Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
বাংলাদেশ শ্রীলংকা টেস্টের পঞ্চম দিন

তাইজুলের জোড়া উইকেট শিকার স্বস্তি এনে দিয়েছে বাংলাদেশকে

প্রকাশিত:Thursday ১৯ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৫০জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস ডেস্কঃ

কুসল মেন্ডিসকে ফেরানোর পর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসকেও সাজ ঘরের পথ দেখিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। প্রথম ইনিংসে ১৯৯ রানের ইনিংস খেলা ম্যাথুসকে ০ রানেই ফিরিছেন এই বোলার।

তাইজুলের বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে ফিরে যান মেন্ডিস। দিনের শুরুতে গুরুত্বপূর্ণ উইকেট শিকার করে দলকে স্বস্তি এনে দিয়েছেন তাইজুল।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৫৪ রানের ইনিংস খেলা মেন্ডিসকে ৪৮ রানে বোল্ড করেছেন তাইজুল। দ্বিতীয় ইনিংসে বল হাতে জ্বলে উঠেছেন বাংলাদেশের এই স্পিনার।

গতকাল চতুর্থ দিনে ৬৮ রানের লিড নিয়েছিল বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দিন শেষে দুই উইকেট হারিয়ে ৩৯ রান তুলেছিল শ্রীলঙ্কা


আরও খবর



মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৮, মামলা ৩৮

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৪৮ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)-এর বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এর নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে বুধবার (৮ জুন) সকাল ছয়টা থেকে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) সকাল ছয়টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় গ্রেফতারদের কাছ থেকে ৫০৭ পিস ইয়াবা, ১৩ গ্রাম ৩০ হেরোইন, ১৫ কেজি ৬০০ গ্রাম গাঁজা, ৮০ বোতল ফেনসিডিল ও ২১টি ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৮ টি মামলা রুজু হয়েছে।


আরও খবর



শিশুদের ভালো রাখতে হলে মায়েদেরও ভালো রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

শিশুদের প্রতি যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, শিশুরা জাতির ভবিষ্যৎ। শিশুদের জন্য যতটুকু করা দরকার তা আমরা পারছি না। তবে পৃথিবীর অনেক দেশেই শিশুদের অনেক বেশি যত্ন নেওয়া হয়, তারমধ্যে জাপান অন্যতম। জাপান তাদের শিশুদের জন্য সবচেয়ে বেশি খরচ করে। তারা জানে যে শিশুরাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমাদের দেশেও শিশুদের গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, শিশুদের ভালো রাখতে হলে মায়েদেরও ভালো রাখতে হবে। মায়েদেরও ভালো খাবার খেতে হবে। মায়েরা যাতে শিশুদের বুকের দুধ খাওয়াতে পারেন সেজন্য সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। শিশুদের মায়ের দুধ খাওয়ালে আর কোনো কিছুর প্রয়োজন হয় না।

বুধবার (১৫ জুন) বিকেলে রাজধানীর শ্যামলীতে বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটে জাতীয় ভিটামিন ‘এ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২’ -এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় শিশুদের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানোর মাধ্যমে ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ভিটামিন এ দেহের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সহায়তা করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়। এটি শিশুর স্বাভাবিক দৃষ্টিশক্তি বজায় রাখে। ফলে শিশু রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়।

তিনি বলেন, শিশুদের বাসায় তৈরি সুষম খাবার খাওয়াতে হবে। ফলমূল, শাকসবজি, দুধ, মাংস খাওয়াতে হবে। যাতে করে শিশুরা সুস্থ-সবল থাকতে পারে। আমরা আজ এই ক্যাম্পেইন শুরু করেছি এবং আশা করছি এটি সফলতার সঙ্গেই শেষ হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, আমি মায়েদের কাছে আহ্বান করি আমাদের এই চারদিনের ক্যাম্পেইনে সঠিক সময়ে উপস্থিত হয়ে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াবেন।

করোনা প্রসঙ্গ টেনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন পুরো বিশ্বেই করোনা ছিল। তবে বর্তমানে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে, আমরা ভালো আছি। আমরা এরইমধ্যে ১৩ কোটি লোককে টিকে দিয়ে ফেলেছি। দেশের ৭৫ শতাংশ মানুষ টিকা পেয়ে গেছেন। আমরা চাই যে আমাদের এই ভালো অবস্থান বজায় থাকুক। করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে বলেই বাংলাদেশে সবকিছু সুন্দরভাবে চলছে। এটি ধরে রাখার জন্য আমাদের মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, সচেতনভাবে চলা ও মানুষের ভিড় এড়িয়ে চলা- এসব দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। এতদিন আমরা এসব ভুলেই গিয়েছিলাম, তবে এখন আর ভুলে থাকলে চলবে না। করোনা সংক্রমণ আবারো বৃদ্ধি পাচ্ছে। ৩০ থেকে ৪০ জন করে এতদিন সংক্রমণ ধরা পড়লেও এখন সেটি ১০০ থেকে দেড়শো পর্যন্ত হয়ে যাচ্ছে।

জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন ১৫ থেকে ১৯ জুন প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে। প্রায় এক লাখ ২০ হাজার স্থায়ী ইপিআই কেন্দ্রের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। প্রতি কেন্দ্রে অন্তত দুজন করে দুই লাখ ৮০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক এই কার্যক্রমে নিয়োজিত থাকবেছেন।

৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ২৪ লাখের অধিক শিশুকে লাল রঙের একটি করে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এছাড়াও ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী এক কোটি ৯৬ লাখের অধিক শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এছাড়াও ১২ জেলার ৪৬ উপজেলার ২৪০টি ইউনিয়নকে দুর্গম এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করে পরবর্তী চারদিন বাদ পড়া শিশুদের অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব (স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ) ড. মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব সাইফুল হাসান বাদল, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।


আরও খবর



হাই কোলেস্টেরল যে ৫ প্রাণঘাতী রোগের কারণ

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
Image

শরীরে ভালো-খারাপ দুটো কোলেস্টেরলই থাকে। তবে জীবনযাত্রায় অনিয়ম ও ভুল খাদ্যাভ্যাসের কারণে শরীরে খারাপ বা ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায়। বর্তমানে এটি একটি গুরুতর রোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কোলেস্টেরল আসলে এক ধরনের চর্বিজাতীয়, তৈলাক্ত স্টেরয়েড যা কোষের ঝিল্লি বা (সেল মেমব্রেনে)-এ পাওয়া যায়। এটি সব প্রাণীর রক্তে পরিবাহিত হয়। স্তন্যপায়ী প্রাণীদের সেল মেমব্রেনের এটি একটি অত্যাবশ্যক উপাদান।

এলডিএল, এইচডিএল, ট্রাইগ্লিসারাইডসহ বিভিন্ন ধরনের কোলেস্টেরল থাকে শরীরে। তার মোট পরিমাণই টোটাল কোলেস্টেরল। এই টোটাল কোলেস্টেরলের মান থেকে শরীরে কোলেস্টেরলের আসল অবস্থা অনুমান করা যায় না। এইচডিএলের পরিমাণ বেশি থাকলে তা শরীরের জন্যে উপকারী। অন্যদিকে এলডিএলের পরিমাণ বেশি হলে তা শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

এ বিষয়ে ভারতের রুবি হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. আশিস মিত্র জানান, এলডিএল কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেড়ে গেলে নানা সমস্যা দেখা দেয়। এক্ষেত্রে রক্তনালির ভেতরে জমে এই কোলেস্টেরল হৃদরোগ, স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক ইত্যাদি ঘাতক রোগের কারণ হতে পারে।

হার্টের সমস্যা

চিকিৎসকের মতে, অনেক সময় কোলেস্টেরল হার্টের রক্তনালির ভেতরে জমে। সারা দেহের যেমন কাজ করতে রক্তের প্রয়োজন হয়, ঠিক তেমনই হার্টেরও প্রয়োজন হয় রক্তের।

এক্ষেত্রে হার্টের ধমনিতে কোলেস্টেরল জমলে রক্ত চলাচল করতে পারে না। তখন বুকে ব্যথা, বুক ধড়ফড় ইত্যাদি সমস্যা দেখা যায়। আর ব্যবস্থা না নিলে হতে পারে হার্ট অ্যাটাক। তাই সবাইকে অবশ্যই এই লক্ষণে সতর্ক হতে হবে।

ফ্যাটি লিভার

বর্তমানে অনেক মানুষই ফ্যাটি লিভারের সমস্যায় ভোগেন। এক্ষেত্রে লিভারে ফ্যাট থাকলে অনেক সমস্যাই দেখা দিতে পারে। লিভারে ফ্যাটের মূলত দুটি ভাগ থাকে- ট্রাইগ্লিসারাইডস ও কোলেস্টেরল। অর্থাৎ এই রোগের সঙ্গে সরাসরিভাবে জড়িত আছে কোলেস্টেরল।

পেরিফেরাল আর্টারি ডিজিজ

ডা. মিত্রের মতে, কোলেস্টেরল শরীরের যে কোনো রক্তনালির ভেতরে জমতে পারে। অনেক সময় দেখা যায়, কোলেস্টেরল জমছে পায়ের ধমনিতে। সেক্ষেত্রে পায়ে ঠিকমতো রক্ত চলাচল করতে পারে না। এ কারণে পায়ে খুব ব্যথা হয়। এমনককি হাঁটতেও কষ্ট হয় অনেকের।

ব্লাডপ্রেশার ও ডায়াবেটিস

কোলেস্টেরল হলো মেটাবোলিক ডিজঅর্ডার। কোলেস্টেরল বেশি থাকলে অনেক সমস্যাই দেখা দেওয়া সম্ভব। এমনই একটি সমস্যা হলো ব্লাডপ্রেশার ও ডায়াবেটিস। এই দুটি সমস্যা দেখা গিয়েছে কোলেস্টেরল রোগীদের বেশিরভাগ সময়ই থাকে।

স্ট্রোক

আমাদের মাথায় বিভিন্ন রক্তনালি আছে। রক্তনালির ভিতরেও কোলেস্টেরল জমতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মাথার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রক্তনালিতে কোলেস্টেরলম জমে মিনি স্ট্রোক হয়।

এছাড়া কোলেস্টেরলের সঙ্গে প্রেশার বা ডায়াবেটিস থাকলে সাধারণ স্ট্রোকের ঝুঁকিও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই সতর্ক হয়ে যেতে হবে বলে জানালেন ভারতের এই চিকিৎসক।


আরও খবর



চিটাগাং অ্যাসোসিয়েশন অব কানাডা ইনকের নতুন কমিটি

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন
Image

কানাডায় বসবাসরত চট্টগ্রামবাসীর সংগঠন ’চিটাগাং অ্যাসোসিয়েশন অব কানাডা ইনকের বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে আগামী দুই বছরের জন্য নতুন কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এতে সরওয়ার জামান সভাপতি, সব্যসাচী চক্রবর্তী সাধারণ সম্পাদক, সনৎ বড়ুয়া কোষাধ্যক্ষ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। গত রোববার টরন্টোর বাংলাদেশ সেন্টার মিলনায়তনে এই বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় পরিচালক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন: কানন বড়ুয়া, শিবু চৌধূরী, মোহাম্মদ সোলায়মান, কফিলউদদিন পারভেজ, সাহাব সিদ্দিকী, মোহাম্মদ আজাদ খান, সমর পাল, কানিজ ফাতেমা, কায়সার কবির,কাজী আবদুল মোমেন জুয়েল, মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম, মোহাম্মদ আজম মিয়া, বিশ্বজিৎ পাল, এস এম আশরাফুল করিম রনি, মনজুর মোরশেদ, সেলিনা সরওয়ার, ফারাহ হোসেন, মিজানুর রহমান, সেগুফতা আনওয়ার।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার নাসির উদ্ দৌজা ও কমিশনার শ্যামল ভট্টাচার্য নির্বাচন পরিচালনা করেন। একাধিক প্রার্থী না থাকায় নতুন কমিটি বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হয়।

এর আগে বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন শিবু চৌধূরী। এতে সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শওকত মাহমুদ সাধারণ সম্পাদকের, সাহাব সিদ্দিকী কোষাধ্যক্ষের প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।


আরও খবর



স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রীর দাম কমবে

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

২০২২-২৩ অর্থবছরে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিরাপত্তাসামগ্রীর উৎপাদন ও ব্যবসায়ীপর্যায়ে ভ্যাট অব্যাহতি প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে করোনা টেস্ট কিট, পিপিই, নিরাপত্তাপোশাক, প্লাস্টিক ফেইস শিল্ড, মেডিকেল নিরাপত্তাসামগ্রী, হাসপাতালে ব্যবহারের জন্য প্রতিরক্ষামূলক চশমা, গগলস ও মাস্ক।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ কথা জানান।

প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু পণ্যের ওপর শুল্ককর প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া বিদেশ থেকে আমদানি করা হুইল চেয়ারের ওপর কর বিলোপের প্রস্তাব করা হয়। ফলে দেশের বাজারে এসব স্বাস্থ্য নিরাপত্তাসামগ্রীর সহজলভ্যতা হবে এবং দাম কমতে পারে।

এছাড়া দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের পড়ার উপকরণ ব্রেইল মুদ্রণের ওপর ভ্যাট অব্যাহতির প্রস্তাব করা হয়েছে। শ্রবণপ্রতিবন্ধীদের জন্য কানে শোনার যন্ত্র ও এই যন্ত্রে ব্যবহৃত ব্যাটারি আমদানিতে শুল্ককর ২৫ শতাংশ কমিয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে ব্রেইল মুদ্রণ ও কানে কম শোনার যন্ত্রের দাম কমতে পারে।

করোনাভাইরাসের অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের আকার হচ্ছে ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। এবারের বাজেটের আকার যেমন বড়, তেমনি এ বাজেটে ঘাটতিও ধরা হয়েছে বড়।

অনুদান বাদে এ বাজেটের ঘাটতি দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির সাড়ে ৫ শতাংশের সমান। আর অনুদানসহ বাজেট ঘাটতির পরিমাণ দুই লাখ ৪১ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ দশমিক ৪০ শতাংশের সমান।

এটি বর্তমান সরকারের ২৩তম এবং বাংলাদেশের ৫১তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর চতুর্থ বাজেট। বাজেটে সঙ্গত কারণেই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষিখাত, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষাসহ বেশকিছু খাতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর