Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

সড়কের শৃংখলা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৪৬০জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসান:সড়কের শৃংখলা নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশ।

শুক্রবার ১৭ মে সকালে এই মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ওয়ারী ট্রাফিক পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আশরাফ ইমাম।

এসময় তিনি ৬৮৪টি লেগুনা গাড়ীতে লুকিং গ্লাস লাগাতে উদ্বুদ্ধ করেন। 

ওয়ারী বিভাগের অধীনে কাপ্তান বাজার, দয়াগঞ্জ, জুরাইন, পোস্তগোলা, লাল মসজিদ, ঢাকা ম্যাচ ফ্যাক্টরি, মুন্সিখোলা, যাত্রাবাড়ী, কাজলা, স্টাফ কোয়াটার, কুতুবখালী এবং দনিয়া এলাকায় লেগুনা স্ট্যান্ড রয়েছে। এই এলাকার চালকদের তিনি সড়কের শৃঙ্খলা বিষয়ে সড়কের সকল আইন তুলে ধরেন। 

পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, মেগা সিটি ঢাকার যানজটকে সহনীয় পর্যায়ে রেখে এবং নগরবাসীর সড়কে চলাচলকে নির্বিঘ্ন ও স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ করতে ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে কাজ করে যাচ্ছে সকল ট্রাফিক বিভাগ। যানজটকে নিয়ন্ত্রণের জন্য সৃজনশীলতা ও বিভিন্ন কল্যাণমূলক পদক্ষেপ নিয়ে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ নিরবিচ্ছিন্নভাবে কাজ করছে। 

তিনি আরো বলেন, ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগে জনসংখ্যার ঘনত্ব অধিক হওয়ায় এবং অধিক সংখ্যক যানবাহনের তুলনায় রাস্তাঘাট অপ্রতুল হওয়ায় মাঝে মাঝেই বিভিন্ন দুর্ঘটনার শিকার হয়ে থাকে পরিবহনের চালক, হেলপার, যাত্রী এবং সড়কের পথচারীবৃন্দ। 

এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ প্রধান সড়কে ব্যাটারি রিকশা এবং লেগুনার চলাচল। দুর্ঘটনার কারণ যাচাই করে দেখা যায়, লেগুনার লুকিং গ্লাস না থাকা, অপরিপক্ক চালক দিয়ে লেগুনা চালানো এবং যান্ত্রিক ত্রুটি থাকা।

এসময় তিনি ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের লেগুনা গুলোকে সড়কে যান চলাচলের উপযোগী করার লক্ষ্যে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের পক্ষ থেকে সকল লেগুনার মালিককে তিন দিন বা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে লুকিং গ্লাস লাগানোর জন্য কড়া নির্দেশনা দেয়া হয়। 

ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সহ উপ পুলিশ কমিশনার সুলতানা ইশরাত জাহান, এসি (ট্রাফিক ওয়ারী) জোন কপিল দেব গাইন, এসি (ট্রাফিক যাত্রাবাড়ী) জোন তানজিল আহমেদ এবং এসি (ট্রাফিক ডেমরা) জোন মোস্তাইন বিল্লাহ ফেরদৌস।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




ঘূর্ণিঝড় রেমাল: ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত রাতেই আসছে

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১০৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া ঘূর্ণিঝড় রেমাল রোববার (২৬ মে) ভোর থেকে ঝড় আঘাত হানতে পারে,বলেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মুহিববুর রহমান। সন্ধ্যায় পুরোপুরি আঘাত হানবে বলে পূর্বাভাস রয়েছে। এজন্য ঘূর্ণিঝড় রেমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে আজ রাতে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেওয়া হবে।

শনিবার (২৫ মে) সচিবালয়ে ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবিলায় নেওয়া প্রস্তুতি সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে কক্সবাজার থেকে সাতক্ষীরার উপকূল অঞ্চল বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ৭ থেকে ৮ ফুট জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। প্রচুর বৃষ্টিপাত হবে, এজন্য পাহাড়ি অঞ্চলে ভূমিধস হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় মন্ত্রণালয়ের সব প্রস্তুতি রয়েছে। ৮০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক ও উপকূলে ৪ হাজার আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত আছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরসহ পৃথিবীর অন্যান্য দেশের সঙ্গে সমন্বয় রেখে আমরা বুঝতে পেরেছি, ঘূর্ণিঝড়টি আসন্ন। এখন ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত রয়েছে। আগামী ১ থেকে ২ ঘণ্টার মধ্যে সংকেত ৩-এ চলে যাবে। এটা (সতর্ক সংকেত) রাতে ৪-এর ওপরে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাতে বিপদের পর্যায়ে চলে যেতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস পর্যালোচনা করে আমরা ঝড়ের জন্য প্রস্তুতি নেয়া শুরু করেছি। রাত ১২টা-১টা নাগাদ এটা ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি হতে পারে। এমন একটা সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে ঢাকা আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড় রেমালে রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ঘূর্ণিঝড়টি অতিপ্রবল হয়ে আঘাত হানতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও কোথাও হতে পারে অতি ভারি বর্ষণ।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




নেটওয়ার্ক শেয়ারে রবি ও বাংলালিংক-এর যৌথ উদ্যোগ

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৫৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশের অন্যতম দুই মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড ও বাংলালিংক তাদের নেটওয়ার্ক অবকাঠামো শেয়ার এর সম্ভ্যবতা যাচাইয়ের লক্ষ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে। মোবাইল নেটওয়ার্কের মান ও গতি বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশব্যাপী ফোর-জি’র প্রসার বাড়াতে এই যৌথ উদ্যোগ নিয়েছে অপারেটর দুটি। বিশ্বে টেলিযোগাযোগ শিল্পে নেটওয়ার্ক অবকাঠামোর যৌথ ব্যবহার জনপ্রিয় ও স্বীকৃত।

এর মাধ্যমে সম্পদের সদ্ব্যবহার করে জ্বালানির যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে উভয় প্রতিষ্ঠানই টেকসই পরিবেশ রক্ষার প্রতিশ্রুতি সমুন্নত রাখতে পারে। এছাড়া, এর ফলে ব্যয় ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বৃদ্ধি ও টেলিযোগাযোগ সম্পদের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করায় সেবার মান ও মূল্য সংযোজন পরিষেবায় (ভিএএস) বেশি বিনিয়োগের সুযোগ তৈরী করে। টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এ ধরণের যৌথ উদ্যোগে বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা সংরক্ষণেও সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

১৭ মে ২০২৪-এ রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্ধসঢ়;মেদ পলক এ ঘোষণা দেন। বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস ২০২৪ উপলক্ষে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। অনুষ্ঠানে রবি ও বাংলালিংক সমঝোতা চুক্তিটি স্বাক্ষর করে।

গ্রাহকদের উন্নত ও মানসম্মত সেবা প্রদানের প্রতিশ্ধসঢ়;রুতি রক্ষায় এই উদ্ভাবনী যৌথ উদ্যোগ নতুন মাইলফলক তৈরি করবে। এই চুক্তির মাধ্যম উভয় অপারেটরের গ্রাহকগণ বৈচিত্রময় ও উদ্ভাবনী ডিজিটাল সেবা ব্যবহার করার মাধ্যমে স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক হিসেবে জীবনমান উন্নয়নের সুযোগ পাবে।

এ বিষয়ে এক যৌথ বিবৃতিতে রবি ও বাংলালিংক-এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “এই সময়োপযোগী ও গতিশীল উদ্যোগ দেশের টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থায় যুগান্তকারী পরিবর্তন

আনবে। আমাদের গ্রাহকদের জন্য আরও উন্নত সেবা ও দেশব্যাপী নিরবচ্ছিন্ন নেটওয়ার্ক নিশ্চিত করার ব্যাপারে আমরা বদ্ধপরিকর। এক্ষেত্রে আমাদের প্রথম পদক্ষেপ হবে নেটওয়ার্ক শেয়ার-এর প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সম্ভ্যব্যতা যাচাই করা। প্রয়োজনীয় নীতিগত পরিবর্তন ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন পাওয়ার পর নেটওয়ার্ক অবকাঠামোর যৌথ ব্যবহার শুরু হবে। আমাদের লক্ষ্য হল সকল গ্রাহকের জন্য শক্তিশালী টেলিযোগাযোগ সংযোগ নিশ্চিত করা, যাতে ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জিত হয়। এই ধরণের দূরদর্শী উদ্যোগের প্রতি সর্বদা সমর্থন দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)-এর কাছে আমরা কৃতজ্ঞ।”

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহ্ধসঢ়;মেদ পলক বলেন, “সরকারের স্মার্ট বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে দেশের টেলিযোগাযোগ শিল্পকে অন্যতম চালিকাশক্তিতে রুপান্তর করতে আমরা কাজ করছি। টেলিযোগাযোগ একটি অপরিহার্য সেবা, যা গ্রাহকদের ডিজিটাল পরিষেবা গ্রহণ করার ক্ষেত্রে গুরত্বপূর্ণ সংযোগ সেতু হিসাবে কাজ করে। বাংলালিংক ও রবির মধ্যে এই যৌথ উদ্যোগ নতুন উদ্ভাবনকে উৎসাহিত করবে।

পাশাপাশি, এটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন কর্মকান্ডে দেশের সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহারকেও উৎসাহ প্রদান করবে। রবি ও বাংলালিংকের এই যৌথ উদ্যোগ দেশজুড়ে নিরবচ্ছিন্ন নেটওয়ার্ক সেবা প্রদানের মাধ্যমে দেশের মানুষের জীবনকে আরও উন্নত করবে বলে আমার বিশ্বাস।”

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান, বিপিএএ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মোঃ সামসুল আরেফিন, বিটিআরসি-এর চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট


আরও খবর



ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসিকে উদ্ধারে বিশেষজ্ঞ দল পাঠাচ্ছে রাশিয়া

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৪২জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার। নিখোঁজ হওয়া ইরানের এই প্রেসিডেন্টের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা এখন পর্যন্ত জানা যায়নি। এমন অবস্থায় ইব্রাহিম রাইসিকে অনুসন্ধানে সহায়তার জন্য উদ্ধারকারী দল পাঠাচ্ছে রাশিয়া।

সোমবার (২০ মে) এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, প্রেসিডেন্ট রাইসির সন্ধানে সহায়তার জন্য রাশিয়া ইরানে একটি উদ্ধারকারী দল পাঠাচ্ছে বলে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে। আরআইএ নভোস্তি জানিয়েছে, রাশিয়ার এই দলটিতে ৪৭ জন বিশেষজ্ঞ উদ্ধারকারী, বেশ কয়েকটি যানবাহন যা উঁচু-নিচু ও অসমতল ভূমিতে চলতে পারে এবং একটি হেলিকপ্টার রয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটি আরও বলেছে, উদ্ধারকারী এই সরঞ্জামগুলো এখন লোড করা হচ্ছে এবং পরে ইরানের তাবরিজ শহরে সেটি পাঠানো হবে। দুর্ঘটনার আগে ইরানের প্রেসিডেন্ট এই শহরেই গিয়েছিলেন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভকে উদ্ধৃত করে সংস্থাটি জানিয়েছে, ‘হেলিকপ্টার এবং উদ্ধারকারী দলটির সবাই উচ্চ উচ্চতায় সবচেয়ে কঠিন কাজ করতে প্রস্তুত। কুয়াশাসহ আবহাওয়া পরিস্থিতি বিবেচনা করে অনুসন্ধান এবং উদ্ধার অভিযান পুনরায় শুরু হওয়ার সাথে সাথে আমাদের বিশেষজ্ঞরা সেই উদ্ধার প্রচেষ্টায় যোগ দেবেন।

অন্যদিকে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট রাইসির অনুসন্ধান প্রচেষ্টায় সহায়তা করার জন্য রাশিয়া ৪৭ জন উদ্ধারকারী বিশেষজ্ঞ এবং একটি হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলে পাঠাচ্ছে বলে রাশিয়ার জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

ইরানের তাবরিজের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার আগে রাশিয়ার ঝুকভস্কি বিমানবন্দরে বিশেষ এই সরঞ্জামগুলো লোড করা হচ্ছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

এর আগে রোববার একটি বাঁধ উদ্বোধন করে ইরানি প্রদেশ পূর্ব আজারবাইজানের তারবিজে যাচ্ছিলেন প্রেসিডেন্ট রাইসি। এই সময় তার সঙ্গে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ছিলেন। তারবিজে ফেরার পথেই হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়।

ইরানি সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হয়েছে, রোববার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটের দিকে হেলিকপ্টারটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। সে হিসেবে এখন পর্যন্ত ১৮ ঘণ্টারও বেশি সময় পেরিয়ে গেছে।


আরও খবর



অনন্য স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করবে টেকনো’র যুগান্তকারী এআই ফিচার

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:একটি ঝড়ো সকাল, কাজে তাড়াহুড়ো করে এয়ার কন্ডিশনার বন্ধ করতে ভুলে যান এবং আপনার হাতের কাছে আপনার রিমোট খুঁজে পাচ্ছেন না। এখন আপনার হাতে থাকা টেকনো স্মার্টফোনের আইআর ব্লাস্টার দিয়ে এসি বন্ধ করতে পারবেন। ফলে, আপনি বিদ্যুৎ খরচ আর দুশ্চিন্তা এই দুই থেকেই মুক্ত থাকতে পারবেন। এরকম বহু এআই-নির্ভর প্রযুক্তি আমাদের দেখিয়ে দিচ্ছে আমরা কীভাবে দিনদিন প্রযুক্তি ব্যবহার করে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি এবং এর উপযুক্ত ব্যবহার আমাদের জীবনকে সহজ করে তুলছে।স্মার্টফোন প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে, আর ক্রেতাদের চাহিদাও যেন এর সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে।

টেকনো’র মতো গ্লোবাল ব্র্যান্ডগুলো সর্বাধুনিক এআই সক্ষমতা ব্যবহার করে ক্রেতাদের এসব চাহিদা পূরণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। বিশেষ করে, স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে উদ্ভাবনের ছোঁয়া লাগাতে টেকনো এর ক্যামন ৩০ সিরিজের জন্য সনির সাথে কোলাবেরেশন করেছে। এমনকি কম আলোতেও নিখুঁত ও ঝকঝকে ছবি তোলা নিশ্চিত করতে এই সিরিজে সনি সেন্সর ও পোলারএইস এআই ইমেজ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে।

পাশাপাশি, ব্যবহারকারীরা টেকনো’র এআই ইমেজ জেনারেটর (এআইজিসি) কাজে লাগিয়ে ৪৮০টি স্টাইলে ব্যক্তিনির্ভর (কাস্টমাইজড) এআই পোর্ট্রেট তৈরি করতে পারবেন। ব্যবহারকারীদের সমৃদ্ধ অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে এলা ভয়েস অ্যাসিসট্যান্ট, এলা ট্রান্সলেটর, আস্ক এআই এবং এআই স্কেচ ড্রয়িংয়ের মত এআই ফিচার সংযুক্ত করা হয়েছে ক্যামন ৩০ সিরিজে।

এআই-নির্ভর স্মার্টফোনের চাহিদা প্রতিদিন বাড়ছে। আইডিসি’র ধারণা অনুযায়ী, ২০২৪ সালে বিশ্বে ১৭০ মিলিয়ন এআই স্মার্টফোন বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আর প্রযুক্তিপ্রেমী ব্যবহারকারীদের প্রয়োজন পূরণের উপযোগী ডিভাইস তৈরি করার মাধ্যমে এই পরিবর্তনের নেতৃত্ব দিচ্ছে টেকনো।


আরও খবর



আমতলীতে সেতু ধসে ৪ গ্রামের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:আমতলী উপজেলা চাওড়া ইউনিয়নের মধ্য চন্দ্রা খালের সেতুটি ১৫ মে বুধবার সন্ধ্যায় আকস্মিক ধসে পরে। সেতু ধসের ফলে ওই এলাকার ৪টি গ্রামের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে প্রায় ১০ হাজার মাসুষসহ ২টি বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের মধ্যচন্দ্রা খালের উপর ২০০১ সালে ৩০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ১টি লোহার সেতু নির্মান করা হয়। সেতুটি দীর্ঘদিন ধরে কোন সংস্কার না করায় বুধবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা পারাপারের সময় আকস্মিক খালের মধ্যে ধসে পড়ে। সেতুটি ধসে কামাল (২৩), জামাল হাওলাদার (২৫) ও রাসেল ব্যাপরী (২৭) নামে ৩ পথচারী আহত হয়। তাদেরকে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা  দেওয়া হয়েছে।

সেতুটি ধসের ফলে মধ্য চন্দ্রা, পূর্বচন্দ্রা, উত্তর চন্দ্রা ও পশ্চিম চন্দ্রা গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পরেছে। ওই সেতু পার হয়ে প্রতিদিন শতাধিক লোক আমতলী উপজেলা শহরসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলাচল করে। এছাড়া ওই সেতু পার হয়ে শতাধিক শিক্ষার্থী মধ্য চন্দ্রা সরকারী প্রাথমিক ও মধ্য চন্দ্রা নি¤œ মাধ্যমিক  বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করে। সেতু ধসের ফলে  বৃহস্পতিবার থেকে তাদের স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

নাঈম নামে এক শিক্ষার্থী বলেন সেতু ধসে পরায় এখন আমাদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

মধ্যচন্দ্রা নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী জোবায়দা নাহার বলেন, সেতু ধসে পড়ায় আমাদের স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। স্কুলে যেতে না পারলে আমাদের লেখা পড়ায় অনেক ক্ষতি হবে।

স্থানীয় বাসিন্দা আমিন আকন বলেন, সেতু ধসের ফলে এলাকার প্রায় শতাধিক শিক্ষঅর্থীর স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া গ্রামবাসী এই সেতু পারাপার করে আমতলীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলাচল করত। এখন তা বন্ধ হয়ে গোলো। এখন চলাচলে আমাদের অনেক ভোগান্তি হবে। 

আমতলী উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রোকৌশল বিভাগের প্রকৌশলৗ আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, এখানে গর্ডার সেতু নির্মানের জন্য প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ আসলে কাজ শুরু করা হবে।


আরও খবর