Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

উপকারে অপকার দুমকিতে পরিকল্পিত ফাঁদে চেয়ারম্যান!

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৬৪২জন দেখেছেন

Image

রাসেল হোসেন নিরব (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি:পটুয়াখালীর দুমকিতে উপকার করতে গিয়ে পরিকল্পিত ফাঁদে পড়ে হেনস্তার শিকার উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মর্তুজা শুক্কুর। 

গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের জেলেদের মাঝে সরকারি চাল বিতরণের লক্ষ্যে পাতাবুনিয়া সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে স্থানীয় গ্রাম পুলিশ দিয়ে চাল ছাড়িয়ে জেলেদের অনুরোধে চেয়ারম্যান বাড়ির একটি ঘরে সাড়ে ১৭ টন চাল মজুদ করেন এবং সাথে সাথে চৌকিদার দিয়ে সকল সুবিধাভোগী জেলেদের পরের দিন চাল দেয়া হবে বলে এই মর্মে দাওয়াত দেয়া হয়।

হঠাৎ করে রাত সাড়ে ১০ টার দিকে চেয়ারম্যান বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানা অফিসার ইনচার্জসহ স্থানীয় কিছু সংবাদকর্মী উপস্থিত হন। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষয়টি তদন্ত করেন এবং  কেন চাল পরিষদে না নিয়ে তার বাড়িতে তুলেছেন এবিষয়ে চেয়ারম্যানকে প্রশ্ন করলে চেয়ারম্যান তার প্রশ্নের জবাব দেন এবং সাথে সাথে নিজের ভুল শিকার করে গোলাম মর্তুজা শুক্কুর বলেন, এর আগেও আমি আমার ওয়ার্ডের সুবিধাভোগীদের সুবিধার্থে ভিজিডি ও ভিজিএফের চাল আমার বাড়িতে বসে দিয়েছি। তবে এগুলো পরিষদ ছাড়া অন্য কোথাও দেয়ার আইনত নিয়ম নেই। সম্পূর্ণ বিষয়টি একটি মহল অন্য খাতে নেয়ার চেষ্টা করছেন।

আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের সুবিধাভোগী জেলে, রাসেলসহ আরো অনেকে  বলেন, চেয়ারম্যানকে আমরা অনুরোধ করেছি যে চালগুলো তার বাড়িতে বসে দিলে আমাদের সুবিধা হয় কারণ আঙ্গারিয়া পরিষদ থেকে চাল বাড়ি পর্যন্ত নিতে আমাগো ১/২ শত টাকা খরচ হয়। এর আগেই তিনি তার বাড়িতে বসে চাল দিয়েছেন। আমাদের মনে হচ্ছে চেয়ারম্যানকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে ফাঁসাতে একটি কুচক্রী মহল সবসময় তার পিছনে লেগে আছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাহীন মাহমুদ বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনা স্থানে গিয়েছিলাম সেখানে জেলেদের মাঝে বিতরণের লক্ষ্যে সাড়ে ১৭ টন চাল পাওয়া গেছে  এবং আসলে তার এই চাল নিয়ে অসৎ কোন উদ্দেশ্য নেই তবে আইন নিয়ম হলো চালগুলো পরিষদে নিয়ে জেলেদের মাঝে বিতরণ করা। এবিষয়ে চেয়ারম্যান তার ভুল শিকার করেছেন। চালগুলো জব্দ করা হয়েছে।


আরও খবর



উচ্চশিক্ষার লক্ষ্য শুধু শ্রমবাজার নয়, মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হওয়া জরুরি: স্পীকার

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

সরওয়ার জাহান ষ্টাফ রিপোর্টার:বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, জ্ঞান অর্জনের জন্য উচ্চশিক্ষার প্রয়োজন রয়েছে। চিন্তার উৎকর্ষ সাধন ও মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি বিকশিত করার জন্য উচ্চশিক্ষার দরকার। তিনি বলেন, উচ্চশিক্ষার লক্ষ্য শুধু শ্রমবাজার নয়, মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হওয়া জরুরি।

তিনি   সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের মিলনায়তনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী  উপলক্ষে আয়োজিত 'তরুণ প্রজন্মের দক্ষতা বৃদ্ধিতে উচ্চশিক্ষা' প্রতিপাদ্যে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকারের সঞ্চালনায় উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ইমেরিটাস সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো উপাচার্য (প্রশাসন) ড. মুহাম্মদ সামাদ, প্রো উপাচার্য (শিক্ষা) ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার, কোষাধ্যক্ষ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ এবং বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আনোয়ারুল চৌধুরী পারভেজ।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য ও সংসদ সদস্য বেনজীর আহমেদ এবং বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন।

স্পীকার বলেন, ১৯৪৮ এর জিন্নাহ'র ঊর্দু ভাষাকে কেন্দ্র করে আন্দোলন, '৫২ সালের ভাষা শহিদের রক্তে রঞ্জিত রাজপথ, '৬৯ এর গণ অভ্যুত্থানে বঙ্গবন্ধু উপাধি প্রদান এবং '৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের আত্মত্যাগের ইতিহাস এক গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায়। তিনি বলেন, ১৯৭৩ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ প্রণয়ন করেন। এই আদেশবলে এখন পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত হয়ে আসছে।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার বেশিরভাগ তরুণ। এই তরুণদের অনেক বেশি কর্মদক্ষতা রয়েছে। ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড সুবিধা কাজে লাগানোর এখনই উপযুক্ত সময়। সেজন্য তরুণদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে সমস্ত সুযোগ-সুবিধা উন্মুক্ত করতে হবে।

স্পীকার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কারিকুলামে উচ্চশিক্ষায় জ্ঞান আহরণের পাশাপাশি যেকোনো প্রতিকূল পরিবেশে অভিযোজনের উপর গুরুত্ব আরোপ করতে হবে। তরুণদের শ্রম বাজারের উপযোগী করে বিশেষায়িত জ্ঞানে সজ্জিত করতে হবে। তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির অবাধ প্রবাহের যুগে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সসহ চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সাথে তাল মিলিয়ে উচ্চশিক্ষার কারিকুলামে পরিবর্তন আনতে হবে। ফ্রিল্যান্সিংসহ স্টার্টআপের বিভিন্ন ধরণের কর্মক্ষেত্রে যুক্ত হবার উপযোগী করে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে হবে।

এসময় স্পীকারকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর স্মরণিকা, 'ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ইতিহাস ও ঐতিহ্য' খন্ডসমগ্র প্রদান করা হয়। এর আগে ১০৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনবৃন্দ, সিনেট ও সিন্ডিকেটের সদস্যবৃন্দ, প্রাক্তন উপাচার্যবৃন্দ, ফ্যাকাল্টি মেম্বারস, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকবৃন্দ, দেশবরেণ্য সাংবাদিকবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ, গণমাধ্যমকর্মী, আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দ  উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কালিয়াকৈরে গ্লোবাল মেটাল কমপ্লেক্সে আবারো রহস্যজনক ডাকাতি, লুটপাট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর(গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে গ্লোব জনকন্ঠ শিল্প পরিবারের সদস্য প্রতিষ্ঠানের ‘গ্লোবাল মেটাল কমপ্লেক্স লিমিটেড’ নামে একটি কেবলস কারখানায় আবারো রহস্যজনক ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। লুটপাট করা হয়েছে নগদ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল। এসময় ডাকাতদের মারধরে কারখানার কর্মকর্তাসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। গত রোববার রাতে কালিয়াকৈর উপজেলার হরতকিতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কারখানা কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার হরতকিতলা এলাকায় গ্লোব জনকন্ঠ শিল্প পরিবারের সদস্য প্রতিষ্ঠানের ‘গ্লোবাল মেটাল কমপ্লেক্স লিমিটেড’ নামে একটি কেবলস কারখানা রয়েছে। গত রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আনুমানিক ২৫/৩০জনের একদল ডাকাত ওই কারখানার কাটা তারের বেড়া টপকিয়ে ভিতরে প্রবেশ করে। এসময় তারা পিস্তল ও ছুড়িসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রের মুখে ওই কারখানার নিরাপত্তাকর্মীদের জিম্মি করে হাতপা বেঁধে ফেলে রাখে। পরে ওই কারখানার অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই কারখানার প্রশাসনিক ভবনের ২য় তলার একটি কক্ষে আটকে রাখে ডাকাত সদস্যরা। এসময় ডাকাত সদস্যদের মারধরে ওই কারখানার এজিএম মিজানুর রহমান, সহকারী ম্যানেজার রইস উদ্দিন, সিকিউরিটি ইনচার্জ সামসুল ইসলাম, সিকিউরিটি গার্ড হুমায়ুন কবীর ও সুদিপ্ত আল আবিদ আহত হন। ওই রাতে প্রায় ৬ঘন্টা সময় ধরে ওই কারখানার লকার থেকে প্রায় পৌনে তিন লাখ টাকা, কেবল, তামার তারসহ বিভিন্ন মালামাল লুটপাট করে। পরে ডাকাত সদস্যরা লুন্ঠিত মালামাল একটি ট্রাকে উঠিয়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে ওই কারখানা থেকে পালিয়ে যায়। কিন্তু ওই কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মোবাইল ফোন লুট করেনি ডাকাত সদস্যরা। খবর পেয়ে পরের দিন সোমবার সকালে ওই কারখানার অন্যান্যরা গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। আহতদের মধ্যে নিরাপত্তাকর্মী হুমায়ুনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এরপর খবর পেয়ে কালিয়াকৈর-শ্রীপুর থানা সার্কেল এএসপি আজমীর হোসেন, কালিয়াকৈর থানার ওসি এএফএম নাসিম, ওই শিল্প প্রতিষ্ঠানের সিও জিনাত জেরিন আলতাফ, নির্বাহী পরিচালক জাকির হোসেনসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে ইতোপুর্বেও গত ২০১৬ সালে ওই কারখানায় একই কায়দায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে ছিল। লুট করা হয়েছিল প্রায় ২৫ লাখ টাকার মালামাল। সে ঘটনায় এখনো মামলা চলমান রয়েছে। এবারের ডাকাতিও একই কায়দায় হওয়ায় রহস্যজনক মনে করছেন কারখানা কর্তৃপক্ষসহ অনেকেই।

ওই কারখানার এজিম মিজানুর রহমান জানান, এশার নামাজ শেষে রাত সাড়ে ৯টার দিকে কারখানার প্রধান গেইট দিয়ে ভিতরে ঢুকতেই আমাকে ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। পরে আমাকেসহ অন্যান্যদের প্রশাসনিক ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে নিয়ে আটকিয়ে রাখে। এরপর লকার থেকে প্রায় পৌনে তিন লাখ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে পালিয়ে যায় ডাকাতদল।

ওই প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক জানান, খবর পেয়ে প্রতিষ্ঠানের সিও সহ আমারা কারখানা পরিদর্শ করেছি। এছাড়াও কারখানা থেকে কি কি মালামাল লুট হয়েছে? তার তালিকা প্রস্তÍুত করা হচ্ছে। তবে এ ডাকাতির ঘটনায় কালিয়াকৈর থানায় অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে। এর আগেও ওই কারখানায় একই রকম ভাবে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। সে ঘটনার মামলা এখনো চলমান রয়েছে।

এব্যাপারে কালিয়াকৈর-শ্রীপুর থানা সার্কেল এএসপি আজমীর হোসেন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে যারাই এঘটনার সাথে জড়িত তাদের খোঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



মাগুরায় এক যুবকের জবাই করা লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় এতিমখানা সংলগ্ন পুকুর পাড় থেকে এখই এলাকার তীর্থ (২৮) নামের   এক যুবকের জবাই করা লাশ উদ্ধার হয়েছে। তীর্থ একই এলাকার নিমাই রূদ্রের পুত্র। মাগুরা পুরাতন বাজারের বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী নিমাই রূদ্র সকালে লাশের শনাক্ত করে। কে বা কারা রাতে জবাই করে লাশ ফেলে রাখে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার ২ জুলাই সকাল ৭ টায় এ লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। লাশের কোন পরিচয় তখন কেউ দিতে পারেনি। এ হত্যাকান্ডের কোন কারন জানা যায়নি।

আরও খবর



বৃষ্টিতে ডুবল ঢাকা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারাদেশে মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে কমবেশি বৃষ্টি হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাজধানী ঢাকায় সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার (১২ জুলাই) সকালে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয় । এতে তীব্র জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে বিভিন্ন সড়ক-অলিগলি।

টানা ঝুম বৃষ্টিতে পানির নিচে তলিয়ে গেছে রাজধানীর বহু সড়ক। বাস-প্রাইভেটকার গেলে নদীর ঢেউয়ের মতো পানি এসে আচড়ে পড়ছে ফুটপাথে। অধিকাংশ সড়কেই নেই যানবাহনের চাপ। এর মধ্যেও যারা বের হয়েছেন তারা ছাতা নিয়ে, না হয় ভিজে গন্তব্যে যাচ্ছেন। তবে ফুটপাত ডুবে যাওয়ায় অধিকাংশ পথচারীরাই রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

আজ সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিটি অলি-গলিসহ মূল সড়কেও হাঁটু পরিমাণ পানি জমেছে। সড়কে চলা সিএনজিচালিত অটোরিকশা, বাসসহ কিছু যানবাহন বিকল হয়ে পড়ে আছে। এর ফলে অনেক রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়।

এদিকে, আজ সকাল থেকে ঝরা বৃষ্টির ফলে রাজধানীর কিছু অংশ, মেরুল বাড্ডা, ডিআইটি প্রজেক্ট এলাকায়, ইসিবি, মালিবাগ, শান্তিনগর, সায়েদাবাদ, আগারগাঁও থেকে জাহাঙ্গীর গেট যেতে নতুন রাস্তায়, খামারবাড়ি থেকে ফার্মগেট, ফার্মগেট-তেজগাঁও ট্রাক স্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকা, শনির আখড়া, পুরান ঢাকা, যাত্রাবাড়ি, নিউ মার্কেট, বংশাল, নাজিমুদ্দিন রোড, ধানমন্ডি, মিরপুর ১৩, হাতিরঝিলের কিছু অংশ, গুলশান লেকপাড় এলাকার সংযোগ সড়কসহ বিভিন্ন সড়ক ও অলিগলিতে কিছু পরিমাণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস আগেই জানিয়েছিল আজ বৃষ্টি বাড়তে পারে।মেঘলা থাকতে পারে আকাশ। মৌসুমি বায়ু শক্তিশালী হয়ে ওঠায় এই বৃষ্টি বেড়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থানের কারণেই আমাকে হত্যার পরিকল্পনা: ব্যারিস্টার সুমন

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার কারণেই আমাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে, বলেছেন হবিগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন। ‘অজ্ঞাতনামা একটি শক্তিশালী মহল’ আমাকে হত্যার জন্য মাঠে নেমেছে এমন তথ্য পাওয়ার পর থানায় জিডি করেছি।

শনিবার (২৯ জুন) দিবাগত রাত ১২টার দিকে সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ব্যারিস্টার সুমন।এর আগে, শনিবার রাতে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন ব্যারিস্টার সুমন।

জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) দিবাগত রাত ২টার দিকে চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাকে সরকারি মোবাইল থেকে হোয়াটসঅ্যাপে ফোন করেন। ফোনে ওসি জানান, তাকে হত্যা করতে অজ্ঞাতনামা একটি শক্তিশালী মহল তিনদিন আগে একটি টিম নিয়ে মাঠে নেমেছে। এ সময় পুলিশের ওই কর্মকর্তা সুমনকে সাবধানে চলাচল ও রাতে বের না হওয়ার অনুরোধ করেন। জিডিতে এ নিয়ে মারাত্মক নিরাপত্তাহীনতায় থাকার কথাও উল্লেখ করেছেন সুমন।

পরে ব্যারিস্টার সুমন জানান, একজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি চুনারুঘাট থানার ওসিকে ফোন দিয়ে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানায়। পরে ওই অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। অজ্ঞাতনাম ব্যক্তি সুমনকে জানান, তাকে হত্যায় একটি গ্রুপকে কন্ট্রাক্ট কিলিংয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং সেই গ্রুপটি সক্রিয়ভাবে কাজ করছে।

সুমন আরও জানান, এর আগেও তিনি অনেকবার হুমকির শিকার হয়েছেন। তবে, এবার থানার ওসির মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারায় তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

সম্প্রতি দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান এবং সংসদে এ নিয়ে বক্তব্য রাখায় প্রভাবশালীদের কেউ তাকে হত্যা করতে চাইতে পারে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর