Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

উন্নয়নের গতি থামিয়ে রাখার সুযোগ নেই: তাজুল ইসলাম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বায়ু দূষণ শুধু আমাদের নিজস্ব ভৌগলিক সীমানার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। আমরা যদি আমাদের নিজ ভৌগলিক সীমানা দূষণ মুক্ত করি তবুও আমাদের বায়ু দূষণমুক্ত হবে না। কারণ সারাবিশ্বে যেভাবে যুদ্ধ হচ্ছে, প্রতিনিয়ত দূষণ হচ্ছে সেগুলো বিভিন্ন উপায়ে আমাদের পরিবেশে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে,বলেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। 

তিনি আরও বলেন, আমাদের অনেক ঘনবসতিপূর্ণ দেশ। প্রারম্ভে আমাদের আর্থিক অবস্থা দুর্বল ছিল। উন্নয়নের মূল স্রোতে নিয়ে আসতে আমাদের শিল্পায়ন করতে হয়েছে, গড়ে তোলা হয়েছে শিল্প কারখানা। উন্নয়নের এই গতি থামিয়ে রাখার সুযোগ নেই।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে গ্রান্ড বলরুমে বায়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণে বহু অংশীজনের পরামর্শ শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, শিল্পোন্নত দেশগুলো কোনরকম জবাবদিহিতা ছাড়াই অতিমাত্রায় শিল্পায়ন করে পরিবেশে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। পুরো বিশ্বকেই উন্নত দেশগুলো দূষিত করে তাদের উন্নত অবস্থা সৃষ্টি করেছে। এখন তারা উপলব্ধি করছে তাদের শিল্পায়নের ফলে পরিবেশের ওপর যে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে তা মোকাবিলা করতে হবে।

তাজুল ইসলাম বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার যে স্বপ্ন আমরা দেখছি তার জন্য আমরা সবাই কাজ করছি। কৃষিক্ষেত্রে নিত্যনতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে, শতভাগ বিদ্যুতায়ন অর্জিত হয়েছে, নিত্যনতুন প্রযুক্তি ও যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রভূত উন্নতি হচ্ছে।

উন্নয়নের গতির সাথে পরিবেশ তথা বায়ু দূষণ রোধ জরুরি উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, এজন্য নানা রকম আইন, বিধিমালা আছে। এসব আইনের যথাযথ ব্যবহার ও বাস্তবায়ন খুবই জরুরি। আমাদের মনে রাখতে হবে বায়ু দূষণ রোধ করতে না পারলে আমরা সবাই ভুক্তভোগী হবো। এজন্য সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। ঠিকমতো আইন মেনে চলে রাষ্ট্রের প্রতিটি স্তরে সবার মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টি করে আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করা হলে বায়ু দূষণ রোধে আমরা অনেকটাই এগিয়ে যাবো।

পরিশেষে বায়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণে তিনি মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি উপস্থিত সুধীদের প্রতি ব্যক্তিগত পর্যায়ের উদ্যোগ গ্রহণের উদাত্ত আহ্বান জানান এবং কর্মশালার আয়োজক স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং বিশ্বব্যাংককে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগের ইম্প্রুভমেন্ট অব আরবান পাবলিক হেলথ্ প্রিভেন্টিভ সার্ভিসেস্ (আইইউপিএইচপিএস) প্রজেক্টের আয়োজনে উক্ত কর্মশালায় সভাপতিত্বে করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইবরাহিম।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জায়েদা খাতুন।


আরও খবর



বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রফিক আলম হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৭০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ ১৭ থেকে ২০ গ্রেড, সরকারি কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অসুস্থ মোঃ রফিক আলম কে দেখতে হাসপাতালে এসেছেন নেতাকর্মীরা।শনিবার বিকেলে  বাংলাদেশ ১৭থেকে ২০ গ্রেড,সরকারি কর্মচারী সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রফিক আলম কে দেখতে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নূর আলমের নেতৃত্বে রাজধানীর ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল মুগদা মেডিকেলে আসেন নেতাকর্মীরা।পরে নেতাকর্মীরা রফিক আলমের সুস্থতায় দোয়া করেন।এসময় উপস্থিত ছিলেন কার্যকারী সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দীন,সভাপতি মোঃ আব্দুর রহিম,সহ-সভাপতি, মোঃ জহিরুল ইসলাম খান,অর্থ সম্পাদক, মোঃ আমির হোসেন,মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর,সাবেক নির্বাচন কমিশনার হোসেন খান প্রমুখ।


আরও খবর

রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪




সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদের হিসাব প্রতিবছর দাখিলের নির্দেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১২৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়ে বলেছেন দুর্নীতি প্রতিরোধে প্রতিবছর সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদের হিসাব দাখিলের ,দুর্নীতি দেশে সুশাসন ও উন্নয়নের অন্তরায়, যেকোনো উপায়ে দুর্নীতি-অর্থপাচার বন্ধ করতে হবে।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী ইবাদত হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন।

দুর্নীতিরোধে সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদের হিসাব আইন অনুযায়ী দাখিল ও ওয়েবসাইটে প্রকাশের নির্দেশনা চেয়ে রিটের শুনানিতে আদালত বলেন, সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

হাইকোর্ট বলেন, আইনের যথাযথ প্রয়োগ না থাকায় দেখা যাচ্ছে অনেক সরকারি কর্মকর্তা অঢেল সম্পদের মালিক হচ্ছেন। এটা বাঞ্ছনীয় নয়।

আদালতে আজ রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সুবীর নন্দী দাস। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক, দুদকের পক্ষে আইনজীবী ফজলুল হক শুনানি করেন।

এর আগে, সোমবার দুর্নীতিরোধে সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদের হিসেব আইন অনুযায়ী দাখিল ও ওয়েবসাইটে প্রকাশের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস হাইকোর্টের কনসারন শাখায় এই রিট দায়ের করেন।

রিটে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, জনপ্রশাসন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, দুদকের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরসহ ১০ জনকে বিবাদী করা হয়।

রিটকারী আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সম্পদের হিসাব আইনে উল্লেখিত যথাযথ নিয়মে কর্তৃপক্ষের কাছে দাখিলের পাশাপাশি ওয়েবসাইটে প্রকাশের নির্দেশনা চেয়ে রিটটি করেছি।


আরও খবর



দিশার পরিচালক পদে আনিছুর রহমানের যোগদান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩৭জন দেখেছেন

Image
কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃমোঃ আনিছুর রহমান দিশা সংস্থার সঞ্চয় ও ঋণ কর্মসূচিতে ২৬ জুন ২০২৪ ইং বুধবার পরিচালক (কর্মসূচি) পদে যোগদান করেছেন। এ প্রেক্ষিতে দিশা পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়। উল্লেখ্য আনিছুর রহমান বিশ্বের অন্যতম বেসরকারী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান "আশা"-তে ১৯৯৫ সালে তার কর্মজীবন শুরু করে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে তিনি "আশা ইন্টারন্যাশনাল" এ নাইজেরিয়া, শ্রীলঙ্কাসহ কয়েকটি দেশে গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন এবং সর্বশেষ ২০১৯ সাল হতে পাঁচ বছরের অধিক সময় "আশা মাইক্রোফাইনান্স (মায়ানমার) লিমিটেড" এ ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

আরও খবর



নির্বাচিতদের আইনের প্রতি যদি ধারণা না থাকে,তাহলে পরিষদের পূর্ণতা আসবে না: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৯জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আলহাজ্ব এ্যাড. আ. ক. ম মোজাম্মেল হক (এমপি) বলেছেন, উপজেলা পরিষদের যারা নব নির্বাচিত হয়েছেন, তারা কিভাবে পরিষদ চালাবেন? সেই আইনের প্রতি যদি তাদের ধারণা না থাকে, তাহেল পরিষদ পরিচালনায় পূর্ণতা আসবে না। এছাড়াও আইন যা বলে যদি সেই মতে কাজ করেন। এক্ষেত্রে সরকার যদি বিরূপও থাকে তাহলে সরকার কোনো কিছু করতে পারবে না।

তিনি সোমবার দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে নবনিবার্চিত উপজেলা পরিষদের ১ম মাসিক সমন্বয় সভায় এসব কথা বলেন। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সভায় সভাপতিত্ব করেন নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম আজাদ। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাউছার আহাম্মেদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন শাহীন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শরিফা আক্তারসহ আরো অনেকে। এসময় উপস্থিত ছিলেন-কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র মজিবুর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রজত বিশ্বাস, কালিয়াকৈর থানার ওসি অপারেশন জোয়ায়ের আহম্মেদসহ বীর মুক্তিযোদ্ধা, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, সাংবাদিকসহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।

তিনি আরো বলেন, আমি ৩৫ বছর ধরে ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে স্থানীয় সরকারের সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম। সে সুবাধে স্থানীয় সরকারের সাথে আমার একটি গভীর সম্পর্ক। আইনগত যেভাবে ইউনিয়ন পরিষদ চালানোর কথা সেভাবে স্থানীয় চেয়ারম্যানগণ পরিষদ পরিচালনা করেন না। পাঁচ বছর পর পর ইউনিয়ন পরিষদের ট্র্যাক্স নির্ধারণ করতে হয়। আমাদের সময় ৭৫ ভাগ ট্র্যাক্স আদায় করার নিয়ম ছিল। কোন ইউনিয়ন পরিষদ যদি ৭৫ ভাগ ট্র্যাক্স আদায় করতে না পারে, নিয়ম অনুযায়ী সে ইউনিয়ন পরিষদ বাতিল হবে। ট্র্যাক্স প্রদানকারীদের সাথে স্থানীয় পরিষদের সদস্যদের সুসর্ম্পক রাখতে হবে। তাহলে মানুষ ট্র্যাক্স প্রদানে উৎসাহিত হবে।

মন্ত্রী বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের যে আইন আছে সে আইন যদি আপনারা প্রয়োগ না করেন, তাহলে জনগণের সেবা নিশ্চিত করতে পারবেন না। কেউ যদি ট্র্যাক্স পরিশোধ না করে, তাহলে সে পরিমান তার সম্পদ ইউপি চেয়ারম্যান ক্রোক করতে পারবেন।

এছাড়া কাজীদের কাছ থেকে ট্র্যাক্স আদায়ের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের নির্দেশ প্রদান করেন। এসময় কমিউনিটি সেন্টার, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে নিয়মিত সেবা প্রদান হয় কিনা? সে দিকে খোঁজখবর রাখার জন্য স্থানীয় পরিষদের প্রতি আহব্বান জানান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।


আরও খবর



সুন্দরগঞ্জে সেবাপ্রাপ্তি নিশ্চিতকরণে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সঙ্গে সমন্বয় সভা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬৪জন দেখেছেন

Image
সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সেবাপ্রাপ্তি নিশ্চিতকরণে সংশ্লিষ্ট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১০ জুলাই) বিকেলে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসকেএস ফাউন্ডেশনের প্রদৃপ্ত প্রকল্প এ সভার আয়োজন করেন।

MACP-এর অর্থায়নে ও কেয়ার বাংলাদেশের কারিগরী সহযোগিতায় সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. জাফর আহমেদ লস্কর।

প্রদৃপ্ত প্রকল্পের প্রজেক্ট ম্যানেজার ফারুক হোসাইনের সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন প্রদৃপ্ত প্রকল্পের সিনিয়র অফিসার শারমিন বেগম, ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর মোছা. মুন্নী বেগম, রেখা রানী সরকার, গণমাধ্যমকর্মী সুদীপ্ত শামীম, বেলকা ইউনিয়নের অংশগ্রহণকারী নজরুল ইসলাম প্রমূখ।

সমন্বয় জানানো হয়, যুবগোষ্ঠীকে চিহ্নিতকরে যুবদের জীবন দক্ষতা এবং যুব উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণের মাধ্যমে যুব ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করা, যুবদের প্রশিক্ষণ প্রদান এবং কর্মসংস্থান তৈরি করতে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কাজ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে৷

সমন্বয় সভায় প্রকল্পভূক্ত বেলকা ও কঞ্চিবাড়ি ইউনিয়নের ১৮ জন যুব-কৃষক অংশগ্রহণ করেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর