Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

স্পেনের মাঠে কোনোমতে হার এড়ালো পর্তুগাল

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image

উয়েফা নেশন্স লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেলো না স্পেন ও পর্তুগাল। স্পেনের ভেনিতো ভিলামারিন স্টেডিয়ামে মুখোমুখি লড়াইয়ে ১-১ গোলে ড্র করেছে দুই দল। ম্যাচে দাপট দেখিয়েই খেলেছে স্বাগতিক স্পেন, শেষ দিকের গোলে কোনোমতে হার এড়িয়েছে পর্তুগিজরা।

স্পেন-পর্তুগালের ড্র করার দিন এ লিগের দুই নম্বর গ্রুপের গ্রুপে অন্য ম্যাচে সুইজারল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে চেক প্রজাতন্ত্র। প্রথম ম্যাচের পর পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ অবস্থান করছে চেক প্রজাতন্ত্র। পরের দুইটি স্থানে রয়েছে পর্তুগাল ও স্পেন। সবার নিচে সুইসরা।

বৃহস্পতিবার রাতের ম্যাচটিতে দুই মাস আগের সবশেষ ম্যাচের দলে ছয়টি পরিবর্তন আনেন স্পেনের কোচ লুইস এনরিকে। পর্তুগাল একাদশেও ছিল তিনটি পরিবর্তন। একগাদা পরিবর্তন নিয়েও সন্তোষজনক পারফরম্যান্স উপহার দেয় স্পেন।

ম্যাচের ২৫ মিনিটের মাথায় গোল করেন আলভারো মোরাতা। এই লিড তারা ধরে রাখে ৮১ মিনিট পর্যন্ত। ম্যাচের ৮১ মিনিটের সময় তরুণ মিডফিল্ডার গাভি উঠে যাওয়ার পরপরই গোলটি হজম করে তারা। পর্তুগালকে এক পয়েন্ট এনে দেওয়া গোলটি করেন সাত বছর পর দলে ফেরা রিকার্ডো হোর্তা।

রোববার পরের চেক রিপাবলিকের মুখোমুখি হবে স্পেন। একই দিনে পর্তুগাল ঘরের মাঠে খেলবে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে।


আরও খবর



জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

নওগাঁর মান্দায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় ময়েজ উদ্দিন সরদার (৭০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) রাত ১০টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে খোরশেদ আলম বাদী হয়ে ১৪ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন- মান্দা সদর ইউনিয়নের খাগড়াগ্রামের হাফেজ উদ্দিন (৪৫), রকিবুল ইসলাম রকি (২৫), নাজমুল হক (২২) ও জাহানারা বেগম (৫২)। আহতরা হলেন- একই গ্রামের মাসুদ রানা (৪৫), রাসেল রানা (৩৫), মেহেদী হাসান (৩২), মর্জিনা বেগম (৪০) ও নাসিমা বেগম (৩২)।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খাগড়াগ্রামের হাফেজ উদ্দিনের সঙ্গে ময়েজ উদ্দিন সরদারের জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার সকালে আবারও তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ হাফেজ উদ্দিন রকিবুল ইসলাম রকি, নাজমুল হকসহ কয়েকজন সংঘবদ্ধ হয়ে ময়েজ উদ্দিন সরদারের ওপর হামলা করে। হামলায় নারীসহ ছয়জন আহত হন।
এদের মধ্যে ময়েজ উদ্দিনের অবস্থা গুরুতর ছিল। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। মামলার পর চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদেরও আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



৪৪ শতাংশ শিশুকে প্রথম ছয় মাস শুধু বুকের দুধ খাওয়ানো হয়

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

অর্ধেকেরও কম নবজাতককে জন্মের প্রথম ঘণ্টায় বুকের দুধ খাওয়ানো হয়। ফলে তারা রোগ ও মৃত্যুর ঝুঁকিতে পড়ে। আর মাত্র ৪৪ শতাংশ শিশুকে জীবনের প্রথম ছয় মাস শুধু বুকের দুধ খাওয়ানো হয়, যা ২০২৫ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশে উন্নীত করার যে লক্ষ্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নীতি নির্ধারণী পরিষদ নির্ধারণ করেছে, তার চেয়ে কম।

সোমবার (১ আগস্ট) বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক ক্যাথরিন রাসেল ও ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক ড. টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইসুসের যৌথ বিবৃতি এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, যেহেতু বৈশ্বিক নানা সঙ্কট লাখ লাখ শিশুর স্বাস্থ্য ও পুষ্টির জন্য অব্যাহতভাবে হুমকি তৈরি করে চলেছে, তাই জীবনে সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালো শুরু হিসেবে শিশুকে মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানোর অপরিহার্যতা এখন আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি।

এবারের ‘বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহে’র প্রতিপাদ্য ‘শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য এগিয়ে আসুন: শেখান এবং সহযোগিতা করুন’। বুকের দুধ খাওয়ানো বিষয়ক নীতিমালা ও কর্মসূচিগুলোর সুরক্ষা, প্রচারণা ও সহায়তার জন্য আরও বরাদ্দ দিতে ইউনিসেফ এবং ডব্লিউএইচও বিভিন্ন দেশের সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে। বিশেষ করে জরুরি পরিস্থিতিতে সবচেয়ে নাজুক অবস্থায় থাকা পরিবারগুলোর জন্য।

আফগানিস্তান, ইয়েমেন, ইউক্রেন, হর্ন অব আফ্রিকা ও সাহেলসহ যেসব অঞ্চলে জরুরি পরিস্থিতি বিদ্যমান সেখানে নবজাতক ও ছোট শিশুদের নিরাপদ, পুষ্টিকর ও সহজলভ্য খাদ্যের উৎসের নিশ্চয়তা দেয় বুকের দুধ। এটি রোগব্যাধি এবং শিশুর কৃশকায় হয়ে যাওয়াসহ সব ধরনের অপুষ্টির বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলে। মাতৃদুগ্ধ নবজাতকের প্রথম টিকা হিসেবেও কাজ করে, যা তাদের শৈশবকালীন সাধারণ অসুস্থতা থেকে সুরক্ষা দেয়। তা সত্ত্বেও মানসিক বিপর্যস্ততা, শারীরিক ক্লান্তি, নিজের জন্য আলাদা জায়গা ও গোপনীয়তার অভাব এবং জরুরি পরিস্থিতিতে মায়েদের জন্য ভালো স্যানিটেশন ব্যবস্থা না থাকার কারণে অনেক শিশু বুকের দুধ খাওয়ার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

মায়ের দুধ পান সুরক্ষিত রাখা, এ সম্পর্কে প্রচারণা চালানো ও সহযোগিতা করা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটি শুধু প্রাকৃতিক, টেকসই ও প্রথম খাদ্য ব্যবস্থা হিসেবে আমাদের গ্রহকে রক্ষা করার জন্যই নয়, লাখ লাখ শিশুর বেঁচে থাকা, বৃদ্ধি ও বিকাশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আর এ কারণেই কিছু প্রচেষ্টাগুলো জোরদারে ইউনিসেফ ও ডব্লিউএইচও, সরকার, সুশীলসমাজ ও বেসরকারি খাতের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

• মাতৃদুগ্ধ পানে সহায়ক নীতিমালা ও কর্মসূচিতে বিনিয়োগ করাকে অগ্রাধিকার দেওয়া, বিশেষত নাজুক ও খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার প্রেক্ষাপটে।

• স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও কমিউনিটিতে থাকা স্বাস্থ্য ও পুষ্টি কর্মীদের প্রয়োজনীয় দক্ষতা বাড়ানো, যাতে তারা সফলভাবে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ার জন্য মায়েদের মানসম্পন্ন পরামর্শ ও প্রায়োগিক সহায়তা দিতে পারে।

• মাতৃদুগ্ধের বিকল্প শিশু খাদ্য বিপণনের আন্তর্জাতিক নীতিমালা সম্পূর্ণরূপে গ্রহণ ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে শিশুর যত্নে নিয়োজিত ব্যক্তি ও স্বাস্থ্যকর্মীদের ফর্মুলা খাতের অনৈতিক বিপণনের প্রভাব থেকে সুরক্ষিত রাখা, মানবিক সংকটপূর্ণ পরিস্থিতিতে থাকা ব্যক্তি ও স্বাস্থ্যকর্মীদেরসহ।

• পরিবার-বান্ধব নীতিমালা বাস্তবায়ন করা, যা মায়েদের বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় সময়, স্থান ও সহায়তা প্রদান করে।


আরও খবর



পুনর্নির্বাচনের দাবি দোহার পৌর নির্বাচনে পরাজিত মেয়র প্রার্থীদের

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

দোহার পৌর নির্বাচনে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের অসহযোগিতার অভিযোগ তুলে বেসরকারি ফলাফল স্থগিত করে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন পরাজিত মেয়রপ্রার্থীরা। রোববার (৩১ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পরাজিত মেয়রপ্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনের আগে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বলেছিলেন, প্রতিটি কেন্দ্রে ভোট গণনার সময় প্রতি প্রার্থীর পক্ষ থেকে একজন করে এজেন্ট উপস্থিতি থাকবেন।

‘ভোট গণনা শেষে প্রিন্টেড সিলমোহর দেওয়া সইযুক্ত ইভিএম রেজাল্টের অনুলিপি এজেন্টের কাছে হস্তান্তর করা হবে। কিন্তু, ফলাফলের অনুলিপি হস্তান্তর তো দূরের কথা, আমাদের এজেন্টদের ভোট গণনার সময় ভোটকেন্দ্রে থাকতে দেওয়া হয়নি। এমনকি, ভোট গ্রহণ শেষে আমাদের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ফলাফলের মূল অনুলিপি ছাপিয়ে হস্তান্তরের বদলে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের হস্তলিখিত অনুলিপি সরবরাহ করা হয়েছে। কোনো কোনো কেন্দ্রে ছাপানো অনুলিপি দেওয়া হলেও তাতে সই ও সিলমোহর ছিল না।

jagonews24

নির্বাচনে যা যা ঘটেছে তা সম্পূর্ণ নিয়ম বহির্ভূত। এসব ঘটনার ফলে নির্বাচনের ফলাফল বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়েছে ও কারচুপির আশংকাকে স্পষ্ট করেছে।

মো. নজরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে একটি সুস্পষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে পুনর্নির্বাচনের আবেদন করছি।

সংবাদ সম্মেলনে পরাজিত মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- হেলমেট প্রতীকের মো. নজরুল ইসলাম, চামচ প্রতীকের মো. জাহাঙ্গীর আলম, ইস্ত্রি প্রতীকের মো. নূরুল ইসলাম, মোবাইল ফোন প্রতীকের জামাল উদ্দিন আহমেদ ও নারিকেল গাছ প্রতীকের আব্দুর রহমান আকন্দ।


আরও খবর



প্রকল্পের নামে অর্থের অপচয় করা যাবে না: তাজুল ইসলাম

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, প্রকল্প গ্রহণের নামে সরকারি অর্থের অপচয় করা যাবে না। ইমপ্যাক্ট এবং আউটপুট বিশ্লেষণ করে প্রকল্প নেওয়ার তাগিদ দিয়ে অপ্রয়োজনীয় প্রকল্প পরিহার করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

রোববার (৩১ জুলাই) বিকেলে মন্ত্রণালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে গৃহীত পদক্ষেপসমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা জানান।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, চট্টগ্রাম সিটি মেয়র রেজাউল করীম চৌধুরী সভায় উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম দেশের ইকোনমিক হাব হিসেবে পরিচিত। এই শহরটি দেশের আইডল সিটি হবে হিসেবে গড়ে তোলার সুযোগ রয়েছে। দেশের অর্থনীতির অন্যতম এই শহরকে কোনোভাবেই অবমূল্যায়ন করার উপায় নেই। চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে যেসব প্রকল্প নেওয়া হয়েছে সেগুলো কতটা কার্যকর হয়েছে তা দেখা প্রয়োজন। যদি কার্যকর না হয় অথবা যাচাই বাছাই না করে গ্রহণ করা হলে তা অত্যন্ত দুঃখজনক।

খাল ও ড্রেনগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, আপনারা খাল দখল করে অবৈধভাবে বিল্ডিং বানিয়ে পানি প্রবাহ বন্ধ করে রেখেছেন। খালের উপর দোকান-পাট বানিয়েছেন। এগুলোর কারণে শহরে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। সবাইকে সচেতন হতে হবে। কিছু মানুষের জন্য কোটি কোটি মানুষের জীবন অতিষ্ট হতে পারে না। এসময় সব খাল দখলমুক্ত করারও নির্দেশ দেন তিনি।

তিনি জানান, বর্জ্য সমস্যা বর্তমানে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দাঁড়িয়েছে। গৃহস্থালি বর্জ্যের পাশাপাশি ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল বর্জ্য, মেডিকেল বর্জ্য, নির্মাণসামগ্রীর বর্জ্যসহ অন্যান্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সরকার উদ্যোগ নিয়েছে। আর তা হলো বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন। খুব শিগগির ঢাকা, গাজীপুর এবং চট্টগ্রামসহ অন্যান্য সিটি করপোরেশনগুলোতে বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হবে।

সভায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে নিতে হবে। চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে চাকতাই খাল খনন, কর্ণফুলী নদীর ড্রেজিংসহ সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা তুলে ধরে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সমস্যাসহ অন্যান্য সমস্যা সমাধানে মেয়র এবং সংশ্লিষ্ট সবাইকে তাগিদ দেন তিনি।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সচিব শহীদ উল্লা খন্দকারসহ স্থানীয় সরকার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, চট্টগ্রাম উন্নয়ন ও বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কঠিন রোগের লক্ষণ জানিয়ে জীবন বাঁচালো অ্যাপল ওয়াচ

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

স্মার্ট গ্যাজেটের বাজারে স্মার্টওয়াচ একটি অবিস্মরণীয় নাম। এর মধ্যে আইফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের স্মার্টওয়াচ বেশ জনপ্রিয়। শুধু সময় দেখা বা সঙ্গে ব্লুটুথ কলিংয়ের সুবিধাই নয়। এতে আছে স্বাস্থ্য সুরক্ষার নানান ফিচার। তবে মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন প্রাপ্ত না হলেও, অ্যাপল বিকশিত স্মার্টওয়াচ এখন স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা শনাক্ত করার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ‘টুল’ হয়ে উঠেছে।

স্মার্টওয়াচের হেলথ ফিচারের সাহায্যে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা, হার্ট ব্লকেজ, অসামঞ্জস্য ব্লাড প্রেসার লেভেল বা থাইরয়েডের উপসর্গ জানা যায়। এমনকি নারী ব্যবহারকারীদের মিনিস্ট্রুয়াল সময়েরও জানান দেয় আগেভাগেই। সম্প্রতি একজন ব্যক্তির শরীরে মারাত্মক টিউমার থাকার সতর্কতাবাণী দেওয়ার মাধ্যমে পুনরায় খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে অ্যাপল ওয়াচ।

জানা যায়, এই ব্যক্তির দ্রুত হার্ট বিট ডিটেক্ট করায় একটানা ‘এলার্ট মেসেজ’ পাঠিয়ে বারবার সতর্ক করছিল ডিভাইসটি। এরপরই তিনি চিকিৎসকের কাছে চেকআপ করতে যান। তখনই জানতে পারেন ‘ফাস্ট গ্রোয়িং’ টিউমারের কারণে খুব শিগগির স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ছিল। তবে তার ব্যবহারকৃত অ্যাপল ওয়াচের আগাম সতর্কতায় এই যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গেলেন তিনি।

কিম ডুরকি নামের ওই ব্যক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা। তিনি জানান, তার ব্যবহারকৃত অ্যাপল ওয়াচটি একটানা দুই রাত ধরে বারবার অ্যালার্ট নোটিফিকেশন পাঠাচ্ছিল। যেখানে বিগত কয়েক মাস যাবৎ তার হার্ট ‘অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন’ অনুভব করছে। তবে শারীরিক কোনো অসুস্থ বোধ না হওয়ায় কিম ভেবেছিলেন যে ওয়াচটি হয়তো ‘ফলস অ্যালার্ট’ দিচ্ছে। তবে তৃতীয় রাতেও ওয়াচটি অনুরূপ সতর্কতা পাঠানোর পর, তিনি চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করার সিদ্ধান্ত নেন।

যদিও একটি স্মার্টওয়াচের দ্বারা শনাক্ত করা শারীরিক সমস্যা কতটা সঠিক সেই সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারছিলেন না কিম। ফলে তিনি হাসপাতালের যাওয়ার পর বুঝতে পারেন, অ্যাপল ওয়াচটির পূর্বাভাস প্রকৃতপক্ষেই সত্য, অর্থাৎ হার্টে অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন ঘটার কারণেই বার বার অ্যালার্ট আসছিল তার কাছে। যদিও তখন পর্যন্ত এই দ্রুত হৃদস্পন্দনের কারণটি অজানা ছিল।

একাধিক টেস্ট পরিচালনার মাধ্যমে পরবর্তীতে জানা যায় যে, এই পুরো ব্যাপারটা ঘটেছে কিমের শরীরে থাকা একটি ভয়ানক টিউমারের জন্য। টেস্ট রিপোর্টে অনুসারে, তার মাইক্সোমা আছে। মাইক্সোমা হলো একটি বিরল ও দ্রুত বর্ধনশীল টিউমার, যা হার্টের রক্ত সরবরাহ বন্ধ করে দেয় এবং স্ট্রোক পর্যন্ত ঘটাতে পারে।

চিকিৎসকরা জানান, ওয়্যারেবলটি যদি আগাম সতর্ক না করতো, তাহলে ওই চার সেন্টিমিটারের ‘ফাস্ট গ্রোয়িং’ টিউমারটির কারণে কিছু দিনের মধ্যেই প্রায় নিশ্চিতভাবে প্রাণহানি ঘটতো কিমের।

চলতি বছরে অ্যাপল ওয়াচের এমন অনেক প্রাণ রক্ষার কাহিনী ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে। এতে অনেক ব্যবহারকারীই স্মার্টওয়াচ ও অ্যাপল ওয়াচ ব্যবহারে আগ্রহী হচ্ছেন। সেই সঙ্গে এতে থাকা ফিচার ব্যবহারেও সতর্ক হচ্ছেন।

সূত্র: বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড


আরও খবর