Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৩৩ হাজার পরিবার

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৬১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দেশের ৩২ হাজার ৯০৪ গৃহ ও ভূমিহীন পরিবার আসন্ন ঈদের আগে তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ঘর পেয়েছেন।গণভবন থেকে মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) ভিডিও কনফারেন্সে এসব ঘর হস্তান্তর করেন শেখ হাসিনা।


প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের হাতে ঘরের চাবি তুলে দেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।


তৃতীয় ধাপের এসব ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা বলেন, আমার সবচেয়ে ভালো লাগে যখন দেখি একটা মানুষ ঘর পাওয়ার পর তার মুখের হাসি। জাতির পিতা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন।


সবার জন্য আবাসন নিশ্চিত করতে সরকারের কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাকি যে ঘরগুলো আছে সেগুলো আস্তে আস্তে তৈরি করে সব মানুষ যেন মানুষের মতো বাঁচতে পারে, সুন্দর জীবন পেতে পারে। সেটাই আমাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না, ভূমিহীন থাকবে না। এটাই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।



শেখ হাসিনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে ঘোষণা দিয়েছেন যে, বাংলাদেশের কোনো মানুষ যাতে ভূমি ও গৃহহীন না থাকে। সেজন্য তিনি দুই শতক জমির উপর দুই রুম বিশিষ্ট একটি ঘর উপহার দিচ্ছেন। এসব ঘরের ডিজাইন প্রধানমন্ত্রী নিজেই প্রণয়ন করেছেন।


তৃতীয় ধাপে এসব ঘর দেওয়ার আগে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ঘর পেয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৩২৯টি পরিবার। তৃতীয় ধাপের আরও ৩২ হাজার ৭৭০টি ঘর নির্মাণাধীন রয়েছে।


আশ্রয়ণের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের চেয়ে তৃতীয় ধাপের ঘরগুলো অনেক বেশি টেকসই। তৃতীয় ধাপে একেকটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা। তৃতীয় ধাপের ঘরগুলোতে আরসিসি পিলার, গ্রেড ভিম, টানা লিংকটারসহ বেশ কিছু বিষয় সংযোজন করা হয়।  



এসব ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের পোড়াদিয়া বালিয়া, বরগুনা সদর উপজেলার গৌরিচন্না ইউনিয়নের খাজুরতলা, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী ইউনিয়নের খোকশাবাড়ী ও চট্টগ্রামের আনোয়ারার বারখাইন ইউনিয়নের হাজিগাঁওয়ে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।


আরও খবর



এসএসসি-সমমানে পরীক্ষার্থী কমেছে যে কারণে

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫৯জন দেখেছেন
Image

এবছর এসএসসি ও সমমানে পরীক্ষার্থী কমেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন। গত বছরের অনুত্তীর্ণ পরীক্ষার্থী না থাকায় এমন হয়েছে বলে মনে করছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

রোববার (১২ জুন) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা নিয়ে জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত কমিটির সভা শেষে তিনি এমন মন্তব্য করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, করোনায় বাল্যবিয়ের কারণে পরীক্ষার্থী কিছুটা কমতে পারে। তবে আমাদের পরিসংখ্যান তা বলছে না। আমাদের পরিসংখ্যানে ছেলেদের তুলনায় মেয়ে শিক্ষার্থী বেশি। প্রতি বছর মানোন্নয়নের জন্য অনেকে পরীক্ষা দেয়। কিন্তু গতবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে। সে কারণে পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ নেই বললেই চলে। গতবার যদি পূর্ণাঙ্গ পরীক্ষা হতো তাহলে যারা অকৃতকার্য হতো তারা এবার পরীক্ষায় অংশ নিত। সে কারণে এবার পরীক্ষার্থী কম মনে হচ্ছে। আসলে নিয়মিত পরীক্ষার্থী কমেনি।

আগামী ১৯ জুন এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। এই পরীক্ষায় মোট অংশ নিচ্ছে ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন পরীক্ষার্থী। ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে মোট পরীক্ষার্থী কমেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন। এবারের পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ৯ হাজার ৫১১ জন এবং ছাত্রী ১০ লাখ ১২ হাজার ৩৫৭ জন। এবার ছাত্রীর সংখ্যা বেশি ২ হাজার ৮৪৬ জন।

সভা শেষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর সিদ্দীক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার এবং অন্যান্য শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



পদ্মা সেতুতে ৮ ঘণ্টায় ১৫২০০ গাড়ি পারাপার

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতুতে যান চলাচল শুরুর প্রথম ৮ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ২০০টি গাড়ি চলাচল করেছে। এ থেকে টোল আদায় হয়েছে ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকা।

রোববার (২৬ জুন) বিকেলে জাগো নিউজকে এ তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবুল হোসেন।

এর আগে ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয় পদ্মা সেতু। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘ প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু পার হয়ে ঢাকায় আসতে দীর্ঘদিন যে অসহনীয় দুর্ভোগ ও কষ্ট ছিল আজ থেকেই তা দূর হয়েছে। শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্ত দিয়ে উত্তাল পদ্মা নদী পার হতে যেখানে কয়েক ঘণ্টা সময় লাগত এখন সেই নদী পার হতে কেবল সময় লাগছে কয়েক মিনিট। এতে অনেকেই বাইক ও প্রাইভেটকার নিয়ে পার হচ্ছেন তাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতু। সেই সঙ্গে ট্রাক, বাসসহ বিভিন্ন ধরনের যান চলাচল করছে সেতু দিয়ে।

জাজিরা প্রান্তে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবুল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, প্রথম দিনেই প্রথম আট ঘণ্টায় যান চলাচল করেছে ১৫ হাজার ২০০টি। এতে টোল গ্রহণে আয় হয়েছে ৮২ লাখ ১৯ হাজার ৫০ টাকা।

তিনি বলেন, সকাল থেকেই যেসব গাড়ি চলাচল করেছে তার ৬০ ভাগই মোটরসাইকেল। ট্রাক কিংবা বড় যান কিছুটা কম প্রথম দিনে।

তিনি আরও বলেন, মাওয়া প্রান্তে ৮৪৩৮টি গাড়ি চলাচলে আয় হয়েছে ৪৬ লাখ ৮৯ হাজার ৫৫০ টাকা। জাজিরা প্রান্তে ৬ হাজার ৭৬২টি গাড়ি চলাচলে ৩৫ লাখ ২৯ হাজার ৫০০ টাকা আয় হয়েছে।

সেতুর টোলপ্লাজায় দায়িত্বরত এই শীর্ষ কর্মকর্তা নিউজকে বলেন, সকাল থেকেই আমরা প্রস্তুত ছিলাম। ৬টার আগেই আমরা যান চলাচলের জন্য কাজ শুরু করি।


আরও খবর



মালয়েশিয়ায় ৫ মাসে লাখেরও বেশি পাসপোর্ট বিতরণ

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ৩১ মে পর্যন্ত পাঁচ মাসে এক লাখ ১১ হাজার ৮৩টি পাসপোর্ট বিতরণ করেছে বাংলাদেশ হাইকমিশন। বুধবার (১৫ জুন) মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশনের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

দূতাবাস জানায়, মালয়েশিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশি কর্মীদের দ্রুততম পাসপোর্ট সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে হাইকমিশন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। করোনার সময় ও করোনার পরে হাইকমিশন প্রবাসীদের সুবিধার্থে ৫০টি পোস্ট অফিসের মাধ্যমে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন প্রান্তে পাসপোর্ট বিতরণ করে যাচ্ছে।

পাশাপাশি অনিয়মিত কর্মীদের বৈধতা নেওয়ার সুবিধার্থে অফিস চলাকালীন বাইরে ও ছুটির দিনেও মালয়েশিয়ার বিভিন্ন প্রদেশে বিশেষ ব্যবস্থায় পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ৩১ মে পর্যন্ত ৫ মাসে ১ লাখ ১১ হাজার ৮৩টি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে ১ লাখ ৫ হাজার ৪৫০, হাইকমিশন থেকে সরাসরি ৫ হাজার ৬৩৩টি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে। পোস্ট অফিসের মাধ্যমে হাইকমিশনে নতুন পাসপোর্টের (রিনিউ) এর জন্য এ পর্যন্ত ১ লাখ ২৪৭টি আবেদন জমা পড়েছে।

এদিকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পোস লাজুর (পোস্ট অফিস) মাধ্যমে পাসপোর্ট ডেলিভারি সংক্রান্ত কার্যক্রম আরও গতিশীল করার লক্ষ্যে কাজ করছে হাইকমিশন, জানালেন, মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারোয়ার।

এছাড়া দৈনিক অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাড়ানো হয়েছে ও অনলাইনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ডাকযোগে এসব পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে হলে প্রথমে appointment.bdhckl.gov.bd ঠিকানায় প্রবেশ করে তথ্য পূরণপূর্বক আবেদন করতে হবে।

এছাড়া ছুটির দিনে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন প্রদেশে কনস্যুলার ভিজিটের সময় সরাসরি পাসপোর্ট সংগ্রহের জন্য appointment.bdhckl.gov.bd/other ঠিকানায় গিয়ে অনলাইনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে হবে।

তবে এক্ষেত্রে সেবাপ্রত্যাশীদের একই সঙ্গে দুটি সেবার অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেওয়া থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।


আরও খবর



সুনামগঞ্জে ফের বন্যা, পানিবন্দি ১০ হাজার মানুষ

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

টানা বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জে দ্বিতীয় দফায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার (১৫ জুন) সকালে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড।

এরইমধ্যে প্লাবিত হয়েছে সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর, দোয়ারা বাজারসহ চারটি উপজেলার নিম্নাঞ্চল। পানিবন্দি হয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ১০ হাজার মানুষ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, টানা বৃষ্টিপাতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর ও দোয়ারা বাজারসহ ৪ উপজেলার মানুষ। ঘরের ভেতরে পানি উঠে যাওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। অনেকে আবার টিনের বড় ড্রামগুলোকে নৌকা হিসেবে ব্যবহার করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন।

flood1

এদিকে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের সাহেব বাড়ি ঘাট, উত্তর আরপিন নগর, পুরান পাড়া, বড়পাড়া এলাকার রাস্তাঘাট বানের পানিতে ডুবে যাওয়ায় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর ও দোয়ারাবাজার উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বানের পানিতে ডুবে গেছে।

পানিবন্দি মানুষ জানান, ঢলের পানি ঘরের ভেতরে থাকায় রান্না করার সুযোগও নেই। চুলাও পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, সুনামগঞ্জে দ্বিতীয় দফা বন্যা সৃষ্টি হয়েছে। সেজন্য জেলার ১২টি উপজেলায় ইতোমধ্যে ২০ মেট্রিক টন করে খাদ্য সামগ্রী বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে মন্ত্রী-নেতাদের হাত রয়েছে: চরমোনাই পির

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে আওয়ামী লীগের মন্ত্রী এবং নেতাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম।

তিনি আরও বলেছেন, দেশের এই চলমান সংকট থেকে উত্তরণে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের কোনো বিকল্প নাই।

শুক্রবার (৩ জুন) রাজধানীর ভাটারায় ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগর উত্তরের এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দেশের বাজারে চাল, ডাল, পেঁয়াজ ও ভোজ্যতেলের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম যেভাবে বাড়ছে, তা নিয়ে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষ খেই হারিয়ে ফেলছে। এছাড়া সরকারের দুঃশাসন ও বিভিন্ন প্রকল্পের নামে চলছে দুর্নীতির মহোৎসব। পাশাপাশি ধর্ষণ, খুন, গুমসহ সবকিছু মিলিয়ে গোটা দেশ আজ বিপর্যস্ত। এ পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে দেশে এখন জরুরিভিত্তিতে ইসলামী শাসন ব্যবস্থা কয়েম করা প্রয়োজন। আর এজন্য অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের কোনো বিকল্প নেই।

সংগঠনের ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্বে এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সহ-সভাপতি মুফতি মুহাম্মাদ ওয়ালী উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মাদ আরিফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা নূরুল ইসলাম নাঈম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মাদ মুরাদ হোসেন, অর্থ ও প্রকাশনা সম্পাদক ডা. মজিবুর রহমান, ছাত্র ও যুববিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শওকত আলী হাওলাদারসহ নগরের অন্যান্য নেতারা।


আরও খবর