Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

ট্রেন দুর্ঘটনায় দায়ীদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে: মোদি

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২১১জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:ভারতের ওডিশার বালেশ্বরে তিন ট্রেনের দুর্ঘটনায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ট্রেন দুর্ঘটনার পর গতকাল শনিবার ঘটনাস্থল বাহাঙ্গা বাজার স্টেশন পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি, ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিসহ একাধিক গণমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে ওডিশার বাহাঙ্গা বাজার এলাকায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে চেন্নাইগামী করমন্ডল এক্সপ্রেস ও বেঙ্গালুরু-হাওড়া সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস। একই সঙ্গে দুর্ঘটনাগ্রস্ত হয় একটি মালগাড়িও। এই তিন ট্রেনের দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২৮৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৮৫০ জনের বেশি।

দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে নরেন্দ্র মোদি

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মোদি বলেন, ‘এটি বেদনাদায়ক ঘটনা। আহতদের চিকিৎসার জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করবে সরকার।

তিনি আরও বলেন, ‘সব দিক থেকে তদন্তের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। দোষীদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।

এর আগে ওড়িশার রাজধানী ভুবনেশ্বর থেকে প্রায় ১৭০ কিলোমিটার উত্তরে বালেশ্বরের বাহাঙ্গা বাজারে বিমানবাহিনীর উড়োজাহাজে করে যান মোদি। এরপর তিনি বালেশ্বর জেলা হাসপাতালে আহত যাত্রীদের দেখতে যান। এ সময় ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণু ও শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান তার সঙ্গে ছিলেন। 


আরও খবর



তানোরে সেচ অরাজকতা ও প্রচন্ড তাপমাত্রায় কমেছে ধানের ফলন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৪৭জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:বরেন্দ্র অঞ্চল হিসেবে কৃষি ভান্ডার খ্যাত, খরা প্রবন এলাকা রাজশাহীর তানোর উপজেলাটি। এবারে চলতি বোরো মৌসুমে গভীর অগভীর নলকূপের সেচ অরাজকতা এবং প্রচন্ড তাপমাত্রার কারনে বিঘায় ৬ থেকে ৭ মন করে ধানের ফলন কমেছে বলে নিশ্চিত করেন কৃষকরা। গত মৌসুমে বিঘায় যদি ২৬ মন ফলন হয়েছে,  এবার কমে প্রকার ভেদে ১৮ থেকে ২০ মন করে ফলন হয়েছে। অথচ গত মৌসুমেের চেয়ে এবারে দ্বিগুণ খরচ হয়েছে প্রতি বিঘায়। অতিরিক্ত সেচ, সার কীটনাশকের বাড়তি দাম এবং শ্রমিক সংকটের জন্য  উৎপাদন খরচ হয়েছে প্রচুর পরিমানে। যাদের নিজস্ব জমি তাদের কোন রকমে খরচের টাকা উঠেছে, তবে যারা টেন্ডার নিয়ে  জমি চাষ করেছেন  তাদের বিঘায় ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা করে লোকসান গুনতে হয়েছে।তানোর পৌর সদর এলাকার কৃষক সাহেব আলী বলেন বিল কুমারী বিলে ৬ বিঘা জমিতে বোরো ধান রোপন করেছিলাম। কিন্তু সঠিক সময়ে সেচ না পাওয়া এবং তীব্র তাপদহের কারনে বিঘায় ৬ থেকে -৭ মন ধান কম ফলন হয়েছে। গত মৌসুমে ৬ বিঘায় রোপন করে বিঘায় ৩০ থেকে- ৩২ মন করে ফলন হয়েছিল।  এবার বিঘায়  ২৪-২৫ মন করে ফলন হয়েছে। তিনি আরো বলেন শাওন বিলে ৬ বিঘা জমিতে বোরো ধান রোপন করে তারও একই অবস্থা। আব্দুস সালাম সাড়ে তিন বিঘা জমিতে রোপন করে ফলন কম পেয়েছে । প্রতি বিঘায়  রোপন থেকে মাড়ায় পর্যন্ত ১৯ হাজার টাকা  থেকে ২০ হাজার টাকা  আবার যাদের জমি দূরে তাদের ২২ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়েছে। কোন রকমে উৎপাদন খরচ উঠে আসছে।তানোর পৌর সদর এলাকায় সাড়ে ২৮ কেজিতে এক মন হিসেব ধরা হয়। আর পৌর এলাকার বাহিরে ৩৮ কেজিতে এক মন হিসাবে সবকিছু হয়।সাহেব জানান, গত সপ্তাহে এক মন ধান বিক্রি হয়েছে ১ হাজার ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকা করে। গত দুদিন ধরে কমে ৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এক বিঘায় ২২ মন ফলন হলে ৯০০ টাকা মন ধরা হলে ১৯ হাজার  ৮০০ টাকা আসে। আবার যাদের বিঘায় উর্ধ্বে ২৫ ফলন হয়েছে ৯০০ টাকা মনে ২২ হাজার ৫০০ টাকা আসে।

কৃষক মফিজ জানান, ধান কাটার সময় তীব্র তাপমাত্রার সাথে ছিল প্রচন্ড খরতাপ। কোনভাবেই জমিতে টিকে থাকা যেত না। খাবার স্যালাইন পানি খেয়ে কোন কাজ হত না। কিন্তু জমিতে পাকা ধান কাটতেই হবে। এত কষ্ট করার পর যদি দিনের দিন সিন্ডিকেট করে ধানের দাম কমে যায় তাহলে কৃষকরা যাবে কোথায়। মিল মালিকদের সিন্ডিকেটের কারনে ধানের দাম কমছে। অথচ প্রতিটি জিনিসের দাম বাড়তি। তাহলে যে কৃষক ফসল উৎপাদন করে দেশকে খাদ্যে ভরপুর করছে সেই কৃষকদের সাথে কেন এমন প্রতারনা করা হচ্ছে। কার ইশারায় কৃষকরা ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেনা। একদিকে সেচের অভাবে কমেছে ফলন অন্যদিকে দিনের দিন কমতেই আছে ধানের দাম। আর কৃষি দপ্তর ঠান্ডা রুমে বসে রিপোর্ট দিচ্ছেন। যত মরন পা ফাটা কৃষকের। কৃষকের কথা কেউ ভাবেনা। তাহলে সেচ পানি সার কীটনাশক নিয়ে ইচ্ছে মত সিন্ডিকেট হত না।তবে কৃষি অফিসের এমন কাল্পনিক তথ্য মানতে নারাজ কৃষক রা। কারন উপজেলায় দুভাগে মনের হিসাব চলমান। ৩৮ কেজিতে একমন আবার সাড়ে ২৮ কেজি তে একমন হিসেবে ফলন কেনা বেচা হয়ে থাকে। আর কৃষি অফিস ৪০ কেজিতে এক মনের হিসাব করে থাকে। সুতরাং স্থানীয় হিসেবের সাথে কৃষি অফিসের হিসেবে অনেক ফারাক দেখছেন কৃষকরা।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অফিসের এক ব্যক্তি জানান এবার সেচ এবং প্রচন্ড খরতাপ, অতিরিক্ত তাপদহের কারনে বিঘায় ফলন কম হয়েছে এমন হিসেব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু গত মৌসুমের হিসেব বলবত রাখতে বাধ্য করা হয়েছে।কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়,  এবারে উপজেলায় ১৪ হাজার ২৬০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ হয়েছে। এপর্যন্ত  ৭ হাজার ১৩৫ হেক্টর জমির ধান কাটা হয়েছে। ফলন ধরা হয়েছে বিঘায় হাইব্রিড সাড়ে ২৬ মন এবং উপশী বিঘায় ২৩ মন করে।স্বর্ন প্রদক প্রাপ্ত আদর্শ কৃষক নুর মোহাম্মদ বলেন, বোরো মৌসুমে সেচ নিয়ে ব্যাপক অরাজকতা চলে। সময় মত সেচ দিতে চায় না। আবার অতিরিক্ত সেচ হার। আবার ছিল রেকর্ড পরিমাণ  তাপমাত্রা একারনে ফলন কম হয়েছে।

এবিষয়ে জানতে উপজেলা কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

আরও খবর



নবীনগরে ভেকু দিয়ে মাটি কাটতে গিয়ে বৈদ্যুতিক তাঁর ছিঁড়ে একজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ২১৬জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি:- ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ব্রাহ্মণহাতা(নারুই) গ্রামে ভেকু দিয়ে মাটি কাটতে গিয়ে ড্রাইভারের অবহেলায় বৈদ্যুতিক তাঁর ছিঁড়ে এক বৃদ্ধের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে । ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণহাতা (নারুই) পশ্চিম পাড়া কবরস্থানে এই ঘটনা ঘটে। নিহত ঐ মো. সাফাল মিয়া ব্রাহ্মণহাতা (নারুই) পশ্চিম পাড়া মৃত ফয়েজ মিয়ার ছেলে। 


সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, ভেকু দিয়ে ব্রাহ্মণহাতা ( নারুই) পশ্চিম পাড়া কবরস্থানের মাটি ভরাটের কাজ করা হচ্ছে। শনিবার সকালে কবরস্থানের মাটির কাজ করার সময় ভেকুতে লেগে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটির সার্ভিস তার ছিড়ে মাটিতে পরে যায়। কিছুক্ষণ পর সাফাল মিয়া কবরস্থানে গেলে ঐ তারে লেগে বিদ্যুৎপৃষ্ট হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। 


নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ মাহবুব আলম বলেন, বৈদ্যুতিক তাঁরে পৃষ্ট হয়ে এক বৃদ্ধ মারা গেছে।

   -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



ইবিতে র‍্যাগিংয়ের দায়ে তিনজন বহিষ্কার

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান, ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) নবীন এক শিক্ষার্থীকে র‍্যাগিয়ের দায়ে তিন শিক্ষার্থীকে ১ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছেবিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটির  ১৩তম সভায় তদন্ত কমিটির সুপারিশে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রোববার (০২ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান স্বাক্ষরিত পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

জানা যায়, র‍্যাগিয়ের দায়ে এক বছরের জন্য বহিষ্কৃতরা হলেন- ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী উজ্জ্বল ও সাগর প্রামাণিক। আরেকজন হলেন- শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের মুদ্দাসির খান কাফি। 

বহিষ্কৃত তিনজনকে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে কেন চূড়ান্ত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না সে মর্মে রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত জবাব দিতে বলা হয়েছে। বহিষ্কৃতরা তিনজনই শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয়ের অনুসারী। 

এছাড়াও দুইজনকে ভবিষ্যতে এ ধরণের কাজে জড়ালে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে। সতর্ক বার্তা পাওয়া দুইজন হলো- শাখা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক নাসিম আহমেদ মাসুম ও ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মিসনো আল আসনাওয়ীকে। 

উল্লেখ্য, গত ৭ ফেব্রুয়ারি রাতভর ইবির লালন শাহ হলের ১৩৬ নম্বর কক্ষ তথা গণরুমে এক শিক্ষার্থীকে বিবস্ত্র করে র‍্যাগিং দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। অভিযোগে বলা হয়, ওই শিক্ষার্থীকে বিবস্ত্র করে রড দিয়ে মারধর করা। এ সময় তাঁকে পর্নোগ্রাফি দেখানোসহ টেবিলের ওপর কাকতাড়ুয়া বানিয়ে রাখা হয়। তাঁকে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগালও করা হয়। তা ছাড়া নাকে খত দেওয়াসহ বিভিন্নভাবে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

আরও খবর



রূপগঞ্জে লাইসেন্সবিহীন হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযান চলবেঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃরূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবার মান ও রোগীদের হালচাল পরিদর্শনে এসে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা, সামন্ত লাল সেন বলেছেন, লাইসেন্সবিহীন বেসরকারি হাসপাতাল বন্ধের অভিযান আগের মতোই চলবে তাই অনিয়ম পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মনে রাখতে হবে জীবন একটাই, এ জীবন নিয়ে চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না। 

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) সকালে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবার মান ও রোগীদের হালচাল পরিদর্শনে আসেন তিনি। এ সময় হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগ, রোগীদের ওয়ার্ড, কেবিন, স্টোর রুম,পরীক্ষণ যন্ত্রাদিসহ ডাক্তারদের চেম্বার ঘুরে দেখেন তিনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোকে আরও সক্রিয় করতে সরকার কাজ করছে। তবে উপজেলা পর্যায়ে যতগুলো হাসপাতালে দেখলাম, তার মাঝে রূপগঞ্জের এ হাসপাতালটির সার্বিক পরিবেশ ভালো। রোগীরা যাতে সেবা বঞ্চিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার নির্দেশ দিচ্ছি।

   -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



মোরেলগঞ্জে সৎ ও যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনের আহ্বানে পিএফজির সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image
শেফালী আক্তার রাখি,মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি:আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার আহ্বান জানিয়েছেন উপজেলা ভিত্তিক বহুদলীয় প্লাটফর্ম পিস ফ্যাসিলিটেটর গ্রুপ (পিএফজি) এর নেতৃবৃন্দ। শনিবার বেলা ১১ টার দিকে প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে পিএফজি নেতৃবৃন্দ এ আহ্বান জানান। সংগঠনটির উপজেলা সমন্বয়কারি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোস্তফা কামাল আজিজ সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

লিখিত বক্তব্যে অসাম্প্রদায়িক, দুর্ণীতিমূক্ত দেশ গঠন ও দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোটদানের অনুরোধ ও ভোটের বিনিময়ে কোন প্রকার অনৈতিক সুবিধা গ্রহন না করার জন্য সাধারণ ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানানানো হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এবি সিদ্দিক, বিএনপি নেতা গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, সামাদ হোসেন ফকির, মাস্টার শাহআলম হাওলাদার ও জাতীয় যুব সংহতির উপজেলা আহ্বায়ক মো. মাসুদ রেজা উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর