Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

থানা হচ্ছে না তেঁতুলতলা মাঠে

প্রকাশিত:Thursday ২৮ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ২৮২জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজধানীর কলাবাগানের তেঁতুলতলা মাঠের মালিকানা পুলিশের থাকলেও সেখানে থানা ভবনের নির্মাণকাজ হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।


বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।


তিনি বলেন, ‘২০১৭ সালে আমরা ওই জায়গাটির জন্য এপ্লাই (আবেদন) করেছিলাম। তবে খোঁজ নিয়ে দেখলাম ওই এলাকায় খেলার জায়গা নেই। প্রধানমন্ত্রীও পরামর্শ দিয়েছেন, যেহেতু খালি জায়গা নেই, বিনোদনের কিছু নেই সেজন্য তিনি বলেছেন পুলিশের জমি সেভাবে থাকুক। কোনো কনস্ট্রাকশন যেন না হয়। যেভাবে চলছে চলতে থাকুক। এটাই আমাদের সিদ্ধান্ত।’


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, জায়গাটি তো পুলিশেরই। প্রাচীর যতটুকু হয়েছে সেভাবেই। আগে যেভাবে ব্যবহার হতো সেভাবেই এলাকাবাসী ব্যবহার করবেন। প্রাচীর খুব বেশি হয়নি। যদি কোনো অসুবিধা হয় আমরা দেখবো। কিন্তু জায়গাটি পুলিশের, পুলিশেরই থাকবে। রক্ষণাবেক্ষণ পুলিশ করবে।


কলাবাগান থানা কোথায় হবে জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খান বলেন, সেটা আমরা দেখবো। ভবিষ্যতের কথা ভবিষ্যতে। এখন আপাতত কিছু হচ্ছে না। নির্মাণ কাজ তো অবশ্যই বন্ধ থাকবে। খেলার মাঠের জন্য উপযোগী জায়গা সেটি নয়। যেভাবে ইউজ করা হচ্ছিলো, সেই এলাকার লোক যেভাবে ইউজ করছে সেভাবেই থাকবে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে।


আরও খবর



ট্রেনের সাথে পিকআপের সংঘর্ষ

গাজীপুরে ট্রেনের সাথে পিকআপের সংঘর্ষে তিনজন নিহত

প্রকাশিত:Saturday ২১ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১২৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের কালিগঞ্জ উপজেলায় ট্রেনের সঙ্গে পিকআপের সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। শনিবার (২১ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আড়িখোলা রেল স্টেশনের অদূরে নলছাটা এলাকায় এ দুর্ঘটনায় ঘটে।


এতে ঘটনাস্থলেই পিকআপে থাকা তিনজন আরোহী মারা যান। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি।



আড়িখোলা রেল স্টেশনের মাস্টার কামরুল ইসলাম এ দুর্ঘটনা ও হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।



আরও খবর



নাহিয়ান আয়ান

মডেলিং অভিনয় সব ক্ষেত্রেই সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছে নাহিয়ান আয়ান

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১৪৪জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

নাহিয়ান আয়ান একজন বিস্ময়কর অভিনেতা এবং মডেল, শুধুমাত্র তার দীপ্তিময় শিশুসুলভ সৌন্দর্য দিয়েই নয়, তার দুর্দান্ত প্রতিভা দিয়েও দর্শকদের আকর্ষণ করে। তার দিকে তাকালে মনে হয় একজন সত্যিকারের অভিনয় শিল্পীর ঠিক এইরকমই হওয়া উচিত - নীল পর্দার ওপারে বসবাসকারী একটি শিশু।সংস্কৃতির বিভিন্ন অঙ্গনে ‘সাফল্যের স্বাক্ষর’ রেখেই চলেছে নাহিয়ান আয়ান।


৭ বছর বয়সী নাহিয়ান আয়ান স্বল্প সময়ে নিজেকে বেশ প্রতিষ্ঠিত করেছে।সম্প্রতি পবিত্র ঈদুল ফিতরে নাহিয়ান আয়ান নাটক ও ওয়েব ফিকশনে অভিনয় করেছে। আসাদ জামানের পরিচালনায় রবিনহুড নামক নাটকে দেখা গেছে নাহিয়ানকে। যেখানে নাহিয়ান আয়ান ছাড়াও আরো অভিনয় শিল্পীরা হলেন তানজিম হাসান অনিক, সেরতাজ জেবিন। ঈদে সিনেমাওয়ালা চ্যানেলে অবমুক্ত হয়েছে নাটকটি। এছাড়াও ওয়েব ফিকশন মায়া ঘরে অভিনয় করেছে নাহিয়ান। রুবেল আনুশ পরিচালিত এই ওয়েব ফিকশনে অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, মনিরা মিঠু, ইভান সাইর প্রমুখ। এছাড়াও নাহিয়ান আয়ান অনন্য মামুনের পরিচালনায় আর জি লাইফস্টাইলের টিভিসিতে অভিনয় করেছে। আসছে ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে জনপ্রিয় পোষাক ব্রান্ড বিশ্বরঙ, শৈশব, দুরন্ত কিডস, ইয়েস পয়েন্টের মডেল ফটোশ্যুট ও করেছে।


শুধু পোষাকের মডেল হিসেবে নয় এভার কেয়ার হসপিটালের পেডিয়াট্রিক বিভাগের সুস্থ শিশুর চরিত্রে ও মডেল হয়েছে। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক তানিম রহমান অংশুর পরিচালনায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপর নির্মিত মিউজিক্যাল ভিডিওতে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান চরিত্রেও অভিনয় করেছে এই শিশুশিল্পী।তাছাড়া ফ্যাশন মডেলিং শো “বাংলাদেশ এক্সিলেন্স এ্যাওয়ার্ড” এবং ঈদ লাইফস্টাইল ফ্যাশন শো-তে পারফর্ম করেছেন সে। এক কথায় অল্প বয়সে মেধা ও বিচক্ষণতাকে কাজে লাগিয়ে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে নাহিয়ান আয়ান।



 

নাহিয়ান আয়ান ২০১৫ সালের হেমন্তের প্রথম দিনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার পুর্ব পুলুষের জন্ম বাংলাদেশের খুলনার সবুজ শ্যামল শান্ত একটি গ্রামে।তিনি রাজধানী ঢাকা শহরে জন্মগ্রহন করেন। আমাদের আজকের সফল শিশুশিল্পী নাহিয়ান আয়ান খানের জন্ম পুলিশ পরিবারে।খুব অল্প বয়স থেকেই, নাহিয়ান আয়ান নিজের জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যে ভবিষ্যতে তিনি অবশ্যই একজন বিখ্যাত অভিনয় শিল্পী এবং জনপ্রিয় মডেল হয়ে উঠবেন। এবং তাই সে আত্মবিশ্বাসের সাথে এবং পদ্ধতিগতভাবে অভিপ্রেত লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন।


প্রথমে, শিশুটি নিকেতনের Little Star Grooming Institute  থেকে গ্রুমিং শিখে হাটা চলা বসা শিখে বিজ্ঞাপনে অভিনয় করতে শুরু করে এবং তারপরে ফ্যাশন মডেল হিসাবে ফ্যাশন শোতেও অংশ নেয়। আমাদের আজকের নাহিয়ান আয়ানের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বিখ্যাত কৃতিত্বের মধ্যে রয়েছে  বিজ্ঞাপন প্রচারে অংশগ্রহণ, আর.জি ষ্টাইল নামক সুপরিচিত ব্র্যান্ডের মডেল হওয়া। 


তাকে নিয়ে সরব হয়ে উঠেছে দেশের মিডিয়া পাড়া ।বিভিন্ন সংবাদ পত্র বিনোদন ম্যাগাজিনগুলো নাহিয়ান আয়ান কে নিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকার ফটোশুট করেছেন দেনিক দেশের পত্র পত্রিকা নাহিয়ান আয়ান কে নিয়ে প্রতিবেবদ প্রকাশ করেছে,টাইমট্রেন্ড ম্যাাজিনে তাকে নিয়ে লেখালেখি হয়েছে।


ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় ফ্যাশন হাউজের সাথে নাহিয়ান কাজ করেছে। নাটকেও অভিনয় করেছে গুনী অভিনেতাদের সাথে। নাহিয়ানের স্বল্পদিনের ক্যারিয়ারে ভাল ভাল কাজ করেছে। এভাবে এগিয়ে যেতে পারলে খুব অল্প সময়ে নাহিয়ান সকলের ভালবাসায় জনপ্রিয় হয়ে উঠবে এটাই আশা করি।


আরও খবর



লিবিয়ার ভূমধ্যসাগর উপকূল থেকে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশী আটক

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৩৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ইউরোপে পাড়ি দেওয়ার প্রস্তুতিকালে লিবিয়ার ভূমধ্যসাগর উপকূল থেকে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।  গত শনিবার (২৩ এপ্রিল) তাদের আটক করা হয়।ভয়েস অব আমেরিকা এ খবর প্রকাশ করেছে।


লিবিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল এস এম শামীম উজ জামান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে লিবিয়ার পুলিশ আমাদের ৫০০ জন বাংলাদেশিকে আটকের কথা জানিয়েছে। তবে আমরা এ পর্যন্ত ২৪০ জনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছি। এটা এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।


লিবিয়ার মিসরাতা সৈকত থেকে ইউরোপ যাত্রার প্রস্তুতিকালে ৫৪২ জন অভিবাসীকে আটক করে ত্রিপোলির নিরাপত্তাকর্মীরা। লিবিয়ার রাজধানী থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মিসরাতা সমুদ্র সৈকতের অবস্থান।


আটক হওয়া অভিবাসীরা লিবিয়ার পশ্চিম উপকূল থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। রাজধানী থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে মিসরাতার সমুদ্র সৈকতের কাছে তাদের আটক করা হয়। তাদের একটি কেন্দ্রে রাখা হয়েছে।


আরও খবর



বাড়ি-ঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সর্বস্বান্ত হয়েছেন কৃষক

সিলেটে বন্যার পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে গুদামে রাখা ধান-চাল

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

উজানের পাহাড়ি ঢল ও ভারি বর্ষণে ডুবেছে সিলেট নগরের প্রায় অর্ধেক এলাকা। বানবাসী হয়েছেন ১৩ উপজেলার মধ্যে ১০টির শতাধিক ইউনিয়নের লোকজন। বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে সর্বস্বান্ত হয়েছেন অনেকে। সে ক্ষতি অংকের হিসেবে পোষাবার নয়! গ্রীষ্মে ভয়ঙ্কর বন্যা ২০০৪ সালের বন্যাকেও ছাড়িয়েছে।


গত ১১ মে থেকে অতিবৃষ্টি আর ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি বুকে ঠাঁই দিতে পারেনি সুরমা। ফলে পানি উপচে প্লাবিত হয়েছে গ্রাম-নগর সব প্লাবিত হয়েছে। কৃষিজীবী থেকে ব্যবসায়ী, সব শ্রেণির মানুষ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।


বানবাসী হয়েছেন অন্তত ১০ লক্ষাধিক মানুষ। বাড়ি-ঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সর্বস্বান্ত হয়েছেন কৃষকরাও। সম্প্রতি ঘরে তোলা বোরো ফলসও বানের পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অবারিত বর্ষণে ঘরে রাখা ধানে চারা গজিয়েছে।গুদামে রাখা সারি সারি ধান-চালের বস্তা ভিজে নষ্ট হয়েছে বন্যার পানিতে। তা দেখে ব্যবসায়ীদের চোখে ছল ছল করছে জল। ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর জনপ্রতিনিধি কিংবা প্রশাসন খোঁজ না নেওয়ায় অনেকে বোবা কান্নায় ক্ষোভ ঝাড়লেন।


শনিবার (২১ মে) থেকে নদ-নদীর পানি খানিকটা স্থিতিশীল হওয়াতে নগর থেকে পানি নেমে যায়। চারিদিকে মানুষ যখন খাবার সংকটে, তখন বন্যা পরবর্তী ক্ষতির দিকটা ফুটে উঠছে ক্রমশ।  দেখা গেছে, বন্যার পানি কমতে শুরু করে। গুদামের সাটার খুলতেই বেরিয়ে আসছে ধান-চাল পচা দুর্গন্ধ। মজুতকৃত ৫০ কেজির হাজার হাজার বস্তা চাল এবং ২ মন ওজনের ধানের বস্তার স্তূপ ভিজে পচন ধরেছে। কেউ স্যালো মেশিন লাগিয়ে সেচ দিয়ে গুদাম থেকে পানি সরাচ্ছেন। প্রতিটি গুদামে ঢুকেছে বন্যার পানি। হু হু করে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় রাখার অভাবে আড়ৎদাররা ধান-চালের বস্তা সরানোর সময় পাননি।


ধান-চালের পচা দুর্গন্ধে এলাকার বাতাসও দুষিত হয়ে গেছে। যেগুলো এখন গো-খাদ্যেও ব্যবহার করার অনুপযুক্ত। ব্যবসায়ীদের এ ক্ষতি যেন চোখে দেখে সহ্য করার মতো নয়।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরের কাজিরবাজার মোস্তাক এন্ড ব্রাদার্সের ৫টি গুদামের এক একটিতে অন্তত সহস্রাধিক বস্তা করে চাল রাখা ছিল। যেগুলো বন্যার পানিতে পচে নষ্ট হয়ে গেছে। কোনোমতে কিছু চাল সরাতে পারলেও বেশিরভাগ বন্যার পানিতে ভিজে নষ্ট হয়েছে। একইভাবে এম এস অটো রাইস মিল, মতিন ব্রাদার্স, হাসান ব্রাদার্স, ফাইয়ান ও পদ্মা রাইস মিল, দয়া ও জামান মিল, রঙ্গেশ অটো রাইস মিলের হাজার হাজার বস্তা ধান-চাল রাখা ছিল। যেগুলো পচে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়েছে।


এছাড়া আরো অনেকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে শত শত বস্তা চাল ও ধান পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। ভিজে যাওয়ার কারণে ব্যবসায়ীরা গুদাম থেকে সেগুলো সরাতে পারেননি। ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেশি হয়েছে।ব্যবসায়ীরা বলেন, বন্যা ঠিকই চলে গেছে। তবে কোটি কোটি টাকার পণ্য নষ্ট করে দিয়ে গেল। এদিকে, গ্রামীণ জনপদে বন্যা ও বৃষ্টির কারণে বোরো ধান শুকাতে না পারায় অনেকের ধানে চারা গজিয়েছে।ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন, অতি বৃষ্টিতে ধান শুকানোর সুযোগ না পাওয়ায় বস্তার মধ্যে ধানের চারা গজিয়েছে।



বন্যা কবলিত এলাকার কৃষকরা বলেন, এমনিতে বন্যায় প্রাণ বাঁচানো দায়, খাবার সংকট। তার ওপর ঘরে পানি উঠে প্রতিটি বাড়িতে রাখা ধান চারা গজিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে। বন্যার কারণে আয় রোজগার নেই, ত্রাণ যা মিলছে, তা দিয়ে হয়তো ২/৩ বেলা চলে, এরপর আর যাওয়ার জায়গা নেই। না খেয়ে মরা ছাড়া উপায় নেই।


আরও খবর



পদ্মা সেতু পারাপারে টোল

পদ্মা সেতু পারাপারে টোলের হার নির্ধারণ করে দিয়েছে সেতু বিভাগ

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৯৭জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

উদ্বোধন এর আগেই পদ্মা সেতু দিয়ে পারাপারের জন্য অনুমোদিত যানবাহনের টোল নির্ধারণ করেছে সরকার। এতে সেতু পার হতে বড় বাসকে দুই হাজার ৪০০ টাকা টোল দিতে হবে। আর থ্রি-এক্সেল ট্রাকে লাগবে পাঁচ হাজার ৫০০ টাকা। এছাড়া ১০০ টাকা টোল পরিশোধ করে সেতু পার হতে পারবে মোটরসাইকেল।

মঙ্গলবার (১৭ মে) সেতু বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ টোল হার নির্ধারণ করা হয়।

সরকার নির্ধারিত টোল হার অনুযায়ী, পদ্মা সেতু পারাপারে মোটরসাইকেলে ১০০ টাকা, কার ও জিপে ৭৫০ টাকা, পিকআপে এক হাজার ২০০ টাকা, মাইক্রোবাসে এক হাজার ৩০০ টাকা টোল পরিশোধ করতে হবে। বাসের ক্ষেত্রে ছোট বাস (৩১ আসন) এক হাজার ৪০০ টাকা, মাঝারি বাস (৩২ আসন বা এর বেশি) দুই হাজার টাকা, বড় বাস (থ্রি-এক্সেল) প্রতি দুই হাজার ৪০০ টাকা টোল দিতে হবে।

এছাড়া ছোট ট্রাককে (পাঁচ টন পর্যন্ত) এক হাজার ৬০০ টাকা, মাঝারি ট্রাকে (পাঁচ টনের বেশি ও সর্বোচ্চ আট টন পর্যন্ত) দুই হাজার ১০০ টাকা, মাঝারি ট্রাক (আট টনের বেশি ও সর্বোচ্চ ১১ টন) দুই হাজার ৮০০ টাকা, ট্রাকে (থ্রি-এক্সেল পর্যন্ত) পাঁচ হাজার ৫০০ টাকা, ট্রেইলার (ফোর-এক্সেল পর্যন্ত) ছয় হাজার টাকা। আর ট্রেইলার (ফোর-এক্সেলের অধিক) ছয় হাজারের সঙ্গে প্রতি এক্সেলের জন্য এক হাজার ৫০০ টাকা যুক্ত হবে।



আরও খবর