Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

তালতলীর সব ইউনিয়নে নৌকা প্রার্থীর জয়

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৬৭জন দেখেছেন
Image

বরগুনার তালতলী উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে সবকটিতে নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বুধবার (১৫ জুন) রাতে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. শাহাদাৎ হোসেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, উপজেলার পচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মো. আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদার তিন হাজার ৯৩৬ ভোট পেয়েছেন নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকের প্রার্থী মো. আবু জাফর পেয়েছেন তিন হাজার ২২৮ ভোট।

ছোটবগী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মু. তৌফিকুজ্জামান (তনু) পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৬৯৯ ভোট। তার নিকটতম প্রার্থী আনারস প্রতীকের আবুল হোসেন পেয়েছেন এক হাজার ৮১৫ ভোট।

কড়ইবাড়ীয়া ইউনিয়নে মো. ইব্রাহীম সিকদার (পনু) নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন তিন হাজার ৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী হাফিজুল হক শিকদার পেয়েছেন দুই ৬৪২ভোট।

বড়বগী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো. আলমগীর মিঞা (আলম মুন্সি) পেয়েছেন চার হাজার ৯১৪ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মো. শাহাদাৎ হোসাইন পেয়েছেন তিন হাজার ২০ ভোট।

নিশানবাড়ীয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ড. কামরুজ্জামান বাচ্চু পেয়েছেন পাঁচ ৪০৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চশমা প্রতীকের প্রার্থী মো. শাহজালাল পেয়েছেন এক হাজার ৩৭৯ ভোট।


আরও খবর



সুনামগঞ্জে কবরস্থান থেকে নবজাতক উদ্ধার

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

সুনামগঞ্জ শহরতলির ইব্রাহিমপুর গ্রামে কবরস্থান থেকে এক নবজাতকে উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে শিশুটিকে উদ্ধারের পর সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয় ও পুলিশ সদস্যরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রাতে হঠাৎ কবরস্থান থেকে শিশুর কান্না ভেসে আসছিল। অনেকে আবার বেড়ালের ডাক মনে করেছিলেন। কিন্তু কান্নার আওয়াজ বাড়তে থাকলে আশপাশের বাসিন্দারা কৌতূহলবশত কবরস্থানে যান। পরে একটি নবজাতককে দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধারের পর পুলিশে খবর দেন তারা। পরে পুলিশের সহযোগিতায় তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

কবরস্থানের পাশের বাসিন্দা তাছলিমা আক্তার বলেন, হঠাৎ রাতে নবজাতকের কান্না কানে আসছিল। এগিয়ে গিয়ে দেখি নবজাতক কাঁদছে। গ্রামের লোকজন জড়ো হলো। সবাই মিলে শিশুটিকে গোসল করানোর পর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

jagonews24

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মা ও শিশু ওয়ার্ডে রাতে দায়িত্ব পালনকারী স্মৃতি আক্তার জাগো নিউজকে বলেন, শিশুটি এখন সুস্থ আছে।

এদিকে কবরস্থানে ফেলে যাওয়া শিশুর দায়িত্ব নিতে আগ্রহ জানিয়েছেন স্থানীয় অনেকে।

পাঁচ সন্তানের জননী রাশেদা বেগম জাগো নিউজকে বললেন, ‘কেউ না নিলে আমি শিশুটিকে নিবো। আমার পাঁচ সন্তানের সঙ্গে আরেক সন্তান বড় হবে।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য গিয়াস উদ্দিন জাগো নিউজকে বললেন, এ নবজাতক প্রয়োজনে আমার এবং স্ত্রীর পরিচয়ে বড় হবে। যা যা প্রয়োজন সবই করবো।

সদর থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সোহেল আহমদ জাগো নিউজকে বলেন, খবর পেয়ে নবজাতককে বাঁচাতে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুতে সহায়তা করা হচ্ছে। বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতনদের জানানো হয়েছে। নবজাতকের চিকিৎসা চলছে। সুস্থ হলে শিশুটি কোথায় থাকবে ঊর্ধ্বতনরাই সিদ্ধান্ত নিবেন।


আরও খবর



ভর্তিচ্ছুদের পদচারণায় প্রাণবন্ত রাবি ক্যাম্পাস

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

রাত পোহালেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে রোববার (২৪ জুলাই) বিকেল থেকে হাজারো ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে রাবি ক্যাম্পাস।

বিকেলে ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সামজ্জোহা চত্বর, টুকিটাকি চত্বর, শহীদ মিনার চত্বর, রাবির হল গুলো, কেন্দ্রীয় মসজিদ, সাবাস বাংলাদেশ, প্যারিস রোড, সুবর্ণজয়ন্তী টাওয়ার, ইবলিশ চত্বর, পশ্চিমপাড়া, প্রত্যেকটি ডিপার্টমেন্টের সামনে হাজারো শিক্ষার্থীর ঢল। শিক্ষার্থীরা তাদের প্রিয় ক্যাম্পাসে এসেই কেউ বা সেলপি তুলছেন কেউবা আবার তার পরীক্ষার হল খুঁজতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য অবলোকন করার জন্য তারা ঘোরাফেরা করছেন। অনেক শিক্ষার্থী আবার তাদের সিট প্ল্যান খুঁজে বের করতে ক্যাম্পাসে এসেই ডিপার্টমেন্টগুলোতে পাড়ি জমিয়েছে।

শরিয়তপুর থেকে বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা আশিকুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, স্বপ্নের ক্যাম্পাস এতোদিন পত্র-পত্রিকায় দেখেছি। আজকে তার বুকে আমার পদচারণা। রাবি ক্যাম্পাসে ভর্তি হওয়ার অনেক ইচ্ছে সেইভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছি এখন আল্লাহ ভরসা।

রাবির সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে আশিক বলেন, রাবি ক্যাম্পাস নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের সবথেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস। বাস্তবে দেখে রাবির প্রেমে পড়ে গিয়েছি।

ময়মনসিংহ থেকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা সাবিকুন্নাহার জাগো নিউজকে বলেন, আমার রাবিতে পড়ার ইচ্ছে অনেক আগের। আমি ঢাবিতে সাবজেক্ট পেয়েছি তবুও রাবিতে পড়ার ইচ্ছে। রাবিতে সাবজেক্ট পেলে ঢাবি ত্যাগ করে তার পছন্দের ক্যাম্পাসেই পড়বো।

চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর আব্দুর রহিম তার মেয়েকে নিয়ে এসেছেন রাবি ক্যাম্পাসে। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ক্যাম্পাসটি দেখা মাত্রই আমার পছন্দ হয়েছে। আমি চাই আমার মেয়ে এ ক্যাম্পাসে ভর্তি হোক। নিরিবিলি ও পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাসে পড়ার পরিবেশকে আরও প্রাণবন্ত করে তুলবে।

এদিকে এ বছর ভর্তিযুদ্ধে অংশ নেবেন এক লাখ ৭২ হাজার পরীক্ষার্থী। এরমধ্যে তারা ক্যাম্পাসে আসা শুরু করেছেন। তাদের সঙ্গে অভিভাবকরাও আসছেন। নিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রক্টর জাগো নিউজকে বলেন, আমরা নিরাপত্তার সবরকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। আশা করছি এবছর ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হবে।

এদিকে সোমবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হবে ভর্তি পরীক্ষা। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় প্রত্যেক ইউনিটে চারটি শিফটে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ বছর রাবি ভর্তি পরীক্ষায় বিশেষ কোটাসহ চার হাজার ৬৪১টি আসন রয়েছে। এ আসনের বিপরীতে এক লাখ ৭৮ হাজার ২৬৮টি চূড়ান্ত আবেদন জমা হয়েছে। এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে ৬৭ হাজার ২৩৭টি, ‘বি’ ইউনিটে ৩৮ হাজার ৬২১টি ও ‘সি’ ইউনিটে ৭২ হাজার ৪১০টি চূড়ান্ত আবেদন সম্পন্ন হয়। এবার একক আবেদনকারীর সংখ্যা এক লাখ ৫০ হাজার ৪২৯ জন।


আরও খবর



‘এ’ দলের সফর কমে গেছে যে কারণে

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

‘এ’ দল মানেই ছায়া জাতীয় দল। প্রায় প্রতিটি ক্রিকেট খেলুড়ে দেশই তাদের জাতীয় দলের পাশাপাশি ‘এ’ দল তৈরি করে ভবিষ্যতের কথা ভেবে। পাইপ লাইন ঠিক রাখতে। এক সময় বাংলাদেশ জাতীয় দলের পাশাপাশি ‘এ’ দলের খেলাও হতো নিয়মিত; কিন্তু সময়ের প্রবাহমানতায় এখন তা নেই বললেই চলে। ‘এ’ দল কসেপ্টটাই যেন গেছে মরে।

‘এ’ দল তৈরি এবং তাদের বাইরে খেলতে পাঠানোর চিন্তাও গেছে কমে। এ দলের সফরও সেভাবে হয় না। অনেকদিন পর এবার আবার দেশের বাইরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। আগামীকাল ২৯ জুলাই শুক্রবার রাত পৌনে ৮টায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাবে মোহাম্মদ মিঠুন, সৌম্য সরকারের মত জাতীয় দলের তকমাধারি ক্রিকেটাররা।

জিম্বাবুয়ে সফরে জাতীয় দলের সঙ্গে কোন নির্বাচক পাঠানো না হলেও আগামীকাল যে ‘এ’ দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাচ্ছে, তার সঙ্গে অন্যতম নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক যাচ্ছেন। জানা গেছে, জাতীয় দলের বাইরে ‘এ’ দলের কোনো ক্রিকেটারের অবস্থা কী? তা সরেজমিনে দেখার জন্যই পাঠানো হচ্ছে আব্দুর রাজ্জাককে।

কেন এ দলের সফর হয় না? এ দল গঠন করে দেশের বাইরে খেলার ব্যবস্থা করা হয় না কি কারণে? এ ব্যাপারে বিসিবির তৎপরতায় কী ঘাটতি আছে?

জাতীয় দলের নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক অবশ্য তা মনে করেন না। তিনি মানতে নারাজ যে, ‘এ’ দলের সিরিজ সফর কম হওয়ার দায় বিসিবির। জাতীয় দলের এ সাবেক অধিনায়কের অনুভব, ‘এ’ দলের সিরিজ কম হওয়ার কারণ বিপক্ষ বোর্ড।

তার ব্যাখ্যা, ‘এটা তো এমন না যে আমরা চাইলেই যেতে পারব। আমরা অবশ্যই চাই যে ‘এ’ দলের সফর বেশি হোক; কিন্তু আমরা চাইলেই তো আর হবে না। বিপক্ষ বোর্ডের অ্যাবিলিটিও দেখতে হবে। অবশ্যই এ দলের খেলা যত বেশি হবে জাতীয় দলের জন্য তত সহজ হবে।’

রাজ্জাক মানছেন যে ‘এ’ দলের সুবিধা অনেক। একজন নতুন ক্রিকেটারকে পরখ করে দেখার জন্য ‘এ’ দল সর্বোৎকৃষ্ট ক্ষেত্র, এমনটা মনে করে রাজ্জাক বলেন, একজন তরুণ ও নবীন ক্রিকেটারকে তো সরাসরি জাতীয় দলে না খেলিয়ে এই দলে সুযোগ দেয়া যায়। বাস্তবতা তো মেনে নিতেই হবে। এ দলের খেলা না থাকলে জাতীয় দল কোত্থেকে করবো। এজন্য এ দলের খেলা হলে তো সুবিধেই হয়। এখন যারা খেলবে ভাল করবে ওরাই আসবে। তারা লিস্টেড থাকবে। তো খেলা হলে তো সবার জন্যই সুবিধা। যত বেশি এ দলের খেলা হবে আমাদের (নির্বাচক) জন্য সুবিধা, ইভেন ক্রিকেটারদের জন্যও সুবিধা যে ওরা নিজেদের পরখ করতে পারছে যে কি অবস্থায় আছে।’

রাজ্জাক জানালেন, বিসিবির ইচ্ছে ছিল জাতীয় দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের সময় ‘এ’ দল পাঠানো। আমাদের লক্ষ্যটা এমনই ছিল যে একসঙ্গে দুটো দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ থাকবে। তখন একটা বড় অ্যামাউন্টের দল আমরা ওখানে পাব; কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড আসলে একসঙ্গে দুটো দলকে অ্যাকোমোডেট করার অবস্থায় ছিল না। এজন্য এ দলের সফরটা পিছিয়ে দিয়েছে। আমাদের চিন্তা ওরকমই ছিল যে একসঙ্গে থাকলে আমরা যে কোন সময় ক্রিকেটারদের চেঞ্জ করতে পারব।’


আরও খবর



ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ২০ রোহিঙ্গা উধাও, অভিযানে আটক ৫

প্রকাশিত:Monday ১৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে স্থানীয়দের হাতে আটক হওয়া ২০ রোহিঙ্গা পালিয়েছেন। তবে অভিযান চালিয়ে এদের মধ্যে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৮ জুলাই) বিকেল ৫টার দিকে চরএলাহীর প্রত্যন্ত চরাঞ্চল থেকে তাদের আটক করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, রোববার (১৭ জুলাই) রাত ১২টার দিকে নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ২০ রোহিঙ্গাকে কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নের বাসিন্দারা আটক করে। পরে তাদের গাংচিল ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবদুল হকের তত্ত্বাবধানে সেলিম মাঝির ঘরে রাখা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের গাফলতির সুযোগেই আটক রোহিঙ্গারা পালাতে সক্ষম হয়। এছাড়া ইউপি সদস্য আবদুল হক ও সেলিম মাঝির যোগসাজশে অর্থের বিনিময়ে তাদের পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে।

তবে আবদুল হক মেম্বর তা অস্বীকার করে জাগো নিউজকে বলেন, ‘ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ছয় নারী, পাঁচ পুরুষ ও নয় শিশুসহ ২০ রোহিঙ্গাকে চরএলাহীর কিল্লার বাজার এলাকায় আটক করার পর রাতেই থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। রাতভর চৌকিদার দিয়ে তাদের পাহারাও দেওয়া হয়। সকালে স্থানীয় কয়েকশ নারী-পুরুষ তাদের দেখতে এলে পুলিশ আসার আগেই লোকজনের ভিড়ে তারা কৌশলে পালিয়ে যায়।’

কোম্পানীগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. সুমন হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, রোহিঙ্গা আটকের স্থানটি থানা থেকে অনেক দূরে। খবর পেয়ে সকাল ১০টায় এসে রোহিঙ্গাদের পাওয়া যায়নি। পরে দিনভর অভিযান চালিয়ে নারী-পুরুষ ও শিশুসহ পাঁচ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে।’

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাদেকুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, দুর্গম এলাকা হওয়ায় রাতে পুলিশ পাঠানো যায়নি। তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের পাহারা দিয়ে রাখতে বলা হয়। সকালে পুলিশ পাঠানোর পর তাদের পাওয়া যায়নি। পরে অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে আটক করা হয়। বাকিদের আটকে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় টাঙ্গাইলে জাপার বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
Image

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও পথসভা করেছে টাঙ্গাইল জেলা জাতীয় পার্টি। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শহরের জেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে নিরালা মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

jagonews24

এসময় পথসভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা শাখার আহ্বায়ক সাবেক সংসদ সদস্য মো. আবুল কাশেম, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা খন্দকার নাজিম উদ্দিন, জেলা শাখার সদস্য সচিব আব্দুস ছালাম চাকলাদার, যুগ্ম আহ্বায়ক ফকির শাহ্ আলম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, সরকার জনগণের কল্যাণে কাজ করার জন্য জাতীয় পার্টির সমর্থন পেয়েছিলো। তবে তাদের দুর্নীতি করার কোনো সমর্থন দেওয়া হয়নি। সরকার রাতের আধারে জ্বালানি তেলের দাম অনেক বাড়িয়েছে। এতে করে সব পণ্যের দাম বেড়ে যাচ্ছে। এছাড়াও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করছে। এক ঘণ্টার লোডশেডিংয়ের পরিবর্তে প্রতিদিন প্রায় আট ঘণ্টা লোডশেডিং হচ্ছে।


আরও খবর