Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

তানোরে পৃথক পৃথক ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৬৩জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের স্বামী পরিত্যক্ত মাটির  ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।  নিহতের নাম মুনসুর রহমান(৬৫)। সে খাপাড়া গ্রামের মৃত খোকনের পুত্র। একই দিন সকালের দিকে তানোর পৌর সদর একে সরকার সরকারি কলেজের দক্ষিণে প্রফেসর পাড়ায় পাকা দেয়ালে ইট গাঁথুনির সময় পড়ে গিয়ে শমসের নামের এক রাজমিস্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে,এছাড়া  গুবিরপাড়া গ্রামের বিধবা রজি বেগম (৪০) নামের এক দুই সন্তানের জননী   পানিতে ডুবে মর্মান্তিক মৃত্যু বরন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে ঘটে ঘটনাগুলো। এসব ঘটনায় পরিবারসহ এলাকায়  শোকের ছায়া নেমে এসেছে।   

জানা গেছে, সকালের দিকে উপজেলার সরনজাই ইউনিয়ন ইউপির মহিলা সদস্য দোলনচাঁপার স্বামী মুনসুর রহমান নিজ বাড়ির পরিত্যক্ত মাটির ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। একই দিন সকালের দিকে পৌর সদর প্রফেসর পাড়ায় প্রভাষক আশরাফুলের বাড়ির পাকা দেয়ালে ইট গাঁথুনির সময় পড়ে যান শ্রমিক রাজমিস্ত্রী শমসের আলী। সাথে সাথে অজ্ঞান অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাড়ি উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন ইউপির বনকেশর গ্রামে। সে সানাউল্লাহর পুত্র। তার মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বজনরা হাসপাতালে আহাজারি শুরু করেন। স্বজনদের  কান্নায় হাসপাতাল ভারি হয়ে উঠে।এদিকে একই দিন গুবিরপাড়া গ্রামের মৃত মাসুদের স্ত্রী রজি বেগম (৪০) বাড়ির সামনে পুকুরের পানিতে ডুবে যায়। পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার এমন মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মাকে হারিয়ে  নির্বাক হয়ে পড়েছেন সন্তানেরা।   

থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রতিটি ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও খবর



যবিপ্রবি'র কোটা আন্দোলনকারীরা ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:কোটা পদ্ধতি বাতিল ও ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল রাখার দাবিতে শনিবার সকালে বিক্ষোভ-মিছিল করেছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা। সমাবেশে আগামী ৭ দিন যবিপ্রবির সকল ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন তাঁরা ।

শনিবার সকাল সাড়ে দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে সাময়িক সময়ের জন্য যশোর-চৌগাছা স্বাধীনতা সড়ক অবরোধ করে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান রাস্তাসমূহে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে প্রশাসনিক ভবনের নিচে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে দিনের কর্মসূচি শেষ করে। এসময় আন্দোলনকারীরা আগামী সাত দিনের জন্য সকল ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ও সাত দিনের কর্মসূচি ঘোষণা দেন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা এ সময় বলেন, আমাদের এ কোটা বাতিল আন্দোলন যৌক্তিক আন্দোলন। যৌক্তিক এ দাবির বাস্তবায়ন না হলে আমরা থেমে থাকব না। দাবি মেনে না নিলে আন্দোলন আরও কঠোর হবে।

বিক্ষোভ মিছিলে শিক্ষার্থীরা কোটার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান ‘কোটা না মেধা? মেধা মেধা’, আপস না সংগ্রাম, সংগ্রাম সংগ্রাম’, ‘আঠারোর পরিপত্র, পুনর্বহাল করতে হবে’, ‘কোটাপ্রথা নিপাত যাক, মেধাবীরা মুক্তি পাক’, ‘সারা বাংলায় খবর দে, কোটাপ্রথার কবর দে’, ‘আমার সোনার বাংলায়, বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে’ ইত্যাদি স্লোগান দেন সম্মিলিত কণ্ঠে।

উল্লেখ্য, কোটা বাতিলের দাবিতে গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মুখ সড়কে বিক্ষোভ করে যবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা এবং রাতে শহীদ মিনার চত্বরে মশাল জ্বালিয়ে মিছিল করে তাঁরা।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



হোমনায় সাপের কামড়ে গৃহবধুর মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪২জন দেখেছেন

Image
হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:কুমিল্লায় হোমনায় সাপের কামড়ে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম তানজিনা আক্তার (২১) তিনি উপজেলার গোয়ারি ভাঙ্গা গ্রামের আলী আহমেদের স্ত্রী। তার দুটি সন্তান রয়েছে। বুধবার সকালে নিজ বাড়িতে বিছানায় শুয়ে থাকা অবস্থায় তাকে সাপে কাটে। পরিবারের লোকজন সকাল ৮ টার দিকে তাকে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে এন্টিভেনম ভ্যাকসিন দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি থাকার পরামর্শ দেন। কিন্তু তার পরিবার তাকে হাসপাতালে না রেখে কবিরাজের কাছে নিয়ে যান। সেখানে রোগীর অবস্থা অবনতি হলে পুনরায় তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পথিমধ্যেই তার মৃত্যু হয়।

নিহতের স্বামী আলী আহমেদ জানান, সকাল আনুমানিক ৭ টায় বিছানাতেই শুয়েছিল তানজিনা।  এ সময় তার বাম পায়ের আঙ্গুলে সাপের ছোবল টের পায়। খাটের নিচে তাকাতেই কালো রঙের একটি সাপকে চলে যেতে দেখেন। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাকে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ভ্যাক্সিন দেওয়ার পর উপজেলার মাথাভাঙ্গা গ্ৰামের শাহআলম দরবেশ আলী কবিরাজের বাড়িতে 'পানপড়া'  খাওয়ানোর জন্য নেওয়া হয়। তারা তাকে ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেন।  ফেরার পথে তানজিনার শারীরিক অবস্থা আরো অবনতি ঘটলে আবারও তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। পথেই তার মৃত্যু হয়। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার রাশেদুল ইসলাম জানান, সাপে কাটা রোগীকে অ্যান্টি ভেনম দেয়া শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু সেটি মাঝামাঝি পর্যায়ে থাকাকালীন সময়েই তার পরিবারের লোকজন তাকে কোনো এক কবিরাজের কাছে নিয়ে যায়। পরে শুনেছি তাকে মৃত অবস্থায় আবার হাসপাতালে আনা হয়েছে। তানজিনাকে কোন না কোন বিষধর সাপে কেটেছিল বলেই তিনি জানান। 

আরও খবর



জাপানে পূজা কমিটি গঠন: সভাপতি বিপ্লব মল্লিক ও সাধারণ সম্পাদক অঞ্জন দাস

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০৮জন দেখেছেন

Image
নিজস্ব প্রতিবেদক:বিপ্লব মল্লিককে সভাপতি এবং অঞ্জন দাসকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন বরে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে জাপানে বসবাসরত সনাতন ধর্মাবলীদের বৃহৎ সংগঠন সর্বজনীন পূজা কমিটি, জাপান। গত ২৮ এপ্রিল ২০২৪ ইং সম্মিলিত অনলাইন ও অফলাইন সংযুক্তির সমন্বয়ে টোকিওস্থ বিভিও হলের আকাবানে কালচারাল সেন্টারে এক সাধারণ সভায় উপস্থিত সকলের মতামদের ভিত্তিতে এই কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

উল্লেথ্য যে জাপানে বসবাসরত সনাতন ধর্মাবলীদের বৃহৎ সংগঠন সর্বজনীন পূজা কমিটি, জাপান যা বিগত ৩০ বছর যাবত জাপানে সনাতন ধর্ম ও সাংস্কৃতি পালনের বাহক হিসেবে খুব সুচারুভাবে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে আসছে গৌরবের সাথে। বাংলাদেশী সনাতনী ভিন্ন ভাষাভাষী সনাতনী জাপান ও বহির্বিশ্বের অবস্থানরত সনাতন ধর্মে আকৃষ্ট সকাল সনাতনীদের এটি একটি সর্ব বৃহৎ সংগঠন যা নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সুনামের সাথে জাপানে পরিচালিত হয়ে আসছে যুগের পর যুগ। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ এপ্রিল ২০২৪ ইং সম্মিলিত অনলাইন ও অফলাইন সংযুক্তির সমন্বয়ে টোকিওস্থ বিভিও হলের আকাবানে কালচারাল সেন্টারে এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপদেষ্টা পরিষদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও সকল মতামতের ভিত্তিতে সভাপতি হিসেবে বিপ্লব মল্লিক ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে অঞ্জন দাস নির্বাচিত হয়। একই সাথে সকলের সমর্থনে উপদেষ্টা পরিষদের পুনর্গঠনও সম্পন্ন হয়। উপদেষ্টা পরিষদে রয়েছেন মিস্টার সুখেন সি ব্রহ্মা, মিস্টার সুনীল রায়, মিস্টার বিমান কুমার পোদ্মার, মিস্টার শিভাজী দত্ত, ডক্টর বিজন কুমার মিত্র।

সভায় সকলের মতামতের ভিত্তিতে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ সার্বজনীন পূজা কমিটি জাপান গঠিত হয় যা আগামী দুই বছরের জন্য সর্বজনীন পূজা কমিটি জাপান সকল প্রকার সনাতন ধর্মীয় কর্মকাণ্ডের আয়োজন ,অনুশীলন, উদযাপন করানসহ সকল প্রকার সামাজিক ও সেবা মূলক কাজের দায়িত্ব পালনের সাথে সাথে আগামী ৩০ বছরের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে।

৫১ সদস্য বিশিষ্ঠ কমিটির অন্যান্যরা হলেন সহ-সভাপতি নন্দ দাস, কিশোর পাল , শারমিলি ভৌমিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিরুপম দাস, সুজন সাহা, নাসুতোস সেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সঞ্জয় কুমার দেব, সহকারী সাংগঠনিক সম্পাদক, বিদ্যুৎ বড়াই , নারায়ণ বণিক, মানিক মন্ডল, অর্থ সম্পাদক, প্রদিপ কুমার রায়, সহকারি অর্থ সম্পাদক রাজিব রক্তি, তপন দাস, প্রীতম কুমার দাস, প্রকাশনা সম্পাদক, সজীব দাস, সহকারি প্রকাশনা সম্পাদক ,ভোলানাথ দাস, কৃষ্ণ গোপাল নাথ ,সুমেল চন্দ্র, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক, শিপন দাস, সহকারি সমাজ কল্যাণ সম্পাদক ,আসিস বৌনিক,খমা দেব, তুষার কান্তি রায়, সংস্কৃতি সম্পাদক , ববিতা পোদ্দার, সহকারী সাংস্কৃতিক, সম্পাদক, শান্তা দাস, অনুপম দেব ,মিঠুন চন্দ্র দাস, স্টেজ সেক্রেটারি, সুমান্তা মজুমদার, সরকারি স্টেজ সেক্রেটারি ,দেভ বিশ্বাস, বিপুল কুমার সাহা, সৌরভ রায় চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক, সনেট দাস, সরকারি প্রচার সম্পাদক ,সুভাষ দাস, মাইকেল দাস, রাজীব পাল, সদস্য নির্বাচিত হলেন স্বরবানু দাস, উৎপল দত্ত, আশীষ রঞ্জন রায়,অনিন্দিয়া রায় ও গৌরাঙ্গ রায়,মাইকেল চন্দ্র রায়, কৌশিক রায়,নিখিল রায়,সুজিত ব্রহ্মাও অনিক সাহা।

আরও খবর



চট্টগ্রামে প্রাইম ব্যাংকের মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রাইম ব্যাংক পিএলসি’র এএমএল এন্ড সিএফটি ডিভিশনের উদ্যোগে চট্টগ্রামে ‘এএমএল এন্ড সিএফটি কমপ্লায়েন্স এন্ড এওয়ারনেস’ শীর্ষক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্প্রতি (০৮ জুন, ২০২৪) চট্টগ্রাম শহরের একটি কনফারেন্স হলে এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে প্রশিক্ষণ কর্মসূচী উদ্বোধন করেন আরিফ হোসেন খান, নির্বাহী পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক, চট্টগ্রাম অফিস এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মো. আরিফুজ্জামান, পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক, চট্টগ্রাম অফিস। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের ডিএমডি ও প্রধান মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ পরিপালন কর্মকর্তা মো. জিয়াউর রহমান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপ-প্রধান মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ পরিপালন কর্মকর্তা মো. ইকবাল হোসেন।

প্রাইম ব্যাংকের চট্টগ্রাম অঞ্চলের ২২টি শাখার অপারেশন ম্যানেজার ও ম্যানেজার সহ মোট ১৫০ জন কর্মকর্তা উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে মোট ৪টি সেশনে মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধ বিষয়ক বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোকপাত করা হয়।

রিসোর্স পার্সন হিসেবে সেশনসমুহ পরিচালনা করেন মো. আরিফুজ্জামান, পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক, চট্টগ্রাম অফিস এবং এএমএল এন্ড সিএফটি ডিভিশনের কর্মকর্তাবৃন্দ। প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধ বিষয়ক বিভিন্ন গুরুত্তপূর্ণ বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। 


আরও খবর



আইএমএফ ঋণের তৃতীয় কিস্তি পেল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৫৮জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক:বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণের তৃতীয় কিস্তির ১১৫ কোটি মার্কিন ডলার পেয়েছে। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়া, বিশ্ব ব্যাংক ও ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) বি‌ভিন্ন আর্থিক সহায়তা ঋণের আরও ৯০ কো‌টি ডলার পে‌য়ে‌ছে বাংলাদেশ। সব মি‌লি‌য়ে বৃহস্প‌তিবার রাতে ২০১ কো‌টি ডলা‌রের ঋণ সহায়তার অর্থ দেশের বৈদেশিক মুদ্রার সঞ্চয় বা রিজার্ভে যুক্ত হয়েছে।

বৃহস্প‌তিবার (২৭ জুন) রা‌তে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থে‌কে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর গত সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে আইএমএফের পর্ষদ সভায় তৃতীয় কিস্তির ১১৫ কোটি ডলার অনুমোদন হয়। এর মধ্যে এক্সটেন্ডেড ক্রেডিট ফ্যাসিলিটি (ইসিএফ) ও এক্সটেন্ডেড ফান্ড ফ্যাসিলিটির (ইএফএফ) ৯২ কোটি ৮০ লাখ ডলার এবং রেজিলিয়েন্স অ্যান্ড সাসটেইনেবিলিটি ফ্যাসিলিটির ২২ কোটি ডলার রয়েছে।

এরও আগে গত ২৪ এপ্রিল ঋণ কর্মসূচির আওতায় তৃতীয় কিস্তির জন্য গত ডিসেম্বরভিত্তিক শর্ত বাস্তবায়ন পর্যবেক্ষণে আসে আইএমএফ মিশন। সংস্থাটির ডেভেলপমেন্ট মাইক্রোইকনোমিকস ডিভিশনের প্রধান ক্রিস পাপাগেওর্জিউর নেতৃত্বে প্রতিনিধিদল দুই সপ্তাহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের সঙ্গে বৈঠক ও পর্যালোচনা কার্যক্রম শেষে গত ৮ মে এক বিবৃতিতে জানায়, বাংলাদেশ সরকার এবং আইএমএফ কর্মকর্তারা এ বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছেন।

বৈদেশিক মুদ্রা রিজার্ভ কমতে থাকার মধ্যে গত বছরের ৩০ জানুয়ারি আইএমএফের সঙ্গে ৪৭০ কোটি ডলারের ঋণচুক্তি করে বাংলাদেশ। এর তিনদিন পর প্রথম কিস্তিতে ৪৭ কোটি ৬২ লাখ ৭০ হাজার ডলার ছাড় করে সংস্থাটি। এরপর গত ১৬ ডিসেম্বর দ্বিতীয় কিস্তির ৬৮ কোটি ২০ লাখ ডলার ছাড় করা হয়। ২০২৬ সাল পর্যন্ত মোট সাতটি কিস্তিতে ঋণের পুরো অর্থ ছাড় করার কথা রয়েছে। দ্বিতীয় কিস্তির পরবর্তীগুলোতে সমান অর্থ থাকার কথা ছিল। কিন্তু রিজার্ভ আরও কমে যাওয়ায় তৃতীয় ও চতুর্থ কিস্তিতে বেশি অর্থ চায় বাংলাদেশ। ইতোমধ্যে বেশকিছু কঠিন শর্তের বাস্তাবয়ন ও আগামী আরও বড় সংস্কার কার্যক্রমের প্রতিশ্রুতি দেওয়ায় সংস্থাটি তৃতীয় কিস্তিতে ৬৮ কোটি ডলারের পরিবর্তে ১১৫ কোটি ডলার দিতে সম্মত হয়। তবে মোট ঋণের পরিমাণ এবং মেয়াদ একই থাকবে।


আরও খবর