Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

"স্বাস্থ্যখাতে এত অসঙ্গতি,এর দায় এড়ানো সম্ভব নয়"

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ১৬৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন, স্বাস্থ্যখাতে এত অসঙ্গতি উল্লেখ করে বলেছেন এর কোনোটার দায়ই মন্ত্রী হিসেবে এড়ানো সম্ভব নয়। দায় মাথায় নিয়েই কাজ করতে হবে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরের বাইরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওষুধ ও হার্টের রিংয়ের দাম নির্ধারণে বৈঠক বসেছে। তবে দাম কমাতেই হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে, যেকোনো দিন মন্ত্রী হিসেবে অভিযানে যাওয়া যাব আমি।

অভিযানে অবৈধ প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে চিকিৎসাসেবা নেওয়া মানুষের ভোগান্তি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ভুল জায়গায় চিকিৎসা নেওয়ার চেয়ে চিকিৎসা না নেওয়া ভালো। সঠিক জায়গায় চিকিৎসা নেওয়া উচিত।


আরও খবর



বুয়েট যাতে জঙ্গিবাদের কারখানায় পরিণত না হয়: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ১২০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বুয়েট যাতে জঙ্গিবাদের কারখানায় পরিণত না হয়,বলেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আমি রাজনীতি করি, সে জন্য বুয়েটে আমি যেতে পারব না? এটা কোন ধরনের আইন? আমরা তদন্ত করে দেখছি, এ ধরনের কিছু পাওয়া গেলে সরকারকে অ্যাকশনে যেতে হবে।

রোববার (৩১ মার্চ) সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ ভবনে চট্টগ্রাম বিভাগের নেতাদের সঙ্গে মত বিনিময় সভায় বুয়েট শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ প্রসঙ্গে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা অপকর্ম-অন্যায়ের বিরুদ্ধে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করেন এবং সেই নীতিতেই আমরা এগিয়ে চলছি। আজকে বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার করতে গিয়ে আমাদের আমাদের অনেক কর্মী দণ্ডিত হয়েছে। তারপর বুয়েটে আবরার হত্যাকাণ্ডে আমরা কাউকে ছাড় দেইনি। শেখ হাসিনা কাউকে ছাড় দেননি।

তিনি বলেন, এখানে সেদিন যা ঘটেছে, কেউ তো ওখানে রাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি পালন করতে যায়নি! সেখানে তো কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি ছিল না। আজকে আমি রাজনীতি করি, সে জন্য বুয়েটে আমি যেতে পারব না? এটা কোন ধরনের আইন? এটা কোন ধরনের নিয়ম?

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আমরা পরিষ্কার একটা কথা বলতে চাই, ঘটনার তদন্ত চলছে। আমরা খতিয়ে দেখছি। ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করার নামে বুয়েটকে একটা অপরাজনীতি-জঙ্গিবাদের কারখানায় রূপান্তরিত করা হবে, পরিণত করা হবে এটা যাতে না হয়। আমরা তদন্ত করে দেখছি, এ ধরনের কিছু পাওয়া গেলে সরকারকে অ্যাকশনে যেতে হবে।


আরও খবর



সিরাজদিখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী শেখ মনির হোসেন মিলন প্রচার-প্রচারণায় শীর্ষে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image
নিজস্ব প্রতিবেদক:দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরপরই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ঘোষণায় মাঠে নেমে পড়েছেন মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ভোটারদের সমর্থন ও দোয়া কামনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। আসন্ন সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে শুরু করে, স্কুল, মাদরাসা, মসজিদ ও চায়ের স্টল গুলোতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারনায় মুখরিত হয়ে ওঠেছে।

আসন্ন সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে গরীব-দুঃখী ও মেহনতি মানুষের পাশে সেবক হয়ে থাকতে চান সমাজসেবক, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, পরোপকারী ও জনগণের বন্ধুখ্যাত শেখ মনির হোসেন মিলন। মানুষের বিপদে-আপদে পাশে থেকে সবসময় নিজের সর্বোচ্চটা বিলিয়ে দিয়েছেন তিনি। সমাজের কল্যাণমূলক কাজ বিয়ে থেকে শুরু করে অসহায় গরিব ও অসুস্থ মানুষকে আর্থিক সহায়তা দিয়ে তিনি সমাজে বিশেষ অবদান রেখেছেন। গরিব অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা, বিয়ে-শাদী সামর্থ্য মত সাহায্য করে থাকেন। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় অসহায় ও দুর্বলের পক্ষে কথা বলেন। তিনি সবসময় সাধারণ মানুষের আপদে-বিপদে পাশে দাঁড়িয়ে কাছে টেনে আপন করে নিয়েছেন। অল্প সময়ে সকলের কাছে বিপদের বন্ধু হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন।

আগামী ১৮-০৫-২০২৪ ইং সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ নির্বাচন লতব্দী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আনোয়ার হোসেনের ছেলে শেখ মনির হোসেন মিলন বিএ। তার পিতা সিরাজদিখান থানা আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ ২১ বছর একটানা দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে দলকে সুসংগঠিত করেছেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন। তারপর সিরজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিন সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। বার্ধক্যের কারণে জীবনের শেষ মুহুর্তে সিরাজদিখানের জননন্দিত নেতা মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা আলহাজ্ব মহিউদ্দিন আহমেদকে সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বভার অর্পণ করে তিনি রাজনীতি থেকে অবসর গ্রহণ করেন। তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রাষ্ট্রিয় মর্যাদায় দাফন করা হয়।

শেখ মনির হোসেন বিএ সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য, সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, মুন্সীগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ- সভাপতি, বিক্রমপুর কে.বি ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, লতব্দী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও লতব্দী মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সাবেক সভাপতি ছিলেন।

তিনি ১৯৭০ সালের ১৪ আগস্ট সম্ভান্ত মুসলিম ও রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিনি সাধারণ ভোটারদের ভালোবাসা ও সমর্থন নিয়ে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। তিনি বিভিন্ন ইউনিয়ন, হাট-বাজার ও মসজিদ-মন্দিরে গিয়ে কুশল বিনিময় করছেন ভোটারদের সাথে। সিরাজদিখান উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭-৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে শোনা যাচ্ছে। তার মধ্যে জনপ্রিয়তায় ও প্রচার-প্রচারণায় শীর্ষে রয়েছেন শেখ মনির হোসেন মিলন বলে স্থানীয় ভোটারদের মাঝ থেকে জানা যায়।

আরও খবর



জলঢাকায় সাংবাদিকদের সম্মানে জামায়াতের ইফতার মাহফিল

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

(নিলফামারী) জলঢাকা, প্রতিনিধি:নীলফামারীর জলঢাকায় সাংবাদিকদের সন্মানে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ এর ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।বৃস্হপতিবার বিকেলে পৌর সভার পেট্রোল পাম্পে  বিসমিল্লাহ হোটেলে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন সংগঠনটি।এ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে অনুষ্ঠিতব্য মতবিনিময়ে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রংপুর মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি ওবায়দুল্লাহ সালাফি, উপজেলা জামায়াতের আমীর ও উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোকলেছুর রহমান, পৌরসভার উপ নির্বাচনে মেয়র পদপ্রাথী প্রভাষক ছাদের হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুজাহিদ মাসুম, উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মোয়াম্মার আল হাসান, নায়বে আমীর কামরুজ্জামান, পৌর আমীর মকবুল হোসেন, আইন ও মানবাধিকার সেক্রেটারি ওমর ফারুক ও এ‍্যাডভোকেট রবিউল ইসলাম প্রমূখ।

এসময় জামায়াত নেতারা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা পৌরসভার উপ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছি এবং আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও প্রার্থী ঘোষণা দিয়েছি।আপনারা সমাজের দর্পণ ও জাতির বিবেক, আশা করি ভালমন্দ যাচাই বাচাই করে সঠিক তথ্যগুলোই আপনারা তুলে ধরবেন এটাই আপনাদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা। এসময় উপজেলাটিতে কর্মরত বিভিন্ন  প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



সৈয়দপুর পৌর মেয়রের অপসারণ দাবীতে ১৪ কাউন্সিলরের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নৈতিক স্খলন, অনিয়ম, দূর্ণীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও অদক্ষতার অভিযোগ এনে নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবীর প্রতি অনাস্থা ও অপসারাণের দাবীতে একাট্টা হয়েছেন প্যানেল মেয়র সহ পরিষদের ১৪ কাউন্সিলর। তারা গত ২৩ মার্চ স্হানীয় সরকার,  পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী বরাবরে লিখিত অভিযোগ করা সহ ৩১ মার্চ শহরের ওয়াবদা মোড়ে বেলা ১২ টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই দাবী তুলে ধরে পৌরবাসীর সহযোগিতা চেয়েছেন। 

এর আগে গত ২০ মার্চ  রংপুর বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরাবরেও একই আবেদন করেছেন কাউন্সিলররা। স্ব স্ব কার্যালয়ে গিয়ে এই অভিযোগ জমা দিয়েছেন তারা।বেলা ১২ টায় শহরের ওয়াপদা মোড় এলাকায় ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র শাহীন হোসেনের অফিসে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন  করেন। এতে তিনি নিজে সভাপতিত্ব করে বক্তব্য রাখেন ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জোবায়দুর রহমান শাহীন, ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহীন আকতার, ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এরশাদ হোসেন পাপ্পু, ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল খালেক সাবু প্রমুখ। 

বক্তারা বলেন, মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবি,২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় পর থেকেই বেহায়াপনা চালচলন করতে থাকে।২০২৩ সালে তার আপত্তিকর ভিডিও যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর চলতি বছরেও একাধিক অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল হয় তার।পৌরসভার উন্নয়নে কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হলেও ২৫ ভাগ উন্নয়ন করেন নাই তিনি। নামে বেনামে তিনি প্রতিমানে ১৫ জনের বেতন উত্তোলন করে আত্মসাৎ করে চলেছেন।
মেয়রের এহেন কর্মকাণ্ডে তার পরিবারের সদস্যরা সম্প্রতি একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন এবং স্হানীয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মেয়রের সকল অশ্লীল কর্মকান্ড, ভিডিও ও দুর্নীতির তদন্ত সাপেক্ষে অপসারণ দাবী করেন তারা।  

অন্যান্য কাউন্সিলরদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্যানেল মেয়র-২ ও ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও উপজেলা আওয়ামী মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহানারা বেগম, ১৩, ১৪ ও ১৫ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রুবিনা সাকিল, ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর ইয়াসমিন পারভীন, ১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর ইয়াসমিন সুলতানা, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ হোসেন, ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মানিক, ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জোবায়দুল ইসলাম মিন্টু, ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মঞ্জুর আলম।

আরও খবর



সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম গোলচত্বরে পিকআপ উল্টে নিহত ১, আহত ১৫ জন

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪ | ৫৩জন দেখেছেন

Image
রাকিব সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম গোলচত্বর এলাকায় পিকআপ উল্টে এক যাত্রী নিহত হয়েছে, এঘটনায়  আহত হয়েছে ২ শিশুসহ আরো ১৫ জন। 

নিহত রেহেনা খাতুন লালমনিরহাট সদর উপজেলার দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার রাত ১২ টার দিকে ঢাকা থেকে লালমনিরহাট গামী একটি পিকআপ দ্রুত গতিতে এসে সেতুর পশ্চিম গোলচত্বর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলে একজন নিহত হয়। আহত হয় আরো ১৫ জন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে আহতদের উদ্ধার করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। 

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: রোকন উদ্দিন জানান সড়ক দুর্ঘটনা কবলিত ১৬ জনের মধ্যে একজন নিহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে এবং আহত ১৫ জনের মধ্যে  ৬ জনের অবস্থা আশঙ্কা জনক

পিক আপ উলটে দুর্ঘটনা কবলিত যাত্রীদের সকলেরই বাড়ি লালমনিরহাট সদর উপজেলায়। ঈদ উদযাপন করতে খোলা পিক আপে বাড়ি ফিরছিলেন তারা।

আরও খবর