Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

সুন্দরগঞ্জে ৫৫ ভূমিহীন পরিবারের মাঝে জমিসহ ঘরের কাগজপত্র হস্তান্তর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৪৮জন দেখেছেন

Image
একেএম শামছুল হক  সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ভূমিহীন, গৃহহীন ৫৫ পরিবারের মাঝে জমিসহ ঘরের কাগজপত্র হস্তান্তর করেছেন জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল।
 
মঙ্গলবার (১১ জুন) সারাদেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ১৮ হাজার ৫৬৬ টি পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদানের উদ্বোধনের পর সুন্দরগঞ্জে সুবিধাভোগীদের মাঝে ঘরসহ জমির কাগজপত্র হস্তান্তর করা হয়। এ উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল। বক্তব্য রাখেন কাপাসিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মনজু মিয়া, গণমাধ্যমকর্মী মনীষ সরকার রানা, শাহজাহান মিয়া ও সুৃবিধাভোগী প্রমূখ। শেষে জেলা প্রশাসক সুবিধাভোগীদের মাঝে দুই শতক জমি ও গৃহের কাগজপত্র হস্তান্তর করেন।

আরও খবর



মাগুরা জেলা জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের কার্যালয় উদ্বোধন

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা জেলা জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের কার্যালয়ের উদ্বোধন করা হয়েছে। মাগুরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতাথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কার্যলয়ের উদ্বোধন করেন। শনিবার দুপুরে মাগুরা স্টেডিয়াম এলাকায় কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানের আহবায়ক রবীন সামস এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের সদস্য সচিব রূপক আইস। এছাড়া সিনিয়র সাংবাদিক অধ্যাপক সাইদুর রহমান, ইলিয়াস মিথুন, কাজী আশিক রহমান, শরীফ তেহরান টুটুল, ফয়সাল মাহমুদ নয়ন খান, প্রমুখ সাংবাদিক বক্তব্য রাখেন। জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গনে গাছের চারা রোপন করেন। অনুষ্ঠানে ফিতা কেটে এবং ফলক উন্মোচন করে কার্যালয়ের উদ্বোধন করা হয়। জেলার সক্রিয় এক ঝাক সাংবাদিক এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২০

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ১৪১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

রোববার (১৯ মে) সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদকসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। ডিএমপি সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারের পাশাপাশি তাদের হেফাজত থেকে ৩৭৩ পিস ইয়াবা, ২ গ্রাম হেরোইন ও ১২ কেজি ৩০ গ্রাম গাঁজা জব্দ করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ১৪টি মামলা করা হয়েছে।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




ছাতকে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব‌্যাপক অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি,ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:ছাতকে এক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ, স্বেচ্ছাচারিতা, পুরাতন ইস্কুল ভব‌ন নিলাম দি‌য়ে না‌মে মাত্র টাকা জমা দি‌য়ে বেশীভাগ টাকা  লুটপাট, ক্ষুদ্র মেরামত, রুটিন মেন্টেইনেন্সেরম টাকা বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজে না ক‌রে প্রধান শিক্ষকের পকে‌টে। বিদ‌্যাল‌য়ের প্রধান শিক্ষক ব‌শির উদ্দি‌নের বিরু‌দ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির লি‌খিত অভিযোগ করেছেন ওই বিদ্যালয়ের সভাপতিসহ ৮ জন ব‌্যক্তি। 

উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের দশঘর সরকা‌রি প্রাথ‌মিক বিদ‌্যাল‌য়ের প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিনের বিরু‌দ্ধে এসব আভি‌যোগ উঠে‌ছে।

গত ২১ মে সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকতার বরাব‌রে গ্রামবাসীর প‌ক্ষে ময়নুল, ফজল,ছা‌দিক,বদরুল ইসলাম,সা‌নোয়ার ,শাহজাহান ও আউয়ালসহ ৮জন বাদী হ‌য়ে বিদ‌্যাল‌য়ের প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিনের বিরু‌দ্ধে মহাপরিচালক (গ্রেড-১), প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর,পরিচালক (তদন্ত ও শৃঙ্খলা), প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, উপ প‌রিচালক প্রাথ‌মিক শিক্ষা অ‌ধিদপ্তর সি‌লেট,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকতাকে বরাব‌রে লি‌খিত অ‌ভি‌যোগ দা‌য়ের ক‌রে‌ছেন গ্রামবাসীরা।

জানা যায়,এ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিন যোগদা‌নের পর বিদ্যালয়ে অনিয়মিত উপস্থিতির কারণে বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী‌দের পাঠদান মারাত্নক ব্যাহত হচ্ছে। তার মন ইচ্ছা পছন্দসই লোক দিয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গঠন করে ব্যাক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করে আসছে।

বর্তমান নতুন কমিটির সভাপতির নামে যৌথ ব্যাংক হিসাব ট্রান্সফার করার নিয়ম থাকলেও তা না করে পুরাতন কমিটির সভাপতির  নামে  ব্যাংক হিসাবে লেনদেন করেছেন।

বর্তমান সভাপতিকে প্রধান কোনো কিছু অবগত না করেই তার মনগড়া ইচ্ছাধীন প্রতিষ্টানের আর্থিক লেনদেন করে। এছাড়াও প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিন বর্তমান সভাপতিকে না জা‌নি‌য়ে

বিদ্যালয়ের একটি পরিত্যাক্ত ভবন প্রকাশ্যে  ৭৫ হাজার টাকা মূল্যে নিলা‌মের মাধ‌্যমে বিক্রি করেন। মাত্র ২৩ হাজার ৫শত টাকা উপ‌জেলার সা‌বেক ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকতা মাধ‌্যমে  ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমা দি‌য়ে ৫১হাজার ৫শত আত্নসাৎ ক‌রেন। এসব অ‌নিয়ম দুনী‌তির ‌বিষয় প্রশ্ন কর‌লে প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিনকে তা‌দের স‌ঙ্গে খারাপ আচরন ক‌রে ব‌লেন  আমি বিভিন্ন সময় উপজেলা শিক্ষা কর্মকতা (টিও) সহ অনেককেই চপেটাঘাত করেছি এসব আমাকে বলে কোনো লাভ নেই।

তার এসব বক্তব্যের একটি ভিডিও চিত্র অ‌ভি‌যোগকারী‌দের হাতে সংরক্ষিত রয়েছে। এছাড়াও বিদ্যালয়ের স্লিপ ফান্ড, ক্ষুদ্র মেরামত, রুটিন মেন্টেইনেন্সেরম টাকা বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজে না ক‌রে প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিনের বিরু‌দ্ধে লুটপাট দুনী‌তি ও আত্মসাতের অ‌ভি‌যোগ ক‌রেন । প্রতি বছর প্রাক প্রাথমিক বরাদ্দের টাকা আসলেও শিক্ষার্থীদের জন্য কোনো ধরনের খেলনা সামগ্রী ক্রয় না করে নিজেই পকে‌টে এসব টাকাগু‌লো  আত্মসাৎ করেন। এ বিষয়ে গ্রামবাসীর পক্ষে বিদ‌্যাল‌য়ের আয় ব‌্যায়  জানতে চাইলে হিসাব না দিয়ে তিনি উল্টো তাদেরকে হামলা মামলা হুমকী ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করেছেন ব‌লে অ‌ভি‌যো‌গের উল্লেখ‌্য ক‌রেন।

উপজেলা শিক্ষা কমিটি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান তার চাচাতো ভাই।

এছাড়াও তিনি সরকারি নিয়ম নীতিকে বৃদ্ধাআঙ্গুল দে‌খি‌য়ে শিক্ষকতা পেশার পাশাপাশি আইন পেশায়ও নিয়োজিত রয়েছেন। এ ঘটনায় নি‌য়ে বিভিন্ন সম‌য়ে তার বিরু‌দ্ধে জাতীয় ও স্থানীয় পত্রপ‌ত্রিকায় একাধিক সংবাদও প্রকাশিত হয়। এমন কি প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিনের জাতীয় পরিচয়পত্রে তার পিতার নাম হারিছ আলী হলেও শিক্ষক নিয়োগ ও নামজারী মোকদ্দমা নং ২৩৩৬/২০০৮ইং মূলে তার পিতার নাম ইছাক আলী উল্লেখ করা হয়। ইছাক আলী ও হারিছ আলী পৃথকভাবে পিতার নাম উল্লেখ থাকায় তার শিক্ষা সনদ নিয়ে নানা সন্দেহ রযেছে।

এব‌্যাপা‌রে জেলা প্রাথ‌মিক শিক্ষা কর্মকতা মোহন লাল দাশ এসব ঘটনায় এক‌টি লি‌খিত অ‌ভি‌যোগ প্রা‌প্তির সত‌্যতা নি‌শ্চিত ক‌রে ব‌লেন,তদন্তপুবক আইনানুগত ব‌্যবস্থা নেয়া হ‌বে। 


আরও খবর

ছাতকে ২১০ বস্তা চিনিস ও আটক এক

মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪




খাগড়াছড়ি জেলার ৯টি উপজেলার মধ্যে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রথম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৪৬জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:"সুখে ভরবে আগামীর দিন, পেনশন এখন সর্বজনীন" এই স্লোগানকে সামনে রেখে  খাগড়াছড়ি জেলার ৯টি উপজেলার মধ্যে পেনশন স্কিমে সর্বোচ্চ রেজিষ্ট্রেশন (পেনশন স্কিম গ্রহীতায় -  মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রথম স্থান অর্জন করেছে।

সোমবার (২০ মে )সকাল  ১০টার দিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কার্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন স্কীমের রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করার সাথে সাথে সর্বজনীন পেনশন স্কীমের স্মার্ট কার্ড খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য হিরণ জয় এিপুরার হাতে তুলেদেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডেজী চত্রুবর্তী।


এসময় মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো.ইশতিয়াক আহম্মেদ,
মাটিরাঙ্গা উপজেলা সহকারী প্রোগ্রামার রাজীব রায় চৌধুরী, উপস্থিত ছিলেন।

খাগড়াছড়ি জেলার ৯টি উপজেলায় সর্বজনীন পেনশন স্কিমে  -মাটিরাঙ্গা উপজেলা ২হাজার ২০বিশ জন, মহালছড়ি ৭শ'৬৪ জন মানিকছড়ি ৫শ'৪১জন,রামগড় ৪শ'৪৮ জন, খাগড়াছড়ি সদর ২শ'৫১জন, গুইমারা ১শ'৭৮জন,লক্ষীছড়ি ১শ'৭১জন, দীঘিনালা ১শ'৪১জন, পানছড়ি ১শ'৩৪ জন সর্বমোট ৪হাজার ৬শ'৪৮জন। 

মাটিরাঙ্গা উপজেলায় সর্বজনীন পেনশন স্কীম  কার্যক্রম শুরু হয় ১৬ এপ্রিল থেকে ১৯ মে পর্যন্ত  ২ হাজার ২০  জন নাগরিককে পেনশন স্কিমের কার্ড বিতরণ করে  জেলার মধ্যে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডেজী চত্রুবর্তী বলেন,বর্তমান সরকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের আর্থিক সুরক্ষায় সর্বজনীন পেনশন কার্যক্রমটি একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ জানিয়ে তিনি বলেন,খাগড়াছড়ি জেলার ৯টি উপজেলার মধ্যে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রথম। এই অর্জন সম্ভব হয়েছে মান্যবর খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো.সহিদুজ্জামান মহোদয়ের সার্বিক দিক নির্দেশনায় ও ইউপি সচিব, মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের ডিজিটাল সেন্টার এর উদ্যােক্তা,ও ইউনিয়ন পরিষদ উদ্যােক্তাদের আন্তরিকতায়। এই ধারা অব্যাহত রাখার জন্য  ইউপি সচিব, উদ্যােক্তাদের আন্তরিকতার সহিত কাজ করার আহ্বান জানান।

আরও খবর



বেনজীর আহমেদ যেকোনো জায়গায় যেতে পারেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image

পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ যেকোনো জায়গায় যেতে পারেন, কারণ তার বিরুদ্ধে দেশত্যাগে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই,বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ।

সোমবার (৩ জুন) এন্টিগা ও নিউইয়র্ক সফর শেষে দেশে ফিরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বেনজীর আহমেদের দেশত্যাগে কোনো নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি। তিনি যেকোনো জায়গায় যেতে পারেন। ৬ জুন তিনি দুদকে উপস্থিত হন কি না, সেটা এখন দেখার বিষয়।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দুদক এবং সরকার স্বচ্ছতার সঙ্গে কাজ করছে বলে আজিজ আহমেদ ও বেনজীরের বিষয়গুলো সামনে আসছে।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের মহাসচিব বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের প্রশংসা করেছেন। জাতিসংঘের মহাসচিব যেখানে প্রশংসা করেছেন, সেখানে ডয়চে ভেলের প্রতিবেদনের কোনো মূল্য নেই। এই প্রতিবেদন অসাড় ও অন্তঃসারশূন্য।

মালয়েশিয়ায় শ্রমিকরা যেতে না পারার পেছনে কেউ জড়িত কি না, তা খতিয়ে দেখা হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, মালয়েশিয়ায় যাওয়ার তারিখ বর্ধিত করা যায় কি না, সে বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কাজ করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪