Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

তুরস্ক ৮০ বছর আগে এত শক্তিশালী ভূমিকম্প দেখেছিল

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৮২জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: আজ সোমবার ভোরে ৭.৮ মাত্রার যে ভূমিকম্প তুরস্ক ও প্রতিবেশী সিরিয়ায় বিপুল ধ্বংসযজ্ঞ ঘটিয়েছে, সেটিই ওই অঞ্চলের ইতিহাসে সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প বলে জানাচ্ছেন ভূতত্ত্ববিদদের কেউ কেউ। তবে প্রায় ৮০ বছর আগে এ ধরনের শক্তিশালী আরেকটি ভূমিকম্পের মুখোমুখি হয়েছিল তুরস্ক।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে এ তথ্য জানিয়েছেন ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের ভূতত্ত্ববিদ স্টিভেন হিসক।

তিনি জানান, ১৯৩৯ সালের সেই ভূমিকম্পেরও মাত্রা ছিল ৭.৮। এটি হয়েছিল তুরস্কের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে, যা কেড়ে নেয় অন্তত ৩০ হাজার মানুষের প্রাণ।

এর আগে ২০২০ সালে ৭.৭ মাত্রার একটি ভূমিকম্প আঘাত হানে তুরস্কের এলাজিগ এলাকায়। সে সময় এ ঘটনায় ৪১ জন নিহত এবং ১ হাজার ৬০০ মানুষ আহত হয়েছিল।

সিরিয়ার ন্যাশনাল আর্থকোয়েক সেন্টারের প্রধান রায়েদ আহমেদ বলেছেন, ১৯৯৫ সালে আর্থকোয়েক সেন্টার চালু হওয়ার পর এত শক্তিশালী ভূমিকম্প সেখানে রেকর্ড করা হয়নি।

আজ প্রবল শক্তিশালী ভূমিকম্পে দুই দেশে প্রাণহানি ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।


আরও খবর



মাতুয়াইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা, মিলাদ মাহফিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৯৭জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃ 

মাতুয়াইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২৪ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারি বিদ্যালয় মাঠে বিদায় সংবর্ধনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মাতুইয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান খান। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক মোঃ  আমিন মিয়ার 

সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয়।এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মশিউর রহমান মোল্লা সজল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাতুইয়াল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শান্তনুর খান শান্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম আলো, হাজী আব্দুল লতিফ ভূঁইয়া কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আবুল বাশার, বৃহত্তর ডেমরা থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রায়হান জামিল রিপন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ক শিক্ষক মাওলানা মতিউর রহমান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা -৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মশিউর রহমান মোল্লা সজল বলেন, মাতুইয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান মোল্লা এবং আমি পড়ালেখা করছি, এখানে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরাও একদিন আমাদের মতোই এমপি হবে এবং আরো বড় কিছু হবে এবং ঢাকা-৫ আসন কে আমরা সুন্দর বসবাসযোগ্য হিসেবে গড়ে তুলব।



শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির-২০২৪ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সাফল্য কামনার উদ্দেশ্য মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বিদায়ী শিক্ষার্থীদের মানপত্র প্রদান করা হয় এবং ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়।মিলাদ মাহফিল শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


আরও খবর



সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার রায় আবারও পেছাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সগিরা মোর্শেদকে ঢাকার সিদ্ধেশ্বরীতে পারিবারিক দ্বন্দ্বে গুলি করে হত্যা মামলার রায় আবারও পিছিয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার বিশেষ দায়রা জজ মোহাম্মদ আলী হোসাইনের আদালতে এ মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য ছিল। কিন্তু বিচারক ছুটিতে থাকায় আগামী ১৩ মার্চ রায়ের জন্য নতুন তারিখ রাখা হয়েছে।

আসামিপক্ষের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে, দুই পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে ২৫ জানুয়ারি রায় ঘোষণার জন্য ৮ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন আদালত। কিন্তু ওইদিন রায় প্রস্তুত না হওয়ায় বিচারক রায় ঘোষণা পিছিয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই সগিরা মোর্শেদকে গুলি করে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় রমনা থানায় মামলা করেন সগিরা মোর্শেদের স্বামী সালাম চৌধুরী।

মামলার আসামিরা হলেন- সগিরা মোর্শেদের ভাসুর ডা. হাসান আলী চৌধুরী ও তার স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিন, শ্যালক আনাছ মাহমুদ রেজওয়ান, মারুফ রেজা ও মন্টু মণ্ডল ওরফে কুঞ্জ চন্দ্র মণ্ডল। আসামিদের মধ্যে আনাস মাহমুদ এবং মারুফ রেজা কারাগারে, অন্যরা জামিনে।

জানা গেছে, ১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই সগিরা মোর্শেদ ভিকারুননিসা নূন স্কুল থেকে মেয়েকে আনতে যাচ্ছিলেন। বিকেলে সিদ্ধেশ্বরী রোডে পৌঁছালে মোটরসাইকেলে আসা ব্যক্তিরা তার হাতের সোনার চুড়ি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। তখন তিনি দৌড় দিলে তাকে গুলি করা হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথেই সগিরা মোর্শেদ মারা যান।

২০২০ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে উল্লেখ করা হয়, সগিরা মোর্শেদের পরিবারের সঙ্গে আসামি শাহীনের বিভেদ তৈরি হয়েছিল। এছাড়া শাশুড়ি সগিরাকে অপছন্দ করতেন এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে সগিরা-শাহীনের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছিল। আসামিরা নিজেদের বাসায় বসে সগিরাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ডা. হাসান আলী তার চেম্বারে অন্য আসামি মারুফ রেজার সঙ্গে ২৫ হাজার টাকায় হত্যার চুক্তি করেন।

এরপর ২০২১ সালের ২ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত সগিরা মোর্শেদের ভাসুরসহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এর মধ্যদিয়ে দীর্ঘ ৩১ বছর পর এ মামলার আনুষ্ঠানিক বিচারকাজ শুরু হয়।

মামলাটিতে ৫৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আদালত।


আরও খবর



মিরসরাইয়ে দুইদিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃৃতিক প্রতিযোগিতা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

এম আনোয়ার হোসেন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:মিরসরাই উপজেলার ঐতিহ্যবাহী আবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের দুইদিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার ও বুধবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতা বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে এবং বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মেহেদী হাসান নয়নের সঞ্চালনায় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের দিন স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা। এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরসরাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির খান, আবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, ইছাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল আলম, ইছাখালী ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক আনোয়ারুল ইসলাম মোর্শেদ, বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ বিএসসি, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক সদস্য এরাদুল হক, জয়নাল আবেদীন, ফরিদুল ইসলাম, শিক্ষানুরাগী সদস্য জাহেদ রফিক, দাতা সদস্য নাজমুল হুদা বাবর, সংরক্ষিত মহিলা অভিভাবক সদস্য জাহেদা আক্তার, সাধারণ অভিভাবক সদস্য পান্না রানী ভৌমিক সহ শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

এর আগে মঙ্গলবার ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি নুরুল আবছার। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মেহেদী হাসান নয়নের সঞ্চালনায় বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাছিমা আক্তার, সহকারি প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ বিএসসি, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক সদস্য এরাদুল হক, জয়নাল আবেদীন, ফরিদুল ইসলাম, শিক্ষানুরাগী সদস্য জাহেদ রফিক, দাতা সদস্য নাজমুল হুদা বাবরসহ শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। মঙ্গলবার প্রথম দিন সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্যদিয়ে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়।

প্রতিযোগিতার মধ্যে ছিল ১০০ মিটার দৌড়, ২০০ মিটার দৌড়, ৪০০ মিটার দৌড়, ৮০০ মিটার দৌড়, মুরগির লড়াই, বস্তা দৌড়, উচ্চ লাফ, দীর্ঘ লাফ, গোলক নিক্ষেপ, চাকতি নিক্ষেপ, বর্সা নিক্ষেপ, মার্বেল দৌড়, দড়ি লাফ, যোগাযোগ দৌড়, ধীর গতিতে সাইকেল চালানো, অন্ধজনের হাঁড়ি ভাঙ্গা, মিউজিক্যাল পিলো, স্মৃতি পরীক্ষা।

বুধবার দ্বিতীয় দিনের প্রতিযোগিতার মধ্যে ছিল কবিতা আবৃত্তি, একক অভিনয়, কেরাত, হামদ, নাত, গজল, দেশের গান, ভাষার গান, পল্লী গীতি, আধুনিক গান, নজরুল গীতি, রবীন্দ্র গীতি, জারি গান, ভান্ডারি গান, একক নৃত্য, যৌথ নৃত্য, গীতি নকশা।


আরও খবর



অবেহেলিত ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চাই: আলমগীর হোসেন বাবর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি:অবেহেলিত ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চান আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলমগীর হোসেন বাবর। 

নিজের অবস্থান আরো সুসংহত করতে তিনি প্রতিদিন নিয়মিত গনসংযোগ, পথসভা, উঠান বৈঠকসহ নির্বাচনী কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন। এমনকি দিনরাত ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করে যাচ্ছেন।উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে পথসভাও করতে দেখা গেছে তাকে। নিজের প্রার্থিতা জানান দিয়ে তিনি ওইসব এলাকার সাধারণ মানুষের সমর্থন, দোয়া ও ভোট প্রার্থনা করছেন। এছাড়াও তিনি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও আগামীতে আর কি কি হতে যাচ্ছে সেই বার্তাও পৌছে দিচ্ছেন।

মঙ্গলবার দিনব্যাপী উপজেলার ভবানীপুর বাজারে প্রচারণাকালে আলমগীর হোসেন বাবর বলেন, প্রথমেই দেশনেত্রী বঙ্গবন্ধুর যোগ্য কন্যা শেখ হাসিনাকে এই জনপদের মানুষের পক্ষ থেকে জানাই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞা।

আমি আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে শাসক নয় জনগনের সেবক হয়ে কাজ করবো। উপজেলাকে মাদক, সন্ত্রাস ও দূর্নীতি মুক্ত করতে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করবেন তিনি। সে উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধুর একজন আদর্শ সৈনিক হিসেবে নিজেকে নিযুক্ত করে দীর্ঘ দিন ধরে উপজেলায় বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকায় সমাজসেবক হিসেবে তার ব্যাপক সুনাম রয়েছে।

এছাড়া সকল সময়ে তিনি অসহায় দুস্থ্য মানুষের সুখ দুঃখে সর্বদা পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং ভবিষ্যতেও থাকবেন। বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও দলীয় কর্মকান্ডসহ একটি অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এলাকায় নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রচারণাকালে তিনি আরো জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের রোল মডেল। আমি নির্বাচিত হলে সুশীল সমাজকে সঙ্গে নিয়ে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক গ্রামীণ অবকাঠামোগত উন্নয়ন তথা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রাস্তাঘাট, কালভাট, মসজিদ-মাদ্রাসা, মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেকার যুবক-যুবতীদের যথাযথ প্রশিক্ষনের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে স্বাবলম্বী করে তোলার কাজ করব। নারী ও শিশুনির্যাতন, মানব পাচার, এসিড, সন্ত্রাস, বাল্যবিবাহ এবং মাদক, চোরাচালানের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তুলবো।

দীর্ঘ দিনের জরাজীর্ণতাকে পিছনে ফেলে উপজেলাবাসীর সার্বিক সহযোগীতায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে সকল উন্নয়ন মূলক কাজ ত্বরান্বিত করবো। তিনি দৃঢ় প্রত্যয়ে আরো বলেন সর্বপরিসকলের সহযোগিতায় আত্রাই উপজেলাকে মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। যেখানে থাকবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সুখ-শান্তি আর নাগরিকের সুযোগ সুবিধা। 


আরও খবর



অমর একুশে বইমেলায় আসছে জোনায়েত হোসেন জিদানের 'প্রিন্ট অন ডিমান্ডে হাতেখড়ি'

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান, ইবি প্রতিনিধি:অমর একুশে বইমেলা উপলক্ষে আসছে ফ্রিল্যান্সার ও তরুণ উদ্যোক্তা জোনায়েত হোসেন জিদান এর প্রথম বই 'প্রিন্ট অন ডিমান্ডে হাতেখড়ি'। 

বইটি প্রকাশ করেছে দেশের স্বনামধন্য প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান শব্দশৈলী প্রকাশনী। ১৫২ পৃষ্ঠার বইটির মলাট মূল্য ৩৮০ টাকা। ইতোমধ্যে বইটির প্রি-অর্ডার শুরু হয়েছে রকমারিতে। মেলায় শব্দশৈলীর ৯ নম্বর প্যাভিলিয়ন থেকে পাঠক বইটি সংগ্রহ করতে পারবেন।

বইটি সম্পর্কে প্রকাশক জানান, “প্রিন্ট অন ডিমান্ডে হাতেখড়ি” বইটি মূলত ফ্রিল্যান্সিং ও ই-কমার্স ভিত্তিক। প্রিন্ট অন ডিমান্ড বর্তমানে বিশ্বব্যাপী খুবই জনপ্রিয় একটি ব্যবসা মডেল। এই ব্যবসার মডেলটি এমন, যেখানে প্রোডাক্ট এর যখন ডিমান্ড হবে (গ্রাহকের চাহিদা হবে) তখনই সেটি প্রিন্ট হয়ে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে যাবে। যার ফলে গ্রাহকের পছন্দ মত প্রোডাক্ট ডিজাইন করে কাঙ্ক্ষিত সেবা দেওয়া যায়। বইটিতে লেখক প্রিন্ট অন ডিমান্ড এর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং এর বেসিক বিষয় নিয়েও আলোচনা করেছেন। 

বইটি সম্পর্কে লেখক জানান, 'বইটিতে কীভাবে প্রিন্ট অন ডিমান্ড এর ব্যবসা শুরু করা যাবে এবং কী কী বিষয় জানা লাগবে, সে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সেই সাথে একজন নতুন মানুষ কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর নিয়ে তার ক্যারিয়ার শুরু করবে সেটারও আলোচনা করা হয়েছে। তাই তিনি মনে করেন, যদি কেউ ইন্টারনেট এর মাধ্যমে তার ক্যারিয়ার শুরু করতে চায় তাহলে এই বইটির দেওয়া  বিষয় গুলো ধরে ধরে প্র‍্যাক্টিস করলে অবশ্যই এই বইয়ের মাধ্যমে অনলাইন সেক্টরের ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন।'

প্রসঙ্গত, জোনায়েত হোসেন জিদান একজন শিক্ষার্থী। তিনি বর্তমানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নেত্রকোনা সরকারি কলেজ এ অনার্স ৩য় বর্ষে রসায়ন বিভাগ নিয়ে অধ্যয়নরত আছেন। পড়ালেখার পাশাপাশি তিনি একজন দক্ষ ফ্রিল্যান্সার ও উদ্যেক্তা। তিনি বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করছে সেই সাথে ই-কমার্স ভিত্তিক প্রিন্ট অন ডিমান্ড এর সেলার হিসাবে কাজ করছেন।

আরও খবর

আজ বইমেলা শুরু হচ্ছে

বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪