Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

আত্রাইয়ে শীতকালীন সবজি চাষে ব্যস্ত কৃষক

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩১৭জন দেখেছেন

Image

আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি:ঋতু বৈচিত্রে এখন রাতের শেষে কুয়াশা জানান দিচ্ছে শীতের আগমন বার্তা। এ বার্তার সাথে সাথে উত্তর জনপদের শষ্য ভান্ডার খ্যাত নওগাঁর আত্রাই উপজেলার প্রতিটি মাঠ জুড়ে এখন শীতকালীন সবজি চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকেরা। উপজেলার প্রতিটি মাঠে এখন সবুজের হাতছানি। যেদিকে চোখ যায় শুধু সবুজ আর সবুজ। এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় জমিতে শীতকালীন বিভিন্ন জাতের সবজির চারা রোপণ ও পরিচর্যায় কৃষক পরিবারগুলোতে ব্যস্ততা বেড়েছে। ক্ষেতগুলো এখন কৃষকদের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠেছে।

পুবালি বাতাস, শিশির ভেজা কাক ডাকা ভোরে ঘুম থেকে উঠে কৃষকেরা জমিতে হাল চাষ, চারা রোপণ, ক্ষেতে পানি ও ক্ষেতের আগাছা পরিষ্কার করাসহ নানা কাজে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। শুধু নিজেদের চাহিদাই নয়, বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে এসব সবজি। শীতের শুরুতে নওগাঁ সদরসহ পার্শ্ববর্তী জেলা গুলোতে বিভিন্ন জাতের সবজি পাঠাবে এ উপজেলার কৃষকরা। সবুজে সবুজে ভরে উঠছে উপজেলার প্রতিটি ফসলের মাঠ। বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে এখন শোভা পাচ্ছে সারি সারি সীম গাছের ডগা, শোভা পাচ্ছে ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাউ, শিম, বেগুন, মুলা, করলা, পটল, পালং ও লাল শাকসহ রকমারি শীতকালীন সবজির চারা। তাই মাঠে মাঠে এসব ফসল পরিচর্যায় এখন ব্যস্ত কৃষকরা। কাক ডাকা ভোরে কোদাল, নিড়ানী, বালতি, স্প্রে মশিন ইত্যাদি নিয়ে বেরিয়ে পড়ছে এখন কৃষকরা। ক্ষেতে নেমে পড়েন সবজি পরিচর্যায়। বিকেল অবধি মাঠেই চারার গোড়ায় পানি ঢেলেই ফিরছেন সবাই বাড়ি। তাদের কেউ দাঁড়িয়ে কোদাল চালাচ্ছেন, অনেকেই গাছের গোঁড়ালির পাশ দিয়ে ঘোরাচ্ছেন নিড়ানী, কেউবা খালি হাতেই গাছগুলো ঠিক করছেন।

কেউ বা নুয়ে পড়া চারার স্থলে সতেজ চারা প্রতিস্থাপন করছেন, এভাবে শীতকালীন সবজি নিয়ে চলছে কৃষকের কর্মযজ্ঞ। বেড়েই চলছে কৃষকদের কাজের চাপ। ধান চাষে তেমন একটা সুবিধা করতে পারছেন না অনেক কৃষক। কোনোভাবেই লোকসান ঠেকাতে পারছেন না তারা। তাই রকমারি সবজি চাষে ঝুঁকে পড়েছেন উপজেলার অনেক কৃষক। উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের কৃষক সাজ্জাদ হোসেন ও তারাটিয়া গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম ও মির্জাপুর গ্রামের কৃষক শ্রী নেপাল বলেন, সবজি চাষের জন্য খুব বেশি জমির প্রয়োজন হয় না। তুলনামূলকভাবে মূলধনও কম লাগে। পরিশ্রমও তুলনামূলক কম। তবে সেবা ক্রটি করা যাবে না।

কিন্তু রোগবালাই দমনে সবজি ক্ষেতে কীটনাশক বেশি প্রয়োগ করতে হয়। স্বল্প সময়েই সবজি বিক্রি উপযোগী হয়ে ওঠে। প্রায় প্রতিদিনই বাজারে সবজি বিক্রি করা যায়। পরিবারের চাহিদাও মেটানো সম্ভব হয়। ক্ষেতে সবজি থাকা পর্যন্ত প্রত্যেক কৃষকের হাতে কমবেশি টাকা থাকে। যা অন্য ফসলের বেলায় সম্ভব না। এছাড়া চলতি মৌসুমে সবজির দামও বেশ ভালো। সবমিলিয়ে সবজি চাষকেই এসব কৃষকরা লাভজনক মনে করছেন। এ বিষয়ে উপজেলার তারাটিয়া ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মো. জাহিদ হাসান বলেন, সবজির কদর সারাদেশেই রয়েছে। তবে তা আগাম চাষ করতে পারলে আরও বেশি মুনাফা পাওয়া যায়। আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করলে কীটনাশকমুক্ত সবজি চাষ করা সম্ভব।

উপজেলার ভবানীপুর ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মার্জিয়া পারভিন বলেন, শীতকালীন সবজি চাষে কৃষকরা যাতে লাভবান হতে পারেন এবং কৃষকরা যেন সবজি চাষে কোনো প্রকার সমস্যায় না পড়েন এ জন্য আমরা সার্বক্ষণিক নজর রাখছি। যেখানেই সমস্যা সেখানেই আমাদের উপস্থিতি এবং সমস্যা সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, সবজি ক্ষেতে পোকামাকড় আক্রমণ করবেই। সেজন্য কীটনাশক ব্যবহার না করেই আধুনিক বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করে পোকামাকড় দমন করা সম্ভব।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ তাপশ কুমার রায় বলেন, কৃষকদের সবজি চাষে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দিয়ে সহায়তা করছেন কৃষি কর্মকর্তারা। বর্তমানে সীম, বেগুন, লালশাক, মুলা শাক, ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো এর আবাদ চলছে বলে তিনি জানান। সবজি চাষে যুক্ত উপজেলার কৃষকরা এবার বেশ উৎফুল্ল। কারণ তারা প্রাকৃতিক অনুকূল পরিবেশের জন্য এবার উৎপাদিত ফসলের ফলন ও দাম বেশ ভালো পাবেন বলে তিনি মনে করছেন। কৃষি বিভাগের লোকজনের নিয়মিত মনিটরিংয়ে আধুনিক পদ্ধতির ব্যবহার বেড়েছে। আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহারের ফলে উৎপাদন বাড়ায় কৃষকদের মুনাফাও বেড়েছে কয়েকগুণ। চাষিরা এখন বাণিজ্যিকভাবে বিভিন্ন জাতের সবজি চাষাবাদ করে দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক অবদান রাখছে বলেও জানান।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সরকারি-বেসরকারি মাদরাসা পুরো রমজান মাস বন্ধ থাকবে

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পবিত্র রমজান মাসে স্কুল-কলেজ ১৫ দিন এবং প্রাথমিক স্কুল ১০ দিন খোলা থাকলেও পুরো মাস বন্ধ থাকবে সরকারি-বেসরকারি মাদরাসা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশোধিত শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী পুরো রমজান মাস বন্ধ থাকবে সরকারি ও বেসরকারি (স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী, দাখিল, আলিম, ফাজিল ও কামিল) মাদরাসা।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের উপসচিব হাসিনা আক্তার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে ২০২৪ শিক্ষাবর্ষের সংশোধিত ছুটির তালিকা ও শিক্ষাপঞ্জি প্রকাশ করা হয়।

মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়ে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শাহীনুর ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনটি প্রকাশ করা হয়।

বলা হয়, আসন্ন রমজানে সরকারি-বেসরকারি মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সরকারি ও বেসরকারি কলেজগুলোতেও শ্রেণি কার্যক্রম সচল রাখার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। তবে পুরো রমজান ছুটি পাচ্ছেন মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। প্রজ্ঞাপনে ৭ মার্চ থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত টানা ৩০ দিন ছুটির কথা উল্লেখ রয়েছে। সে অনুযায়ী পুরো রমজান মাস ছুটি পাচ্ছেন তারা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার শিক্ষা ও প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আসন্ন রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আংশিক খোলা থাকবে। এর মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ে স্কুল-কলেজ ও সরকারি-বেসরকারি উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ের কলেজগুলো রমজানের প্রথম ১৫ দিন এবং প্রাথমিক পর্যায়ের স্কুল রমজানের প্রথম ১০ দিন খোলা থাকবে।


আরও খবর



মির্জাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় দাখিল পরীক্ষার্থী নিহত, বাবা আহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image

লুৎফর অরেঞ্জ মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার পোস্টকামরি চরপাড়া নামক স্থানে ঢাকা টাঙ্গাইল মেইন রোডে পিকআপ ভ্যানের নিচে পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী হাফেজ রায়হান মিয়া (১৭) নামে এক দাখিল পরীক্ষার্থী নিহত হয়েছে। মোটরসাইকেলের চালক নিহতের বাবা স্কুল শিক্ষক হাবিবুর রহমান (৫০) কে গুরুতর আহত অবস্থায় মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের বাড়ি মির্জাপুর উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে। নিহত রায়হান মির্জাপুর আফাজ উদ্দিন দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার ছাত্র। ২২ ফেব্রুয়ারি মির্জাপুর সদরে পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় সকাল ৮ টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, প্রথমে একটি অটো রিক্সা মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে আরোহীরা ছিটকে পড়ে যায়। তখন পিছন থেকে আসা গরু বোঝাই একটি পিকআপ ভ্যান রায়হানকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।

মির্জাপুর থানা পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন বলেন, নিহতের লাশ আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবার এবং গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দ্বাদশ জাতীয় সংসদ: প্রথম দিনের অধিবেশনে যাননি সাকিব-মাশরাফী

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সাকিব আল হাসান ও মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা, দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের প্রথম দিনে যোগ দেননি দুই ক্রিকটার এমপি। মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) তারা প্রথম অধিবেশনের প্রথম দিনে অংশ না নিয়ে সিলেটে বিপিএল খেলেছেন।

মাশরাফী দ্বিতীয়বার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হলেও সাকিবের এমপি হিসেবে এটাই ছিল প্রথম। মাশরাফী আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে দ্বিতীয়বার নড়াইল-২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের পাঁচজন হুইপের একজন হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

আর সাকিব আল হাসান আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে মাগুরা-১ থেকে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার সিলেট স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম খেলায় অংশ নেয় সাকিব আল হাসানের রংপুর রাইডার্স। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে নুরুল হাসানের নেতৃত্বে ম্যাচটি তারা ৮ রানে জিতেছে। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মা ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে মাশরাফী খেলছেন সিলেট স্ট্রাইকার্সের হয়ে।


আরও খবর



স্ত্রীসহ পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালকের ‘রহস্য জনক’ মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৬জন দেখেছেন

Image

শফিক আহমেদ;সৈয়দ নজমুল আহসান ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ বিনতে আলম। সৈয়দ নজমুল আহসান ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ বিনতে আলম। ঢাকা পরিবেশ অধিদপ্তরের (ঢাকা অঞ্চল) পরিচালক সৈয়দ নজমুল আহসান (৫৬) ও তাঁর স্ত্রী নাহিদ বিনতে আলমের (৪৮) ‘রহস্যজনক’ মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ বলছে, ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে মৃত্যুর আসল কারণ। 

গতকাল বুধবার বিকেলে শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে মারা যান সৈয়দ নজমুল আহসান। আর আজ বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) মারা যান তাঁর স্ত্রী নাহিদ।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. কামরুজ্জামান আজ বৃহস্পতিবার স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তাঁরা কীভাবে মারা গেছেন তা সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেননি। 

কামরুজ্জামান বলেন, ‘গতকাল বুধবার মিরপুর-২ অফিসার্স কমপ্লেক্সে বাসায় স্বামী-স্ত্রী উভয় অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে পরিবারের সদস্যরা নজমুল আহসানকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। একই সময় অসুস্থ হওয়া স্ত্রী নাহিদ বিনতে আলম আজ বিএসএমএমইউতে মারা যান। মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের মর্গে রাখা হয়েছে।’

তাঁদের কী কারণে মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে জানা যাবে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। 

এ বিষয়ে নিহতদের পরিবারের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তাঁরা কোনো কথা বলেননি। জানা গেছে, এই দম্পতির দুই মেয়ে। একজনের বয়স ১২ আরেক জনের বয়স ১৫।

 -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সব সময় অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ, কালিয়াকৈর:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ১৭ কোটি মানুষের দেশ। কাজেই এই মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা, আর্থসামাজিক উন্নতি করা এবং তাদের নিরাপত্তা বিধান করা এটাই আমাদের কাজ। সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, মাদক এর হাত থেকে আমরা দেশকে রক্ষা করতে চাই। দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান সব সময় অব্যাহত থাকবে। কাজেই সেদিকে লক্ষ রেখেই আমাদের আনসার বাহিনীর ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে যাচ্ছেন এবং আগামীতেও করে যাবেন। তিনি সোমবার সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর আনসার ভিডিপি একাডেমিতে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৪৪তম জাতীয় সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সম্মৃদ্ধ খুধা দারিদ্র মুক্ত স্মার্ট সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবের স্বপ্ন আমরা পুরণ করবো। সেই সাথে সাথে ডেটা প্লান্ট ২ হাজার ১০০ তৈরি করে দিয়েছি। জলবায়ু অধিকার থেকে এই বদ্বীপ যাতে রক্ষা পায় প্রতি অঞ্চল অথ্যাৎ গ্রাম পর্যায় মানুষ যেন সুরক্ষিত থাকে, উন্নত জীবন পায় এবং প্রত্যেকে যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে। বিশেষ করে আমাদের তরুণ সমাজ তারাই হবে স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক স্মার্ট সৈনিক।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, আমাদের দেশ এগিয়ে যাক। আজকে আমরা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিয়েছি, অবকাঠামোগত উন্নয়ন করেছি। সবচেয়ে বড় কথা হলো সাধারন মানুষের মধ্যে একটা আত্ববিশ^াস গড়ে উঠেছে। যেটা আমার একমাত্র লক্ষ্য ছিল। আত্ব বিশ^াস ছাড়া কোনো জাতি এগিয়ে যেতে পারে না। আর সেটা আমরা আজকে করতে পেরেছি। যেকোনো অবস্থার মোকাবেলা করার মতো আমাদের সেই সক্ষমতা আছে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যেকটা গ্রামকে আমরা নিরাপদ করতে চাই। আমাদের গ্রামগুলোও স্মার্ট গ্রাম হিসেবে গড়ে উঠবে। সেখানে কোনো মানুষ দারিদ্র থাকবে না, কোনো মানুষ ভূমিহীন থাকবে না, গৃহহীন থাকবে না। আমি ইতিমধ্যেই ভূমিহীন-গৃহনীন মানুষকে ঘর করে দিয়েছি। আমরা সেভাবে প্রত্যেকটা মানুষের জীবনযাপন উদযাপন এবং সুন্দরভাবে এগিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করবো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের জাতীয় যেকোনো প্রয়োজনে আনসার বাহিনীকে আহবান করা হয় এবং তারা দায়িত্ব পালন করে। এখন বিভিন্ন দূতাবাস থেকে শুরু করে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় এ বাহিনী অত্যান্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। সবচেয়ে বড় কথা হলো, যখন সেই ২০১৩ সাল, ২০১৪ সাল ও ২০২৩ সালেও অগ্নিসংস্ত্রাস, রেলে আগুন, রেললাইন কেটে ফেলে দেওয়া, মানুষকে হত্যা করাসহ বিএনপি জামায়াত জোট যে ধংবসাংক্তক কাজ করেছিল। সেখান থেকেও এ বাহিনী অত্যান্ত দক্ষতার সাথে রক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক ত্যাগের বিনিময়ে আমরা আমাদের স্বাধীনতা পেয়েছি। ১৯৭১ সালে ২৬শে মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা ঘোষণা দেন। তারপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর মজিবনগরে স্বাধীন গণপ্রজান্ত্রী বাংলাদেশ সরকার গঠন করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানকে রাষ্ট্রপতি, সৈয়দ নজরুল ইসলামকে মূখ্য রাষ্ট্রপতি ও তাজউদ্দিন আহমদ ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সময় আজকের যেটা মেহেরপুর সেখানে এই সরকার প্রথম শপথ গ্রহণ করে। আনসার বাহিনীর সদস্যরাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। জাতির পিতার ডাকে সারা দিয়ে হাজার হাজার আনসার বাহিনী তাদের হাতে যা কিছু ছিল সব নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন।

তিনি বলেন, প্রায় ৬১ লক্ষ সদস্য বিশিষ্ট আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহনীতে দুটি মহিলা ব্যাটালিয়ন একটি বিশেয়িত আনসার গ্রাম ব্যাটালিয়ন ৪২টি ব্যাটালিয়ন রয়েছে। এখানে ১৬টি ব্যাটালিয়ন সদস্যরা পার্বতী এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা উত্তরণে সেনাবাহিনীর সঙ্গে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় কত কষ্ট পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এখানে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেকেই আহত হয়েছেন অথবা শহীদ হয়েছেন। আমি তাদের কথাও স্বরণ করি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যখন ১৯৯৬ সাল থেকে সরকারে এসেছি তখন থেকে আনসার বাহিনীর উন্নয়নের বিভিন্ন প্রদক্ষেপ নিয়েছি। আজকে এ বাহিনী শুধু দেশে নয় বিদেশে সব জায়গায় সুনাম অর্জন করে যাচ্ছে। এ বাহিনী গ্রাম পর্যায়েও কাজ করে থাকেন। আমরা গ্রাম উন্নয়নেও বিভিন্ন প্রদক্ষেপ নিয়েছি। আমার গ্রাম আমার শহর, আমার বাড়ি আমার খামারসহ বিভিন্ন কর্মসূচী প্রতিটি ক্ষেত্রে আনসার বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন কার্যক্রলাপ পরিচালনা করে যাচ্ছেন। তাছাড়া দুর্যোগ ও বিপাকে আনসার বাহিনী নেমে আসে এবং সহযোগিতা করে। কখনো ঝড়, বন্যা, ঘুর্ণিঝড়সহ যেকোনো দুর্যোগ প্রবল ঘটনা ঘটলে এ বাহিনী অত্যান্ত আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যান।

আনসার বাহিনীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে আমরা পুরাতন আইন পরিবর্তন করে নতুন আইন করেছি। আনসার ব্যাটালিয়ন আইন ২০২৩ ইতিমধ্যে আমরা পাশ করে দিয়েছি। এতে করে অন্যান্য বাহিনীর সদস্যদের মতো প্রথম দিন থেকেই স্থায়ী হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছি। এর পূর্বে আনসারদের স্থায়ী হতো না। আমি ১৯৯৬ সাল থেকে পর্যায়ক্রমভাবে এই স্থায়ী হওয়ার কাজ শুরু করি। এখন নতুন আইনে সেই সুবিধা করে দিয়েছি। উপজেলা আনসার কোম্পানী কমান্ডার, ইউনিয়ন প্লাটো কমান্ডার, ইউনিয়ন দলনেতা, ইউনিয়ন দলনেত্রীদের আইডি কার্ড প্রদান এবং বার্ষিক সম্মানী ভাতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়া আনসার সদস্যদের ভাতা বৃদ্ধি ও রেশম সামগ্রী উপকরণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। নারী বিজিবি সদস্যদের মতো অত্যান্ত আধুনিক ডিজাইনের নতুন শাড়িও আমি প্রবর্তন করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, আমরা চাই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। আজকে আমরা বিশেষ করে ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর সরকার গঠন করি। দেশ পরিচালনা করে আজকে বাংলাদেশকে আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় নিয়ে এসেছি। ২০২৬ সাল থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমাদের যাত্রা শুরু হবে। তবে আমাদের আরো আন্তরিকতার সাথে কাজ করে এগিয়ে যেতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে যে স্মার্ট বাংলাদেশ আমরা গড়ে তুলবো। আমরা চাই আমাদের প্রত্যেকটা বাহিনী বিশেষ করে আনসার বাহিনীও সে স্মার্ট বাহিনী হিসেবে গড়ে উঠবে। দেশের উন্নয়নের সাথে একাত্ব হয়ে কাজ করে যাবে।

তিনি আনসার ভিডিপি সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদের বলবো আপনাদের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখবেন। সকলকে কঠোর ভাবে পরিশ্রম ও সততার সঙ্গে কাজ করতে হবে। দেশের সর্ববৃহৎ বাহিনী হিসেবে আপনাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করবেন। জন নিরাপত্তা রক্ষার ক্ষেত্রে যেকোনো অশুভ তৎপরতা তা মোকাবেলা করতে হবে। সততা ও আন্তরিকতার সাথে আপনারা সেটা রুখে দাঁড়াবেন। জনগণ এবং বিনিয়োগের নিরাপত্তা, শান্তি পরিবেশ ধরে রাখা এটা আমাদের সকলের পবিত্র দায়িত্ব। দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের পূর্ব শর্ত স্থিতিশীল রাজনৈতিক অবস্থা ও অর্থনৈতিক পরিবেশ এবং গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার ধারাবাহিকতা। কাজেই সেই পরিবেশ ধরে রাখার জন্য সকলকে আমরা অনুরোধ জানাচ্ছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ¦ এ্যাড. আ. ক. ম মোজাম্মেল হক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, সিনিয়র সচিব, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, বিপিএএ, বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আমিনুল হক, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি, পিএইচডি, অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো: নাজিম উদ্দিন, আনসার ও ভিডিপি একাডেমির কমান্ড্যান্ট মোঃ নূরুল হাসান ফরিদী, বাহিনীর উপমহাপরিচালকবৃন্দ, অন্যান্য কর্মকর্তা ও আনসার- ভিডিপি সদস্যবৃন্দ। এছাড়াও মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, তিন বাহিনী প্রধান, সিনিয়র সচিববৃন্দসহ বিভিন্ন বাহিনীর প্রধানগণ, কূটনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সামরিক ও বেসামরিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিবর্গ এবং আমন্ত্রিত অতিথি বৃন্দ।


আরও খবর