Logo
আজঃ বুধবার ২২ মে ২০২৪
শিরোনাম

অপারেটরদের যাতাকলে পিষ্ট তানোরের কৃষকরা

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৩৬১জন দেখেছেন

Image
তানোর প্রতিনিধি: বরেন্দ্র অঞ্চল খরা প্রবন এলাকা রাজশাহীর তানোর উপজেলা। এউপজেলার জনসাধারনের উপার্জনের একমাত্র উপায় কৃষি ফসল উৎপাদন। রয়েছে সেচ ভূর্তুকির গভীর অগভীর নলকূপ।অপারেটর নিয়োগ আছে রাজনৈতিক বিবেচনায়। নিয়োগ পেতে লাগে নিম্মে ৫০-৮০ হাজার টাকা । আর এইসবের খরচের খড়গ পড়ে অসহায় কৃষকদের উপর। একারনে অপারেটরদের যাতাকলে পিষ্ট হচ্ছেন কৃষকরা। যদিও জমি কৃষকদের, কিন্তু রাজত্ব অপারেটরদের। বিশেষ করে আলু মৌসুমে প্রজেক্টে জমি লীজ দেয় অপারেটরেরা। অধিক টাকায় লীজ দিয়ে নামমাত্র টাকা কৃষককে দিয়ে অপারেটরেরা আত্মসাৎ করেন। অপারেটরেরা আলু মৌসুমে লাখ লাখ টাকা পকেটে ভরেন এমন অভিযোগ অহরহ। আবার এসব নিয়ে কৃষকরা প্রতিবাদ করলে সেচ দিবে না, ফসল মেরে ফেলবে। এভয়ে কেউ প্রতিবাদও করতে সাহস পায় না। ফলে কোনভাবেই অপারেটরদের কালো থাবা থেকে মুক্তি পাচ্ছেনা কৃষকরা। চরম অসহায় হয়ে পড়েছেন স্কীম ভুক্ত চাষীরা।

জানা গেছে, উপজেলায় বিএমডিএর আওতায় গভীর নলকূপ রয়েছে ৫৩৬ টি, ব্যক্তি মালিকানা ১৬ টি মোট ৫৫২ টি। অগভীর বিদ্যুৎ চালিত ৪১১ টি, ব্যাক্তি মালিকানা। অগভীর ডিজেল চালিত ৫০ টি। এলএলপি বিদ্যুৎ চালিত ৩ টি, এলএলপি ডিজেল চালিত ৩৫০টি। মোট ১ হাজার ৩৬৬ টি গভীর অগভীর সেচ পাম্প রয়েছে।

উপজেলায় আবাদ যোগ্য কৃষি জমি রয়েছে ২৩ হাজার ৯৯৩ হেক্টর, সেচের আওতায় ২২ হাজার ৩৩২ হেক্টর।সেচ বহির্ভুত জমি রয়েছে ১ হাজার ৬৬২ হেক্টর। এক ফসলী  জমি ৩৪৪ হেক্টর। দুই ফসলী ৪ হাজার ৫৪০ হেক্টর। তিন ফসলী ১৯ হাজার ১০৯ হেক্টর। নীট ফসলী জমি ২৩ হাজার ৯৯৩ হেক্টর,  মোট ফসলী জমি ৬৬ হাজার ৭৫১ হেক্টর।  নিবিড়তা ২৭৮%, ভূমি  ব্যবহার ৮২%। উচুঁ জমি ২০ হাজার  ৩৮৬ হেক্টর, মাঝারি উচুঁ জমি ১ হাজার ৫৭৮ হেক্টর, মাঝারি নিচুঁ জমি ১ হাজার ৫৫৩ হেক্টর, নিচু জমি ৪৭৬ হেক্টর জমি রয়েছে। 

খোজ নিয়ে জানা গেছে, বিশেষ করে গভীর নলকূপের অপারেটর নিয়োগ হয় রাজনৈতিক বিবেচনায়। যে যখন ক্ষমতায় গভীর নলকূপ নিয়ে চলে বেপরোয়া বানিজ্য। বর্তমানেও ক্ষমতাসীন দলের নিয়ন্ত্রনে গভীর নলকূপ। নিয়োগ পেতে লাগে কাড়িকাড়ি টাকা। আর এই টাকা তুলতে সেচ হার নির্ধারন হয় অপারেটরের ইচ্ছায়। যদিও সেচে প্রচুর ভূর্তুকি, এর তিল পরিমান সুবিধা পায় না কৃষকরা। যে সকল গভীর নলকূপের আওতায় আলুর প্রজেক্ট হয়, সে সব গভীর নলকূপের অপারেটরা কৃষকের জমি লীজ দিয়ে কাড়িকাড়ি টাকা হাতিয়ে নেয়।

কৃষকরা জানান, যে গভীর নলকূপের স্কীম ভুক্ত ১০০ বা ২০০ কিংবা ৩০০ বিঘা জমিতে আলুর প্রজেক্ট হয়। যিনি প্রজেক্ট করেন তাকে যোগাযোগ করতে হয় অপারেটরের সাথে। প্রতি বিঘা লীজ হয় ১৪ থেকে ১৫ হাজার টাকায়। কিন্তু কৃষককে ৫ হাজার টাকাও দেওয়া হয় না। প্রতিবাদ করলে ধান চাষ করতে পারবেন না। বিঘা প্রতি বোরো ধানে সেচ হার ৩ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকা করে নেওয়া হয়। আবার টান্সফর্মা কিংবা মটর বা ড্রেন এসব দোহায়ে আদায় করা হয়।  সমিতি বা কার্ড এর মাধ্যমে সেচ দেওয়া হলে খুবই কম খরচ হবে। এছাড়াও ব্যক্তি মালিকানা মটরে আরো বাড়তি সেচ হার আদায় করা হয়। এক কথায় যে ভাবে পার কৃষকদের  ধ্বংস কর।

এদিকে বানিজ্যিক লাইন নিয়ে বেপরোয়া সেচ বানিজ্য চলছে। মুন্ডুমালা, বাধাইড় ও কলমা এলাকায় গভীর নলকূপগুলো তিন ঘন্টার বেশি চালাতে পারেনা। দিনের দিন পানির লেয়ার নিচে নেমে যাওয়ার কারনে আরো বাড়তি সেচ হার আদায় করা হয়।

বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান জানান, গভীর নলকূপে প্রকার ভেদে ঘন্টাপ্রতি ১২৫-১৩০ ও ১৩৫ টাকা নির্ধারন করা হয়েছে। কোন অপারেটর বাড়তি সেচ হার নিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এজন্য কৃষকদের সচেতন হতে হবে। কারন সরকার সেচে ভূর্তুকি দিচ্ছে। আর কেউ বেশি নিবে তা বরদাস্ত করা হবে না।

আরও খবর



চট্টগ্রামে বিধ্বস্ত প্রশিক্ষণ বিমানের ১ পাইলট নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অসীম জাওয়াদ নামে এক পাইলট চট্টগ্রামে বিমান বাহিনীর প্রশিক্ষণ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় চিকিৎসা নিচ্ছেন আহত কো-পাইলট।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) দুপুর সাড় ১২টার দিকে পতেঙ্গার বানৌজা ঈসা খাঁ হাসপাতালে (নেভি হাসপাতাল) পাইলট জাওয়াদ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের উপকমিশনার (বন্দর) শাকিলা সোলতানা।

তিনি বলেন, ‘বিমান বাহিনীর বিধ্বস্ত প্রশিক্ষণ বিমানের পাইলট ও কো-পাইলট প্যারাসুট দিয়ে নেমে এলে তাদেরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বানৌজা ঈসা খাঁ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বেলা ১২টার দিকে তাদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অসীম জাওয়াদ নামে একজনের মৃত্যু হয়

এর আগে, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিমান বাহিনীর ওয়াইএকে১৩০ নামক যুদ্ধবিমানটি উড্ডয়নকালে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। এ সময় বিমানটির পেছন দিকে আগুন লেগে যায় এবং চট্টগ্রাম বোট ক্লাবের অদূরে কর্ণফুলী নদীতে আছড়ে পড়ে।


আরও খবর



মির্জাপুরে সন্ত্রাসী হামলায় আ.লীগ নেতাসহ আহত ৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৬৩জন দেখেছেন

Image

লুৎফর অরেঞ্জ মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা আ.লীগের সদস্য হাজী আবুল হোসেন (৫০), স্ত্রী জেসমিন আক্তার (৪৫) ও তার ছেলে ফুয়াদ হোসেন হৃদয়কে (২৭) আহত হয়েছে। সোমবার সকালে পৌর এলাকার পোষ্টকামুরী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। হাজী আবুল হোসেন পৌর এলাকার পোষ্টকামুরী গ্রামের মৃত কুমর উদ্দিনের ছেলে।

এই ঘটনায় হাজী আবুল হোসেনের স্ত্রী জেসমিন আক্তার বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে একটি দা ও লাঠি উদ্ধার করেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল আনুমানিক সাতটার দিকে ইসমাইল তার ঘরের ছাদের পানি আবুল হোসেনের ঘরের চালে দিচ্ছিলেন। আবুল হোসেনের স্ত্রী জেসমিন আক্তার নিষেধ করলে ইসমাইল তার স্ত্রী শিলা আক্তার ও মেয়ে জিম আক্তার দা ও লাঠি নিয়ে তার তাদের ওপর হামলা করে। তার আত্মচিৎকারে আবুল হোসেন ও ফুয়াদ হোসেন হৃদয় এগিয়ে গেলে তাদের ওপরও হামলা করে। এসময় ইসমাইল ধারালো দা দিয়ে আবুল হোসেন ও তার ছেলে ফোয়াদ হোসেন হৃদয়কে মাথার মধ্যে এলোপাথারি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। তাদের আত্মচিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে তাদেরকে উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করেন।খবর পেয়ে মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রামকৃষ্ণ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং আলামত হিসেবে রক্তমাখা দা ও লাঠি জব্দ করেছেন।

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। 


আরও খবর



যামিনীপাড়া ২৩ বিজিবি জোনের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:বর্ণিল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে খাগড়াছড়ি,র মাটিরাঙ্গা উপজেলার ২৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন যামিনীপাড়া জোনের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী  উদযাপন করা হয়েছে।

সোমবার (২২ এপ্রিল) ২৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন যামিনীপাড়া জোনের ৪৮তম  প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে  দুপুরে আমন্ত্রিত অতিথিরা একে একে উপস্থিত হয়ে যামিনীপাড়া জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো.আলমগীর কবির পিএসসির  হাতে ফুলের তোড়া ও উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

পরে আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে নিয়ে ২৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন যামিনীপাড়া জোনের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিন পূর্ব রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার অতিরিক্ত মহা-পরিচালক, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজেদুর রহমান, বিজিবিএম, 

 এসময় গুইমারা ২৪ আর্টিলারি ব্রিগেড এর  রিজিয়ন কমান্ডার,ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রাইসুল ইসলাম, এসপিপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি,বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ,
গুইমারা সেক্টর কমান্ডার,কর্নেল এস এম আবুল এহসান, পিবিজিএম, পিএসসি, খাগড়াছড়ি ডিজিএফআই ডেট কমান্ডার,কর্নেল আব্দুল্লাহ মো. আরিফ, এএফডব্লিউসি, পিএসসি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অন্যান্যের মাঝে মাটিরাঙ্গা জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো.কামরুল হাসান পিএসসি, খেদাছড়া ব্যাটালিয়ন ৪০ বিজিবি পলাশপুর জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফারাহ্ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, পিএসসি, মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো.রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডেজী চত্রুবর্তী সহ বিভিন্ন সামরিক, বেসামরিক পদস্থ কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান, শিক্ষক, সাংবাদিকবৃন্দ  উপস্থিত ছিলেন।

সন্ধ্যায় ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে  মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রধান অতিথি,র বক্তব্যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিন পূর্ব রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার অতিরিক্ত মহা-পরিচালক, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজেদুর রহমান, বিজিবিএম
এসময় তিনি বলেন, বিজিবি সদস্যরা সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি দুর্গম পাহাড়ে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় সরকারকে সহযোগিতা করছে। দেশকে এগিয়ে নিতে তাদের এ সহযোগিতা অব্যহত থাকবে।

আরও খবর



খাগড়াছড়িতে প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্টিভ্যাল উদ্বোধন করেন.পুলিশ সুপার মুক্তা ধর

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২০ মে ২০24 | ৬০জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়িতে বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল (বিপিআইসিসি) ও ইউ. এস. সয়াবিন এক্সপোর্ট কাউন্সিল এর উদ্যোগে ২দিন ব্যাপি প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুত্রুবার (৩ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন্স হাই স্কুল মাঠে বাংলাদেশ পোল্টি ইন্ডাষ্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল এর আয়োজনে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সহযোগিতায় ২দিন ব্যাপি প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্ট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন্স হাই স্কুল এর প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার নাথ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে বেলুন উড়িয়ে প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্টভ্যাল উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) 

স্বাগত বক্তব্য খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন্স হাই স্কুল প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার নাথ।এসময় বাংলাদেশ পোল্টি ইন্ডাষ্ট্রিজ সেন্টাল কাউন্সিল এর সেক্রেটারি (বিপিআইসিসি) দেবাশীষ নাগ, খাগড়াছড়ি জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ত্রুাইম এন্ড অপস) মো.জসীম উদ্দিন,  খাগড়াছড়ি জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম মোসলেম উদ্দিন, বাংলাদেশ পোল্টি ইন্ডাষ্ট্রিজ সেন্টাল কাউন্সিল এর গণমাধ্যম ও যোগাযোগ উপদেষ্টা মো.সাজ্জাদ হোসাইন  বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

খাগড়াছড়ি জেলার ৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮জন প্রধান শিক্ষক, প্রতিটি বিদ্যালয় থেকে ৪০জন করে  ৩২০ জন শিক্ষার্থী ২দিন ব্যাপি প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্টে অংশগ্রহন করেন।

অন্যান্যের মাঝে সহকারী পুলিশ সুপার সৈয়দ মুমিদ রায়হান, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো.মনিরুজ্জামান খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাবের সভাপতি চৌধুরী আতাউর রহমান রানা, সহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক,  সাংবাদিক, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা বারডেম হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধান ও প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ (মহুয়া),
প্রোটিন অলিম্পিয়াড ও স্কুল ফেস্টের বিস্তারিত আলোচনা করেন।

প্রধান অতিথি,র বক্তব্যে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) বলেন শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশের জন্য প্রোটিন  আমাদের শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। প্রোটিন না থাকলে আমাদের মেধা ও বুদ্ধি সমৃদ্ধ হবেনা। প্রোটিন আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে কাজ করে থাকে। আমাদের নখ, চুল ও শরীরের সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য প্রোটিন প্রয়োজন। এছাড়াও রোগ প্রতিরোধের জন্য প্রোটিন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। প্রত্যেককে দৈনিক কিংবা নিয়ম অনুযায়ী প্রোটিন খাওয়া জরুরি। 

আলোচনা সভার পরে শিক্ষার্থীদের কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

আরও খবর



১০ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১৫৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ রোগীদের মতোই লাইনে দাঁড়িয়ে ১০ টাকার টিকিট কেটে চোখ দেখালেন।

শুক্রবার (৩ মে) সকালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে যান প্রধানমন্ত্রী। তারপর লাইনে দাঁড়িয়ে নিজেই টিকেট সংগ্রহ করেন এবং চোখ পরীক্ষা করান।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ বি এম সারওয়ার ই আলম সরকার তা নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর