Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

ক্যানসার নিয়ে ফের হাসপাতালে সাবিনা ইয়াসমিন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ১৬১জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিনিধি:প্রায় ১৭ বছর পর গত বছর শেষের দিকে ফের মরণব্যাধি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের শরীরে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালের ন্যাশনাল ক্যানসার সেন্টারে।

সাবিনা ইয়াসমিনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত বছরের শেষের দিকে কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের শরীরে কিছু জটিলতা ধরা পড়ে। এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষায় নিশ্চিত হওয়া যায়, তার মুখগহ্বরে ফের ক্যানসারের সংক্রমণ ঘটেছে। পরে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে তাকে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়।

ইতোমধ্যে সাবিনা ইয়াসমিনের মুখের অভ্যন্তরে একটি সার্জারি হয়েছে। শিগগিরই থেরাপি দেওয়া শুরু হবে। পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া চাওয়া হয়েছে শিল্পীর জন্য।

এর আগে, ২০০৭ সালে প্রথম ওরাল ক্যানসারে আক্রান্ত হন কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন। তখন দেশে ও বিদেশে চিকিৎসা নিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসেন। এরপর থেকে নিয়মিত চেক-আপের মাধ্যমে ভালোই ছিলেন তিনি।

পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে সঙ্গীতের সঙ্গে আছেন সাবিনা ইয়াসমিন। চলচ্চিত্রে প্লেব্যাকের পাশাপাশি তিনি দেশাত্মবোধক গান কণ্ঠে তুলে সৃষ্টি করেছেন ইতিহাস।তিনি ১৪ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। সঙ্গীতে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে সর্বোচ্চ বেসামরিক রাষ্ট্রীয় সম্মাননা ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক রাষ্ট্রীয় সম্মাননা ‘একুশে পদক’ লাভ করেন সাবিনা ইয়াসমিন।

ছোট থেকেই সঙ্গীতের ভুবনে পদচারণা শুরু হলেও চলচ্চিত্রে পূর্ণ নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে সাবিনা ইয়াসমিনের আত্মপ্রকাশ ঘটে ১৯৬৭ সালে; ‘আগুন নিয়ে খেলা’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে। ১৯৭২ সালে ‘অবুঝ মন’ চলচ্চিত্রের ‘শুধু গান গেয়ে পরিচয়’ গানে কণ্ঠ দিয়ে তিনি প্রথম জনপ্রিয়তা লাভ করেন।

এই শিল্পীর উল্লেখযোগ্য গানগুলোর মধ্যে রয়েছে- ‘সব সখীরে পার করিতে’, ‘এই পৃথিবীর পরে’, ‘মন যদি ভেঙে যায়’, ‘ও আমার রসিয়া বন্ধুরে’, ‘জীবন মানেই যন্ত্রণা’, ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মা গো’, ‘সব ক’টা জানালা খুলে দাও না’, ‘ও আমার বাংলা মা’, ‘মাঝি নাও ছাড়িয়া দে’, ‘সুন্দর সুবর্ণ’, ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার’ প্রভৃতি।


আরও খবর



সি‌লেটের ছিনতাইকৃত আঙ্গুর মালামাল ছাতক থে‌কে উদ্ধার ক‌রে‌ছে পু‌লিশ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৭১জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি ছাতক সুনামগঞ্জ প্রতি‌নি‌ধি:সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের জালালাবাদ থানার তেমু‌খি এলাকা থে‌কে সি‌লেট সুনামগঞ্জ সড়কের পিক-আপ ভর্তি ৪ শত ৩৯ ক‌্যা‌রেট আঙ্গুর ফলের চালক-কে অস্ত্রের মু‌খে জি‌ন্মি ক‌রে ছাত্রলীগ প‌রিচয় দি‌য়ে ছিনতাইয়ে চাঞ্চল্যকর ঘটনায় সুনামগঞ্জ সি‌লেট শহর জু‌ড়েই ব‌্যাপক আলোড়ন সৃু‌ষ্টি হ‌য়ে‌ছে।

এ ঘটনার গত শ‌নিবার রাত সা‌ড়ে ১২ টায় গোপন সংবাদ পে‌য়ে সি‌লেট সুনাসগঞ্জ সড়‌কে গোবিন্দগঞ্জ এলাকার সি‌লেট জালালাবাদ থানার এ এস‌পি কামরুল ইসলাম ও ও‌সি মিজানুর রহমা‌নের নেতৃ‌ত্বে গো‌বিন্দগঞ্জ ট্রা‌ফিক মতলিবের গোদামে সাড়াশি অভিযান চালানো হয়। 

এ সময় তার গোদাম থে‌কে  ছিনতাইকৃত দুই শত ২৭ ক‌্যা‌রেট আঙ্গুর ফল মালামাল উদ্ধার ক‌রে‌ছে পু‌লিশ। পু‌লিশ টের পে‌য়ে আড়ৎদার মত‌লিব গোদাম ছে‌ড়ে পা‌লি‌য়ে যায়।

পু‌লিশ জানায়, মতলিব ও সোহেল ও তেমুখি থেকে রাজা নামের এক লোকের কাছ থেকে নিয়ে আসেন গো‌বিন্দগঞ্জ এলাকার । এসময় চালক ছিল মাহিন তার বাড়ী বিশ্বনা‌থে থানার লামাকাজী এলাকায়।

এ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্প‌তিবার রা‌তে  জালালাবাদ থানাধীন সি‌লেট সুনামগঞ্জ সড়‌কের

তেমুখী এলাকা থেকে  ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘ‌টে। এ সময় ছিনতাইকৃত ২শত ২৭  ক‌্যা‌রেট আঙ্গুর  উদ্ধার কর‌লে ও ঘটনার স‌ঙ্গে জড়িতদের কাউকে গ্রেপ্তার কর‌তে পা‌রে‌নি পু‌লিশ। এ ঘটনায় ছিনতাইয়ের শিকার পিক-আপের চালকরা । এ ঘটনায় ১০/১২ জনকে আসামি করে জালালাবাদ থানায় একখানা লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।

ছাতক থে‌কে কাচা মালামাল ভর্তি গাড়ি সি‌লেট সুনামগঞ্জ সড়‌কের  বিভিন্ন স্থানে গা‌ড়ি আট‌কি‌য়ে ছাত্রলীগ নামধারী সি‌ন্ডি‌কেট প্রায় সময়ই চালক-কে মারধর করে গাড়ি থেকে দফায় দফায় মালামাল ছিনতাইয়ের একা‌ধিক চাদাবা‌জির ঘটনা ঘটেছে।

সরকার দলীয় স্থানীয় পর্যায়ের কিছু কতিপয় নেতাকর্মী এ সমস্ত ঘটনায় জড়িত। তবে তাদের শেল্টারদাতা হিসেবে নেপথ্যে রয়েছেন এই দলের কিছু ‘রাঘব বোয়াল’ এমনকি এই তালিকায় বাদ যাননি হাতে গোনা কয়েকজন জনপ্রতিনিধিও।

ট্রাক, পিকআপ, কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের স্থানীয় পর্যায়ের শ্রমিক নেতাদের অভিযোগ- এরকম ঘটনা আজ নতুন নয়। দিনের আলো শেষে অন্ধকার নেমে আসলেই ছাত্রলীগ প‌রিচয় দি‌য়ে এক‌টি সি‌ন্ডি‌কেট চত্রু সড়‌কে ব‌সে থা‌কে।

এব‌্যাপা‌রে জালালাবাদ থানার ও‌সি মিজানুর রহমান মিজান এঘটনার সত‌্যতা নি‌শ্চিত ব‌লেন, তদন্তক্রমে ঘটনার সাথে জড়িত কয়েকজন ছিনতাইকারীর পরিচয় সনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ এবং তাদের গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চল‌ছে।


আরও খবর



অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে প্রথমবারের মতো ম্যাগনেটিক চার্জিং প্রযুক্তি আনল ইনফিনিক্স

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ মার্চ 20২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ১৫৯জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স তাদের নতুন স্মার্টফোন লাইনআপে যুক্ত করেছে যুগান্তকারী নতুন ফিচার ‘ম্যাগচার্জ’। সম্প্রতি মালয়েশিয়ার এফ-ওয়ান ইন্টারন্যাশনাল সার্কিটে অনুষ্ঠিত এক বৈশ্বিক আয়োজনে নতুন নোট ৪০ সিরিজ লঞ্চ করে ব্র্যান্ডটি। সেই আয়োজনেই অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ম্যাগনেটিক চার্জিং ফিচারের যাত্রা শুরুর কথা জানায় ইনফিনিক্স।

ম্যাগচার্জ-এর মতো চার্জিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বাজারে এই প্রথম। ফলে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে  অভাবনীয় পরিবর্তন নিয়ে আসবে এই চার্জিং প্রযুক্তি। ম্যাগনেটিক চার্জিংয়ের সুবিধাজনক ব্যবহার নিশ্চিত করতে নোট ৪০ সিরিজের সাথে আছে ইনফিনিক্সের ম্যাগকিট। এই কিটে ফোনের ব্যাককাভার হিসেবে দেওয়া হয়েছে ম্যাগকেস। সাথে আরও আছে ম্যাগনেটিক চার্জিং প্যাড ম্যাগপ্যাড এবং ম্যাগনেটিক পাওয়ার ব্যাংক ম্যাগপাওয়ার।

ইনফিনিক্সের নতুন নোট ৪০ সিরিজের নোট ৪০, নোট ৪০ প্রো, নোট ৪০ প্রো ৫জি এবং অত্যাধুনিক নোট ৪০ প্রো+ ৫জি স্মার্টফোনগুলোতে পাওয়া যাবে এই ম্যাগচার্জ ফিচারটি। এবারের এই সিরিজটিতে দেওয়া হয়েছে ইনফিনিক্সের অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ ২.০ প্রযুক্তি, ১০০ ওয়াট পর্যন্ত মাল্টি-স্পিড ফাস্টচার্জ, এবং ২০ ওয়াটের ওয়্যারলেস ম্যাগচার্জ। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের চার্জিং মোড ব্যবহার করতে একটি কাস্টম চিপ দেওয়া হয়েছে এই সিরিজের ফোনগুলোতে।

উন্নত ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতার জন্য নোট ৪০ সিরিজে আছে ১২০ হার্জের প্রাণবন্ত থ্রিডি-কার্ভড অ্যামোলেড ডিসপ্লে। প্রধান ক্যামেরা হিসেবে সিরিজটিতে আছে ওআইএস সাপোর্টসহ শক্তিশালী ১০৮ মেগাপিক্সেলের সুপার-জুম ক্যামেরা সিস্টেম। এছাড়াও ফোনের পেছনের অংশ থেকে বিশেষ ধরনের লাইটিংয়ের জন্য এতে  যুক্ত করা হয়েছে অ্যাকটিভ হ্যালো লাইটিংয়ের মতো এআই প্রযুক্তি।

ইনফিনিক্সের নতুন এই স্মার্টফোন সিরিজ নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রোডাক্ট ডিরেক্টর উইকি নিইয়ে বলেন, “ইনফিনিক্স নোট ৪০ সিরিজ বাজারে আনার মাধ্যমে চার্জিং প্রযুক্তিতে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে। চার্জিংয়ের অভিজ্ঞতাকেই বদলে দেবে এই সিরিজ। এছাড়াও, আমাদের নিজস্ব চিপ চিতা এক্স১ এর মাধ্যমে নতুন যুগে প্রবেশ করেছে অলরাউন্ড ফাস্টচার্জ। এখন এতে আছে মাল্টি-স্পিড চার্জিং এবং এক্সট্রিম টেম্পারেচার চার্জিংয়ের মতো ফিচার।”

তিনি আরও বলেন, “আমাদের উদ্ভাবনী ম্যাগচার্জ অ্যাক্সেসরি কিট ফোন ব্যবহারকারীদের দেবে নিরবচ্ছিন্ন চার্জিং ইকোসিস্টেম। এসব অগ্রগতির ফলে ব্যবহারকারীরা সারাদিন, যেকোনো পরিস্থিতি ও আবহাওয়ায় পাওয়ারড-আপ থাকতে পারবেন।”

গত বছর অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ প্রযুক্তিসহ নোট ৩০ সিরিজ বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে আসে ইনফিনিক্স। এই সিরিজটিতে আছে ৬৮ ওয়াটের ওয়্যারড চার্জিং এং ১৫ ওয়াটের ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি। এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ সময়ে মাদারবোর্ডে সরাসরি চার্জ নেওয়ার জন্য এতে আছে বাইপাস চার্জিং এবং আইফোন সেভার হিসেবে পরিচিত ওয়্যারলেস রিভার্স চার্জিং প্রযুক্তি।

চার্জিং, লুক ও পারফরম্যান্সে অভূতপূর্ব আপডেট নিয়ে এখন বাংলাদেশের বাজারে আসার অপেক্ষায় আছে নোট ৪০ সিরিজ। নতুন এই নোট সিরিজের জন্য শুরু হয়ে গেছে প্রি-বুকিংও।


আরও খবর



নিপীড়নের শিকার হন এদেশে নিরপরাধ মানুষরাই: মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আইনের শাসনহীন এদেশে নিরপরাধ মানুষরাই সরকারি নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন।

তিনি বলেন, ৭ জানুয়ারির ডামি নির্বাচনের পর সরকার আরও বেশি বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তবে এ শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতির অবসান ঘটাতে জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন-সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়তে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

শুক্রবার (২২ মার্চ) এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

দলটির নির্বাহী কমিটির সদস্য, শেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মাহমুদুল হক রুবেলসহ দলের ২২ নেতাকর্মীর জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানোয় বিবৃতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব।

ফখরুল বলেন, ৭ জানুয়ারির আওয়ামী ডামি সরকার তাদের অনৈতিক ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করতে সারাদেশে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর যে জুলুম চালাচ্ছে, সেটির আরও একটি কু-নজির স্থাপিত হলো মাহমুদুল হক রুবেলসহ ২২ জন নেতাকর্মীর জামিন নামঞ্জুর ও কারাগারের পাঠানোর মধ্য দিয়ে।

তিনি বলেন, রোজার প্রাক্কালে বিদ্যুৎ, গ্যাস, জ্বালানি, সুপেয় পানিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির লাগামহীন চড়ামূল্যে যখন মানুষ চোখে অন্ধকার দেখছে, তখন অবৈধ আওয়ামী সরকার বিএনপিসহ বিরোধী দলের শীর্ষ নেতা ও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে নিত্য নতুন মিথ্যা মামলায় আটক এবং জামিন নামঞ্জুরের মাধ্যমে কারান্তরীণের হিড়িক অব্যাহত রেখেছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে জনজীবনে নেমে এসেছে দুর্বিষহ সংকট। ক্ষমতাসীনদের দৌরাত্ম্য ও দাপটে মানুষ চরম উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। তাই সব অপকর্মকে আড়াল করতেই ডামি সরকার নতুন করে সরকারি জুলুমের মাত্রা বৃদ্ধি করেছে।

অপরাধ না করেও মিথ্যা মামলায় আসামি হওয়া এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।


আরও খবর



ভূমিহীন হতদরিদ্র পরিবারের বাড়িঘর অধিগ্রহণ না করে পার্শ্ববর্তী নালজমি অধিগ্রহণ করার দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলায় ছোট বুইছাকাঠি মৌজায় সাড়ে ৪২ শতাংশ ভূমি নাজিরপুর টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট স্থাপনের জন্য অধিক গ্রহণের আওতায় পড়ে। ওই জমিতে বসবাসকারী হতদরিদ্র পরিবারগুলো তাদের বাড়িঘর অধিগ্রহণ না করে পাশের নাল জমি অধিগ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। এই দাবিতে বস্ত্র অধিদপ্তর বরাবর লিখিত আবেদনও করেছেন ভুক্তভোগী পরিবারগুলো। ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর দাবি এসব জমি ছাড়া তাদের মাথা গোজার অন্য কোথাও কোন ঠাঁই নেই। এসব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষগুলো দিশেহারা হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বস্ত্র অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ সচিবালয়ে লিখিত আবেদনের পাশাপাশি হাইকোর্টেও আবেদন করেন। উচ্চ আদালত থেকে দুই মাসের মধ্যে এসব ভুক্তভোগীদের ঘরবাড়ি অধিগ্রহণ থেকে অব্যাহতি প্রদান করে পাশের নাল জমি অধিগ্রহণ করে আদালতকে অবহিত করার নির্দেশ প্রদান করে। কিন্তু স্থানীয় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা আদালতের নির্দেশ আমলে না নিয়ে পূর্ব অবস্থা বজায় রেখেছেন। এই কারণে ভুক্তভোগী পরিবার গুলোর পক্ষে পরিচ্ছন্ন কর্মী মোসাম্মৎ বিউটি বেগম, একই এলাকার রফিক খান, আব্দুল জলিল, আলেয়া বেগম এই লিখিত আবেদন বস্ত্র অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর দাখিল করেন। ভুক্তভোগী পরিবার গুলোর দাবি এই জমি থেকে তাদেরকে অধিগ্রহণের মাধ্যমে উচ্ছেদ করা হলে তাদের মাথা বোঝার কোন থাই থাকবে না। তাই বিষয়টি মানবিক বিবেচনার অনুরোধ জানান ভুক্তভোগী পরিবারগুলো। স্থানীয় জেলা প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ঘুরে ও কুল কিনারা না হওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই বিষয়ে হস্তক্ষেপের আবেদন জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারগুলো। জাতীয় প্রেসক্লাবে এই বিষয়ে একটি মানববন্ধনেরও আয়োজন করেন তারা।


আরও খবর



মাগুরায় চোরাই মটর সাইকেল ও চোরাই মালামাল উদ্ধার ৩ চোর আটক

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরায় অভিযান চালিয়ে  চোরাই মটর সাইকেলসহ  ৩ চোরকে আটক করেছে মাগুরা থানা পুলিশ।

মাগুরা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ কলিমুল্লাহ এক প্রেস রিলিজে জানান, ২৮ শে মার্চ বৃহস্পতিবার মাগুরা সদর থানা এলাকায় মাদক উদ্ধার ও চুরি প্রতিরোধে অভিযান পরিচালনা করা কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাগুরা সদর থানার ইছাখাদা গ্রাম থেকে চোরাই মোটর সাইকেল ক্রয় বিক্রয় করাকালে মোঃ কদর মোল্যা (২৪), পিতা-মোঃ জাহাঙ্গীর মোল্যা, সাং-ইছাখাদা, থানা-মাগুরাকে গ্রেফতার করা হয় এবং আসামীর নিকট থেকে চোরাই  এ্যাপাচি  ১৫০ সিসি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়।  গ্রেফতারকৃত আসামীর স্বীকারোক্তি মতে চুরির সাথে জড়িত আসামী  মোঃ ইলিয়াস হোসেন (৪২), পিতা- জয়েন উদ্দিন ওরফে জয়নাল, সাং-মৌলি, থানা-মহম্মদপুর, জেলা-মাগুরাকে মহম্মদপুর থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে চোরাইকৃত আর  ১৫০ সিসি মোটর সাইকেল উদ্ধার  করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের স্বীকারোক্তি ও তথ্যের ভিত্তিতে সংঘবদ্ধ চোর এবং চোরাই মালামাল ক্রয়-বিক্রয় চক্রের অন্যতম সদস্য মোঃ হাসু খান (৪০), পিতা-মোঃ গোলাপ খান, সাং-খানপাড়া, থানা-মাগুরা সদর, থানা-মাগুরাকে  পৌর এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। আসামীরা মাগুরা জেলার বিভিন্ন স্থানসহ আশপাশ জেলা হতে মোটর সাইকেল চুরি করে। নারায়নগঞ্জ/নরসিংদীসহ বিভিন্ন জেলার চোরদের সাথে আসামীদের যোগাযোগ রয়েছে। চুরি এবং চোরাই মোটর সাইকেল ক্রয় বিক্রয় করার ক্ষেত্রে তাদের সাথে একত্রে কাজ করে বলে জানা যায়। আসামীরা সংঘবদ্ধ চোর এবং  চোরাই মালামাল ক্রয়-বিক্রয় চক্রের সক্রিয় সদস্য। এ ঘটনায় ঘটনায় আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।


আরও খবর