Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সৎকর্মের মধ্য দিয়ে আমরা মৃত্যুর পরও মানুষের মধ্যে বেঁচে থাকবো: হুইপ ইকবালুর রহিম

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

দিনাজপুর প্রতিনিধি:জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, শ্রী শ্রী অনুকুল ঠাকুর ১৩৬ বছরেও আমাদের মাঝে বেচে আছেন তার সৎ কর্মের জন্য, তার ভাল কথার জন্য, সৎ গুণের জন্য এবং মানুষকে জ্ঞানের আলোয়, সততার আলোয় আলোকিত করেছেন বলেই। আমরা শ্রী শ্রী অনুকুল ঠাকুরের জন্মবার্ষিতে শপথ নেই আমরা সৎভাবে জীবনযাপন করবো। সৎসঙ্গ লাভের মধ্য দিয়ে সৎপথে পরিচালিত হওয়ার চেষ্টা করবো। আমাদের মধ্যে প্রেম জাগ্রত করে আমাদের পৃথিবীতে হানাহানি বন্ধ করে প্রেমময় বিশ্ব গড়ে তুলবো।সমাজে যে হিংসা বিদ্বেস দুর করবো। সৎ কর্মের মধ্যে আমরা মৃত্যুর পরও মানুষের মধ্যে বেঁচে থাকবো। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অসম্প্রদায়িক চেতনার আলোকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি অসম্প্রদায়িক সুখী সমৃদ্ধ উন্নত আধুনিক স্মার্ট গড়ে তুলবো।

শুক্রবার যুগ পুরুষোত্তম পরমপ্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের ১৩৬তম জন্মবার্ষিকীর মহোৎসব উপলক্ষে দিনাজপুর সদরের গোপালগঞ্জস্থ সৎসঙ্গ বিহার শ্রীমন্দির প্রাঙ্গনে মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের সার্বিক সহযোগিতায় সাধারণ ধর্মসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এসব কথা বলেন।

সৎসঙ্গ বিহার মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী ধরনী কুমার রায়ের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি দিনাজপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মমিনুল করীম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সাল রায়হান, দিনাজপুর হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক রতন সিং, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ভবদীশ ব্যানাজী, সহ-প্রতিঋত্বিক শ্রী ক্ষিতিশ চন্দ্র শীল প্রমুখ।আলোচক ছিলেন সহ-প্রতিঋত্বিক খুলনার শ্রী অজয় সরকার, সহ-প্রতিঋত্বিক গাইবান্ধার শ্রী নিমাই চন্দ্র বর্মন। আলোচ্য বিষয় ছিল-পরম প্রেমময় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের দিব্য জীবন ও বাণী।এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন মন্দির পরিচালনা কমিটি, উৎসব উদযাপন কমিটি, পাঞ্জাধারী ও স্থানীয় সকল ভক্তবৃন্দের নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর

জাতীয় পার্টি গৃহপালিত দল: জিএম কাদের

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রাজনীতি থেকে পুরোদমে সরে দাড়াচ্ছেন মিমি চক্রবর্তী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিনিধি:অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিতেও বেশ সরব ওপার বাংলার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে সংসদ সদস্যও হয়েছেন এই অভিনেত্রী। তবে এবার রাজনীতি থেকে পুরোদমে সরে দাড়াচ্ছেন এই নায়িকা। ইতিমধ্যে সংসদ সদস্য (এমপি) পদে থাকতে না চেয়ে পদত্যাগপত্রও জমা দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে পদত্যাগপত্র তুলে দেন মিমি। এ ছাড়া তিনি আর রাজনীতি করতে চান না বলেও জানিয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিধানসভায় মমতা বক্তব্য দেওয়ার সময় তার কক্ষে ঢোকেন মিমি। কিছুক্ষণ পর ওই কক্ষে ঢোকেন তৃণমূলের দুই তারকা বিধায়ক সোহম চক্রবর্তী ও জুন মালিয়া। বক্তব্য শেষ হলে নিজের কক্ষে যান মমতা। তারপর তিনি মিমি এবং বাকিদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

বৈঠক থেকে বের হয়ে মিমি জানান, তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতার কাছে এমপি পদ থেকে পদত্যাগপত্র দিয়েছেন। তবে মমতা এখনও সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেননি। পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী পদত্যাগপত্র গ্রহণ করলে তিনি ভারতীয় লোকসভার স্পিকারের কাছে গিয়ে পদত্যাগপত্র দিয়ে আসবেন।

সম্প্রতি সংসদের দুটি স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যপদ থেকে পদত্যাগ করেছে মিমি। সংসদের শিল্পবিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ছিলেন তিনি। ছিলেন কেন্দ্রীয় শক্তি মন্ত্রণালয় এবং নবীন ও পুনর্নবীকরণযোগ্য বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের যৌথ কমিটির সদস্যও। এই দুটি পদ থেকেই তিনি পদত্যাগ করেন।

এরপর জানা যায়, যাদবপুর লোকসভার অধীন নলমুড়ি এবং জিরানগাছা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপারসন পদও ছেড়ে দিয়েছেন মিমি। তারপর থেকেই তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ ঘিরে জল্পনা শুরু হয়।

প্রশ্ন উঠেছে, ২০২৪ সালে যাদবপুর থেকে আবারও কি প্রার্থী হবেন মিমি? নিজের ধারাবাহিক পদত্যাগ প্রসঙ্গে অবশ্য এর আগে তিনি মুখ খোলেননি।

মিমি বলেন, ‘আমার যা বলার ছিল, দিদিকে (মমতা) বলেছি। অনেকে বলছিলেন, আমি পরবর্তী টিকিট পাকা করার জন্য এটা করছি। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, রাজনীতি আমার জন্য নয়।’

এর ব্যাখ্যা দিয়ে অভিনেত্রী বলেন, ‘রাজনীতি করলে আমার মতো মানুষকে গালাগালি দেওয়ার লাইসেন্স পেয়ে যায় লোকে। মিমি চক্রবর্তী যদি খারাপ কিছু করত, সবার আগে শিরোনামে উঠে আসত। আমি জেনে জীবনে কারও কোনো ক্ষতি করিনি। আমি রাজনীতিক নই। কখনও রাজনীতিক হব না। সবসময় আমি মানুষের জন্য কর্মী হিসাবে কাজ করতে চেয়েছি। আমি অন্য দলের কারও বিরুদ্ধেও কখনো খারাপ কথা বলিনি।’

কিছুদিন আগে প্রায় একইভাবে রাজনীতি থেকে কিছুটা ‘দূরত্ব বৃদ্ধি’ করেছিলেন তৃণমূলের আরেক তারকা দেব। তিনিও একের পর এক প্রশাসনিক পদ থেকে পদত্যাগ করছিলেন। নিজের লোকসভা এলাকা ঘাটালের তিনটি প্রশাসনিক পদ— ঘাটাল কলেজ, ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি ও বীরসিংহ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন দেব। যা দেখে জল্পনা শুরু হয়, দেব হয়ত রাজনীতি ছেড়ে দিচ্ছেন।

তবে মমতা এবং তার ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর মত বদলেছেন দেব।


আরও খবর

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ৭ম বর্ষপূর্তি

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




অর্থনৈতিক চাপ বৈশ্বিক কারণেই: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অর্থনৈতিক চাপ বৈশ্বিক কারণেই রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আজকে বৈশ্বিক কারণেই কিছু অর্থনৈতিক চাপ রয়েছে তাছাড়া আমরা খুব ভালভাবেই এগোচ্ছিলাম। আমাদের প্রবৃদ্ধিও সেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছিল। দেশের উন্নয়নটা তরান্বিত হচ্ছিল 

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় সভাপতিত্ব করার সময় প্রারম্ভিক ভাষণে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ অতিমারী আসায় বিশ্বব্যাপী সবকিছু স্থবির হয়ে পড়ল। এরপর যখন আমরা এটি মোকাবিলা করে এর থেকে উত্তোরণ ঘটানোর চেষ্টা করে যাচ্ছি তখনই আসলো ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ, স্যাংশন ও কাউন্টার স্যাংশন, এখন আবার গাজায় যেভাবে গণহত্যা চলছে এবং আক্রমণ চলছে, বিশ্বব্যাপীই একটি অশান্ত পরিবেশ। যার কারণে জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির পাশাপাশি পণ্য পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। সময়ও বেশি লেগে যাচ্ছে। বহিঃবিশ্বের নানা কারণে চাপটা আমাদের ওপরও এসে পড়েছে।

এ সময় দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন এমন গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণের পাশাপাশি যেগুলোতে কম অর্থের প্রয়োজন, সেগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য সব মন্ত্রণালয়কে তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য যে প্রকল্পগুলো গুরুত্বপূর্ণ ও গ্রহণযোগ্য সেগুলো আমাদের নিতে হবে। প্রকল্প বাছাই করার সময় সে বিষয়টা আমাদের একটু দেখা দরকার যাতে আমরা আমাদের লক্ষ্যটা অর্জন করতে পারি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যেসব প্রকল্প অল্পখরচ করলেই দ্রুত শেষ হয়ে যাবে সেগুলো সম্পন্ন করে ফেলা উচিত। তাহলে আমরা আবার নতুন প্রকল্প নিতে পারবো। কিছু কিছু প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে, তবে আমার মনে হয়, সেগুলোও দ্রুত সম্পন্ন করা উচিত। কারণ দ্রুত শেষ না করলে খরচ, যেমন বাড়ে তেমনি অহেতুক কালক্ষেপণ হয়, সেটা যেন আর না হয়।

যে কারণে তিনি দেশের প্রতি ইঞ্চি অনাবাদি জমিকে চাষের আওতায় আনার মাধ্যমে সার্বিক উৎপাদন বাড়ানোর আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, এতে ভালো ফল পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু জিনিস আমাদের বাইরে থেকে আনতেই হয়। তারপরেও সার্বিক উৎপাদন বাড়ানো গেলে এর শুভফলটা জনগণ পাবে, অন্যের ওপর আর নির্ভরশীল হয়ে থাকতে হবে না।

প্রধানমন্ত্রী উদাহরণ দিয়ে বলেন, ‘তার সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করায় এখন দেশের প্রয়োজনের ৪০ শতাংশ পেঁয়াজ দেশেই উৎপাদন হচ্ছে। ভোজ্যতেলের ৯০ শতাংশ আমদানী নির্ভর। কিন্তু এবারে আমাদের যে পরিমাণ সর্ষে হয়েছে তাতে ৪০ শতাংশ আমরা এই সর্ষের তেল দিয়ে বা ধানের তুষ থেকে সৃষ্ট রাইস ব্রান্ড ওয়েল উৎপাদন করছি, এভাবেই ধীরে ধীরে নিজেদের স্বয়ংসম্পূর্ণ করে তোলাই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, ‘তাছাড়া মাছ, মাংশ, দুধ ডিমের উৎপাদনও বেড়েছে এবং মানুষের এগুলো গ্রহণের হারটাও বেড়েছে। যারা আগে আমিষ খাবার কথা চিন্তা করতোনা, এখন তারাও নিচ্ছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি মনে করি, অবকাঠামোগত উন্নয়নের সাথে সাথে একেবারে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়নটা আমাদের দরকার। কাজেই সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের পরিকল্পনা নিতে হবে।


আরও খবর



আইএমএফের ঋণের তৃতীয় কিস্তি সময়মতো মিলবে: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ আইএমএফের দেয়া লক্ষ্যমাত্রা মোটামুটি পূরণ করেছে, সময়মতোই ঋণের তৃতীয় কিস্তি মিলবে।বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) আবাসিক প্রতিনিধি জায়েন্দু দে। বৈঠকে দেশের চলমান অর্থনৈতিক নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সাক্ষাৎ শেষে অর্থমন্ত্রী জানান, অর্থ ব্যবস্থাপনায় ভালো করায় আইএমএফের তৃতীয় কিস্তিও পাবে বাংলাদেশ। তিনি বলেন, আইএমএফ বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের প্রশংসা করেছে।


আরও খবর



রূপগঞ্জে মহাসড়কে উচ্ছেদ অভিযানে স্বজন প্রীতির অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image

মোঃকাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:-

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রূপগঞ্জে ভুলতা-গাউছিয়া এলাকায় কাঁচাবাজার- ফুটপাত উচ্ছেদে এলাকাবাসীর মনে স্বস্তি  ফিরলেও কিছু স্থাপনা উচ্ছেদ না করায় জনমনে অভিযোগ উঠেছে স্বজনপ্রীতির।৩ ফেব্রুয়ারী শনিবার মহাসড়কের যানজট নিরসন ও এলাকার শৃঙ্খলা রক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের এই উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছেন। এসময় সহস্রাধিক দোকানপাট উচ্ছেদ করেন প্রশাসন। অভিযান শেষে  সড়ক ও জনপথের উপর কিছু কিছু স্থাপনা দৃশ্যমান থাকায় এলাকাবাসীর মধ্যে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠে।


অভিযানের পর ফুটপাত নিয়ে মার্কেট ব্যবসায়ী ও সাধারন মানুষের মধ্যে আলোচনা ও সমালোচনা।  ফুটপাত ও মহাসড়কের কাঁচাবাজার উচ্ছেদের পর অনেকে বলেন এলাকার সৌন্দর্য ফিরে আসছে কিন্তু এ সৌন্দর্য কত দিন থাকবে এটাও দেখার ব্যাপার। চাঁদাবাজরা অনেক প্রভাবশালী, তারা আবারো প্রশাসনকে ম্যানেজ করে মহাসড়কে ফুটপাত বসাবে। মহাসড়েকে এবার আর ফুটপাত বসাতে পারবে না এমন মন্তব্য অনেকের।2এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় এবার সর্বমহল সাথে নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার উদ্যোগে নিয়ে অভিযান চালিয়েছে।


জানা যায় উপজেলা পরিষদ, ভুলতা গাউছিয়া এলাকার ব্যবসায়ী মহল ও ফুটপাতের হকার নেতা ঐ এলাকার  জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে এক যৌথ আলোচনা করেন উপজেলা প্রশাসন।এর পরই মহাসড়কের ফুটপাত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছেন।উচ্ছেদের পর মহাসড়ক ও ফুটপাতের দৃশ্য দেখে পথচারী ও এলাকাবাসী সন্তোষ প্রকাশ করে এবং সব সময়ই মহাসড়কের এরকম দৃশ্য দেখতে চায়।আওয়ামী লীগ নেতা সাত্তার চৌধুরী বলেন ফুটপাত ভেঙেছে মহাসড়ক ক্লিয়ার করছে সুন্দর হইছে এটা সঠিক কাজ করছে কিন্তু যে সকল স্থাপনা ভাঙ্গা হয়নি এটা কি তাহলে বিশেষ কোন গোষ্ঠীর প্রভাবের কারণে।


আমার তো মনে হয় এটা স্বজনপ্রীতি করা হয়েছে অনতিবিলম্বে এ সকল স্থাপনা গুলো ভেঙ্গে দেয়া হোক।এলাকার সচেতন মহল মনে করেন ভুলতা ফ্লাইওভার এলাকায় সৌন্দর্য স্থায়ী রাখতে ফ্লাইওভারের নিচের ডিভাইডারগুলোর রেলিং দিয়ে আটকাতে হবে।ডিভাইডারে রেলিং না থাকায় ফ্লাইওভারের গোড়ায় যত্রতত্র মল-মূত্র ও প্রসাব করে আসছে পথচারীসহ ফুটপাত ব্যবসায়ীরা। ডিভাইডারে মধ্যে জমানো মল-মুত্রের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে এলাকার পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। এতে করে পথচারীরা অতিষ্ঠ। এই এলাকায় ডিভাইডার ও গোলাকান্দাইল গোল চত্বরে রেলিং হলে ফুটপাতের ভিতর কোন হকার বসতে পারবে না এতে করে এলাকার পরিবেশ ঠিক থাকবে। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাকেরগঞ্জে ৭ কেজি গাঁজা সহ মাদক ব্যবসায়ীকে পুলিশে দিলেন ইউপি সদস্য

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image
রবি ইসলাম:বরিশালের বাকেরগঞ্জের ১২ নং রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের  মাদক সম্রাট  কাঠালিয়া গ্রামের মৃত্যু রতন হাওলাদারের পুত্র আল-আমীন ওরফে খোকন কে স্থানীয় ইউপি সদস্য পান্না হাওলাদার সহ স্থানীয়রা ৭ কেজি গাঁজা সহ আটক করে  বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশে দিয়েছেন। 
 ৬ ফেব্রুয়ারি রাত্র সাড়ে ১০ টার দিকে কাঠালিয়া গ্রামের  মৃত রতন হাওলাদার পুত্র চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আল আমিন ওরফে খোকন হাওলাদারকে গ্রেফতার করেছে।

বিশেষ এই অভিযানে ৭ কেজি গাঁজা সহ আটক করা হয় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আমিন ওরফে খোকন হাওলাদারকে। খোকনের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানার ২০১৮ সনের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ৩৬(১) সারনী ১৯(খ) ধারায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আলআমিন ওরফে খোকন হাওলাদারের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানায় আরো ০২টি মাদক মাদক মামলা রয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী খোকনকে ৭ ফেব্রুয়ারি কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আফজাল হোসেন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করায় স্থানীয় ইউপি সদস্যকে ধন্যবাদ জানিয়ে  সংবাদ মাধ্যমকে জানান, মাদক ব্যবসায়ী যেই হোকনা কেন তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য পান্না হাওলাদার  সংবাদ মাধ্যমকে জানান দীর্ঘ দিনের প্রচেষ্টায় মাদক সম্রাট আলআমিন ওরফে  খোকনকে ৭ কেজি গাঁজা সহ পুলিশের হাতে তুলে দিতে পেরে আমাদের ভালই লাগছে । আমরা রঙ্গশ্রী ইউনিয়নকে মাদকমুক্ত করে ছাড়বো এখানে কোন মাদক সেবনকারী ও বিক্রেতার স্থান হবে না।

আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪