Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

সরাইলে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের তৃতীয় মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত:Saturday ১৬ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৮১৫জন দেখেছেন
Image

মোঃ রুবেল মিয়াঃ-


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ৩য় মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ  উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। 


১৪ জুলাই,  বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা জাতীয় পার্টির দলীয় কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। 


উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হুমায়ুন কবিরের  সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক সালেকের  সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ২ আসনের সাবেক দুইবারের সাংসদ এড. জিয়াউল হক মৃধা।


এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অরুয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভুইয়া,  কালিকচ্ছ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ছায়েদ হোসেন প্রমুখ। 


অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জিয়াউল হক মৃধা বলেন, সাবেক রাষ্ট্র নায়ক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ছিলেন একজন সফল রাষ্ট্রপতি। আজকে ওনার ৩য় মৃত্যু বার্ষিকীতে আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।


আরও খবর



শ্রীপুরে বাসে ট্রেনের ধাক্কায় নিহত বেড়ে ৩

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

গাজীপুরের শ্রীপুরে পোশাকশ্রমিকবাহী বাসে ট্রেনের ধাক্কায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে তিনজন হয়েছে। এতে আহত অন্তত ১৫ শ্রমিককে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রোববার (২৪ জুলাই) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ রেল সড়কের মাইজপাড়া ক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। শ্রীপুর রেলস্টেশনের মাস্টার হারুন অর রশিদ জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ঢাকা থেকে ময়মনসিংহগামী বলাকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৭টা ৫ মিনিটে শ্রীপুর থেকে ছেড়ে যায়। কাওরাইদ স্টেশন ও সাতখামাইর স্টেশনের মাঝামাঝি এলাকায় মাইজপাড়া ক্রসিং পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে শ্রমিকবাহী বাসটি। এতে তিন পোশাক শ্রমিক নিহত হয়েছে।

দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি শ্রীপুরের টেপিরবাড়ি এলাকার জামান ফ্যাশন লিমিটেড নামের একটি কারখানার বলেও জানান এ স্টেশন মাস্টার।

গাজীপুর রেল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. শহিদুল্ল্যাহ জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনাস্থলে এক নারী শ্রমিক মারা যান। আহতদের মধ্যে দুজনকে ট্রেনে চিকিৎসার জন্য ময়মনসিং নেওয়ার পথে মারা যান। তাদের মরদেহ গফরগাঁও রেলস্টেশনে নামিয়ে রাখা হয়েছে। বাকিদের স্থানীয় হাসপাতালসহ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাৎক্ষণিক হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

গফরগাঁও রেলওয়ে পুলিশের ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, শ্রীপুরে বাসে ট্রেনের ধাক্কায় নিহত দুজনের মরদেহ বলাকা ট্রেন থেকে নামিয়ে রাখা হয়েছে। মরদেহ দুটি জয়দেবপুর রেলওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।


আরও খবর



লক্ষ্মীপুরে রসমালাই খেয়ে একই পরিবারের ৩ জন হাসপাতালে

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

লক্ষ্মীপুরে রসমালাই খেয়ে শিশুসহ একই পরিবারের তিনজন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সোমবার (২৫ জুলাই) দুপুরে তাদের মডেল হাসপাতালে (প্রাইভেট) ভর্তি করা হয়। তারা চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন বৃদ্ধা সুফিয়া খাতুন (৭০), তার জা শরিফা খাতুন (৭০) ও শিশু সাদমিন বেলাল রিথি (৩)।

তারা লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মধ্য বাঞ্চানগর এলাকার রাজ্জাক কয়েল বাড়ির বাসিন্দা। শিশু রিথি সুফিয়ার নাতনি রুবি আক্তারের মেয়ে।

jagonews24

স্বজনরা জানান, রোববার (২৪ জুলাই) সন্ধ্যায় সুফিয়ার নাতি ইয়াকুব আলী বাবলু জেলা শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকার হোটেল নুরজাহান (স্পেশাল বাংলা ও চাইনিজ) থেকে রসমালাই ও দধি কেনেন। সোমবার সকালে সুফিয়া, শরিফা ও রিথি রসমালাই খাওয়ার পর থেকে একাধিকবার বমি করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিশু রিথির মা রুবি আক্তার জানান, রসমালাই খাওয়ার পর থেকে তার নানি ও মেয়ে কয়েকবার বমি করেন। পরে বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

jagonews24'

এ বিষয়ে নুরজাহান হোটেলের ম্যানেজার মো. বাবুল বলেন, ‘বিষয়টি আমাদের জানা নেই। রসমালাই মেয়াদোত্তীর্ণ ছিল না। আমাদের তৈরি করা রসমালাই ও দধি একদিনের বেশি থাকে না। এ ধরনের অভিযোগ কখনো আসেনি।’

লক্ষ্মীপুর মডেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মিলন কুমার ঘোষ বলেন, রসমালাই মেয়াদোত্তীর্ণ ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। অতিরিক্ত বমি করায় ওই তিনজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন বলেন, বিষয়টি শুনেছি। ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।


আরও খবর



টেলিটকের তারেককে ধরতে রেড নোটিশ জারির নির্দেশ

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

কানাডায় পলাতক সাজাপ্রাপ্ত টেলিটকের সাবেক সহকারী ব্যবস্থাপক (সিস্টেম অপারেশন) এস. এম. তারেক রহমানকে ধরতে ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড নোটিশ জারির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজিপিকে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে। আগামী ১৬ অক্টোবরের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে এফিডেভিট আকারে আদালতকে জানাতে বলা হয়েছে।

রোববার (২৪ জুলাই) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ওই মামলার আরেক আসামি আবুল কালামের আপিল শুনানির সময় আদালত আজ এ আদেশ দেন।

এদিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী একেএম ফজলুল হক। আপিলকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী একেএম নুরুল আলম।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, আসামি এস. এম. তারেক রহমান ও আবুল কালাম ২০১০ সালের অক্টোবর থেকে ২০১১ সালের জুন পর্যন্ত সময়কালে টেলিটকের প্রি-পেইড সিমকে পোস্ট পেইডে কনভার্টের মাধ্যমে ১২ দশমিক ৮২ কোটি মিনিট, যার মোট মূল্য মিনিটপ্রতি দশমিক ৭৬ টাকা হিসেবে ৯ দশমিক ৭৪ কোটি টাকা পরস্পর যোগসাজশে আত্মসাৎ করেন।

এ ঘটনায় কোম্পানি সেক্রেটারি মাহবুবুর রহমান বাদী হয়ে ২০১১ সালের ১২ অক্টোবর গুলশান থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ঢাকার বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালত ২০১৯ সালের ৬ মে আসামি এস. এম. তারেক রহমানকে দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় পাঁচ বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও তিন কোটি টাকা জরিমানা করেন।


আরও খবর



ঢেঁড়স ভেজানো পানিতেই বিভিন্ন রোগের সমাধান

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

ঢেঁড়স স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী এক সবজি। এতে থাকা বিভিন্ন পুষ্টিগুণের মধ্যে আছে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন সি ও বি কমপ্লেক্স।

ঢেঁড়সে থাকা পুষ্টি উপাদানসমূহ রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে।

এতে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও প্রাকৃতিক অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল যৌগসমূহ। বিশেষজ্ঞদের মেতে, ঢেঁড়স খুবই উপকারী এক সবজি। ২৪ ঘণ্টা ঢেঁড়স পানিতে ভিজিয়ে রেখে পরে তা পান করলে শরীরের নানা উপকার হয়। ক্রীড়াবিদরা নিয়মিত এই পানীয় পান করেন।

বিজ্ঞান বলছে, ঢেঁড়সে মিউকিলেজে র্যামনোজ, গ্যালাকটোজ ও গ্যালাক্টুরনিক অ্যাসিডসহ স্বাস্থ্যকর শর্করা আছে। যা গ্যাস্ট্রিকের জ্বালা ও প্রদাহের বিরুদ্ধে সুরক্ষা দেয়। এশিয়ান ওষুধে ব্যবহৃত হয় ঢেঁড়স।

এই সবজি ভেজনো পানিতে দ্রবণীয় মিউকিলেজ থাকে। এছাড়াও এতে থাকে ফেনোলিক যৌগ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। বিশেষজ্ঞদের মতে, ঢেঁড়সে থাকা বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ পানিতে সহজেই দ্রবণীয় হয়। রান্না করলে সবটুকু পুষ্টিগুণ মেলে না।

ভারতের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. দেবাঞ্জন ব্যানার্জী বলেন, ‘ঢেঁড়স ম্যাঙ্গানিজের একটি বড় উৎস। এতে থাকা খনিজ উপাদান রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে।’

ডা. ব্যানার্জী আরও যোগ করেন, ‘এতে উচ্চ মাত্রায় ভিটামিন সি আছে, যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে ও ফ্রি র্যাডিক্যালের বিরুদ্ধে লড়াই করে। বার্ধক্যজনিত লক্ষণ নিয়ন্ত্রণ করে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।’

এই চিকিৎসকের মতে, ঢেঁড়স ভেজানো পানি সত্যিই দুর্দান্ত এক পুষ্টিকর পানীয়। এটি বিজ্ঞানও প্রমাণ করেছে। ওজন কমানো থেকে শুরু করে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের মতো কঠিন গুরুতর সমস্যার সমাধান মেলে ঢেঁড়স ভেজানো পানি পানেই। জেনে নিন ঢেঁড়স ভেজানো পানি পানেরি উপকারিতাসমূহ-

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে

ঢেঁড়স ভেজানো পানিতে প্রচুর পরিমাণে পলিফেনল ও ফ্ল্যাভোনয়েড যেমন কোয়ার দেখা গেছে, ঢেঁড়সের পানি রক্তে শর্করার মাত্রা কমিয়েছে ও ইনসুলিন নিঃসরণ বাড়িয়েছে।

অনেক সম্প্রদায়ের মানুষই ঐতিহ্যগতভাবে রক্তে শর্করার মাত্রা নিরাময়ের জন্য ঢেঁড়স ভেজানো পানি পান করেন।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ভালো উৎস

ঢেঁড়স ভেজানো পানিতে শক্তিশালী প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে যেমন- ফেনোলিক যৌগ, ফ্ল্যাভোনয়েড ও ভিটামিন সি। এসব অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্ষতিকারক ফ্রি র্যাডিকেলকে ধ্বংস করে ও অক্সিডেটিভ স্ট্রেসের ক্ষতি প্রতিরোধ করে।

এটি বার্ধক্যের প্রাথমিক লক্ষণ যেমন- বলিরেখা ও ত্বকের ক্ষতিও কমায় উপকারী। আবার সূর্যের ক্ষতি থেকেও ত্বককে রক্ষা করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

ঢেঁড়স ভেজানো পানিতে পাওয়া শর্করা পলিস্যাকারাইড (চিনি) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ও জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই করে। এমনকি প্লীহার ফাংশন বাড়ায় ও প্রতিরোধ ক্ষমতা সংকেত উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে।

সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে

অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও ফেনোলিক যৌগগুলোর একটি ভালো উৎস হলো ঢেঁড়স। এর নির্যাস প্যাথোজেনিক ব্যাকটেরিয়া যেমন- মাইকোব্যাকটেরিয়াম, এসচেরিচিয়া কোলাই ওস্ট্যাফিলোকক্কাস অরিয়াস এর বৃদ্ধিকে বাঁধা দিতে পারে।

হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখে

ঢেঁড়স ভেজানো পানিতে বায়োঅ্যাকটিভ যৌগ আছে, যা রক্তে উচ্চতর লিপিড (চর্বি) এর মাত্রা কমাতে পারে। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, ঢেঁড়স ভেজানো পানির নির্যাস বিভিন্ন লিপিড ভগ্নাংশ (কোলেস্টেরল, ট্রাইগ্লিসারাইড ও এলডিএল) ও এথেরোজেনিক সূচক (কার্ডিওভাসকুলার ঝুঁকির একটি পরিমাপ) কমিয়েছে।

ঢেঁড়সের নির্যাস রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। এটি এথেরোস্ক্লেরোসিসের মতো হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় (ধমনীর দেওয়াল ও তার উপর চর্বি, কোলেস্টেরল ও অন্যান্য পদার্থ জমা হওয়া)।

ডা. ব্যানার্জী বলেন, ‘এই সবজিতে থাকা সবটুকু পুষ্টিগুণ পেতে ভোরবেলা খালি পেটে সারারাত ঢেঁড়স ভেজানো পানি পান করুন।’

‘তবে অবশ্যই তা ২৪ ঘণ্টার বেশি হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে ও ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে ঢেঁড়সগুলো। যাদের ঢেঁড়সে অ্যালার্জি আছে তারা অবশ্যই এই সবজি এড়িয়ে চলুন।’


আরও খবর



৩০ মিনিটের পথ যেতে পৌনে দুই ঘণ্টা

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

মিরপুরের কাজীপাড়া থেকে গুলিস্তানের দূরত্ব প্রায় ১২ কিলোমিটার। স্বাভাবিক সময়ে এ পথে বাসে যেতে সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট সময় লাগে। কিন্তু আজ (রোববার) একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী ইকরাম হোসেনের সময় লেগেছে এক ঘণ্টা ৪৫মিনিট। তিনি সকাল ১০টা কাজীপাড়া থেকে শিকড় পরিবহনের একটি বাসে উঠে দুপুরে পৌনে ১টায় গুলিস্তানে পৌঁছান।

ইকরাম হোসেনে বলেন, অন্যান্য দিন এই পথটুকু পাড়ি দিতে সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট সময় লাগে। কিন্তু আজ রোববার সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস হওয়ায় তিনগুণের বেশি সময় লেগেছে। এতে বাস যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।

jagonews24

বেলা সাড়ে ১১টায় মালিবাগ থেকে বিমানবন্দরগামী একটি বাসে উঠেন মাসুদ হোসেন। দুপুর সোয়া ১২টার দিকে বাসটি বাড্ডা পার হয়। এর মধ্যে বাড্ডা লিংক রোডে যানজটে আটকে থাকা অবস্থায় মাসুদ হোসেন বলেন, এই পথটুকু আসতে ৪৫মিনিট সময় লেগেছে। বাকি পথ যেতে কত সময় লাগে, তার ঠিক নেই। তবে গরমে যানজটের এ ভোগান্তি সব যাত্রীদের ক্লান্ত করে দিচ্ছে।

মহাখালীর তিতুমীর কলেজ থেকে বাড্ডা লিংক রোডের দূরত্ব প্রায় আড়াই কিলোমিটার। বেলা পৌনে ১১টায় সরেজমিনে দেখা যায়, এই পথে তীব্র যানজট তৈরি হয়েছে। এর মধ্যে তিতুমীর কলেজ থেকে মহাখালী ক্যানসার হাসপাতাল পর্যন্ত গাড়ির চাপ বেশি ছিল। আর গুলশান-১ নম্বর এলাকায় রাস্তায় খোঁড়াখুঁড়ির কাজ চলায় যানজট ছিল। সোয়া ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বাড্ডায় বিমানবন্দর ও রামপুরাগামী সড়কে তীব্র যানজট দেখা যায়।

jagonews24

বিজয় সরণী থেকে আগারগাঁও, জাহাঙ্গীরগেট, সাতরাস্তা এবং কারওয়ান বাজার- এ চারটি পৃথক রাস্তার উভয় পাশে যানবাহনের তীব্র চাপ রয়েছে। এর মধ্যে ভিআইপি মুভমেন্ট থাকায় চাপ আরও বেড়েছে। বিজয় সরণী দিয়ে একটি যাত্রীবাহী বাসকে পার হতে ৪৫মিনিট থেকে এক ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগছে। এছাড়া দুপুর ১টার দিকে শাহবাগ, সায়েন্সল্যাব ও পান্থপথ এলাকায় যানজট ছিল।

অন্যদিকে, মহাখালী থেকে নাবিস্কো, তেজগাঁও সাত রাস্তা এবং মগবাজার এলাকায় যানজট দেখা যায়। বিজয় সরণী উড়াল সড়কের পূর্ব অংশ তথা তেজগাঁও এবং সাত রাস্তায় যানজট বেশি ছিল। মগবাজারে যানজট থাকলেও উড়াল সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক ছিল। এছাড়া কাকরাইল, মৎস ভবন এলাকায় তেমন যানজট ছিল না।


আরও খবর