Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

তানোরে নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালনে জনতার ঢল

প্রকাশিত:Tuesday ১১ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১১০জন দেখেছেন
Image
তানোর প্রতিনিধি 
রাজশাহীর তানোরে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতার স্থপতি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাংগালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উৎযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে  সোমবার বিকেলের দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে পরিষদ চেয়ারম্যান ময়নার বাস ভবন থেকে  আনন্দ র্যালি বের হয়ে  পরিষদ চত্বরে  বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা জানিয়ে থানা মোড়ে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য শরিফ খানের সভাপতিত্বে এবং তানোর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকারের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওহাব হোসেন লালু, দপ্তর সম্পাদক শিক্ষক জিল্লুর রহমান , মুন্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক তোফাজ্জুল হক খান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সাজেমান আলী,চান্দুড়িয়া ইউপির চেয়ারম্যান ইউপি আওয়ামী লীগ সভাপতি মজিবর রহমান, বাধাইড় ইউপির চেয়ারম্যান ইউপি আওয়ামী লীগ সম্পাদক আতাউর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের ইসলাম, যুবলীগ নেতা বদিউজ্জামাল নয়ন প্রমুখ।  অথিতি হিসেবে   ছিলেন,বীর মুক্তিযোদ্ধা অবশর প্রাপ্ত শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক,  উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান সোনিয়া  সরদার মুন্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আমির হোসেন আমিন  আমির হোসেন আমিন,উপজেলা  নির্বাহী সদস্য ও সরনজাই ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু সাঈদ সরকার, কলমা ইউপির সভাপতি ল ইসলা ইসলাম স্বপন,সহসভাপতি আতাউর রহমান, কলমা ইউপি আওয়ামী নেতা আলাউদ্দিন, লুৎফর রহমান, কলমা ইউপি ছাত্র লীগের সভাপতি মুর্শেদুল মোমেনিন রিয়াদ, রামিল হাসান সুইট ও মাহাবুর রহমান মাহাম,ভুট্ট, মমিন, প্রমুখ।কলমা ইউপির সদস্য নাজিমুদ্দি ঘোড়া আলা ছয়টির মত ঘোড়া র্যালিতে এনে চমক দেখান।এছাড়াও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী  সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন। পথসভায় 
জনসভায় রুপ নেয়।শেষে বঙ্গবন্ধুর আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। 

আরও খবর



মানিকগঞ্জে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা।

প্রকাশিত:Tuesday ২৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

প্রধান শিক্ষক আব্দুল রহিম

বজলুর রহমান

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। কিন্তু সরকারি নির্দেশ অমান্য করে এবং সাস্থ ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস নিচ্ছেন মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর থানার মানিক নগর বাজারের পদ্মা আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম। তিনি প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে নিয়মিত ক্লাস পরিচালনা করে আসছেন। মঙ্গলবার সকালে এই দৃশ্য এলাকার অভিভাবকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।


পরে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত শিক্ষার্থীদের ছুটি দিয়ে দেন প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানায় জোর করে তাদের ক্লাসে আসতে বাধ্য করছেন প্রধান শিক্ষক। তারা আরো জানায় স্কুলে অনুপস্থিত থাকলে তাদের স্কুল থেকে বের করে দেওয়া হবে। এই হুমকির মুখে তারা স্কুলে আসতে বাধ্য হচ্ছে।


স্কুলে গিয়ে দেখা যায় সকল শিক্ষক উপস্থিত। প্রধান শিক্ষক কাজে ব্যস্ত। প্রতিষ্ঠানের সামনে জাতীয় পতাকা উড়ছে। কয়েকজন শিক্ষক জানায় তারা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন কিন্তু প্রধান শিক্ষক কিছুতেই মানেন না সরকারি নির্দেশনা। প্রধান শিক্ষক বলেন সরকারি নিয়ম মানলে প্রতিষ্ঠান চালানো যাবেনা।


কয়েকজন সাংবাদিক প্রধান শিক্ষক আবদুর রহিমকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি জানান আপনারা এত খারাপ কেন। আমার প্রতিষ্ঠান খোলা রাখি আর বন্ধ রাখি সেটা আমার ব্যাপার। সরকারের সব সিদ্ধান্ত মেনে আমার প্রতিষ্ঠান চালাতে পারবো না।


এই বিষয়ে মানিকগঞ্জ হরিরামপুর সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মাহফুজা আক্তার বলেন বিষয়টি আমি শিক্ষা অফিসার কে জানাচ্ছি এবং বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে।


আরও খবর



মাওয়া শিমুলিয়া ফেরী ঘাটে পদে পদে দুর্নীতি

মাওয়া শিমুলিয়া ফেরী ঘাটে পদে পদে দুর্নীতি

প্রকাশিত:Monday ১৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image


জুবায়ের আলম:

ফেরীর তেল চুরি ,দুর্নীতি, সংস্থার বিভিন্ন খাতের অর্থ আত্মসাত সহ মাওয়ায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার  ঘাটে বিআইডব্লিউটিসির কর্মচারীদের বিরুদ্ধেব্যাপক হারে  অভিযোগ রয়েছে।স্থানীয়ভাবে অনুসন্ধান করে জানাগেছে ফেরি চলাচলের জন্য বছরে কোটি কোটি টাকার তেল ব্যয় হয়।


এই তেল ব্যয়ের ব্যাপারে রয়েছে নানা রকমের কারসাজি। বহু দিন ধরেই শিমুলিয়ায় তেল চুরি সিন্ডিকেট সক্রিয়। চক্রটির হাত লম্বা। তেল চুরির ভাগ চলে যায় অনেক উপরের কর্মকর্তাদেরও হাতে। তাই যুগ যুগ ধরে এই তেল চুরি চলছেই। আধুনিক ভিটিএস যন্ত্র ব্যবহার না করাও এর একটি কারণ। এক শ্রেণীর কর্মকর্তার অবৈধ আয়ের অন্যতম উৎস এই তেল চুরি।সাশ্রয় করা তেলই বাইরে বিক্রি করা হয়।


প্রতিটি ফেরিরই তিন সদস্যের একটি একটি টাইম নির্ধারণ করে তেল বরাদ্দ দেয়। রো রো ফেরি শাহ পরাণের বাংলাবাজার থেকে শিমুলিয়া আসার জন্য সময় নির্ধারণ করা ৫৫ মিনিটি এবং তেল বরাদ্দ ১০৮ লিটার। শিমুলিয়া থেকে বাংলা বাজার যাওয়া জন্য ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটে ২২১ লিটার বরাদ্দ রয়েছে।ফেরি কোন কোন সময় একটু বেশি লাগে আবার কখনও সময় একটু কম লাগে। কম লাগলে তেল কম খরচ হয়।


তবে হিসাবের মধ্যেই থাকে। এগুলো রেজিস্টার মেনটেন করা হয়।দূরত্ব, গতিবেগ ও স্রোত বিবেচনায় বিপুল পরিমাণ তেল বরাদ্দ দেয়া হলেও সেই অনুযায়ী ফেরি ও জাহাজ চালানো হয় না। এভাবে বরাদ্দের তেল বাঁচিয়ে তা গোপনে বিক্রি করে দেন সংশ্লিষ্টরা। তেল চুরির টাকা সংস্থাটির ফেরীচালক,মাষ্টার সুকানী,লস্কর সহ বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েক কর্মকর্তার পকেটে যায়।


প্রতি মাসে এই ফেরি রুটে সংস্থাটির কোটি কোটি টাকা আয় ব্যয় রয়েছে। বিআইডব্লিউটিসির সহ-মহাব্যবস্থাপক(বাণিজ্য) মোঃ শফিকুল ইসলাম  জানান, গত ২০২১ সালের মে মাসে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে ফেরিগুলো ৪ হাজার ৫৭০টি ট্রিপ দিয়ে আয় করেছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। আর তেল খরচ হয়েছে ২ কেটি ৬৮ লাখ ৫০ হাজার টাকার। গত জুন মাসে ৬ হাজার ৪৫২টি ট্রাক, ২৫ হাজার ৩৬৯টি বাস এবং ৭৪ হাজার ৯৫টি ছোট যান পারাপার করেছে। ফেরিগুলো ট্রিপ দিয়েছে ৪ হাজার ৬১৬টি। এতে আয় হয়েছে ১১ কোটি ২০ লাখ ৯৫ হাজার ২৮৯ টাকা। তবে এই মাসের তেল খরচ তাৎক্ষণিক তিনি জানাতে পারেননি।


তেলে হিসাব অডিট হয়ে তার কাছে কিছুটা বিলম্ব হয় বলে তিনি জানান।তবে তেলের দায়িত্বে থাকা বিআইডব্লিউটিসির নির্বাহী প্রকৌশলী তথ্য না দিয়ে নানা কৌশলে এড়িয়ে যান। তেল চুরি সিন্ডিকেটের সঙ্গে তাঁর সম্পৃক্ততার আঙ্গুল তুলছেন অনেকে। তবে  নির্বাহী প্রকৌশলী অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।অন্যদিকে ফেরির ফগ লাইট কেনায় অনিয়মের অভিযোগে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পরিচালক ও জিএমসহ ৭ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।বুধবার (৫ জানুয়ারি) দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মামলাটি দায়ের করা হয়।


ঘন কুয়াশায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ১০ কিলোমিটার দেখা যায় এমন উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ফগ অ্যান্ড সার্চ লাইট ক্রয়ে ৫ কোটি ৬৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে  মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সাইদুজ্জামান। দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।মামলার আসামিরা হলেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) সাবেক চেয়ারম্যান ও পরিচালক (কারিগরি ) ড . জ্ঞান রঞ্জন শীল, মহাব্যবস্থাপক বা জিএম ক্যাপ্টেন শওকত সরদারমো. নুরুল হুদা, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি সেক্রেটারি পঙ্কজ কুমার পাল, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের (বিএসএফআইসি) সাবেক মহাব্যবস্থাপক ( মেকানিক্যাল ) ইঞ্জিনিয়ার মো. রহমত উল্লা, বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশনের (বিজেএমসি) মেকানিক্যাল বিভাগের ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন এবং মেসার্স জনী করপোরেশনের মালিক ওমর আলী।



আরও খবর



অসম প্রেমের কারণে সিরাজদিখানে যুবকের উপর বর্বরোচিত নির্যাতন

অসম প্রেমের কারণে সিরাজদিখানে যুবকের উপর বর্বরোচিত নির্যাতন

প্রকাশিত:Sunday ০৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৮৫৮জন দেখেছেন
Image


স্টাফ রিপোর্টারঃ

মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখানের বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়িতে অসম প্রেম করার অপরাধে সাইফুল ইসলাম রাজন নামে এক যুবককে অমানুষিক নির্যাতন করায় দুদিন ধরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে ঐ যুবক।


মোবাইল ফোনে গত ৭ জানুয়ারী বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়িতে সাইফুলকে ডেকে নিয়ে চালানো হয় বর্বরোচিত নির্যাতন।বর্তমানে ছেলেটি ইছাপুরা হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভর্তি আছেন।


স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বালুচর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে জয়নাল মেম্বারের বাড়ির মেয়ের সাথে  প্রেমের সম্পর্ক হয় সাইফুলের। ৩ বছরের প্রেমের সম্পর্ক যখন গভীরতর হলে তারা দুজনে পালিয়ে যায়। তখন বাধা হয়ে দাঁড়ায় প্রেমিকার পরিবার।সাইফুলের লেখাপড়া ও পরিবারিক অবস্থা ভালো না থাকায় আপত্তি ওঠে প্রেমিকার পরিবার থেকে।


গত ৮জানুয়ারি মোবাইল ফোনে ডেকে নেয় প্রেমিকার আত্মীয় আলমগীর হোসেন পিতা জয়নাল,মনির পিতা নুর আলি,জাহাঙ্গীর পিতা জামাল মিয়া। সরল বিশ্বাসে সাইফুল যায় ঐ বাড়িতে। পূর্বপরিকল্পনা মতো উপরোল্লিখিত ব্যাক্তিরা গাছের সাথে বেঁধে আদিযুগের বর্বরোচিত কায়দায় অমানুষিক বিচার  করা হলো তার প্রতি।


আরও খবর



ডেমরা থানার ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিনের মাদক-সন্ত্রাস অপরাধ নির্মূলে কঠোর ভূমিকায় মুগ্ধ এলাকাবাসী

ডেমরা থানার ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিনের মাদক-সন্ত্রাস অপরাধ নির্মূলে কঠোর ভূমিকায় মুগ্ধ এলাকাবাসী

প্রকাশিত:Wednesday ১৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৪১জন দেখেছেন
Image

বজলুর রহমানঃ 

ডিএমপির ডেমরা থানায় গত ২০২০ সালের ২৭ ডিসেম্বর অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন খন্দকার নাসির উদ্দিন।গত ১ বছর ১ মাসের কর্মময় সময়ে তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় প্রশংসনীয় ভুমিকা রেখে চলেছেন।মাত্র কয়েক মাসে তার নানাবিধ কর্মকাণ্ড মানুষের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে।মাদক,চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসবাদ, ডাকাতিসহ অপরাধ মুলক কর্মকান্ড বন্ধ করে নিরাপদ একটি এলাকা উপহার দেবার লক্ষ্য নিয়ে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন ইন্সপেক্টর খন্দকার নাসির উদ্দিন।ডেমরা থানার বিভিন্ন মহল্লা,ওয়ার্ড থেকে শুরু করে প্রতিটি স্থানেই পুলিশি তৎপরতা জোরদার করায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে দিনমজুর,শিক্ষক,শ্রমিক,রাজনৈতিক ব্যাক্তি থেকে শুরু করে সর্ব মহল সন্তষ্টি প্রকাশ করেছে।


স্থানীয বেশকিছু লোকজনের সাথে আলাপকালে তারা জানায়,ডেমরা থানায় ওসি হিসেবে খন্দকার নাসির উদ্দিন যোগদান করার পর থেকে এক কথায় বলতে পারি এখন আমরা রাতের আধারে নির্ভয়ে ঘরের দরজা খুলেও ঘুমাতে পারি,চুরি ডাকাতি,সন্ত্রাসী কর্মকান্ড,বন্ধ হয়েছে বলা চলে"।তারা আশাবাদ ব্যাক্ত করে বলেন"তার মত চৌকষ পুলিশ অফিসার দীর্ঘ বছর ডেমরা থানায় কর্মরত থেকে আমাদের সেবা করুক এটাই সকলের প্রত্যাশা।ডেমরা থানায় কর্মরত অফিসার ইনচার্জ খন্দকার নাসির উদ্দিনের সাথে কথা বললে তিনি সংবাদ কর্মীদের বলেন"আমি গত ২৭/১২/২০২০ সালে ডেমরা থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেছি,বিগত ২০২১ সালের পহেলা জানুয়ারী থেকে ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সর্বমোট ৬২৫ টি মামলা রুজ্জু হয়,তার মধ্যে ৩১০ টি মাদকের মামলায়৬৭৩২ পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট,৩৮কেজি ৬০৩ গ্রাম গাঁজা,১১৩০ গ্রাম হেরোইন,৬১ বোতল ফেন্সিডিল,৬৪ ক্যান বিয়ার,৪ লিটার চোলাই মদ,১টি পিস্তল ০২ রাউন্ড গুলি এবং পরিত্যাক্ত অবস্থায় ৯৭৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।তাছারাও নারী ও শিশু অপহরন মামলায় ১৫ জন ভিকটিম উদ্ধার করতে সক্ষম হই"।


ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিন আরো বলেন"আমি যতদিন এ থানায় থাকব চেষ্টা করব আমার দ্বারা কোন জনসাধারন যেন কষ্ট না পায়,আমার অধীনস্ত পুলিশ সদস্যদের নিয়েই আমি জনসাধারনকে নিয়মিত আইনী সেবা যথাযতভাবে দিয়ে যাব,জনসাধারনের কাছে আমার ব্যাবহৃত মোবাইল ফোনের নম্বর দেয়া আছে এবং আমার ব্যাবহৃত মোবাইলটি ২৪ ঘন্টা খোলা থাকে,যখনি কোন নাগরিক সমস্যায় পড়ে আমার কাছে ফোন করে আমি চেষ্টা করি দ্রুত সমস্যা সমাধানের,আমার কাছে রাতদিন ২৪ ঘন্টাই সমান"।



আরও খবর



একই রুমের ফেনে ঝুলছিল নারী-পুরুষের মরদেহ

একই রুমের ফেনে ঝুলছিল নারী-পুরুষের মরদেহ

প্রকাশিত:Sunday ০৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১০৮জন দেখেছেন
Image


গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের গাছা এলাকার একটি বাড়ি থেকে গলায় ফাঁস লাগানো দুই নারী-পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে জাঝর উত্তর পাড়া এলাকার শাহীন মিয়ার বাড়ির দ্বিতীয় তলার রুম থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।


নিহতরা হলেন, গাজীপুর জেলার কালিগঞ্জ থানার বেতয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে লিমা রহমান (২৫) ও সিলেট সদর এলাকার বোরাইয়া এলাকার রঞ্জিত চৌধুরীর ছেলে রজত কান্তি চৌধুরী । লিমা মোটেক সোয়েটার কারখানার মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট হিসেবে চাকুরি করতেন এবং রজত গাজীপুর সদর এলাকার সিগমা ডায়েগনষ্টিক সেন্টারের পরিচালক। 


বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নন্দলাল চৌধুরী।


তিনি জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে কর্মস্থল মোটেক সোয়েটার কারখানা থেকে বাসায় ফিরে লিমা রহমান। শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় শনিবার কর্মস্থলে যাওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু শনিবার কর্মস্থলে না যাওয়ায় কারখানার মালিক পক্ষ দুপুরের খাবারের বিরতিতে লিমার বাসায় লোক পাঠায়।

বাসায় ডাকাডাকি করে কোন সারাশব্দ না পেয়ে দরজা ধাক্কা দিয়ে দেখতে পান লিমা রহমান ও রজত কান্তি চৌধুরী গলায় ওরনা পেঁচিয়ে সিলিং ফ্যানের হুকের সাথে ঝুলে আছে। পরে গাছা থানা পুলিশকে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়।


গাছা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আহসানুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে পূর্বে সিগমা ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট পদে চাকুরী করতেন লিমা। চাকুরীর সুবাদে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক রজত কান্তি চৌধুরীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় তার।


মাস দুয়েক আগে লিমা চাকুরী ছেড়ে সোয়েটার কারখানায় চাকুরী নেন। লিমা ওই বাড়িতে একাই ভাড়া থাকতেন। পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে রজত ওই বাড়িতে নিয়মিত যাতায়ত করতেন। তবে তাদের মধ্যে কি সম্পর্ক এবং কেন আত্মহত্যা করেছে সেটি জানা যায়নি।



আরও খবর