Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সকলের অবগতির জন্য,বিশেষ সর্তকিকরণ বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত:Friday ৩১ December ২০২১ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১৮১জন দেখেছেন
Image


সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে আমার Abdul Hannan নামের ফেসবুক আইডি -টি  গত ২২ অক্টোবর ২০২১ থেকে কে বা কাহারা হ্যাক বা ব্লক করে রেখেছে।দীর্ঘদিন অনেক চেষ্টা করেও আইডিটি উদ্ধার করতে না পেরে অবশেষে আজ নাসিরনগর থানায় সাধারণ ডায়েরী নং ১৮৭৩ দায়ের করিতে বাধ্য হলাম।


আইডির সাথে দুটি পেজ ও ছিল,সেগুলোও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।কেউ যদি উক্ত আইডি থেকে কাউকে কোন ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাটায়,অথবা কোনরুপ টাকা পয়সা দাবী করে কেউ তাদের কথায় কান দিবেন না অথবা শুনবেন না।যদি কেউ করেন তাহলে নিজ দায়িত্বে  করবেন।

এখন থেকে এই আইডির সাথে আমার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই।প্রয়োজনে আমার সাথে এই নাম্ভারে যোগাযোগ করুন,,,০১৭১৭৩৫০৮৭৬। পোষ্টটিকে বেশী করে শেয়ার ও কপি করে পোষ্ট করার জন্য অনুরোধ করছি।


আরও খবর



নাসিরনগরের বিভিন্ন স্থানে আবারো নতুন করে জমে উঠেছে মাদকের বাজার

প্রকাশিত:Monday ০৩ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৫৮জন দেখেছেন
Image
নাসিরনগরের বিভিন্ন স্থানে আবারো নতুন করে জমে উঠেছে মাদকের বাজার


মোঃআব্দুল হান্নানঃ

 ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগরের বিভিন্ন গ্রামে আবারাে নতুন করে খোলতে শুরু করেছে মাদকের বাজার।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে এ সমস্ত মাদকের মধ্যে রয়েছে বাংলা মদ,গাঁজা,ইয়াবা,ফেনসিডিল,উইসকি সহ ইন্ডিয়ান নামী দামী ব্র্যান্ডের আরো অনেকনাম না জানা মাদক।


আর এ সমস্ত মরণ নেশা মাদকের কবলে পড়ে ধবংস হতে চলেছে এলাকার যুব সমাজ।যুব সমাজে নেমে এসেছে নৈতিক অবক্ষয়।অনেক মাদক সেবীরা মাদকের টাকা সংগ্রহ করতে না পেরে লিপ্ত হতে চলেছে চুরি,ডাকাতির মত বিভিন্ন অপরাধ মুলক কাজে।

এতে করে বাড়তে শুরু করেছে নানা অপরাধ প্রবনতা।মাদকের টাকার জন্য অনেকেই আবার মা বাবার সাথে করছে অমানবিক ব্যবহার।কেহ কেহ আবার মা বাবাকে করছে শারীরীক ও মানষিক ভাবে লাঞ্চিত।লোক লজ্জার ভয়ে অনেক মা বাবাই নীরবে সহ্য করে যাচ্ছে মাদকসেবী সন্তানেন এমন অমানবিক অত্যাচার নির্যাতন।


নাসিরনগরের উল্লেখ যোগ্য যে সমস্ত ইউনিয়নে মাদকের মাদকের সবচেয়ে বেশী ছড়াছড়ি রয়েছে সে গুলোর মধ্যে  নাসিরনগর সদর,হরিপুর,গুনিয়াউ,ফান্দাউক,ধরমন্ডল,গোকর্ণ,কুন্ডা,ভলাকুট,গোয়াল নগর ও চাতলপাড়।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে এক ইউনিয়ন পরিষদের  কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ও নব নির্বাচিত ইউপি সদস্যকে নাসিরনগর সদরের এক মাদক ব্যবসায়ী মহিলা ও চট্রগ্রামের এক মাদক ব্যবসায়ী পুরুষ প্রতিনিয়ত প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে মরণনেশা ইয়াবার চালান সরবরাহ করে যাচ্ছে।মাদক ব্যবসায়ীরা ভয়ংকর বলে কেউ তাদের বিরোদ্ধে মুখ খোলে কথা বলার সাহস পাচ্ছে না।


ভুক্তভোগীরা এলাকার তালিকা ভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের কাঠগড়ায় দাড় করাতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোরদাবী জানিয়েছে।মাদক নিয়ন্ত্রনে থানা পুলিশের কি ভুমিকা রয়েছে জানতে চাইলে,নাসিরনগর থানার পুলিশ পরিদর্ক তদন্ত এস,এস আতিক বলেন জনগণের সাথে মিশে সহজে খোজ খবর নেয়ার উদ্দেশ্যেই বিট পুলিশিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।মাদক নিয়ন্ত্রনে পুলিশ সব সময় তৎপর রয়েছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।



আরও খবর



নাসিরনগরে এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত প্রতারক লিটন র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:Thursday ২০ January ২০22 | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১২৯জন দেখেছেন
Image

      

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর(ব্রাক্ষণবাড়িয়া),

জেলার নাসিরনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাবেক আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল গাফ্ফারের ছেলে,দৈনিক যুগান্তরের নাসিরনগর উপজেলা প্রতিনিধি মনির হোসেনের বড় ভাই এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত প্রতারক লিটনকে তার নিজ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে  র‌্যাব জানা।


জানা গেছে  ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের পৈরতলা নিবাসী মৃত ইদন মিযার ছেলে সুমন মিয়ার কাছ থেকে পার্টনারশীপে ব্যবসা করার কথা বলে বø্যাক চেকে স্বাক্ষর করে ২১ লক্ষ টাকা নেয় প্রতারক লিটন। পরে সুমনকে ব্যবসায়িক পার্টনার না দিয়ে সমূদয় অর্থ আত্মসাৎ করেন লিটন। নিরুপায় হয়ে ২০১৯ সালের ২১ নভেম্বর সুমন বাদী হয়ে প্রতারক লিটনকে আসামী করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে নিগোসিয়েশন ইন্সট্রুমেন্ট  এ্যাক্ট ১৩৮ ধারায় মামলা রুজু করে।


আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে দীর্ঘ শুনানির পর ২০২০ সালের ৩ ডিসেম্বর বিজ্ঞ আদালত প্রতারক লিটনের বিরুদ্ধে ২১ লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করে। এরপর থেকে প্রতারক লিটন গা ঢাকা দিয়ে থাকে। গত মঙ্গলবার র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের পরিচালকের নেতৃত্বে ২৫ সদস্যের একটি টিম রাত ১২ ঘটিকার সময় প্রতারক লিটনের বাড়ীতে অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। পরে বুধবার প্রতারক লিটন আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে র‌্যাব।

 

জানা গেছে, প্রতারক লিটন সুমন ছাড়াও গুনিয়াউক ইউনিয়নের চিতনা গ্রামের রবিউল, বুড়িশ্বর ইউনিয়নের সেলিম চৌধুরী, গোকর্ণ ইউনিয়নের সন্তোষ সরকার,বুড়িশ্বর ইউনিয়নের বুড়িশ্বর গ্রামের ও সদর ইউনিয়নের দাঁতমন্ডল গ্রামের আরো বেশ কয়েকজনকে পুলিশে ও প্রাইমারী স্কুলে চাকুরী দেওয়ূার নাম করে অনেক টাকা আত্মসাৎ করেছে। এমনটি প্রতারক লিটনের আপন চাচা নাছির মিয়ারও অনেক টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে নাছির মিয়া জানান।


প্রতারক লিটনের সমস্ত অপকর্মের মূলে তার ছোট ভাই যুগান্তরের সাংবাদিক পরিচয়দানকারী মোঃ মনির হোসেন প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে লিটনকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। মামলার বাদী সুমন মিয়া জানান, লিটনের সমস্ত অপকর্মের মূল চালিকা শক্তি তাহার ছোট ভাই  যুগান্তরের সাংবাদিক মনির হোসেন।


বাদী সুমন আরো জানায় সাংবাদিক মনির যুগান্তর পত্রিকার কার্ড ব্যবহার করে লিটনকে দিয়ে প্রতারনা করিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করে বিনিময়ে মনির প্রতারক লিটনের  কাছ থেকে অর্থের ভাগ নেয়। বাদী সুমন বিষয়টি  সুবিবেচনা পূর্বক মনিরের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় সুব্যবস্থা গ্রহণ করতে যুগান্তর কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করে। 

 -খবর প্রতিদিন/ সি.বা



আরও খবর



মাওয়া শিমুলিয়া ফেরী ঘাটে পদে পদে দুর্নীতি

মাওয়া শিমুলিয়া ফেরী ঘাটে পদে পদে দুর্নীতি

প্রকাশিত:Monday ১৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image


জুবায়ের আলম:

ফেরীর তেল চুরি ,দুর্নীতি, সংস্থার বিভিন্ন খাতের অর্থ আত্মসাত সহ মাওয়ায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার  ঘাটে বিআইডব্লিউটিসির কর্মচারীদের বিরুদ্ধেব্যাপক হারে  অভিযোগ রয়েছে।স্থানীয়ভাবে অনুসন্ধান করে জানাগেছে ফেরি চলাচলের জন্য বছরে কোটি কোটি টাকার তেল ব্যয় হয়।


এই তেল ব্যয়ের ব্যাপারে রয়েছে নানা রকমের কারসাজি। বহু দিন ধরেই শিমুলিয়ায় তেল চুরি সিন্ডিকেট সক্রিয়। চক্রটির হাত লম্বা। তেল চুরির ভাগ চলে যায় অনেক উপরের কর্মকর্তাদেরও হাতে। তাই যুগ যুগ ধরে এই তেল চুরি চলছেই। আধুনিক ভিটিএস যন্ত্র ব্যবহার না করাও এর একটি কারণ। এক শ্রেণীর কর্মকর্তার অবৈধ আয়ের অন্যতম উৎস এই তেল চুরি।সাশ্রয় করা তেলই বাইরে বিক্রি করা হয়।


প্রতিটি ফেরিরই তিন সদস্যের একটি একটি টাইম নির্ধারণ করে তেল বরাদ্দ দেয়। রো রো ফেরি শাহ পরাণের বাংলাবাজার থেকে শিমুলিয়া আসার জন্য সময় নির্ধারণ করা ৫৫ মিনিটি এবং তেল বরাদ্দ ১০৮ লিটার। শিমুলিয়া থেকে বাংলা বাজার যাওয়া জন্য ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটে ২২১ লিটার বরাদ্দ রয়েছে।ফেরি কোন কোন সময় একটু বেশি লাগে আবার কখনও সময় একটু কম লাগে। কম লাগলে তেল কম খরচ হয়।


তবে হিসাবের মধ্যেই থাকে। এগুলো রেজিস্টার মেনটেন করা হয়।দূরত্ব, গতিবেগ ও স্রোত বিবেচনায় বিপুল পরিমাণ তেল বরাদ্দ দেয়া হলেও সেই অনুযায়ী ফেরি ও জাহাজ চালানো হয় না। এভাবে বরাদ্দের তেল বাঁচিয়ে তা গোপনে বিক্রি করে দেন সংশ্লিষ্টরা। তেল চুরির টাকা সংস্থাটির ফেরীচালক,মাষ্টার সুকানী,লস্কর সহ বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েক কর্মকর্তার পকেটে যায়।


প্রতি মাসে এই ফেরি রুটে সংস্থাটির কোটি কোটি টাকা আয় ব্যয় রয়েছে। বিআইডব্লিউটিসির সহ-মহাব্যবস্থাপক(বাণিজ্য) মোঃ শফিকুল ইসলাম  জানান, গত ২০২১ সালের মে মাসে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে ফেরিগুলো ৪ হাজার ৫৭০টি ট্রিপ দিয়ে আয় করেছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। আর তেল খরচ হয়েছে ২ কেটি ৬৮ লাখ ৫০ হাজার টাকার। গত জুন মাসে ৬ হাজার ৪৫২টি ট্রাক, ২৫ হাজার ৩৬৯টি বাস এবং ৭৪ হাজার ৯৫টি ছোট যান পারাপার করেছে। ফেরিগুলো ট্রিপ দিয়েছে ৪ হাজার ৬১৬টি। এতে আয় হয়েছে ১১ কোটি ২০ লাখ ৯৫ হাজার ২৮৯ টাকা। তবে এই মাসের তেল খরচ তাৎক্ষণিক তিনি জানাতে পারেননি।


তেলে হিসাব অডিট হয়ে তার কাছে কিছুটা বিলম্ব হয় বলে তিনি জানান।তবে তেলের দায়িত্বে থাকা বিআইডব্লিউটিসির নির্বাহী প্রকৌশলী তথ্য না দিয়ে নানা কৌশলে এড়িয়ে যান। তেল চুরি সিন্ডিকেটের সঙ্গে তাঁর সম্পৃক্ততার আঙ্গুল তুলছেন অনেকে। তবে  নির্বাহী প্রকৌশলী অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।অন্যদিকে ফেরির ফগ লাইট কেনায় অনিয়মের অভিযোগে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পরিচালক ও জিএমসহ ৭ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।বুধবার (৫ জানুয়ারি) দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মামলাটি দায়ের করা হয়।


ঘন কুয়াশায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ১০ কিলোমিটার দেখা যায় এমন উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ফগ অ্যান্ড সার্চ লাইট ক্রয়ে ৫ কোটি ৬৫ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে  মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সাইদুজ্জামান। দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।মামলার আসামিরা হলেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) সাবেক চেয়ারম্যান ও পরিচালক (কারিগরি ) ড . জ্ঞান রঞ্জন শীল, মহাব্যবস্থাপক বা জিএম ক্যাপ্টেন শওকত সরদারমো. নুরুল হুদা, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি সেক্রেটারি পঙ্কজ কুমার পাল, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের (বিএসএফআইসি) সাবেক মহাব্যবস্থাপক ( মেকানিক্যাল ) ইঞ্জিনিয়ার মো. রহমত উল্লা, বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশনের (বিজেএমসি) মেকানিক্যাল বিভাগের ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন এবং মেসার্স জনী করপোরেশনের মালিক ওমর আলী।



আরও খবর



ড. ইউনূসের ব্যাংক হিসাব তলব

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: শান্তিতে নোবেলজয়ী অধ্যাপক ড. মুহম্মদ ইউনূসের ব্যাংক হিসাবের তথ্য তলব করা হয়েছে। ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়ে তার সব ধরনের ব্যাংক হিসাবের তথ্য চেয়েছে আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।

গত বৃহস্পতিবার ড. ইউনূসের সব ধরনের ব্যাংক ও ক্রেডিট কার্ডের লেনদেনের তথ্য চেয়ে ব্যাংকগুলোকে চিঠি পাঠিয়েছে বিএফআইইউ। চি‌ঠিতে গ্রামীণ ব্যাংকের সাবেক এই ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) কোনো লেনদেনের রেকর্ড থাকলে তা আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে বিএফআইইউকে পাঠাতে বলা হয়েছে।

তবে কী কারণে ড. ইউনূসের ব্যাংক লেনদেনের তথ্য চাওয়া হয়েছে, তা জানানো হয়নি।

বিএফআইইউ সূত্রে জানা যায়, তদন্তের প্রয়োজনে বিভিন্ন সংস্থা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংক লেনদেনের তথ্য চাওয়া হয়। ড. ইউনূসের ক্ষেত্রে তেমন কোনো সংস্থা এ ধরনের কোনো তথ্য চায়নি। বাংলাদেশ ব্যাংক তাদের নিজস্ব প্রয়োজনে এই তথ্য চেয়েছে।

এর আগে, ২০১৬ সালে একবার ড. ইউনূস ও তার পরিবারের সদস্যদের ব্যাংক হিসাবের তথ্য নেয় বাংলাদেশ ব্যাংক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

১৯৮৩ সালে গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠার সময় থেকেই ব্যাংকটিতে এমডির দায়িত্ব পালন করে আসছেন ড. ইউনূস। ২০০৬ সালে গ্রামীণ ব্যাংকের সঙ্গে যৌথভাবে শান্তিতে নোবেল পান তিনি। তবে অবসরের বয়সসীমা পেরিয়ে যাওয়ার কারণে ২০১১ সালে সরকার তাকে এমডি পদ থেকে সরিয়ে দেয়। সরকারের ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে গেলে হেরে যান ড. ইউনূস।


আরও খবর



মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর বন্ধ দোকানপাট "খুলনায়"

প্রকাশিত:Friday ০৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১০৮জন দেখেছেন
Image

খুলনায় করোনার সংক্রমণ রোধে মার্কেট ও দোকানপাটের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর নগরীতে খোলা রাখা যাবে না মার্কেট ও দোকান। তবে, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য পরিবহণ ও কাঁচামালের আড়তের ক্ষেত্রে এই সময়সীমা প্রযোজ্য হবে না।

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক জেলা ও মহানগর করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির এক সভায় গতকাল বৃহস্পতিবার এ কথা জানান। সভার সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, ‘করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ছড়িয়ে পড়ার আগেই আমাদের সচেতন হতে হবে। আগামী মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর নগরীতে মার্কেট ও দোকান খোলা রাখা যাবে না। তবে, নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচামাল পরিবহণ ও কাঁচামালের আড়তের ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা নেই।’

সভায় সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, গত নভেম্বরে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। ডিসেম্বর মাসে করোনায় জেলায় কোনো প্রাণহানি হয়নি। হঠাৎ সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় স্বাস্থ্যবিধি মানা ও মাস্ক পরার বিকল্প নেই।

সিভিল সার্জন আরও বলেন, ‘টিকা নেওয়ার পর করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে মৃত্যুহার অনেক কম। তাই টিকা গ্রহণে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করা প্রয়োজন।’

সিভিল সার্জনের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে খুলনা জেলায় করোনা শনাক্ত হওয়া একজন রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত জেলায় এক লাখ ৬১ হাজার ৭২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৮ হাজার ১৯ জন রোগী কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছেন


আরও খবর