লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা, শরীরচর্চা, সাংস্কৃতিক চর্চার মধ্য দিয়ে উপযুক্ত নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠুক। খেলাধুলায় আমাদের ছেলেমেয়েরা যেন আরও বেশি আগ্রহী হয়ে অংশগ্রহণ করে, আমাদের দেশীয় খেলাধুলাকেও সমানভাবে সুযোগ দিতে হবে। কারণ, দেশীয় খেলাগুলোর মধ্য দিয়ে আমাদের ছেলেমেয়েদের মেধা বিকাশের আরও সুযোগ হবে।

তিনি বলেন, আজ আমাদের এই খেলাধুলার মধ্যে দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি। সারাবিশ্বের কাছে পরিচিত করতে পারি। আমাদের ক্ষুদে ফুটবল খেলোয়াড়রা যারা আজ এখান থেকে শুরু করলো, একদিন তারা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশের জন্য আরও বেশি সম্মান বয়ে নিয়ে আসবে। ছেলেমেয়েরা সারাবছর যেন খেলাধুলা করতে পারে সে জন্য সরকার সব উপজেলায় একটি করে মিনিস্টেডিয়াম নির্মাণ করছে। এছাড়া প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিকদের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করছে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং লালমনিরহাটের পাটগ্রাম টেপুরগাড়ি বি কে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যকার ফাইনাল খেলার দ্বিতীয়ার্ধ উপভোগ করেন। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন পাটগ্রাম টেপুরগাড়ি বি কে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। অপর ম্যাচে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে রংপুরের মিঠাপুকুর তালিমগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় জামালপুরের মাদারগঞ্জ চরগোলাবারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

প্রধানমন্ত্রী দুই টুর্নামেন্টের বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব ফরিদ আহমেদ প্রমুখ।


আরও খবর



অতিরিক্ত খাজনা আদায় ও সিন্ডিকেটে কমছে ধানের দাম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২০ মে ২০24 | ৬২জন দেখেছেন

Image

আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে অতিরিক্ত টোল বা খাজনা আদায়ের কারনে প্রতি ঘন্টায় কমছে ধানের দাম বলে অভিযোগ করেন কৃষকরা। এক মন ধানে ৮ টাকা করে খাজনা আদায় করছেন হাট ইজারাদার মাসুদ ও তার লোকজন। পৌর এলাকার তালন্দ হাটে ঘটে রয়েছে এমন ঘটনা। এতে করে ধান বিক্রি করতে আসা কৃষক চরমভাবে হতাশ হয়ে পড়েছেন।জানা গেছে, তানোর পৌরসভা থেকে প্রতি বছর হাটটি নিলাম হয়। এবার নিলামে রাজশাহীর গুড়িপাড়া এলাকার মাসুদ পেয়েছেন। পাওয়ার পর থেকেই সরকারি নিয়মের তোয়াক্কা না করে ইচ্ছেমত খাজনা বা টোল আদায় করে থাকেন। 

সপ্তাহে বুধবার ও রবিবার তালন্দ হাট বার। হাটে বিভিন্ন এলাকার কৃষকরা ভ্যানে করে ধান বিক্রি করতে আসেন। প্রতি হাটে প্রচুর পরিমানে ধান কেনা বেচা হয়।মফিজ নামের এক কৃষক বলেন, তালন্দ হাটে ধান বিক্রি করতে এসেছিলাম বাড়তি দাম পাওয়ার আসায়। কিন্তু গত হাটে একমন ধান প্রকার ভেদে ১২৭০ টাকা থেকে ১২৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। কিন্তু আজ বুধবারে কমে ১২৪০ টাকা থেকে ঊর্ধ্বে ১২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আবার একমন ধানে ৮ টাকা করে খাজনা আদায় করা হচ্ছে। অতিরিক্ত খাজনা আদায় ও ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটের কারনেই ধানের দাম কমে যাচ্ছে।

দুলাল নামের এক কৃষক বলেন এক মন ধান বিক্রি করার জন্য এসেছে। ধাম বেশি পাব বলে দুপুর থেকে প্রচন্ড খরতাপের মধ্যে বসে ছিলাম। কিন্তু বাড়তি দাম নেই। যতই বেলা ঘনিয়ে আসছে ততই ধানের দাম সিন্ডিকেটের কারনে কমে যাচ্ছে। একমন ধান বিক্রি করেছি ১২৫০ টাকায়। ধানের দাম কমে গেলেও বাজারে নিত্যপন্যের দাম প্রচুর। একমন ধান বিক্রি করে প্রয়োজন মত বাজার করা যায় না। অবাক করার বিষয় সবকিছুর দাম বেশি হলেও ধানের দাম কম। আবার মড়ার উপর খাড়ার ঘা একমন ধানে খাজনা দিতে হচ্ছে আট টাকা করে।সিদ্দিক নামের আরেক কৃষক জানান, ১২ মন ধান বিক্রি করেছি। একমন ধানের দাম লেগেছে ১১৮০ টাকা। আর কিছুক্ষণ পর এদামও পাওয়া যাবে না।আরেকজন জানান, একমন ধানে আট টাকা তো নিচ্ছেই আবার একটি হাঁসে ২০ টাকা করে খাজনা আদায় করে থাকেন। খাজনা আদায় কারী উত্তম নামের এক ব্যক্তি বলেন, ৮ টাকা খাজনা অনেক কম নেয়া হচ্ছে। সরকারি রেটে খাজানা আদায় করলে আরো বেশি হবে। সরকারি তালিকা দেখতে চাইলে তিনি দেখতে পারেননি।

সুত্র জানায়, হাটে খাজনা বা টোল আদায়ের তালিকা সাটাতে হবে। সে অনুযায়ী খাজনা আদায় করতে হবে। কিন্তু কোন নিয়মই মানছেন ইজাদার ও পৌর কর্তৃপক্ষ। বাজার মনিটরিং না থাকার কারনে ইচ্ছে মত টোল বা খাজনা আদায় করা হচ্ছে। যদি নিয়োমিত মনিটরিং ব্যবস্থা বা অভিযান দিলে এত বেপরোয়া ভাবে খাজনা আদায় করতে পারত না। সবকিছু সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি। 
মুল ইজারাদার মাসুদ জানান,  এক মনে আট টাকা খাজনা আদায় অনেক কম হয়েছে। প্রতি হাটে ২০ হাজার টাকা করে লোকসান গুনতে হচ্ছে। তাহলে এত বেশি টাকায় হাট নিয়েছেন কেন জানতে চাইলে তিনি জানান আমি হাটে নেই সাক্ষাতে কথা হবে বলে দায় সারেন তিনি। 

পৌর মেয়র ইমরুল হকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নিয়ম অনুযায়ী খাজনা আদায় করা হচ্ছে। বাড়তি টাকা আদায় না করলে বেতনভাতা দেয়া হবে কোথাই থেকে। সরকারি তো বেতন দেয় না। পৌরসভার রাজস্ব থেকেই বেতন দিতে হয়। আর সরকারি নিয়মে আদায় হলে বেতন ভাতা হবে না।

আরও খবর



কালিয়াকৈরে বিশ্ব মা দিবস পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ১২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

সাগরআহম্মেদ,কালিয়াকৈর(গাজীপুর)প্রতিনিধি:“শেখ হাসিনার বারতা নারী-পুরুষ সমতা” এ শ্লোগানকে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বিশ্ব মা দিবস পালিত হয়েছে। রোববার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ও উপজেলা মহলিা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে এ দিবসটি পালন করা হয়। বিশ্ব মা দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা হলরুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রজত বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সানজিদা মজুমদারের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন-উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস  চেয়ারম্যান জায়েদা নাসরিন,উপজেলা যুবউন্নয়ন কর্মকর্তা রহমত উল্লাহ,

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এস এম সমীহ,  কালিয়াকৈর মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি ইমারত হোসেন, সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম,মায়েদের পক্ষ থেকে তানিয়া আক্তার, সীমারানি সরকার সহ আরো অনেকে। সভায় বক্তারা বলেন,মা হচ্ছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভালবাসার স্থান, মা হচ্ছে একাধারে শিক্ষক ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার। মা হচ্ছে বটো বৃক্ষের মতো, মা হচ্ছে সন্তানদের ভালবাসার শেষ আশ্রয়স্থল।এ সময় সকল মায়ের প্রতি ভালোবাসা শ্রদ্ধা রাখার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।



আরও খবর