Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
ডেমরা প্রেস ক্লাবের

সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী ও সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৫০জন দেখেছেন
Image

শরীফ আহমেদ : 

‘বর্তমান অন্ধকারে নিমজ্জিত সাংবাদিকতাকে সংস্কার করে নতুন আলোয় ফেরানোর প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে একযোগে কাজ করতে সরকার ও জনগনের মধ্যে শক্ত দেশপ্রেম তৈরীর প্রত্যয়ে একঝাঁক নবীন প্রবীনদের  নিয়ে কমিটি কার্যকর করার উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। সকল শ্রেনী পেশার মানুষের সহযোগীতায় সৃষ্টি হবে রাজধানীতে মডেল সাংবাদিকতা। 


ডেমরা প্রেস ক্লাবের সভাপতি পদে নজরুল ইসলাম চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক পদে নজরুল ইসলাম বাবু নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার (৪.৬.২০২২ইং) প্রেস ক্লাব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক সাধারণ সভায় ২০২২-২৫ইং ৩ বছরের ৬ষ্ঠ মেয়াদের জন্য ২১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়।


রাজধানী ঢাকার ডেমরা প্রেস ক্লাবটি ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। সংগঠনটি ফেডারেশন অব বাংলাদেশ জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশন এর অর্ন্তভুক্ত। ২০০৯ সালে সংগঠনটি নিবন্ধিত করা হয়।

শনিবার সন্ধ্যা ৭.৩০ ঘটিকায় প্রেস ক্লাব কার্যালয়ে বার্ষিক সাধারণ সভা ও ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রেস ক্লাবের সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

সভায় প্রেস ক্লাবের বার্ষিক কার্যাবলী ও আয়-ব্যয়ের হিসাব বিবরণী উপস্থাপন করা হয়। এতে সাধারণ সদস্যরা আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন এবং প্রেস ক্লাবের উন্নয়নে বিভিন্ন মতামত প্রকাশ করেন। 


নির্বাচিত কার্যকরী কমিটির সভাপতি পদে দৈনিক মুক্তখবরের বিশেষ প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম চৌধুরী পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত হন।

সহ সভাপতি পদে দৈনিক দেশ সংবাদের প্রধান সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন মাসুদ, এম এ সিদ্দিক মিয়া, দৈনিক আলোর জগতের সহ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির, দৈনিক দিন প্রতিদিনের বার্তা সম্পাদক শামছুল আলম, সাধারণ সম্পাদক পদে দৈনিক দেশ আমারের প্রকাশক ও সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু, যুগ্ম সম্পাদক পদে হাবিবুর রহমান হাবিব, দৈনিক স্বদেশ বিচিত্রা রেজাউল ইসলাম, দৈনিক গণতদন্ত মেহেদী হাসান, সাপ্তাহিক অপরাধ বিচিত্রার মো. ফারুকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দৈনিক মাতৃভূমির খবর সহকারি সম্পাদক রাসেল শিকদার, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আরিফুর রহমান সুমন, অর্থ সম্পাদক পদে মোহাম্মদ হোসেন মিয়া, দপ্তর সম্পাদক পদে বাংলা সংবাদ টেলিভিশনের প্রধান সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া, প্রচার সম্পাদক পদে দৈনিক স্বাধীন সংবাদ রাজিব হোসেন রাজু, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার  মুশফিকুর রহমান স্বপন এবং কার্য নির্বাহি সদস্য পদে দৈনিক খোলা কাগজ শরিফ আহমেদ, নিউজ ২১ এর মিজানুর রহমান, রেডিও আমার রিপোর্টার শেখ রোমা, দৈনিক যুগযুগান্তর সালমান শুভ, দৈনিক গণজাগরণের নাসির মিয়া নির্বাচিত হয়েছেন।



আরও খবর



পদ্মা সেতু উদ্বোধনের জনসভাস্থল পরিদর্শনে নৌপ্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Saturday ১১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থল মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাটসহ সংশ্লিষ্ট স্থান পরিদর্শন করেছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসময় চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী তার সঙ্গে ছিলেন।

শনিবার (১১ জুন) সকাল ৯টার দিকে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বাংলাবাজার ঘাটের বিভিন্ন পয়েন্ট পর্যবেক্ষণ করেন। তারা জনসভায় সারাদেশ থেকে নৌযানে আসা মানুষের জন্য ব্যবস্থাপনার বিষয়গুলো সরেজমিনে দেখেন। সেইসঙ্গে তারা লঞ্চঘাট ও জনসভাস্থল পরিদর্শন করেন।

এসময় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ঐতিহাসিক জনসভার মূল সমন্বয়ক চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী। তিনি যেভাবে নির্দেশনা দিচ্ছেন সেভাবেই নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় কাজ করছে। আজও তিনি ঘাট ব্যবস্থাপনা দেখিয়ে দিলেন। তিনশোর ওপরে বড়-মাঝারি লঞ্চ এই জনসভায় আসবে। সেগুলোর ব্যবস্থাপনার বিষয়ে নির্দেশনা দিলেন।

নৌপ্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের ৫০ বছরের ইতিহাসে এত উৎসবমুখর অনুষ্ঠান আর কখনো হয়নি যেটা ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হতে যাচ্ছে। ১৭ কোটি মানুষের দেশটিই সেদিন থাকবে পদ্মা সেতুর জনসভার দিকে। পুরো বাংলাদেশেই ওইদিন জনসভা হয়ে যাবে।

নৌযান শ্রমিকদের বেকার হয়ে পড়ার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা যখন দেশের প্রধানমন্ত্রী তখন এদেশে কেউ বেকার থাকবে না। সবারই কর্মসংস্থান হবে।

চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, জনসভাস্থলে ৩০ জুন পর্যন্ত বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে। এর সঙ্গে সারাদেশেই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। জনসভা সফল করতে প্রতিদিনই আমাদের মন্ত্রী ও নেতৃবৃন্দ আসছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে চিফ হুইপ বলেন, আমার ধারণা ১০ লাখের বেশি মানুষ প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আসবেন। সারাদেশের মানুষই সেদিন পদ্মা সেতুর জনসভার দিকে সরাসরি সম্পৃক্ত থাকবেন। তারা যেন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনতে পারেন তার সব সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এসময় বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক, মাদারীপুর জেলা পরিষদ প্রশাসক মুনির চৌধুরী, জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, পুলিশ সুপার মো. গোলাম মোস্তফা রাসেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



দেড় বছরে ১০ লাখ কর্মী নিয়োগ দেবে ভারত

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
Image

আগামী দেড় বছরে ১০ লাখ সরকারি পদে কর্মী নিয়োগ দেবে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কার্যালয় থেকে এক টুইট বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়।

ওই টুইট বার্তায় বলা হয়েছে, চাকরি দেওয়ার ক্ষেত্রে মোদী সরকার ‘মিশন মোড’-কে নজরে রেখে পদক্ষেপ নেবে। কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দফতরে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে নিয়োগ হবে বলে জানানো হয়েছে।

ক্রমাগত বেড়ে চলা বেকারত্ব নিয়ে প্রায়ই মোদী সরকারকে বিরোধীদের তীব্র আক্রমণের মুখে পড়তে হচ্ছে। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, আগামী দেড় বছরে ১০ লাখ নিয়োগের সিদ্ধান্ত তারই জবাব হিসেবে তুলে ধরা হবে।

এর আগে নির্বাচনী জনসভায় মোদী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, ক্ষমতায় এলে বছরে দুই কোটি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। ক্ষমতায় আসার পর থেকে তা নিয়েও বিরোধীদের কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছে বিজেপিকে।

সর্বশেষ বিহারে বিধানসভার ভোটে এই ইস্যুটিই বড় হয়ে ওঠে। আরজেডি প্রধান তেজস্ব যাদব পাল্টা চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে ময়দানে নামেন। তাতে স্পষ্টতই বেকায়দায় পড়ে ক্ষমতাসীন এনডিএ।

যদিও এবারও প্রধানমন্ত্রীর ১০ লাখ চাকরির প্রতিশ্রুতি বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছে। মোদীর এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্যাঙ্গ করেছে কংগ্রেস। তৃণমূলও মোদীর এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে।


আরও খবর



পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্র: কমিশন গঠন প্রশ্নে রুল শুনানি আজ

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি নিয়ে দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে কমিশন গঠন প্রশ্নে জারি করা রুল শুনানির জন্য সোমবার (২৭ জুন) দিন ঠিক করেছেন আদালত।

রোববার (২৬ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই দিন ধার্য করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, পদ্মা সেতু নিয়ে জারি করা রুলের বিষয়টি আদালতে উপস্থাপন করার পর তা শুনানির জন্যে সোমবার নির্ধারণ করেন হাইকোর্ট। আশা করি নির্ধারিত ও ধার্য দিনে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

একটি জাতীয় পত্রিকায় ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘ইউনূসের বিচার দাবি: আওয়ামী লীগ ও সমমনা দলগুলো একাট্টা’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ১৫ ফেব্রুয়ারি ওই প্রতিবেদনসহ বিভিন্ন পত্রিকার সংবাদের কথা উল্লেখ করে এ রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

ওই সময় পদ্মা সেতুর দুর্নীতি নিয়ে মিথ্যা গল্প সৃষ্টিকারী কে- তা জানতে চেয়ে এবং প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করার জন্য ‘ইনকোয়ারি অ্যাক্ট ১৯৬৫ (৩ ধারা)’ অনুসারে কমিশন গঠন এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে স্বঃপ্রণোদিত রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে তাদের কেন বিচারের মুখোমুখি করা হবে না, তাও জানতে চাওয়া হয়েছিল রুলে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন ও যোগাযোগ সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, যোগাযোগ সচিব ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যানকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

পাশাপাশি এ কমিটি বা কমিশন গঠনের বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সে ব্যাপারে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরে ওই বছরের ২০ মার্চ রুলের জবাব ও প্রতিবেদন দিতে আট সপ্তাহের সময় চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। এ আবেদনের প্রেক্ষিতে একই বছরের ৭ মে পর্যন্ত সময় বাড়িয়ে দেন হাইকোর্ট। পরে কয়েক দফা সময়ের আবেদন জানায় রাষ্ট্রপক্ষ।

এর মধ্যে কমিশন গঠনের জন্য ২০১৭ সালের ৯ নভেম্বর একজন সদস্যের নাম মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে প্রস্তাব করা হয়েছে বলে হাইকোর্টকে জানায় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক (কারিগরি) মো. কামরুজ্জামানের নাম প্রস্তাব করা হয়। এরপর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ পুনর্গঠন হওয়ায় রুলটি আর শুনানিতে ওঠেনি।

জাতীয় দৈনিকের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পদ্মা সেতু নির্মাণে অর্থায়নের সিদ্ধান্ত থেকে বিশ্বব্যাংকের সরে যাওয়ার ঘটনা গোটা বিশ্বে তোলপাড় সৃষ্টি করে। আন্তর্জাতিক মিডিয়াগুলোতে ওই ঘটনা ফলাও করে প্রচার করায় বাংলাদেশ এবং বর্তমান সরকারের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন হয়। সাড়ে তিন বছর আগের ওই ঘটনার পর বিশ্বব্যাংকের পাশাপাশি দেশি-বিদেশি কিছু ব্যক্তির দৌড়ঝাঁপ, আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের ক্রিয়াকর্ম ও মিডিয়ার অতি উৎসাহ পদ্মা সেতু ইস্যুতে সরকারতে বিপাকে ফেলে দেয়। যা ছিল সরকারের জন্য চরম অবমাননাকর।’

‘কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়তায় নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন থেকে সরে যাওয়ার কারণ পর্দার আড়ালে নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস কলকাঠি নাড়ছেন বলে মনে করে সরকার।’

‘কানাডার আদালত পদ্মা সেতু দুর্নীতির মামলা খারিজ করে দেওয়ার পর সরব হয়ে উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও তাদের সমমনা দলগুলো। তারা এখন মনে করছেন ওই সময় পদ্মা সেতু ইস্যুতে দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগ তুলে বাংলাদেশের সরকারের ভাবমর্যাদা নষ্ট করায় ড. ইউনূসকে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত।’

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ‘জাসদের নেতা মঈন উদ্দিন খান বাদল ঘোষণা দিয়েছেন সিদ্ধান্ত হলে তিনি এবং মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন যৌথভাবে ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলার বাদী হবেন। বিশ্বখ্যাত ব্যক্তিত্ব ক্ষুদ্র ঋণের জনক ড. ইউনূসের বিচারের মুখোমুখি করার দাবিতে সংসদে থাকা দলগুলো কার্যত একাট্টা হয়েছে।’

‘কানাডার একটি আদালত পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতি ষড়যন্ত্র মামলা খারিজ করে দিয়ে অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস দেওয়ার পর আলোচিত এ ইস্যুতে সামনে নিয়ে এসেছে আওয়ামী লীগ। দলটি জাতীয় সংসদে ও সংসদের বাইরে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে ড. ইউনূস ও জার্মানির অর্থে পরিচালিত দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা টিআইবির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।’

‘তাদের দাবি, দেশের যারা পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্র করেছে এবং বিশ্বব্যাংকের পক্ষ নিয়ে কথা বলেছেন তাদের সবাইকে জাতির কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। পদ্মা সেতু নির্মাণে বিলম্ব হওয়ায় যে অধিক অর্থ ব্যয় হচ্ছে সে ক্ষতিপূরণ বিশ্বব্যাংককে দিতে হবে। প্রয়োজনে বিশ্বব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করারও দাবি জানানো হচ্ছে।’

‘আওয়ামী লীগ ও তাদের সহযোগী দল জাতীয় পার্টি, জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের দাবি করে বলেছেন, পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির গালগপ্পের অভিযোগ তুলে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বাতিলের সিদ্ধান্তে ইন্ধন যুগিয়েছেন গ্রামীণ ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মুহাম্মদ ইউনূস। এ জন্য ড. ইউনূসকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। শুধু তাই নয় এ ইস্যুতে সব ষড়যন্ত্রকারীদের বিচারের আওতায় আনারও দাবি জানানো হয়’, বলা হয় জাতীয় দৈনিকের ওই প্রতিবেদনে।


আরও খবর



শেষ মুহূর্তের গোলে কোনোমতে পরাজয় এড়ালো স্পেন

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
Image

উয়েফা নেশন্স লিগে টানা দুই ম্যাচ জয় বঞ্চিত সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন স্পেন। দুটি ম্যাচই ড্র করেছে তারা। প্রথম ম্যাচে পর্তুগালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে এসে চেক রিপাবলিকের সঙ্গে পরাজয়ই বরণ করার পথে ছিল তারা। তবে শেষ পর্যন্ত শেষ মুহূর্তের গোলে কোনোমতে পরাজয় এড়ালো তারা।

ম্যাচের একেবারে অন্তিম মুহূর্তে গোল করেছিলেন ইনিগো মার্টিনেজ। এই গোলেই পরাজয়ের লজ্জা থেকে বাঁচলো স্প্যানিশরা। ম্যাচ শেষ হলো ২-২ গোলে।

চেক রিপাবলিকের মাঠে খেলতে গিয়েছিল স্প্যানিশরা। স্বাগতিকরা এমনই উজ্জীবিত ছিল যে, ম্যাচের শুরুতেই, ৪র্থ মিনিটে গোল আদায় করে নেয় তারা। ৪র্থ মিনিটেই ইয়ান কুচটার পাস থেকে বল পেয়ে জ্যাকব পেসেক গোল করেন।

প্রথমার্ধের একেবারে শেষ মুহূর্তে (৪৫+৩) মিনিটে স্পেনকে সমতায় ফিরিয়ে আনেন গাবি। স্পেনের হয়ে সবচেয়ে কম বয়সী গোলদাতা এখন তিনি। আনসু ফাতিকে এ ক্ষেত্রে পেছনে ফেলে দিয়েছেন তিনি।

পর্তুগালের সঙ্গে ১-১ গোলের ড্র ম্যাচে যে দলটিকে খেলিয়েছিলেন কোচ লুইস এনরিকে, সে দলে ৮টি পরিবর্তন আনেন তিনি। বাকি যে তিনজনকে দলে রেখে দেন, তাদের একজন হলেন গাবি।

ম্যাচের ৬৬ মিনিটে আবারও লিড নেয় চেক রিপাবলিক। এবার স্বাগতিকদের হয়ে গোল করেন ইয়ান কুচটা। উনাই সিমোনের মাথার ওপর দিয়ে দুর্দান্ত এক লবে বল জালে জড়ান কুচটা।

ম্যাচ শেষে স্পেন কোচ লুইস এনরিক বলেন, ‘এটা ছিল খুবই কঠিন একটি ম্যাচ। ম্যাচের পুরোটা সময়ে আমরা যেন নিজেদের মধ্যে ছিলাম না। যেভাবে চেয়েছি, সেভাবে ম্যাচটি খেলতে পারিনি আমরা।’

‘আমরা অনেক সুযোগ পেয়েছিলাম। বিশেষ করে প্রথমার্ধে, এ ধরনের শক্তিশালী, আক্রমণাত্মক দলের বিপক্ষে খেলা ছিল আমাদের জন্য কঠিনই।’


আরও খবর



এক ইনিংসে নয় ব্যাটারের পঞ্চাশের বেশি রান, ক্রিকেটে বিশ্বরেকর্ড

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

ভারতের ঘরোয়া রঞ্জি ট্রফির ম্যাচে হলো ইতিহাস। এক ইনিংসে নয় ব্যাটার করলেন কমপক্ষে হাফসেঞ্চুরি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এমন ঘটনা এবারই প্রথম।

ঝাড়খন্ডের বিপক্ষে কোয়ার্টার-ফাইনালে ৭ উইকেটে ৭৭৩ রানের পাহাড় গড়ে ইনিংস ঘোষণা করেছে বেঙ্গল। বেঙ্গলের ব্যাটাররা এক থেকে নয় পর্যন্ত সবাই পঞ্চাশের ঘর পেরিয়েছেন।

এর মধ্যে আবার দুজন সেঞ্চুরিও করেছেন। তিন নম্বরে নেমে সুদিপ কুমার ১৮৪ এবং চারে অনুসতাপ মজুমদার করেছেন খেলেছেন ১১৭ রানের ইনিংস।

নয় ব্যাটারের পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ইতিহাস

ব্যাঙ্গালুরুর জাস্ট ক্রিকেট একাডেমিতে গত ৬ জুন শুরু হয়েছে ম্যাচটি। পাঁচদিনের লড়াই শেষ হওয়ার কথা ১০ জুন।

এছাড়া বাকি তিন কোয়ার্টার ফাইনালে খেলছে মুম্বাই-উত্তরাখণ্ড, কর্ণাটক-উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাব ও মধ্যপ্রদেশ।


আরও খবর