Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

তিন ফরম্যাটেই নতুন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:তিন ফরম্যাটেই অধিনায়ক করা হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নাজমুল হোসেন শান্তকে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিসিবির বোর্ড মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের এপ্রিলে সাকিব আল হাসানকে টি-টোয়েন্টির দায়িত্ব দিয়ে তিন ফরম্যাটে তিন অধিনায়কের যুগে প্রবেশ করেছিল বাংলাদেশ। এর প্রায় ৬ বছর পর গত আগস্টে সেই সাকিবের হাত ধরেই তিন ফরম্যাটে এক অধিনায়ক তত্ত্বে ফিরে যায় বাংলাদেশ। এবার এক সঙ্গে তিন ফরম্যাট থেকে দায়িত্ব ছাড়ায় সাকিবের নেতৃত্ব অধ্যায়ের ইতি ঘটল।

বিসিবির অন্য সব সভা থেকে এই সভার গুরুত্ব একটু বেশিই ছিল। কারণ, বিসিবির এই সভায় আলোচনার বিষয় ছিল নির্বাচক প্যানেল, বিশ্বকাপ তদন্ত রিপোর্ট, সাকিব আল হাসানের অধিনায়কত্ব এবং নতুন কোচ নিয়োগ।

সাকিব আল হাসান গত বছর ওয়ানডে বিশ্বকাপে দল যাওয়ার আগেই বলেছিলেন, বিশ্বকাপের পর আর অধিনায়কের দায়িত্বে থাকতে চান না তিনি। বিশ্বকাপের পর ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি সাকিব। তার অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল শান্তকে। এছাড়া সাকিব এবার আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে এমপি হন।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত সব সংস্করণ মিলিয়ে বাংলাদেশকে ১১ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন শান্ত। ওয়ানডেতে শান্তর নেতৃত্বে ৬ ম্যাচ খেলে ৫ ম্যাচেই হারের মুখ দেখেছে বাংলাদেশ। বিপরীতে একটি ম্যাচে জয় পেয়েছে টাইগাররা। আর টি-টোয়েন্টিতে ৩ ম্যাচে ১ জয় ও ১ হার অধিনায়ক শান্তর।


আরও খবর



আগামী পাঁচ বছরে রপ্তানির মাধ্যমে পাঁচ বিলিয়ান ডলার উন্নতির ট্রার্গেট: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, দেশের চাহিদা মিটিয়ে আমরা ইলেকট্রনিক্স ডিজিটাল ডিভাইস সফটওয়ার, হার্ডওয়ার রপ্তানির একটা টার্গেট নির্ধারণ করেছি। আগামী পাঁচ বছরে আমরা পাঁচ বিলিয়ান ডলারে উন্নতি করতে চাই। আমাদের বৈদেশিক বিনিয়োগও আমরা এক বিলিয়ান ডলারে পরিণত করতে চাই, উন্নতি করতে চাই। এই মুহুর্তে সব মিলিয়ে হাইটেক পার্কে দেড় হাজার ছেলে-মেয়ে কাজ করছে। তবে দেশের মধ্যে আমরা আইটি আইটিএস হার্ডওয়ার সেক্টরে সব মিলিয়ে এক মিলিয়ান অথ্যাৎ ১০ লক্ষ তরুণ-তরুনীর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে চাই। সেখানে ভিসতা ইলেকট্রনিক্স একটা গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকার রাখবে।

তিনি বৃহস্পতিবার সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে ভিসতা ইলেকট্রনিক্সের নতুন কারখানা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জি এস এম জাফরউল্লাহ এর সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন- ভিসতা ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড কারখানার চেয়ারম্যান সামছুল আলম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক লোকমান হোসেন আকাশ ও পরিচালক, ঢাকা বিজনেস সম্পাদক উদয় হাকিম।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধামন্ত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে এবং আইসিটি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়ের দিক নির্দেশনায় প্রাইভেট সেক্টর এখানে বিনিয়োগ করেছে কয়েক বিলিয়ান ডলার। মানে হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে।

আমাদের শুধু দেশের চাহিদা দেশে উৎপাদন করেই মেটানো নয়। এখন পরবর্তী লক্ষ্য আমরা ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়ার মার্কেটে আমরা এক্সপোর্ট করতে চাই। আমার প্রত্যাশা থাকবে যেখানে আমাদের ভিসতা ইলেকট্রনিক্স তারা যে পন্যগুলো এখানে উৎপাদন করবে। ইতিমধ্যে আমি জেনে খুশি হয়েছি প্রায় ১০০ কোটি টাকা তাদের বিনিয়োগ হবে। হয়তো ৩ থেকে ৫ মাসের মধ্যে ৫ শতাধিক তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধামন্ত্রীর দিক নির্দেশনায় ও সজিব ওয়াজেদ জয়ের তত্ত্বাবধানে ডিজিটাল বাংলাদেশের পর এবার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করছে সরকার। ইলেকট্রনিক্স ও আইসিটি ডিভাইস তৈরির মাধ্যমে ভিসতা স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আমি জানতে পেরেছি, দেশের প্রয়োজন মিটিয়ে তারা খুব অল্প সময়ের মধ্যে পণ্য রপ্তানি করবে।

এর আগে ঢাকা থেকে একটি বিশেষ ট্রেনে চড়ে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে পৌঁছান প্রতিমন্ত্রী। সঙ্গে ছিলেন হাইটেক সিটিতে বিনিয়োগকারীরা। উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকতারা। বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের সোলারিস ভবনের অডিটোরিয়ামে পৌঁছে প্রতিমন্ত্রী প্রথমে বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির অবকাঠামোসহ অন্যান্য সমস্যা এবং সম্ভাবনা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে কথা বলেন। ভিসতা ইলেকট্রনিক্সের নতুন কারখানা ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর তিনি বিভিন্ন কারখানা পরিদর্শন করেন।


আরও খবর



ভোলায় খাল দখল, অনুমতি ছাড়াই ইটের ভাটা নির্মাণ: প্রশাসন নির্বিকার

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন ভোলা (বিশেষ) প্রতিনিধি :সরকার যখন নীতিমালার মধ্য দিয়ে ইটভাটাগুলোকে নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নিয়েছেন ঠিক তখন কিছু অসাধু ব্যক্তি জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই ইট তৈরী করে দে-ধারছে ব্যবসা করছেন। একদিকে যেমন নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ, অন্যদিকে সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব। খাল দখল এবং অনুমতি ছাড়াই ইটের ভাটা নির্মাণ করে ইট পোড়াচ্ছে সিকদার ব্রিকস। ভোলা সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

সূত্রে জানা যায়, ভোলা সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী বাঘমারা ব্রীজের দক্ষিণ দিকে নুরু মেম্বারের বাড়ীর পিছনে তেঁতুলিয়ার শাখা নদী কালির দোন খাল ভরাট করে সিকদার ব্রিকস নামে একটি ইটভাটা করেন স্থানীয় মোঃ আলী আকবর। যার দাগ নং-৮৯৪/৮৯৫, মৌজা-লালপুর, দক্ষিণ বালিয়া, দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়ন, ভোলা। গেল বছরের ডিসেম্বরে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি দরখাস্ত জমা দিয়েই শুরু করে খাল দখল ও ইট তৈরী। অথচ জেলা প্রশাসন এখন পর্যন্ত ওই ইটভাটাকে কোন অনুমোদন দেয়নি।

এদিকে একই জায়গায় ২০১৭ সালে বাবা-মায়ের দোয়া নামে একটি ইটভাটা তৈরী করেন স্থানীয় মিঠু মাতাব্বর। কিন্তু বৈধ কাগজপত্র এবং খাল ভরাট করাতে তৎকালীন এডিএম আব্দুল হালিম জরিমানা করে ব্রিকস ফিল্ডটি বন্ধ করে দেন। তার ৬ বছর পর একই জায়গায় একই ভাবে মোঃ আলী আকবর সিকদার ব্রিকস নামে ইটভাটা করেন। এ যেন পুরনো বোতলে নতুন মোড়ক।
এলাকাবাসী জানান, তেঁতুলিয়ার শাখা নদী কালির দোন দিয়ে খেয়াঘাট হয়ে খোরশেদ খা ঘাট, খায়ের হাট, শান্তির হাট, নাছির হাওলাদার ঘাট, ভেলুমিয়া বাজার, ধুলিয়া, কালাইয়া, কবাই হয়ে কালিশ্বর যাতায়াত করা হতো। আমাদের স্থানীয়দের যেমন উপকার হতো, তেমনি হাজার হাজার মানুষেরও উপকার হতো। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, মাছ সম্পদসহ হাজার হাজার লোক এই নদী দিয়ে জীবন-যাত্রা নির্বাহ করতো। খালটি এক সময়ে ছিল ১৮০ফিট। কিন্তু বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ব্যক্তি খালটিকে ভরাট করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করেছে এবং বর্তমানেও করছে। যার কারণে খালটি এখন মৃত প্রায়। নদীটির শাখা খালটি ভরাট করে ইটভাটা করাতে আমাদের জীবনের চাকা বন্ধ হওয়ার উপক্রম। তেমনি পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে।

স্থানীয় হারুন অর রশিদ জানান, সিকদার ইটভাটার মালিক আলী হোসেন খুব ক্ষমতাবান। কথায় কাথায় তিনি প্রশাসনের ভয় দেখান। সে কতবড় ক্ষমতাবান খাল দখলও করলো, আবার ইটভাটাও করলো। সে আবার বটতলা বালিয়া খালের পাশে শত শত মন লাকড়ি স্টক করে সেখান থেকে রাতের আধারে অল্প অল্প করে লাকড়ি নিয়ে ইটভাটায় পোড়ান।বিনা অনুমতিতে কিভাবে ইটভাটা তৈরী ও ইট পোড়াচ্ছেন এমন প্রশ্ন করা হলে সিকদার ব্রিসক এর মালিক আলী আকবর বলেন, আমি সকল ঘাট ম্যানেজ করেই করছি। খাল ভরাট করে ইটভাটা নির্মাণের বিষয় জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন, আপনি যা পারেন তা লিখেন। আপনাদের মত সাংবাদিক হিসাব করার মত আমার সময় নেই। আপনি চেয়ারম্যান-কে জিগান, আমি কি করছি।
সিকদার ব্রিসক এর ইটভাটার ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান ইফতারুল হাসান স্বপন ঢাকায় থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। তবে স্থানীয় নুরু মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এখানে ৪-৫ বছর আগে একটি ইটভাটা ছিল, তা সরকার বন্ধ করে দিয়েছে। এখন আবার খাল দখল করে পুনরায় ইটভাটা দিয়েছে। পরিষদে এটা নিয়ে আলাপ হয়েছে, চেয়ারম্যান সাহেব ঢাকা; তিনি দেশে আসলে সিকদার ব্রিকসের মালিককে ডেকে বিয়ষটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে।

পরিবেশ অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক তোতা মিয়া জানান, ৫-৬ বছরের আগের ইটভাটার পরিবেশের অনুমতি-টি-ই সে পুনরায় নবায়ন করেছে। বর্তমানে খাল ভরাট করে নতুন ভাবে ইটভাটা করলো এটা দেখেও আপনি কিভাবে নবায়ন করলেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেন নি।স্থানীয় প্রশাসন (চেয়ারম্যান) এবং জেলা প্রশাসনের অদক্ষতার কারণেই এসব ইটভাটা অবৈধভাবে ইট তৈরী করেন এবং নদী দখল করে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে বলে মন্তব্য করেন ভোলা পরিবেশবাদী আন্দোলনের নেতা মোবাশ্বির উল্লাহ চৌধুরী।
বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসক মোঃ আরিফুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সূত্রে জানা যায়, ভোলা জেলায় ইটভাটা ১১৫টি। যার মধ্যে ৮০টি বৈধ, সিকদার ব্রিকস সহ ৩৫টি অবৈধ। সুপ্রিয় পাঠক অবৈধ ইটভাটা নিয়ে আমাদের অনুসন্ধান চলছে। জেলার প্রত্যেকটি অবৈধ ইটভাটার তথ্য আপনাদের কাছে তুলে ধরবো।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নবীনগর বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৯৩জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ  নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিটঘর রাধানাথ উচ্চবিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।বুধবার সকাল ১১ থেকে দিনব্যাপ অত্র বিদ্যালয় মাঠে অত্র এলাকার মান্যবর ব্যাক্তিবর্গগণের উপস্থিতিতে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের ও গীতা পাঠের মাধ্যমে এই বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান এক মনোরম পরিবেশ  অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময় বিটঘর রাধানাথ উচ্চবিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম এর সভাপতিত্বে ,ও অত্র উচ্চবিদ্যালয় সিনিয়র শিক্ষক মোঃ জাকারিয়ার সঞ্চালনায় অত্র বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে, প্রধান অতিথি ছিলেন বিটঘর দানবীর মহেশ চন্দ্র ভট্রাচার্য বিদ্যাপীঠ কলেজ প্রতিষ্ঠাতা বিটঘর রাধানাথ উচ্চবিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ সভাপতি মুনতাসীর মহিউদ্দিন অপু।এছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন বিটঘর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মেহেদী জাফর দস্তগীর, নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মস্তোফা জামাল।

পুলিশ কর্মকর্তা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী সাজেদুল ইসলাম পলাশ, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী সুধীর চন্দ্র সাহা, বিটঘর রাধানাথ উচ্চবিদ্যালয় দাতা সদস্য মোঃ রহমত উল্লাহ, অভিভাক সদস্য মোঃ খলিলুর রহমান মাষ্টার, অভিভাবক সদস্য মোঃ মহসিন খন্দকার, অভিভাবক সদস্য মোঃ রহমত উল্লাহ, অভিভাবক সদস্য মোঃ হানিফ ছোটন), বিটঘর ইউনিয়ন পরিষদ  সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, বিটঘর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ শফিকুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজ সেবক কবির আহমেদ চৌধুরী, বিটঘর রাধানাথ উচ্চবিদ্যালয় কো-আপ্ট সদস্য খালেদ মোশারফ দীপু।

মহিলা সদস্য শিউলি আক্তার, শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ জসিম উদ্দিন,মহিলা শিক্ষক প্রতিনিধি নাজমা পারভী,পুলিশ উপ-পরিদর্ক মোঃ নোমান মুন্সী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শানু মিয়া,বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোবারক ভূইঁয়া সহ এলাকার গন্য মান্য ব্যাক্তি বর্গ উপস্হিত ছিলেন।এ সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আকর্ষণীয় ডিসপ্লে ও , দৌড় প্রতিযোগিতা, দীর্ঘ লাফ, বিস্কুট দৌড়, দড়ি লাফ, আবৃত্তি, নৃত্য ও যেমন খুশি তেমন সাজসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ কারি সকল বিজয়ীদের কে,অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ী পুরস্কার তুলে দেন সকল অতিথিগণ ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ১২

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন আগামীকাল (বৃহস্পতিবার)।ঠিক এর একদিন আগে অর্থাৎ, বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দেশটির একজন প্রার্থীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে।

বেলুচিস্তানের পিসহিনে হওয়া এই হামলায় প্রাণ হারিয়েছে অন্তত ১২ জন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খবর আল-জাজিরার

প্রতিবেদনে কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যমটি জানিয়েছে, আফগানিস্তান সীমান্তে পিসহিন জেলার অবস্থান। সেখানকার খানোজাইয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আসফানদেয়ার খান কাকারের নির্বাচনি কার্যালয়ে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় ১২ জন নিহত হয়েছে বলে পুলিশ সূত্র আল-জাজিরাকে জানিয়েছে। তবে, কর্তৃপক্ষ এখনও নিহতের সংখ্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেনি।

খানোজাই হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বোমা হামলায় আহত বেশ কয়েকজনকে তাদের কাছে আনা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পাকিস্তানের দৈনিক ডন জানিয়েছে, নির্বাচন কমিশন বিস্ফোরণের খবর নিয়েছে। প্রাদেশিক মুখ্য সচিব ও পুলিশ প্রধানের কাছে তাৎক্ষণিক প্রতিবেদন চেয়েছে।


আরও খবর



বিদ্যুৎ সংযোগ না পেয়ে বিপাকে হাকিমপুরের ৩০০ বিঘা ফসলি জমির চাষিরা

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি প্রতিনিধিঃদিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় এনেছে সরকার। অথচ এই উপজেলার কোকতারা গ্রামে ৩০০ বিঘা জমির উপর বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। যার কারণে এসব জমির চাষাবাদ নিয়ে বিপাকে পড়েছে চাষিরা। বিদ্যুৎ না পেয়ে বিগত পাঁচ বছর ডিজেল চালিত মিশন দ্বারা পানি সেচ দিয়ে আসছেন তারা। তাতে কয়েকগুণ বাড়তি খরচ করতে হয় তাদের। বিভিন্ন দপ্তরে ঘুরেও বিদ্যুৎ সংযোগ পাচ্ছে না এখানকার চাষিরা।

উপজেলার কোকতারা গ্রামের মাঠে গিয়ে দেখা যায়, ৩০০ বিঘা জমিতে রয়েছে একটি গভীর নলকূপ। তবে নলকূপের পাশ দিয়ে রয়েছে বিদ্যুতের পৈলসহ লাইন। কিন্তু এই নলকূপের সাথে নেই বিদ্যুৎ সংযোগ। ফসল ফলার তাগিদে ডিজেল চালিত মেশিন দিয়ে এই শতশত বিঘা জমিতে ফসল ফলাচ্ছেন তারা। বিঘাপ্রতি পানির মুল্য দিতে হয় প্রায় ৪ হাজার টাকা। অথচ বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে খরচ হয়ে থাকে ১২০০ টাকা। ২৮০০ টাকা বেশি ব্যয় করতে হয় এখানকার কৃষকদের। এতে করে বছরে তিনটি ফসল ফলাতে লোকসানের সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাদের। ফলে দিনদিন এই ৩০০ বিঘা জমিতে ফসল ফলাতে আগ্রহ হারার পাশাপাশি সর্বশান্ত হতে বসেছে এখানকার কৃষকেরা।

জানা যায়, ২০০৪ সালে প্রথম বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে এখানে চালু হয় গভীর নলকূপ। ২০১৮ সাল পর্যন্ত এই মাঠের কৃষকেরা এই নলকূপ থেকে পানি পেয়েছিলো। কিন্তু কাদের নামের এক প্রভাবশালী নলকূপটিকে নিজের বলে দাবি করে এবং প্রভাব খাটিয়ে নলকূপটির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। কোন মতেই বিদ্যুৎ সংযোগটি না পেয়ে চাষাবাদ নিয়ে দিশেহারা এখানকার ভুক্তভোগী চাষিরা।

মহির উদ্দিন, আলম হোসেন, জহুরুল ইসলাম সহ ভুক্তভোগী কৃষকেরা বলেন, আমরা কোকতারা গ্রামের অসহায় কৃষক। সরকার আমাদের উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় এনেছে। অথচ আজ আমরা কৃষি কাজে বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন। গত ৫ বছর যাবৎ বিদ্যুৎ না পেয়ে চাষাবাদ নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। আমাদের এই ৩০০ বিঘা জমির চাষাবাদ নিয়ে অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ পড়ে আছি। সরকার সেচে ভর্তুকি দিচ্ছেন। অথচ আমরা তা থেকে বঞ্চিত রয়েছি।

তারা আরও বলেন, বছরে আমরা তিনটি ফসল ফলাই। ডিজেল দিয়ে আবাদ করতে আমাদের কয়েকগুণ বাড়তি খরচ হয়ে যায়। একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি আমাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করে রেখেছে। কোথাও কোন অভিযোগ দিয়ে আমাদের সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমাদের আকুল আবেদন বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে আমাদের বাঁচান।

হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজা শাহিন বলেন, উপজেলার কোকতারা গ্রামে প্রায় ৩০০ বিঘা জমিতে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই, আমি বিষয়টি জানি। বিগত ৫ বছর ধরে বিদ্যুৎ নেই, আগে সংযোগটি ছিলো। কাদের নামের একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি তার প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে রেখেছে। এতোগুলো জমিতে ডিজেল চালিত মেশিন দ্বারা পানি সেচ দিয়ে ফসল ফলাতে তারা হিমশিম খাচ্ছে। আমি সরকার এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিকট অনুরোধ করছি দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ দিবেন এবং এই ৩০০ বিঘা জমিতে ফসল ফলাতে কৃষকদের উৎসাহিত করবেন।

এবিষয়ে হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অমিত রায় বলেন, কোকতারা গ্রামের গভীর নলকূপের বিষয়টি অবগত আছি। কয়েক দিনের মধ্যে গ্রামবাসী সহ দুই পক্ষকে নিয়ে বসবো এবং এর একটা সমাধান করবো।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪