Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

স্কুল ও কলেজ শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ বোনাসের চেক ছাড়

প্রকাশিত:Monday ২৫ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৪২জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২ অথবা ৩ মে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতর সামনে রেখে দেশের সব বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) শিক্ষক-কর্মচারীদের উৎসব ভাতার চেক ছাড়া হয়েছে।


আগামী ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষকরা অনুদান বণ্টনকারী ব্যাংক থেকে ভাতার টাকা তুলতে পারবেন।রোববার (২৪ এপ্রিল) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুল ফিতর-২০২২ এর উৎসব ভাতার সরকারি অংশের আটটি চেক অনুদান বণ্টনকারী অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, প্রধান কার্যালয়ে এবং জনতা ও সোনালী ব্যাংক লিমিটেড ও স্থানীয় কার্যালয়ে হস্তান্তর করা হয়েছে।


আগামী ২৭ মে পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শাখা ব্যাংক হতে শিক্ষকরা ঈদুল ফিতরের উৎসব ভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারবেন।


আরও খবর



ডিজিটাল ভূমি সেবা গ্রহণ

খুলনায় ভূমি সেবা সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষ্যে প্রেসব্রিফিং

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ভূমি সেবা সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষ্যে প্রেসব্রিফিং রবিবার (২২ মে) দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউস সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার।

 ভূমি সেবা সপ্তাহের এবারের প্রতিপাদ্য ‘ভূমি অফিসে না এসে ডিজিটাল ভূমি সেবা গ্রহণ’।

 উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে প্রেসব্রিফিংকালে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, ভূমি সেবায় ডিজিটালাইজেশন নাগরিক সেবায় অনন্য পদক্ষেপ।

বর্তমানে নামজারি, ভূমি উন্নয়ন কর প্রদান, খতিয়ান ও মৌজা ম্যাপ সরবরাহ, শুনানিসহ বিবিধ ক্ষেত্রে অনলাইনের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি ভূমি অফিসে না এসেও হয়রানিমুক্তভাবে ভূমি সেবা পেতে পারেন।


 তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে ভূমি সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় ডিজিটাল ব্যবস্থাপনার আওতায় আনার প্রক্রিয়া দ্রুত এগিয়ে চলছে। তবে হয়রানিমুক্ত ভূমি সেবার জন্য জনগণকে সচেতন হতে হবে। 

উল্লেখ্য, ভূমি সেবার সকল কার্যক্রম জনসম্মুখে প্রদর্শনের জন্য ১৯ মে থেকে ২৩ মে-২০২২ পর্যন্ত পাঁচ দিনব্যাপী দেশের আটটি বিভাগের সকল জেলায় এবং ৫০৭টি উপজেলার রাজস্ব সার্কেল, ইউনিয়ন ও পৌর ভূমি অফিসে একযোগে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদযাপন করা হচ্ছে। 

প্রেসব্রিফিং এ ভূমি মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব)  মোঃ শহিদুল ইসলাম, আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার জিনাত আরা আহমেদ, প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মামুন রেজাসহ ইলেক্টনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ

হাজী সেলিম কে জেলেই যেতেহলো

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় সাজা ভোগের জন্য আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। এরপর বিকেল ৫টা ৫ মিনিটে আদালত থেকে পিকআপ ভ্যানে করে তাকে নিয়ে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয় পুলিশ।


এর আগে রোববার (২২ মে) বিকেল ৩টা ১০ মিনিটে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক শহিদুল ইসলামের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন হাজী সেলিম। শুনানি শেষে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।


বিচারক আদেশে উল্লেখ করেন, সাজাপ্রাপ্ত আসামি হাজী মোহাম্মদ সেলিম হাইকোর্টের নির্দেশে আজ আত্মসমর্পণ করিয়া জামিনের দরখাস্ত দাখিলপূর্বক আপিল দায়েরের শর্তে জামিনের প্রার্থনা করেছেন। পৃথক দরখাস্ত দাখিল করিয়া কারাগারে ১ম শ্রেণির মর্যাদা প্রদানের ও কারাগারের তত্ত্বাবধানে দেশের উন্নতমানের হাসপাতালে বেটার ট্রিটমেন্টের আদেশের প্রার্থনা করেছেন।


যেহেতু আসামি দশ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত, সেহেতু আসামিকে জামিন প্রদান সঙ্গত মনে করি না। ফলে আসামির জামিনের প্রার্থনা নামঞ্জুর করা হইল। সাজা ভোগের নিমিত্তে সাজা পরোয়ানা মূলে আসামিকে কারাগারে প্রেরণ করা হোক।


আসামিকে কারাগারে ১ম শ্রেণির মর্যাদা প্রদান ও কারাগারের তত্ত্বাবধানে দেশের উন্নতমানের হাসপাতালে বেটার ট্রিটমেন্ট প্রদানের দরখাস্ত বিষয়ের পক্ষে বিজ্ঞ কৌঁসুলি ও বিপক্ষে বিজ্ঞ পাবলিক প্রসিকিউটরের বক্তব্য শ্রবণ করিলাম। দাবি মতে দরখাস্তকারী আসামি একজন সংসদ সদস্য এবং ভালো চরিত্রের অধিকারী। তাহার সামাজিক মর্যাদা, আসামি যে অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত হইয়াছেন তাহার ধরন ইত্যাদি বিবেচনায় তাহাকে জেলকোড অনুযায়ী ডিভিশন প্রদান কিংবা উন্নতমানের চিকিৎসা প্রদানের প্রয়োজনীয়তা থাকিলে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ প্রদান করা হইল।


এদিন বিকেল ৩টা ১০ মিনিটে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক শহিদুল ইসলামের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন হাজী সেলিম। এরপর তার সঙ্গে আসা সমর্থকরা আদালতে প্রবেশ করেন। হাজী সেলিম তাদের কোর্ট থেকে বের হতে হাত ও মুখ দিয়ে ইশারা করেন। এরপর তারা কোর্ট থেকে বের হয়ে যায়। বিকেল ৩টা ১৯ মিনিটে বিচারক এজলাসে ওঠেন। এরপর আসামিকে কাঠগড়ায় উঠতে বলেন। ৩টা ২৩ মিনিটে কাঠগড়ায় ওঠেন হাজী সেলিম। এরপর তার আইনজীবী সাইদ আহম্মেদ রাজা জামিন চেয়ে শুনানি করেন।


এছাড়া কারাগারে উন্নত চিকিৎসা ও প্রথম শ্রেণির ডিভিশন চেয়েও শুনানি করেন আইনজীবী। অন্যদিকে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল তার জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। একই সঙ্গে কারাবিধি অনুসারে কারাগারে উন্নত চিকিৎসা ও প্রথম শ্রেণির ডিভিশন দিতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। বিকেল ৩টা ৩৬ মিনিটে কাঠগড়া থেকে নেমে এজলাসে বসেন হাজী সেলিম।


এর আগে আদালতে আত্মসমর্পণ করে যে কোনো শর্তে জামিনের আবেদন করেন হাজী মোহাম্মদ সেলিম।



আরও খবর



মোটরসাইকেল যোগে দুর্ধর্ষ ছিনতাই

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের মোবাইল ফোন ও ব্যাগ ছিনতাই

প্রকাশিত:Saturday ২১ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শাতিল সিরাজের স্ত্রী ইফফাত জাহান রিতার (৪১) মোবাইল ফোন ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।


শুক্রবার (২০ মে) বেলা ৩টার দিকে মহানগরীর বিগবাজারের কাছে এ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।


এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রিতা মহানগরীর বোয়ালিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।


অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে ভুক্তভোগী ইফফাত জাহান রিতা রিকশাযোগে মহানগরীর রেলগেট এলাকা থেকে আমানা বিগবাজারের দিকে যাচ্ছিলেন।


আমানা বিগবাজারে পৌঁছার আগেই লাল পাঞ্জাবি পরা এক ছিনতাইকারী মোটরসাইকেলযোগে এসে তার ডানহাতে থাকা ভেনেটি ব্যাগটি ছিনতাই করে চলে যায়। ব্যাগের মধ্যে মোবাইল ফোন, আড়াই হাজার টাকা ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ছিল।


জানতে চাইলে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, দিনে-দুপুরে এভাবে মোবাইল ফোন ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নিজেই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।


ছিনতাইকারীকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ ইতোমধ্যেই অভিযান শুরু করেছে


আরও খবর



রাঙ্গাবালী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের বিচারের নামে প্রহসনের অভিযোগ

প্রকাশিত:Thursday ১২ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১০৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ


পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলায় রাঙ্গাবালী ইউনিয়ন পরিষদে একটি ধর্ষণের ঘটনায় মীমাংসার নামে শালিস বৈঠক থেকে ধর্ষক আবুল বাশার ওরফে ছ্যানা বশার (৩৫) কে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।


যদিও পরে রাঙ্গাবালী থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে স্থানীয় জনতার সহায়তায় ধর্ষক আবুল বাশারকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।


স্থানীয় সরকার আইন অনুযায়ী ইউনিয়ন পরিষদ ধর্ষণের মত ঘটনার বিচার করতে পারেনা। কিন্তু এমন দুঃসাহসিক কাজ করে ধর্ষকের পক্ষে অবস্থান নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় চেয়ারম্যান খায়রুজ্জামান মামুনের বিরুদ্ধে।


বুধবার, ১১’মে রাঙ্গাবালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুজ্জামান মামুনের নির্দেশে ইউনিয়ন পরিষদের তিন সদস্য আব্দুল মান্নান, আমিন ও ছাইদুর রহমানসহ স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ শালিস বৈঠকের আয়োজন করে ঘটনার ধামাচাপা দেওয়ার প্রচেষ্টা চলছে। এতে স্থানীয় প্রশাসনের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।


গত ২০ এপ্রিল রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের চর কাসেম ৫নং ওয়ার্ডের সামুদাবাদ গ্রামের ১৩ বছর বয়সী কিশোরী মেয়েকে তার অন্য ভাই বোনদের হত্যার হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে স্থানীয় নামকরা সন্ত্রাসী আবুল বাশার ওরফে ছ্যানা বাশার।


এই বিষয়ে ২৪ এপ্রিল রাঙ্গাবালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরা স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করার নামে কালক্ষেপন করে আসছিলো। একপর্যায়ে গত ১১’মে বুধবার বিকেলে চেয়ারম্যান উপস্থিত না থেকে ইউনিয়ন পরিষদের তিন জন ইউপি সদস্যদের মাধ্যমে শালিসের নাম করে ধর্ষককে পালাতে সহযোগিতা করেছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।


রাঙ্গাবালী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক এনায়েতুর রহমান জানান, ওসি স্যারের নির্দেশে আসামি পালানোর এক ঘন্টার মধ্যে ইউনিয়নের কাছিয়াবুনিয়া ইউসুফ মৃধার বাড়ি থেকে ইউনিয়ন পরিষদের প্রহরী আরিফ তাকে ধরতে সক্ষম হয় পরে পুলিশের হাতে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।


তবে রাঙ্গাবালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে ঘটনার বিষয়ে জানতে একাধিক বার ফোন করা হলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।


এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাশফাকুর রহমান বলেন, ধর্ষণের মত ঘটনার বিচার বা শালিস করার কোন ইখতিয়ার ইউনিয়ন পরিষদের নেই। তবে রাঙ্গাবালী ইউনিয়ন পরিষদ এরকম কোন ঘটনা ঘটিয়ে থাকলে, তারা আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়েছে বলে আমি মনে করি।


আরও খবর



জানে আলম চট্টগ্রাম অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক

চট্রগ্রামে চাঁদাবাজী মামলার প্রধান আসামী জানে আলম গ্রেফতার

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নগরের বাকলিয়া-নতুন ব্রিজ এলাকায় চাঁদাবাজির ঘটনার মূল হোতা মো. জানে আলমকে (৪১) গ্রেফতার করেছে বাকলিয়া থানা পুলিশ।


রোববার (২২ মে) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান বাকলিয়া থানার ওসি রাশেদুল হক।


তিনি জানান, বাকলিয়া-নতুন ব্রিজ এলাকার ত্রাস, চাঁদাবাজদের নেতৃত্বদানকারী এবং ভাসমান ভ্যানগাড়ি ও হকারদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়কারী এই জানে আলম। চাঁদা না পেয়ে এক ফল বিক্রেতার ওপর হামলা-ভাংচুর মামলার আসামি সে।


চন্দনাইশের পশ্চিম কেশুয়া ১ নম্বর ওয়ার্ডের ছোরত আলীর বাড়ির মৃত গুরা মিয়ার ছেলে জানে আলম চট্টগ্রাম অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছে।


পুলিশ জানায়, গত ১৬ মে জানে আলমের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ দলের সদস্যরা নতুন ব্রিজ এলাকায় ভ্যান গাড়িতে ফল বিক্রেতা মো. বাদশার (২০)  কাছে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় জানে আলম তার সহযোগী আরাফাত,  মো. আলী ও জাবেদুল ইসলামকে নিয়ে ১৭ মে রাত ৯টার দিকে নতুন ব্রিজ সংলগ্ন নবাব খাঁ কলোনির সুমনের দোকানের সামনে বাদশার পথরোধ করে।


 এসময় তাকে মারধর করে এবং ভ্যানগাড়ি ভাংচুর করে। পরে থানায় মামলা হলে অভিযান চালিয়ে অন্য আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হলেও মূল হোতা জানে আলম পালিয়েছিল।


রোববার (২২ মে) দুপুরে আসামি জানে আলমকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি রাশেদুল হক।


আরও খবর