Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

শিশুদের জন্য ওমরাহ পালনে ৪ নির্দেশনা

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৮৫জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :নিজের সন্তানদের নিয়ে অনেকেই ওমরাহ হজ পালন করতে যান। এবার শিশুসন্তানকে সঙ্গে নিতে ইচ্ছুক ওমরাহযাত্রীদের জন্য চারটি নির্দেশিকা জারি করেছে সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

সেগুলো হলো:

পরিচিতিমূলক ব্রেসলেট: উমরাহর সময় প্রত্যেক শিশুর ডান অথবা বাঁ হাতের কব্জিতে অবশ্যই পরিচিতিমূলক ব্রেসলেট থাকতে হবে। লাখ লাখ ওমরাহযাত্রীর ভিড়ে কোনো শিশু হারিয়ে গেলে তার পরিচিতি সম্পর্কিত প্রাথমিক কিছু তথ্য পাওয়া যাবে সেই ব্রেসলেটে।

ভিড় যথাসম্ভব এড়িয়ে চলা: যেসব ওমরাহযাত্রী তাদের শিশুদের নিয়ে ওমরায় এসেছেন, তাদের ওমরাহর আনুষ্ঠানিকতা সম্পাদনের জন্য ভিড় কম হয়— এমন সময় ও স্থান বেছে নিতে বলা হয়েছে।

শিশুদের ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা: শিশুদের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য তাদের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যাপারে অভিভাবকদের যতœশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শিশুদের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার প্রাথমিক দায়িত্ব অবশ্যই অভিভাবকদের।

শিশুদের খাদ্যের প্রতি নজর রাখা: ওমরাহর সময় শিশুরা যেন স্বাস্থ্যকর ও তাদের শরীরের জন্য উপযোগী খাদ্য গ্রহণ করতে পারে, সেজন্য অভিভাবকদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

সূত্র : গালফ নিউজ


আরও খবর



বিরামপুরে জমি দখলের চেষ্টা: থানায় জিডি

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৯জন দেখেছেন

Image

মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃদিনাজপুর জেলার বিরামপুরে পৌর এলাকার দেবীপুর গ্রামে রেল বিভাগ থেকে লীজ নেওয়া জমি একটি সংঘবদ্ধ চক্র জবর দখলের চেষ্ঠা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় লীজ গ্রহীতা আবু সাঈদ থানায় সাধারণ ডাইরী করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বিরামপুর উপজেলার দেবীপুর গ্রামের বৃদ্ধ আবু সাঈদ জানান, ঐ মৌজায় রেল বিভাগের অনেক পতিত জমি রয়েছে। অন্যনা সে সকল জমি লীজ নিয়ে ভোগ দখল করছে। আবু সাঈদ তার বাড়ির সামনে ১৪ শতক জায়গা রেল বিভাগ থেকে লীজ নিয়ে র্দীদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছেন। তিনি চলতি বছরও খাজনার টাকা দিয়ে লাইসেন্স নবায়ন করেছেন। কিন্তু ঐ গ্রামের একটি সংঘবদ্ধ চক্র বৃদ্ধ আবু সাইদের বাড়ির সামনের জমিটি জোর পূর্বক দখলে নেওয়ার চেষ্টা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে।

এঘটনায় তিনি গত ৮ জুন বিরামপুর থানায় সাইম, ইদ্রিস, আর্জিনা ও হাছেন মিয়ার নামে একটি সাধারণ ডাইরী করেছেন। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে ঐ চক্রটি ১২জুন সকালে আবারো জমিটি জবর দখলের চেষ্টা করেছে। বাড়ির সামনের জমি জবর দখলের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বৃদ্ধ আবু সাঈদ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


আরও খবর



মীরপুর ১০ ব্যাস্ততম এলাকায় রাস্তা দখল করে হকার বসিয়ে চাঁদাবাজী

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিনিধী:- রাজধানীর ব্যস্ততম মিরপুর১০ নম্বর গোলচত্বরসহ এলাকার  ফুটপাতসহ সড়কের অর্ধেকটা দখল করে চলছে পাচ হাজার হকারদের রমরমা ব্যবসা। এই ব্যবসার দোকান গুলোতে আলো জ্বালাতে অবৈধ ভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে মাসে অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র। এদিকে সরকার বিদ্যুৎ সাশ্রয় করার জন্য লোডসিটিং চালু করেছে। অন্য অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে মোটা অস্কের টাকার হাতিয়ে নিচ্ছে।


এর পাশাপাশি কোটি টাকার চাঁদাবাজিও হচ্ছে ফুটপাত থেকে। মিরপুর মডেল থানার কর্মরত কনস্টেবল মোহাম্মদ হেলাল প্রায় এক যুগ ধরে পুলিশের নামে ফুটপাত ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন জায়গা থেকে টাকা তোলেন। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ পুলিশের পিআই মোহাম্মদ জিয়া সহ পুলিশের বড় কর্মকর্তাদের নামে এই সব টাকাগুলো ওঠানো হয়। প্রায় চার লেনের চওড়া রাস্তার দুই লেনই দখল করে ব্যবসা করছেন হকারা।এখান থেকে মাসে কোটি টাকার লেনদেন করছেন হকার নেতারা।


 ফুটপাতের একাধিক ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রসাশনসহ সরকার দলীয় নেতা -কর্মীরা এসব টাকা ভাগ করে খাচ্ছেন। ফুটপাতের পজিশন নিতে প্রথমে দিতে ৪০-৫০ হাজার টাকা। আবার প্রতিদিন দিতে হয় ৩-৪ শ টাকা। এ ছাড়া, আরও অনেককে ম্যানেজ করতে হয়।তারা শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদাতের নামে টাকা উঠায়। এতে করে শুধু পথচারীই নয়, চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যানবাহনগুলোকেও। বিশেষ করে মিরপুর-২ নম্বর থেকে১০  গোলচত্বরসহ আশ পাশের পুরো এলাকা জুড়ে ও শাহ আলী মার্কেটের রাস্তার অর্ধেকের বেশি দখলে থাকে হকারদের। ক্রেতা-বিক্রেতা একাকার হয়ে যায় প্রধান সড়কে। 


এসব এলাকার রাস্তা দখল এবং ফুটপাতের অবস্থা বেগতিক। অভিযোগ রয়েছে, প্রশাাসনকে ম্যানেজ করে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে রাস্তাকে পজিশন বিক্রি করা হয়েছে। ফলে যেখানে বসে নিশ্চিন্তে ব্যবসা করছেন হকাররা। এসব হকারদের কারণে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন মার্কেটের ব্যবসায়ীরাও।ব্যবসায়ীদের অভিযোগ ফুটপাত, রাস্তা দখল করে হকার বসিয়ে স্থানীয় নেতারা প্রতিদিন কয়েক লাখ টাকা চাঁদাবাজি করছে। এমন কি সরকারকে ফাকি দিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে মাসে অর্ধকোটি টাকা হর্কারদের কাছ থেকে আদায় করছে চক্রটি। যার ভাগ প্রশাসনের বিভিন্ন মহলেও পৌঁছে যাচ্ছে। এমনকি সরকার দলীয় নেতা-কর্মীরাও বাদ নেই। কিন্তু এ কারণে মূল মার্কেটের ব্যবসা কমে যাচ্ছে। ব্যবসায়ীরা আরও অভিযোগ করে বলেন, শাহ আলী মার্কেটের আশপাশের চাঁদাবাজির নিয়ন্ত্রণ করছে রুবেল, জাহাঙ্গীর, হিরু মিয়া, রাড্ডার সামনে টিংকুর নিয়ন্ত্রণে সাদ্দাম,  আকবর, হাবিব ও নুরু মিয়াসহ কয়েকজন। এবং ১০ নম্বর গোলচত্বরসহ তার আশপাশের ফুটপাতে থেকে মো. আখের মিয়া, রুবেল, নেতা জাকির, সাদ্দাম, ফেলান ও মোরসালিন। তারা নিজেরাও দোকান বসিয়েছে। ব্যবসায়ীদের আরো অভিযোগ মোরসালিন এমপি এসএম জাহিদের নাম ভাঙ্গিয়ে ফুটপাত দখল করে ও বিভিন্ন জায়গা থেকে চাঁদাবাজি করে আসছে। নিয়ন্ত্রণকারীরা  বলেন, সবাই এসে আমাদেরকে ধরেন হকারেরা।


 আমরা বাধ্য হয়ে মোটা অংকের  টাকা নিয়ে হকারদেরকে বসতে দেই। তাদের নিয়ন্ত্রিত বাহিনীর সদস্যরা শুধু ফুটপাতই নয়, রাস্তা দখল করে পজিশন বিক্রি করছে হকারদের কাছে। সকাল থেকেই রাস্তা ও ফুটপাত দখল হয়ে যায়। রাস্তায় দেখা দেয় তীব্র যানজট। বাস চালক আবুল কালাম বলেন, ঢাকায় এত চওড়া রাস্তা খুবই কম এলাকাতেই আছে। কিন্তু চওড়া হলে কী হবে। হকারদের কারণে আমরা তার সুফল ভোগ করতে পারি না। সব যায়গায় ফুটপাত দখল করলেও এখানে রাস্তাই দখল করে বসে আছে। থানা পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ সব দেখছে। 


কিন্তু কেউ কিছুই বলছে না। মার্কেটের কয়েক জন ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করে বলেন, হকারদের এ উৎপাতে আশপাশের মার্কেটগুলোর ব্যবসায়ীরা সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। রাস্তা, ফুটপাথ বন্ধ থাকার কারণে ক্রেতারা মার্কেটে আসতে পারেন না। যার কারণে তাদের বিক্রিও তেমন হয় না। এসব বিষয়ে কোনো কথা বলতে গেলে দখলদার সন্ত্রাসীরা নানা ধরনের হুমকি দিতে শুরু করে।


শুধু তাই নয়, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দিয়ে থাকে।রাস্তায় পজিশন নেওয়া ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আলমগীর  হোসেন ও শামসুল আলম বলেন, মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দিয়ে বসার জায়গাটুকু পেয়েছি। তার পরও প্রতিদিন তাকে ৩০০ টাকা করে চাঁদা দিতে হয়। এর পর আবার বিদ্যুৎ জ্বালানোর জন্য প্রতি লাইটে ৩০ টাকা করে দিতে হয়। বিক্রি হোক বা না হোক এই চাঁদা তাদেরকে দিতেই হবে।


এটা এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এর বাইরে যখন চাঁদা দিতে হয় তখন ব্যবসায়ীদের পুঁজি ভেঙে খাওয়া ছাড়া কোনো পথ থাকে না।তিনি বলেন, ফুটপাতে খুবই কম লাভে পণ্য বিক্রি করতে হয়। এখন প্রচুর দোকান থাকায় খুব বেশি লাভও হয় না। তার মধ্যে থানা পুলিশ, লাইনম্যান, ঝাড়ুদার, পুলিশ সোর্স এবং এলাকার বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের আলাদা আলাদা করে টাকা দিতে হয়। কেউ দিন হিসেবে আবার কেউ সপ্তাহ হিসেবে এসব টাকা নিয়ে থাকে।


আর যাদের কাছ থেকে জায়গা বা পজিশন নিয়েছি তাদের তো আলাদাভাবে চাঁদা দিয়ে জায়গা রক্ষা করতে হয়।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম না প্রকাশে শর্তে তিনি বলেন, মাঝে মধ্যেই সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। কিন্তু তাতে লাভ হয় না।তিনি আক্ষেপ করে বলেন, আমাদের কিছু অসাধু কর্মচারী ও কর্মকর্তারা এবং  প্রসাশনের লোকজন এসব অনৈতিক কাজে জড়িত থাকেন।তা হলে তো আর উচ্ছেদ করেও কোনো লাভ হচ্ছে না।


একদিকে উচ্ছেদ হচ্ছে আবার কিছুক্ষণ পরে হকাররা আবার দোকান বসাচ্ছে। তাই পুলিশের পক্ষ থেকে কার্যকরি পদক্ষেপ নেওয়া হলে উচ্ছেদের পর নতুন করে হকার বসতে পারবে না। ডেসকোর একজন প্রকৌশলী এ ব্যাপারে বলেন, এই সব অভিযোগ শুনতে শুনতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছি। আমরা ওই সব এলাকায় বারবার অভিযান চালিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করা হয়। কিন্তু আমাদের অফিসের কিছু অসাধু কর্মচারী ও কর্মকর্তারা অর্থের বিনিময়ে ওই সব অবৈধ চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎতের লাইন সংযোগ দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়।


তিনি দুঃখকরে আরও বলেন, যেখানে সরকার বিদ্যুৎ সাশ্রয় করার জন্য লোডসিটিংয়ে পদক্ষেপ নিয়েছেন। এর মধ্যে তারা গ্রাহকে ঠকিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগদিয়ে টাকা নিচ্ছেন। মিরপুর জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন মোল্লাহ জানান, অতি তাড়াতাড়ি সবার সহযোগিতায় মিরপুর এলাকার ফুটপাথ ও রাস্তা দখল থেকে হকারদের উচ্ছেদ করে দখলমুক্ত করা হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




জয়পুরগাটে নিরাপদ মাছ চাষে মাটি ও পানি পরীক্ষা বিষয়ক ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ"নিরাপদ মৎস্য ও মৎস্য পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ" শীর্ষক ভ্যালু চেইন উপ-প্রকল্পের আওতায় জয়পুরহাটে জেআরডিএমের কারিগরি ও পিকেএসএফের আর্থিক সহযোগিতায় জয়পুরহাট জেলার ক্ষেতলাল উপজেলায় মৎস্যচাষীদের বিনামূল্যে মাটি ও পানি পরীক্ষা এবং সার্বিক তথ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে । রোববার বিকেলে জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলায়  পিকেএসএফের  আর্থিক সহায়তায় এবং  জেআরডিএমের বাস্তবায়নে ৫০ জন মৎস্য চাষীদের বিনামূল্যে মাটি ও পানি পরীক্ষাপূর্বক সার্বিক সেবা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্ষেতলাল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা কামরুজ্জামান  ।জেআরডিএম এর সিনিয়র  উপ-পরিচালক (কার্যক্রম) শওকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেআরডিএম এর সহকারী পরিচালক (প্রকল্প) কৃষিবিদ এন এম ওয়ালিউজ্জামান ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে উন্মুক্ত আলোচনায় মৎস্যচাষীদের সাথে মতবিনিময়ে ক্ষেতলাল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মাছ চাষিদের নিরাপদ মৎস্য ও মৎস্যপণ্য উৎপাদনে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক পরামর্শ প্রদান করেন এবং মাছ চাষের ক্ষেত্রে মাটি ও পানি পরীক্ষা সহ বিভিন্ন পরামর্শ পেতে
জেআরডিএম‌ কতৃক বাস্তবায়িত "মৎস্য সেবা ও পরামর্শ কেন্দ্রে" যোগাযোগ করার পরামর্শ প্রদান করেন।

উক্ত ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠান শেষে ক্ষেতলাল উপজেলার মত একটি সেবা ও পরামর্শ কেন্দ্র এবং একটি মূল্য সংযোজিত মৎস্যপূর্ণ উৎপাদন এবং বাজারজাতকরণ প্রদর্শনীর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।অনুষ্ঠনাট সঞ্চালনা করেন ভ্যালু চেইন ফ্যাসিলিটেটর  কৃষিবিদ আল আমিন।

আরও খবর



চাঁদ দেখা গেছে, ঈদুল আজহা ১৭ জুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় দেশের আকাশে পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এর ফলে আগামী ১৭ জুন দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হবে।

আজ শুক্রবার রাতে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে এ তথ্য জানিয়েছেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান।

এর আগে বায়তুল মোকাররমে এশার নামাজ পড়তে যাওয়ার আগে ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘আমরা একটি জায়গায় চাঁদ দেখার খবর পেয়েছি সেটি আমরা যাচাই-বাছাই করছি। যাচাই-বাছাই শেষে আপনাদেরকে জানানো হবে।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




সিরাজগঞ্জে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৩৯জন দেখেছেন

Image
রাকিব সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জ শহরের সুনামখ্যাত ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি- ২০২৪ খ্রীঃ পরীক্ষায় জিপিএ ৫- প্রাপ্ত মেধাবী ৪৬ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়  এবং  অভিভাবক সমাবেশ, বার্ষিক পুরস্কার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  অনুষ্ঠিত হয়। 

শনিবার (২৫মে) সকালে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে, ফজলুল হক রোডস্থ  নর্দান ফ্লাওয়ার মিলস্ লিমিটেড মাঠ প্রাঙ্গনে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে এই সংবর্ধনা প্রদানকালে ফুলেল শুভেচ্ছা, ক্রেস্ট ও উপহার প্রদান করা হয়। 

জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি মুনির আহমেদ এর সভাপতিত্বে শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সরকার ছানোয়ার হোসেন।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জিপিএ- ৫ প্রাপ্ত মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও উপহার তুলে দেন, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি  সিরাজগঞ্জ-২ (সদর - কামারখন্দ) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ড. জান্নাত আরা তালুকদার হেনরী এসময়ে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য বলেন, দেশরত্ন, বঙ্গবন্ধকন্যা, জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন। প্রতিটি শিক্ষার্থীর মধ্যে দেশপ্রেম ও সততা থাকতে হবে। সুশিক্ষিত ও দক্ষ হয়ে  আজকের এই শিক্ষার্থীরা আগামী দিনে সুনাগরিক হবে এরাই দেশের নেতৃত্ব দিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়বে দেশ এগিয়ে যাবে। এজন্য নতুন প্রজন্ম বা শিক্ষার্থীদের আরও পড়া লেখায় বেশি মনোযোগী  হয়ে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভরশীল হতে হবে এবং  সাহিত্য- সংস্কৃতির ও ক্রীড়া চর্চায়  বেশি মনোনিবেশ করবে। সৃজনশীল হয়ে প্রকৃতি ও পরিবেশের প্রতি সংবেদনশীল হতে হবে। নিজেকে পরিবর্তনের জন্য নিজের ইচ্ছাশক্তিই যথেষ্ট। ভালো মানুষ হতে হবে। এজন্য মূল্যবোধ ও মানবিকতা থাকতে হবে। থাকতে হবে স্বপ্নজয়ের প্রতিজ্ঞা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা, জেলা শিক্ষা অফিসার (অতি: দা:) আফছার আলী, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, মোঃ ছাকমান আলী, নর্দান ফ্লাওয়ার মিলস্ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইকবাল হোসেন, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর এবং জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অন্যতম সদস্য মোঃ আব্দুল আলীম মন্ডল, মামুনুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। 

এসময় অনুষ্ঠানে অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক সঞ্জয় গৌর, টি এম আসলাম উদ্দীন, সিমা রাণী, আফরোজা সুলতানা, শাপলা খাতুন, রাশেদুল ইসলাম ও শিক্ষক কেয়ামত আলী সহ অন্যান্য কর্মকর্তা, কর্মচারী, সকল শিক্ষার্থীরা  অভিভাবকগণ, সুধীজন,গুণীজন এবং সাংবাদিকেরা  উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর