Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সুনামগঞ্জে বহাল তবিয়তে গডফাদার:ট্রাক বোঝাই মালামালসহ গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে পাচাঁরকৃত পেয়াজের চালান বোঝাই ট্রাকসহ ৫ চোরাকারবারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কিন্তু সীমান্ত চোরাকারবারীদের গডফাদার রয়েগেছে বহাল তবিয়তে। তাকে গ্রেফতার না করার কারণে সীমান্ত চোরাচালান ও চাঁদাবাজি দিনদিন বেড়েই চলেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তাই এব্যাপারে প্রশাসনের উপরস্থ কর্মকর্তাদের সহযোগীতা জরুরী প্রয়োজন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে- প্রতিদিন ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত পৃথক ভাবে জেলার তাহিরপুর উপজেলার লাউড়গড় সীমান্ত দিয়ে চোরাকারবারী বায়েজিদ মিয়া, জসিম মিয়া, রফিক মিয়া, এরশাদ মিয়া, নাজিম মিয়া, চাঁনপুর সীমান্তে আবু বক্কর, আলমগীর, জম্মত আলী, রফিকুল, সাহিবুর রহমান, টেকেরঘাট সীমান্তে আক্কল আলী, কামাল মিয়া, মোক্তার মহলদার, বালিয়াঘাট সীমান্তে জিয়াউর রহমান জিয়া, মনির মিয়া, ইয়াবা কালাম মিয়া, নেকবর আলী, বাবুল মিয়া, হোসেন আলী, রতন মহলদার, কামরুল মিয়া, চারাগাঁও সীমান্তে শামসুল মিয়া, শরাফত আলী, সুলতান মিয়া, আনোয়ার হোসেন বাবলু, সোহেল মিয়া, বাবুল মিয়া, রফ মিয়া, আইনাল মিয়া, রিপন মিয়া, সাইফুল মিয়া, হযরত আলী ও বীরেন্দ্রনগর সীমান্তে লেংড়া জামাল, গোলাম মস্তোফাগংকে দিয়ে গডফাদার তোতলা আজাদ ভারত থেকে অবাধে কয়লা, চুনাপাথর, চিনি, সুপারী, পেয়াজ, নাসির উদ্দিন বিড়ি, মদ, গাঁজা, ইয়াবা, গরু, ঘোড়া, মোটর সাইকেল ও অস্ত্র পাচাঁর করে। পরে অবৈধ মালামাল থেকে সংবাদিক, পুলিশ ও বিজিবির নাম ভাংগিয়ে প্রতিদিন লাখলাখ টাকা উত্তোলন করে গডফাদার তোতালা আজাদ।

এছাড়াও যাদুকাটা নদীর তীর কেটে ও নদীর তীর সংলগ্ন এলাকায় অর্ধশতাধিক বালি ও পাথর কোয়ারী (মৃত কূপ) তৈরি করে সোর্স আলীম উদ্দিনকে দিয়ে সাংবাদিক ও পুলিশের নামে প্রতিদিন দেড় লাখ টাকা চাঁদা উত্তোলন করে গডফাদার তোতলা আজাদ। তার নিজ গ্রাম কামড়াবন্দসহ জঙ্গলবাড়ি, কলাগাঁও, লামাকাটা, সুন্দরবন, বাঁশতলা, লালঘাট, লাকমা, বড়ছড়া, লাউড়গড়, বারেকটিলা, শ্রীপুর বাজার ও দুধের আউটাসহ আরো একাধিক স্পটে গডফাদার তোতলার নেতৃত্বে ইয়াবা ও মদ বিক্রি করা হয়। সরকারের কোটিকোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করে গত ৩বছরে ওই গডফাদার ১৫কোটি টাকার মালিক হয়েছে বলে জানা গেছে।

গত শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যার পর থেকে গডফাদার তোতলা ও তার সোর্স বাহিনীর সদস্যরা সীমান্ত দিয়ে পৃথক ভাবে ভারত থেকে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন মালামাল পাচাঁর করে ওই গডফাদার তার কামড়াবন্দ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়াসহ নদী ও সড়ক পথে দেশের বিভিন্ন স্থানে নৌকা ও ট্রাক বোঝাই করে পাঠানো শুরু করে। এমতাবস্থায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওইদিন রাত পৌনে ১০টায় বাদাঘাট-তাহিরপুর সড়কের হুসনা এলাকায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪লাখ ৮হাজার টাকা মূল্যের ৪হাজার ৮শ কেজি পেয়াজ ভর্তি ১টি ট্রাকসহ সীমান্তের বিশিস্ট চোরাকারবারী সাহিবুর রহমান (৪২) ও তার সহযোগী বাবুল মিয়া (৫০) কে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। ওই সময় পালসার মোটর সাইকেল নিয়ে গডফাদার তোতলা আজাদ সুকৌশলে পালিয়ে যায়। এরআগে এদিন দুপুরে সুনামগঞ্জের সুরমা নদীর আব্দুস জহুর টোলবক্সের সামনে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩ হাজার ৬৪০ কেজি অবৈধ পেয়াজ বোঝাই ১টি ট্রাকসহ চোরাকারবারী সেলন মিয়া (৪০), মঈনুল ইসলাম (৩৮) ও আনফর আলী (২৫) গ্রেফতার করা হয়। পরে সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এঘটনার প্রেক্ষিতে গতকাল রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারী) রাতে সুনামগঞ্জ ও তাহিরপুর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করা হয়।

সুনামগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই পলাশ চৌধুরী ও তাহিরপুর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন পৃথক অভিযানে ৫জনের গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান- চোরাচালান প্রতিরোধে এঅভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মাতৃভাষা ও স্বাধীনতা বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই পেয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আমরা যে মাতৃভাষায় কথা বলতে পারছি, আমরা যে স্বাধীন জাতি হিসেবে মর্যাদা পেয়েছি সেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রহমানের হাত ধরেই এসেছে, বলেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ ভবনে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আজ আমরা এখানে সমবেত হয়েছি ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে। বাংলাদেশ, বাঙালি আজ আমরা বিশ্বের বুকে যে আত্ম-পরিচয় পেয়েছি, সেটা দিয়ে গেছেন মহান নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আমরা মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকার পেয়েছি, সেখানেও বঙ্গবন্ধুর অবদান রয়েছে।

তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালের ২ মার্চ ভাষা সংগ্রাম পরিষদ গঠন করেন তমদ্দুন মজলিশ এবং আরও কয়েকটি সংগঠন নিয়ে। তার আগে ১৯৪৭ সালের ডিসেম্বরে করাচিতে শিক্ষা সম্মেলনে রাষ্ট্রভাষা উর্দু করার ঘোষণা দেওয়া হয়। তার প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা প্রতিবাদ জানান। এর মধ্য দিয়েই ৪ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আইন বিভাগের ছাত্র থাকাকালে পূর্ব বাংলা ছাত্রলীগ গঠন করেন।

ছাত্র সংগঠন গঠন করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্দোলন-সংগ্রামের প্রস্তুতি নেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তখন যেসব রাজনৈতিক দল ও ছাত্র সংগঠন ছিল, তাদের নিয়ে সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়। সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেয় ১১ মার্চ ধর্মঘট ডাকা হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা যে আজ মাতৃভাষায় কথা বলতে পারছি, আমরা যে স্বাধীন জাতি হিসেবে মর্যাদা পেয়েছি উপমহাদেশে ভাষাভিত্তিক একমাত্র রাষ্ট্র বাংলাদেশ, সেই জাতি রাষ্ট্র আমরা পেয়েছি, তার সব কিছুতেই অবদান রয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের। আমি তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাই, ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ড. আব্দুর রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আতাউর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মো. নুরুল হুদা, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজীর আহমেদসহ এ সময় আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন।


আরও খবর



পুলিশের ৩৩ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পুলিশের তিন পদে কর্মরত ৩৩ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে পরিদর্শক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ সংক্রান্ত আদেশ দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) থেকে পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) পদে ১৫ জন, সাব-ইন্সপেক্টর (সশস্ত্র) থেকে পুলিশ পরিদর্শক (সশস্ত্র) পদে ১৪ জন এবং পুলিশ সার্জেন্ট থেকে পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যানবাহন) চারজনসহ মোট ৩৩ জন কর্মকর্তাকে পদোন্নতি প্রদান করা হয়েছে।


আরও খবর



দীঘিনালায় অবৈধ দুই ইটভাটায় দেড় লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল, পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলায়  হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করায় দুই ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করে  দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে বোয়ালখালী ইউপি এলাকায় পরিচালিত লাইসেন্স বিহীন একটি করাতকল মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১  ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে দীঘিনালা উপজেলার  এডিবি ইট ভাটা ও ফোর বিএম ইট ভাটায় অভিযান পরিচালনা করে সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে দীঘিনালা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  মোহাম্মদ আবুল হাসনাত খান।এসময়  এডিবি ইট ভাটাকে ১ লক্ষ ও ফোর বিএম ইটভাটাকে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান পরিচালনার সময়  নাড়াইছড়ি বন বিভাগের  রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মতিউর রহমান, ,নাড়াইছড়ি রেঞ্জর ফরেস্টার মো. মোজাম্মেল হক মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

দীঘিনালা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  মোহাম্মদ আবুল হাসনাত খান বলেন, মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের আদেশ বাস্তবায়ন পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না থাকা ও  জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশক্রমে  ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ (সংশোধিত ২০১৯) ধারামতে এডিবি ইটভাটাকে  ১ লাখ টাকা ফোর বিএম ইট ভাটাকে ৫০হাজার  টাকা জরিমানা ও সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয় । এছাড়াও বোয়ালখালী ইউপি এলাকায় পরিচালিত লাইসেন্স বিহীন একটি করাতকল কর্তৃপক্ষকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফুলবাড়ীতে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত ২৩ জন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৯জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি), দাখিল ও ভোকেশনাল (সমমান) পরীক্ষায় প্রথম দিনেই অনুপস্থিত ছিলেন ২৩ জন।

গত বৃহস্পতিবার (৩০ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এসএসসি, দাখিল ও ভোকেশনাল (সমমান) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে প্রথম দিনেই অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ জন। উপজেলার সুজাপুর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, জিএম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও দারুস সুন্নাহ সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসা পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণ ভাবে পরীক্ষা দিচ্ছে।

বিদ্যালয়ের গেটের বাহিরে অপেক্ষা করছেন অভিভাবকরা। পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান মিল্টন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর মোঃ আল কামাহ তমাল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ জাফর আরিফ চৌধুরী, থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান প্রমূখ।উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা দফতর সূত্রে জানা যায়, চলতি এসএসসি পরীক্ষায় ২ হাজার ১ শত ০৬ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করার কথা থাকলেও জেনারেল শাখায় ১৪৭৯ পরিক্ষার্থীর মধ্যে ৯ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত। দাখিল পরীক্ষায় ৩৬০ জনের মধ্যে ১২ জন অনুপস্থিত।ভোকেশনাল পরীক্ষায় ২৫০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২ জনসহ অনুপস্থিত মোট ২৩ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর মোঃ আল কামাহ জানান, উপজেলার সুজাপুর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যাল, ফুলবাড়ী গোলাম মোস্তফা (জিএম) পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, দাদুল চোকিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, দারুস সুন্নাহ সিদ্দিকীয় মাদ্রাসা কেন্দ্রে অত্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রথম দিনের এসএসএসি/সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্র গুলোতে কঠোর নজরদারি রাখা হয়েছে। কোন প্রকার বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেনি। আশা করা যাচ্ছে বাকি পরীক্ষাগুলোর সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল উদ্বোধন ১ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের  বর্ণিল আয়োজনের মধ্যদিয়ে পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনা বিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারসামগ্রী পরিবেশনসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল-২০২৪ এর আয়োজন করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি)রাঙ্গামাটি জেলার চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে ৩ দিনব্যাপী 
পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনা বিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল- এর  উদ্বোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ঐতিহ্যবাহী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল- উদ্বোধন করবেন  পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, এমপি।

আগামী  ১ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ রাঙ্গামাটি জেলার চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে প্রতিদিন বিকাল ০৩.০০ টা থেকে রাত ০৮.০০ টা পযন্ত পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনাবিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারসামগ্রী পরিবেশনসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল-২০২৪ এর আয়োজন করেছেন পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান  সুপ্রদীপ চাকমা,র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, এমপি।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত থাকবেন রাঙ্গামাটি  আসনের  জাতীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী   দীপংকর তালুকদার, এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব  মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি।

 পার্বত্য চট্টগ্রামের চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, ম্রো, তঞ্চগ্যা, বাঙ্গালি, অহমিয়া, খেয়াং, খুমি, গুর্খা, চাক, পাংখোয়া, বম, লুসাই, রাখাইন এবং সাঁওতালসহ ১৬টি সম্প্রদায় তাদের সুস্বাদু খাবার সামগ্রীসমূহ নিয়ে ঐতিহ্যবাহী এ ফেস্টিভ্যালে অংশগ্রহণ করবে। 

রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান এই তিন জেলা নিয়ে দেশের এক দশমাংশ অঞ্চলের অন্যতম পর্যটন এলাকা পার্বত্য চট্টগ্রাম। বাংলাদেশের ফেস্টিভাল অঞ্চল হিসেবে খ্যাত পার্বত্য চট্টগ্রাম। এ অঞ্চলের ঐতিহ্য ও ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের মাধ্যমে পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসকারী সকল সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারের সমাহার, কৃষ্টি ও সংস্কৃতি দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকর্ষণ করবে। এ অঞ্চলে বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী খাবারসহ কৃষ্টি ও সংস্কৃতির প্রতিফলন ঘটবে এবং বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নয়নে এক নতুন মাত্রা যোগ হবে। পাশাপাশি এ ফেস্টিভ্যালের মাধ্যমে দেশের পর্যটন সম্পদের সম্ভাবনা আগের চেয়ে অধিকতর প্রসারিত ও বিকশিত হবে। এছাড়া এ কার্যক্রমের মাধ্যমে পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসকারী সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যপূর্ণ বন্ধন আরও সুদৃঢ় হবে।

আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪