Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

ট্রাফিক ওয়ারী জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিকের কারনে বেঁচে গেল বাস যাত্রীদের প্রান

প্রকাশিত:Friday ০৬ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৮৯জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসান।।


 জুরাইন রেল ক্রসিংয়ের উপড় আটকে পড়া একটি বাস দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল ট্রাফিক ওয়ারী জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিক ও ট্রাফিক সদস্যদের কারণে।



 বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে বাহির হওয়ার পথে জুরাইন রেল ক্রসিংয়ে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে আটকা পড়ে আনন্দ পরিবহনের একটি বাস। ঠিক সেই মুহূর্তে রেলের বার পড়ে যায় কারণ নারায়ণগঞ্জ থেকে কমলাপুরে আসছিলো একটি কমিউটার ট্রেন। গাড়ির চালক বারবার চেষ্টা করেও স্টার্ট করতে পারছিলেন না । কিন্তু ডিএমপির ট্রাফিক পুলিশের ত্বরিৎ পদক্ষেপে রক্ষা পায় বাসে থাকা ৪০ যাত্রীর প্রাণ।


ডিএমপির ট্রাফিক ওয়ারী জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিক জানান, বৃহস্পতিবার (৫ মে ২০২২) সন্ধ্যা ০৬:৫০ টায় আনন্দ পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো ব ১১-৪০৩০) যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে জুরাইন রেল লাইনের উপর উঠা মাত্র বন্ধ হয়ে যায়।


চালক অনেক চেষ্টা করেও স্টার্ট করতে পারছিলেন না। আর ঠিক সেই মুহূর্তে নারায়ণগঞ্জ থেকে একটি কমিউটার ট্রেন ঢাকার দিকে আসছিলো।


তিনি বলেন, তাৎক্ষনিক কোন উপায় না পেয়ে তিনিসহ সঙ্গে থাকা এটিএসআই উওম কুমার দাস, ট্রাফিক পুলিশ সদস্য রমজান আলীসহ পথচারী ও অন্যান্য গাড়ির চালকদের সাথে নিয়ে ধাক্কা দিয়ে রেল লাইন পার করে দেন।


আর করার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই কমলাপুরগামী কমিউটার ট্রেনটি জুরাইন রেল ক্রসিং অতিক্রম করে। রক্ষা পায় বাসে থাকা ৪০ যাত্রীর প্রাণ।


জুরাইন রেল ক্রসিংয়ের গেইট ম্যান মো: হারুন মিয়াসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ট্রাফিক পুলিশের তাৎক্ষনিক পদক্ষেপের কারণে বাসের ভিতরে থাকা যাত্রীরা প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন এবং বড় ধরনের ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে।


ট্রাফিক পুলিশের দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণে বাসের যাত্রীসহ সাধারণ জনগণ ট্রাফিক পুলিশের ভূয়সী প্রশংসা করেন ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।




আরও খবর



দেশ পরিচালনায় শেখ হাসিনার বিকল্প নেই: সমাজকল্যাণমন্ত্রী

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৬১জন দেখেছেন
Image

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ১৭ কোটি মানুষের আস্থা অর্জন করেছেন। দেশ পরিচালনায় তার বিকল্প নেই।

সোমবার (৬ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে সমাজসেবা অধিদপ্তর মিলনায়তনে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলমের সংবর্ধনা ও নবনিযুক্ত সহকারী সমাজসেবা কর্মকর্তাদের ওরিয়েন্টেশন কোর্সের সমাপনী ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি দেশের ক্ষমতা দখল করে হাজার হাজার মুক্তিযোদ্ধাকে নির্বিচারে হত্যা করেছিলো। দেশ থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করতে চেয়েছিলো। এ দেশের জনগণ তাদের ষড়যন্ত্র সফল হতে দেয়নি।

বর্তমান সরকার জনগণের সরকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সরকার দেশের অসহায় দুস্থ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে সমাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ভাতার পরিমাণ ও ভাতাগ্রহীতার সংখ্যা বাড়িয়েছে। ভাতা বিতরণে স্বচ্ছতার জন্য জি-টু-পি (সরকার থেকে ব্যক্তি) পদ্ধতিতে ভাতা বিতরণ করছে।

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে পরিচালিত সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছেন।

সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী খসরু বলেন, বর্তমান সরকার নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কাজ করছে। জনগণের সার্বিক অধিকার নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রী সংগ্রাম করে যাচ্ছেন।

পরে মন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র তুলে দেন।


আরও খবর



নিখোঁজের দু’দিন পর ভেসে উঠলো ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ

প্রকাশিত:Saturday ১১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৮২জন দেখেছেন
Image

অবশেষে নিখোঁজের দুইদিন পর ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ ফয়সাল ফাহিমের (২৫) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (১১ জুন) সকালে উপজেলার নরুন্দি ইউনিয়নের কোচনধরা এলাকা থেকে মরদেহটি এলাকাবাসী উদ্ধার করে।

জাহিদ ফয়সাল ফাহিম উপজেলার ৯ নম্বর রানাগাছা ইউনিয়নের কানিল গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নান্দিনা সাংগঠনিক উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় নরুন্দি ইউনিয়নের কোচনধরা গ্রামের খানবাড়ী নৌঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে ফাহিম তার চার বন্ধুকে নিয়ে ডিঙ্গি নৌকায় ব্রহ্মপুত্র নদে আনন্দ ভ্রমণে বের হন। মাঝপথে নৌকাটি পানিতে তলিয়ে যায়। এসময় তার অন্যান্য বন্ধুরা সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও ফাহিম তলিয়ে যানি। খবর পেয়ে জামালপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার অভিযানে নামে। গতরাত পর্যন্ত তাকে না পেয়ে উদ্ধার অভিযান মুলতবি করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা চলে যান।

শনিবার সকালে স্থানীয়রা নদীতে মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

জামালপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খাবীরুল ইসলাম খান বাবু জাগো নিউজকে বলেন, শনিবার সকাল ৭টায় ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ ফয়সাল ফাহিমের মরদেহটি উদ্ধার হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নরুন্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক তোফাজ্জল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, শনিবার সকালে মরদেহটি নদীতে ভাসতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর



‘পাচার করা টাকা বৈধ হলে বিনিয়োগ বাড়বে, কর্মসংস্থান হবে’

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

দেশ থেকে পাচার হওয়া অর্থ ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেটে বৈধ করার প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। কর দিয়ে এসব অর্থ বৈধ হলে এ নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারবে না আয়কর কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে বিভিন্ন সমালোচনা শুরু হয়েছে দেশব্যাপী।

তবে সমালোচনা হলেও সরকারের এ কথার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন তৈরিপোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি ফারুক হাসান। তিনি বলেন, পাচার করা এসব টাকা দেশে এলে বিভিন্ন সেক্টরে বিনিয়োগ হবে, নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

সোমবার (১৩ জুন) রাজধানীর একটি হোটেলে পোশাক খাতের সমসাময়িক পরিস্থিতি ও প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট প্রতিক্রিয়া নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, পোশাকশিল্পের জন্য আঘাত আসে কোভিড মহামারিতে। এরপর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধও আমাদের ভাবিয়ে তোলে। এর মধ্যে সীতাকুণ্ডের বিএম ডিপোতে কনটেইনার বিস্ফোরণের ঘটনা বড় আঘাত এ শিল্পে। ভয়ঙ্কর এ দুর্ঘটনায় পুড়ে যাওয়া বেশিরভাগ কনটেইনারে ছিল রপ্তানির পোশাক। যা একেবারে রপ্তানির জন্য প্রস্তুত ছিল। এখানে আর্থিক ক্ষতির চেয়ে বড় ইমেজ (ভাবমূর্তি) সংকটে পড়তে হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে শুল্ক মওকুফের জন্য বন্ড কমিশনারেটের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। মালিকপক্ষ ডিপোতে রক্ষিত পণ্য সংশ্লিষ্ট ব্র্যান্ডগুলোকে বুঝে দিয়েছিলেন। এখন এসব পণ্যের দায় ক্রেতার। কয়েকটি ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পোশাকের মূল্য পরিশোধ করা হয়েছে, বাকি ক্রেতারাও পরিশোধ করবে বলে আশা করি। ইন্সুরেন্স কোম্পানির কাছে অনুরোধ থাকবে ক্ষতিপূরণের বিষয়টার দ্রুত সমাধান করার।

ফারুক হাসান বলেন, করোনার কারণে তৈরিপোশাক খাতে তেমন কোনো কর্মসংস্থান তৈরি হয়নি। আবার রেমিট্যান্সে মন্দাভাব ও আমদানির উর্ধ্বগতির কারণে ব্যালেন্স অব পেমেন্টে চাপ তৈরি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে দেশের সর্ববৃহৎ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী পোশাকশিল্পের অগ্রযাত্রা মসৃণ করতে রপ্তানির বিপরীতে প্রযোজ্য উৎসে কর ০.৫০ শতাংশ আগামী পাঁচ বছর পর্যন্ত বহাল রাখার দাবি জানাই। সাথে আমরা নন-কটন খাতে বিনিয়োগ ও রপ্তানি উৎসাহিত করতে, নন-কটন পোশাক রপ্তানির ওপর ১০ শতাংশ হারে বিশেষ প্রণোদনা প্রদানের জন্য অনুরোধ করছি।

তিনি আরও বলেন, বিগত দশকে আমাদের দেশে নন-কটন, বিশেষত ম্যান-মেড-ফাইবার খাতে কিছু বিনিয়োগ হলেও এসব বিনিয়োগ মূলত মূলধন ও টেকনোলজিনির্ভর। আমাদের প্রতিযোগী দেশগুলোতে এই শিল্পের কাঁচামাল থাকায় এবং তাদের স্কেল ইকোনমির কারণে তারা প্রতিযোগী সক্ষমতায় অনেক এগিয়ে আছে। তাই নন-কটন বস্ত্রখাতে বিনিয়োগ সুরক্ষিত ও উৎসাহিত করতে বিশেষ নীতিসহায়তা একান্ত অপরিহার্য।


আরও খবর



কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি: পানিবন্দি লাখো মানুষ

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

কুড়িগ্রামের বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। ধরলা, ব্রহ্মপুত্র ও দুধকুমার নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে করে জেলার ৯ উপজেলার মধ্যে ৭টি উপজেলার ২২টি ইউনিয়েনর লাখো মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে বলে নিশ্চিত করেছে সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন।

বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন নিম্নাঞ্চল ও নদ-নদীর অববাহিকায় বসবাসকারী চরাঞ্চলের মানুষজন। অনেক পরিবার নৌকা ও বাঁশের মাচায় আশ্রয় নিয়ে দিন পার করছে। অনেকে আবার নৌকায় বসতবাড়ির জিনিসপত্র ও পরিবার নিয়ে উঁচু স্থানে গিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে। দেখা দিয়েছে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পনির সংকট। নিজেদের পাশাপাশি গবাদি পশুর খাদ্য সংকট নিয়েও বিপাকে পড়েছেন তারা। পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় চরাঞ্চলের অনেকেই তাদের গবাদি পশু নিয়ে উঁচু জায়গায় তুলছেন।

শনিবার (১৮ জুন) পানি উন্নয়ন বোর্ড অফিস সূত্রে জানা গেছে, ধরলার পানি বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ও ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

jagonews24

এদিকে কাউনিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি ২৩ সেন্টিমিটার ও ব্রহ্মপুত্রের পানি নুনখাওয়া পয়েন্টে ৭ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

নাগেশ্বরী বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন জানান, বন্যায় তার ইউনিয়নের ৫০০-৬০০ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি এসব মানুষ অনেক দুর্ভোগ নিয়ে চলাচল করছে।

চিলমারী উপজেলার নয়ারনাট ইউনিয়নের আমিনুল বলেন, ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি পেয়ে ঘরে প্রবেশ করায় বউ বাচ্চা নিয়ে ঘরে উঁচু মাচা করে আছি। যেভাবে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে আর ঘরে থাকারও উপায় থাকবে না।

jagonews24

অন্যদিকে পানির তোড়ে নাগেশ্বরী উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের দুধকুমার নদীর তীর রক্ষা বাঁধের ১শ মিটার ভেঙে প্লাবিত হয়ে পড়েছে কয়েকটি গ্রাম।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্ল্যাহ আল মামুন বলেন, বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ধরলা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি। উজানে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস থাকায় নদ-নদীর পানি আরো বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ভাঙন কবলিত এলাকাগুলোতে সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, বন্যা দুর্গতদের উদ্ধারে প্রয়োজনীয় সংখ্যক স্পিডবোট, নৌকা এবং আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা মজুত রয়েছে।


আরও খবর



‘খালেদা জিয়ার যত সৈনিক রয়েছেন তাদের মধ্যে সাক্কুও একজন’

প্রকাশিত:Tuesday ০৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৪ June ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের বাকি আর মাত্র আটদিন। ভোটের উত্তাপে সরগরম নগরীর ২৭ ওয়ার্ড। বিজয়ের আশায় মাঠে মরিয়া প্রার্থী ও তাদের স্বজনরা। কুসিক নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সদ্য বিদায়ী মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। স্বামীর পক্ষে প্রচারণায় নেমেছেন স্ত্রী আফরোজা জেসমিন টিকলি। তিনি মুখোমুখি হয়েছিলেন জাগো নিউজের। তার সংক্ষিপ্ত এ সাক্ষাৎকার নিয়েছেন কুমিল্লা প্রতিনিধি জাহিদ পাটোয়ারী।

জাগো নিউজ: মনিরুল হক সাক্কু পরপর দুইবারের মেয়র ছিলেন। আপনি একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে তার কোন কাজটা অসমাপ্ত রয়েছে বলে মনে করেন?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: সাক্কু মেয়র হওয়ার পর এমন কিছুর কমতি নেই, যা নিয়ে আলোচনা করা যায়। বরং আমি বলবো দেশের অন্য সিটি করপোরেশগুলো আপনারা দেখেন, সেগুলো থেকে সাক্কু অনেক বেশি সময় দিয়েছেন। সিটি করপোরেশনের একটি লিমিটেশন আছে। করোনা-ওমিক্রনের কারণে বাইরের প্রজেক্টগুলো আসেনি। হয়তো সে কারণে কিছুটা পিছিয়ে আছে। আমি মনে করি বাংলাদেশের অনেক জেলা থেকে কুমিল্লা শহর অনেক উন্নত, অনেক ভালো। সাক্কু তার কায়িক পরিশ্রম এবং যখন যেখান থেকে যে সহযোগিতা পেয়েছেন তা দিয়ে কুমিল্লা সিটিকে সাজিয়েছেন।

jagonews24

জাগো নিউজ: জয়ের ব্যাপারে আপনি কতটুকু আশাবাদী?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: শতভাগ আশাবাদী। সাক্কুর এবার হ্যাটট্রিক জয় হবে ইনশাল্লাহ। কারণ কুমিল্লার মানুষ তাকে মনেপ্রাণে ভালোবাসেন।

জাগো নিউজ: মেয়র থাকাকালীন সাক্কুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও ঘুস নেওয়ার অভিযোগ তুলছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কী?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: চোর, অনিয়ম ও ঘুস নেওয়া—এগুলো রাজনৈতিক ভাষা। এগুলো নিয়ে আমার বলার কিছু নেই। এ কারণেই আমি যদি চিৎকার দিয়েও বলি আমার স্বামী সৎ, ভালো মানুষ তা জনগণ বিশ্বাস করবে না। চুরির বিষয়টা একমাত্র ওপরওয়ালা জানেন। আর জনগণ যে আজ এত সাড়া দিচ্ছে আপনার কি মনে হয় উনি চোর? তাহলে কি তারা সাড়া দিতো?। এককথায় বলতে পারি সাক্কুর মতো ভালো মানুষ কুমিল্লায় নেই।

জাগো নিউজ: প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের এসব অভিযোগে ভোটে প্রভাব পড়বে কি না?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: কোনো প্রভাব পড়বে না। যারা প্রভাব ফেলতে চায় তারা কোনো অনিয়ম করে প্রভাব ফেলতে পারবে। এছাড়া সুষ্ঠু ভোট হলে কোনোভাবেই সাক্কুর ভোটে প্রভাব ফেলতে পারবে না। আমরা যেখানেই যাচ্ছি প্রচুর মানুষের সমাগম হচ্ছে। বাকিটা আপনারাই বিবেচনা করেন।

জাগো নিউজ: স্বামী হিসেবে মেয়র সাক্কুর কোনো বিষয়টি আপনার খারাপ লাগে?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: সাক্কু কুমিল্লার উন্নয়ন করতে করতে গরম ভাত, গরম তরকারির টেস্টও ভুলে গেছেন। সকালে বের হন, রাতে ফেরেন। সকালে বের হতে গিয়ে খাওয়া তো দূরের কথা; নাস্তাটুকুও মুখে দিতে পারেন না। আর যখন বাসায় খেতে বসেন তখনো ফোনে ‘উন্নয়ন উন্নয়ন’ বলতে বলতে ভাত শুকিয়ে যায়। শরীর-স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখেন না। এ বিষয়গুলো আমার খারাপ লাগে।

jagonews24

জাগো নিউজ: আপনার স্বামী তো নির্বাচনের কারণে বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত। আপনি বলছেন ১৫ তারিখ জয়ী হলে পরের সপ্তাহে আমরা আবারও বিএনপি। এই বহিষ্কারাদেশ দলীয় কৌশল না তো?

আফরোজা জেসমিন টিকলি: এত গভীর প্রশ্নের উত্তর আমি দিতে পারবো না। শুধু এটুকু বলবো বেগম খালেদা জিয়ার যতজন সৈনিক আছে, তাদের মধ্যে সাক্কু একজন। উনি তৃণমূলে কাজ করেন। উনি কখনো লেয়াজোঁ মেইনটেন করেন না। এটাই মনিরুল হক সাক্কুর দোষ। সে কারণে আজ বহিষ্কার-আবিষ্কার যাই বলেন হচ্ছে। তিনি কুমিল্লাবাসীর কাছে দায়বদ্ধতার কারণেই নির্বাচন করছেন। গতবারও নির্বাচিত হওয়ার পর খালেদা জিয়া বুকে টেনে নিয়েছেন। ইনশাল্লাহ আবারও বিজয় হলে তিনি বুকে টেনে নেবেন।

জাগো নিউজ: ভোটারদের যা বলতে চান...

আফরোজা জেসমিন টিকলি: ভোটারদের বলবো নির্বিঘ্নে কেন্দ্রে যাবেন। স্মার্টকার্ড নিয়ে যাবেন। স্বাচ্ছন্দ্যে ভোট দেবেন। যাকে খুশি ভোট দেবেন। কারো রক্তচক্ষুকে ভয় করবেন না।


আরও খবর