Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

যাত্রী সংকট, বন্ধ হলো ঢাকা-বরিশাল নৌপথে এমভি গ্রীন লাইন

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৮২জন দেখেছেন
Image

ঢাকা-বরিশাল নৌপথে প্রায় ছয় বছর ধরে যাত্রীসেবা দিয়ে আসছিল দ্রুতগতির অত্যাধুনিক নৌযান এমভি গ্রীন লাইন। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই নৌযানটি লঞ্চের চেয়ে কম সময়ে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দিতো। যাতায়াতে ঝুঁকি কম, স্বাচ্ছন্দ্য ও ভ্রমণ আরামদায়ক হওয়ায় এমভি গ্রীন লাইন নামের নৌযানটি যাত্রীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় ছিল। তবে পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ার পর পাল্টে গেছে দৃশ্যপট।

সড়কপথে যাত্রীর চাপ বাড়ায় নৌযানটিতে কমতে শুরু করে যাত্রী। সম্প্রতি যাত্রী সংকটের কারণে জ্বালানি বাবদ ব্যয় উঠে আসছে না বলে নৌযানটির মালিক পক্ষ দাবি করেছে। ফলে ঢাকা-বরিশাল নৌপথে নৌযানটির যাত্রীসেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

প্রতিদিন সকাল ৮টায় ঢাকার সদরঘাট থেকে এবং বিকেল ৩টায় বরিশাল প্রান্ত থেকে যাত্রী পরিবহন করে আসছিল এমভি গ্রীন লাইন। তবে মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) ঢাকার সদরঘাট থেকে এবং বরিশাল প্রান্ত থেকে নৌযানটি ছাড়েনি।

এমভি গ্রীন লাইন নৌযানের ঢাকা সদরঘাটের ইনচার্জ জিয়াউল হাসান ভুট্টু জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পদ্মা সেতু চালুর পর থেকে ক্রমান্বয়ে কমছে নৌযানটির যাত্রী। তবে মাঝে ঈদে কয়েকদিন যাত্রী হয়েছিল। এরপর আবার যাত্রী কমতে শুরু করে। গত এক সপ্তাহে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় গড়ে ৬০-৭০ শতাংশ যাত্রী কমছিল। এরমধ্যে সোমবার (২৫ জুলাই) আরও খারাপ অবস্থা গেছে।

জিয়াউল হাসান ভুট্টু আরও জানান, নৌযানটির আসন সংখ্যা ৬০০। সোমবার সকালে সদরঘাট থেকে বরিশালের উদ্দেশ্যে যখন ছেড়ে গেছে, তখন ৪৮৯টি আসন খালি ছিল। একই দিন দুপুরে বরিশাল থেকে সদরঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে নৌযানটি। এরপর ঢাকায় আসার পর বিক্রিত টিকিট হিসাব করে দেখা যায় যাত্রী ছিল মাত্র ৯৫ জন। অর্থাৎ ৬০০ আসনের মধ্যে ৫০৫টিই খালি ছিল।

যাত্রী সংকট, বন্ধ হলো ঢাকা-বরিশাল নৌপথে এমভি গ্রীন লাইন

নৌযানটি দ্রুতগতির হওয়ায় প্রচুর জ্বালানির খরচ হয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ঢাকা-বরিশাল আপ-ডাউনে জ্বালানি বাবদ খরচ হয় চার লক্ষাধিক টাকা। গত কয়েকদিনে যেভাবে যাত্রী কমছে, তা মালিক পক্ষের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

গ্রীন লাইন নৌযান সার্ভিসের বরিশালের ব্যবস্থাপক মো. হাসান সরদার বাদশা জানান, পদ্মা সেতু চালুর কারণে নৌপথে যাত্রীর আগ্রহ কমছে। ফলে নৌযানটিতে যাত্রী সংকট দেখা দেয়। কয়েকদিন ধরে ধারণার চেয়ে কম যাত্রী যাতায়াত করেছে। এ কারণে মালিক পক্ষের নির্দেশে দিনের বেলায় ঢাকা-বরিশাল নৌপথে চলাচলকরা গ্রীন লাইন নৌযানটির যাত্রীসেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে গ্রীন লাইন ওয়াটার ওয়েজের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মো. আব্দুস ছাত্তার বলেন, ‘বেশকিছু দিন ধরে কাঙ্ক্ষিত যাত্রী পাওয়া যাচ্ছে না। এরপরও যাত্রীসেবা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। প্রতিদিনই লক্ষাধিক টাকার লোকসান গুনতে হচ্ছিল। এ অবস্থায় আপাতত বরিশাল-ঢাকা নৌপথে এমভি গ্রীন লাইন নৌযানে যাত্রীসেবা বন্ধ রাখা হয়েছে।’

তবে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলে আবার যাত্রীসেবা চালু করা হবে বলে জানান তিনি। বর্তমানে ঢাকা-কালীগঞ্জ-ইলিশা রুটে এমভি গ্রীন লাইনের অপর নৌযানটি নিয়মিত চলাচল করছে।

২০১৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর ঢাকা-বরিশাল নৌপথে চালু করা হয়েছিল এমভি গ্রীন লাইন নৌযানের যাত্রীসেবা।


আরও খবর



১৫০ কোটির সিনেমা ২ দিনে পেল মাত্র ২০ কোটি!

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০২ August 2০২2 | ২৮জন দেখেছেন
Image

রণবীর কাপুরের বহুল আলোচিত সিনেমা 'শমশেরা'। এ সিনেমার মাধ্যমে দীর্ঘ বিরতির পর পর্দায় ফিরেছেন রণবীর। তবে মুক্তির পরে ছবিটি মুখ থুবড়ে পরে বক্স অফিসে সিনেমাটি। ভক্তদের যেন মন ভরাতে পারছেন না রণবীর।

সিনেমাটি ২২ জুলাই মুক্তি পায়। মুক্তির প্রথম দিনে আয় হয় ১০ কোটি রুপি। তবে নির্মাতারা ভেবেছিলেন ১৪ থেকে ১৫ কোটি আয় করবে 'শমশেরা'। সেটি হয়নি। দ্বিতীয় দিনেও খুব একটা সাড়া ছিল না। সিনেমাটি দ্বিতীয় দিনে আয় করেছে ১০.২৫ কোটি রুপি।

সিনেমাটি নির্মিত হয়েছে ১৮০০ সালের পটভূমিতে ডাকাতদের গল্প নিয়ে। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন করণ মালহোত্রা। আরও আছেন সঞ্জয় দত্ত এবং বাণী কাপুর।

এর আগে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করে আয় করেছে ২ কোটি রুপি। সেটি দেখে অনেকে ভেবেছিলেন ‘শমসেরা’ বক্স অফিস মাতাবে। কিন্তু সেটি হচ্ছে না। তবে নির্মাতারা আশা করছেন সামনের দিনগুলোতে ঘুড়ে দাঁড়াবে সিনেমাটি।

বিশ্বব্যাপী ৫ হাজার ৫৫০ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ১৫০ কোটি বাজেটের ‘শমশেরা’।


আরও খবর



ইলা ঘোষের জন্ম ও উত্তম কুমারের প্রয়াণ

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

২৪ জুলাই ২০২২, রোববার। ৯ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা
১২০৬- কুতুবুদ্দিন আইবেক সিংহাসনে আরোহণ করেন।
১৮২৩ - চিলিতে দাসত্ব প্রথা বিলোপ।
১৮৬১- নীলদর্পণ নাটকের ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশের দায়ে পাদ্রি জেমস লঙ কারারুদ্ধ হন।
১৯১১ - মার্কিন অভিযাত্রী পেরুর ষোড়শ শতকের ইনকা সভ্যতার অন্যতম প্রতীক মাচু পিচু শহর আবিষ্কার করেন।
১৯৩৩- ২৭ বছর ধরে ধারাবাহিক প্রচারিত নাটক ‘দ্য রোমাঞ্চ অব হেলেন ট্রেন্ট’-এর প্রথম পর্ব প্রচারিত হয়।
১৯৪৬- সমুদ্র তলদেশে প্রথম পারমাণবিক বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

জন্ম
১৮২৪- প্রখ্যাত বাঙালি সাংবাদিক ও সমাজসেবক হরিশচন্দ্র মুখোপাধ্যায়।
১৯১১- ভারতীয় বাঙালি বাঁশী বাদক ও সুরকার পান্নালাল ঘোষ।
১৯৩০- প্রথম বাঙালি নারী ইঞ্জিনিয়ার এবং প্রথম ভারতীয় নারী মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ইলা ঘোষ মজুমদার। ব্রিটিশ ভারতের অধুনা বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার মাদারীপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা যতীন্দ্র কুমার মজুমদার ছিলেন বেঙ্গল সিভিল সার্ভিসের একজন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। ছোটবেলা থেকেই তার কারিগরি বিদ্যায় আকর্ষণ ছিল। ১৯৪৭ সালে তৎকালীন বাংলার শিক্ষামন্ত্রী, নিকুঞ্জ বিহারী মাইতির উদ্যোগে নারীদের জন্য ইঞ্জিনিয়ারিংসহ শিক্ষার সব ক্ষেত্রের পড়ার দরজা খুলে দেওয়া হয়, ইঞ্জিনিয়ারিং ও ডাক্তারির দুটি প্রবেশিকা পরীক্ষায় ভালো ফল করলে তিনি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে বেঙ্গল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজেই ভর্তি হন। ১৯৫১ সালে তিনি স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। স্নাতকোত্তর স্তরে পড়াশোনার জন্য স্কটল্যান্ডের গ্লাসগো যান।
১৯৩১- প্রখ্যাত বাঙালি সুরকার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়।
১৯৩৪- প্রখ্যাত বাঙালি সংগীতশিল্পী সুবীর সেন।

মৃত্যু
১৮৭০- ঊনবিংশ শতকের সাহিত্যিক, মহাভারতের বাংলা অনুবাদক কালীপ্রসন্ন সিংহ।
৯৭৫- বাঙালি কবি ও অনুবাদক অরুণাচল বসু।
১৯৮০- বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় নায়ক উত্তম কুমার। কলকাতায় ১৯২৬ সালের ৩ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। উত্তম কুমারের আসল নাম অরুণ কুমার চট্টোপাধ্যায়। ছিলেন একজন ভারতীয়-বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা, চিত্রপ্রযোজক এবং পরিচালক। বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তাকে ‘মহানায়ক’ আখ্যা দেওয়া হয়েছে। তার প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ছিল দৃষ্টিদান। এরপর সাড়ে চুয়াত্তর মুক্তি পাওয়ার পরে তিনি চলচ্চিত্র জগতে স্থায়ী আসন লাভ করেন। সাড়ে চুয়াত্তর ছবিতে তিনি প্রথম সুচিত্রা সেনের বিপরীতে অভিনয় করেন। এই ছবির মাধ্যমে বাংলা চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সফল উত্তম-সুচিত্রা জুটির সূত্রপাত হয়। বাংলা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি হিন্দি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। ওগো বধু সুন্দরী চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের সময় তিনি স্ট্রোক করেন এবং পরদিন মারা যান।
১৯৮০- সমাজবিজ্ঞানী ও সাহিত্য-সমালোচক বিনয় ঘোষ।


আরও খবর



‘জিনের বাদশা’ সেজে হাতিয়ে নেন কোটি টাকা, অবশেষে গ্রেফতার

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে কথিত জিনের বাদশাসহ ছয় প্রতারককে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন নোয়াখালী পৌরসভার লক্ষ্মীনারায়ণপুরের মৃত আবদুল হালিমের ছেলে আবদুল মমিন (৬১), মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে ইমাম উদ্দিন রাসেল (৩৫), বেগমগঞ্জের দক্ষিণ শরীফপুর গ্রামের মোরশেদ আলমের ছেলে আজিজুল হক(৪১), মৃত আলী করিমের ছেলে নজরুল ইসলাম (২৬), চৌমুহনী পৌরসভার হাজীপুরের মৃত ফজলুল হকের ছেলে মো. নুরনবী মানিক(৪৭) ও গোপালপুরের বসন্তবাগ গ্রামের মৃত আবদুর রবের ছেলে মো. নুর হোসেন (৫০)।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

‘জিনের বাদশা’ সেজে হাতিয়ে নেন কোটি টাকা, অবশেষে গ্রেফতার

এরআগে বুধবার (২০ জুলাই) রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন কোম্পানির ১০টি সিম, একটি ম্যাগনেট ও ১০টি ধাতব মুদ্রা জব্দ করা হয়েছে। পরে তাদের বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করা হয়।

‘জিনের বাদশা’ সেজে হাতিয়ে নেন কোটি টাকা, অবশেষে গ্রেফতার

নোয়াখালী ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘জিনের বাদশা’ পরিচয় দিয়ে প্রতারকরা তিনজনের কাছ থেকে ১ কোটি ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তারা রাতের বেলা ‘জিনের বাদশা’ সেজে ফোন করে লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। তারা পুলিশের কাছে বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

ওসি আরও জানান, পলাতক আসামি রিপন ২০১৮ সাল থেকে এসব প্রতারকদের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। তাকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।


আরও খবর



বন্যাকবলিত ১ হাজার ৯১০ পরিবারে বাঁধনের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ৩০ July ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধন দেশের বন্যাকবলিত চার জেলা সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটের ১ হাজার ৯১০ পরিবারে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে। শুক্রবার (২২ জুলাই) সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

জানা গেছে, বাঁধন কেন্দ্রীয় পরিষদের তত্ত্বাবধানে সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার নরুল্লা ও ভৈষবেড় গ্রামের ২০০টি পরিবারে, নেত্রকোনা জেলার কমলাকান্দা উপজেলার বড় কাপন ইউনিয়নের ৪৫০টি পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়া, কুড়িগ্রাম জেলার সদর উপজেলার শিবচর ও পোড়ার চর এলাকার ৫৪০টি, লালমনিরহাট জেলার সদর উপজেলার মোঘলহাট ইউনিয়নের চর ফলিমারী ও আদিতমারী উপজেলার কালমাটি আনন্দ বাজার গ্রামে ৩২০টি পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার মোল্লাপাড়া ইউনিয়নের খাগুড়া, হবিপুর গ্রাম, কোরবাননগর ইউনিয়নের ব্রহ্মণগাঁও, মাইজবাড়ি, শান্তিপাড়া ও রাজনগর গ্রামের ৪০০ পরিবারে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছ বাঁধন।

বাঁধন কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি মো. নাহিদুজ্জামান নাহিদ জাগো নিউজকে বলেন, আমরা বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয়ের পাশাপাশি স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মানুষকে রক্তদানে উদ্বুদ্ধ করে থাকি। এছাড়া, জাতীয় দুর্যোগকালীন সময়ে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করি। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানো তারই একটি অংশ ছিল। চলতি মাসেই বন্যাকবলিত এলাকায় আমরা আরেক দফা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করবো।

এ দফায় বন্যাকবলিত ১ হাজার ৯১০টি পরিবারে ১৩ লাখ ৩১ হাজার টাকার খাদ্যসামগ্রী দেয় সংগঠনটি। বাঁধন কেন্দ্রীয় পরিষদ, বাঁধন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ফোরাম কানাডা ও এম.এন.এস গার্মেন্টসের আর্থিক সহায়তায় এ বিতরণ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়।


আরও খবর



ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

১৫ আগস্টের ঘাতকরা এখনও তৎপর দাবি করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তারা আমাকে ও আওয়ামী লীগকে সরিয়ে দিতে চায়।

বুধবার (৩ আগস্ট) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির নবনির্বাচিত বোর্ড সদস্যদের সাক্ষাৎকালে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সাক্ষাৎকালে বোর্ড সদস্যরা বন্যা, করোনা, রোহিঙ্গাসহ দুর্যোগকালে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির তৎপরতা সম্পর্কে অবহিত করেন। তারা বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি প্রতিষ্ঠার জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। একই সঙ্গে পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট ইতিহাসের জঘন্যতম ও নির্মম হত্যাকাণ্ডের নিন্দা করে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা করেন।

প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগকালে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এ সময় তিনি তরুণ প্রজন্মকে মানবতার সেবায় সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন, দেশব্যাপী রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কার্যক্রম বিস্তারে বরাবরের মতো সরকার ও তার ব্যক্তিগত সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। একই সঙ্গে আগামী চার বছরের জন্য আন্তর্জাতিক রেডক্রস সংস্থা আইএফআরসির সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আব্দুল ওয়াহাবকে অভিনন্দন জানান।

pmm1

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে ১৫ আগস্টের দুঃসহ স্মৃতিচারণ করে বলেন, যে জাতির জন্য বঙ্গবন্ধু সারাটি জীবন উৎসর্গ করেছিলেন, সেই বাঙালি হয়ে কীভাবে ঘাতকরা জাতির পিতার বুকে গুলি চালিয়েছিল!

তিনি বলেন, ঘাতকরা একসময় আমাদের বাসায় নিয়মিত আসা যাওয়া করতো। আজও তারা তৎপর, আমাকে ও আওয়ামী লীগকে সরিয়ে দিতে চায়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে এদেশের মানুষের কল্যাণ হয় না।

আবেগজড়িত কণ্ঠে শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা রেডক্রস সোসাইটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন মানবতার কল্যাণে সেবা করার জন্য। পঁচাত্তরে জাতির পিতাকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যার পর সেই রেডক্রসেরই এক টুকরো কাপড়কে কাফন বানিয়ে তাকে দাফন করা হয়েছিল। এসময় প্রধানমন্ত্রী হলি ফ্যামিলি হাসপাতালের পুরোনো মর্যাদা ফিরিয়ে আনাসহ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটিকে আধুনিকীকরণের একটি পরিকল্পনা প্রণয়নের নির্দেশ দেন।

গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎকালে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আব্দুল ওয়াহাবের নেতৃত্বে ভাইস চেয়ারম্যান নূরুর রহমান, ট্রেজারার এম এ সালাম, মহাসচিব কাজী সফিকুল আজম, সংসদ সদস্য আরমা দত্ত, এম মঞ্জুরুল ইসলামসহ অন্য বোর্ড সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর