Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

সিসিইউতে নেওয়া হলো খালেদা জিয়াকে

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৭২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় তাকে কেবিন থেকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়েছে। 

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর ) দিবাগত রাত ২টার দিকে তাকে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয় বলে জানা গেছে।

এর আগে খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যালোচনায় করতে রোববার রাত সাড়ে ১১টায় দেশি-বিদেশি চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ড বৈঠকে বসে। বৈঠকে তাকে সিসিইউতে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

একটি সূত্রে জানা গেছে, চিকিৎসকরা খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের বর্তমান অবস্থার দিকটি বিবেচনা করে মতামত দিয়েছেন তাকে আপাতত কেবিনে রাখা নিরাপদ হবে না। আর তাই সিসিইউতে রেখে চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে সিদ্ধান্ত আসে মেডিকেল বোর্ডের পক্ষ থেকে।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত। তার মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা একাধিকবার সংবাদ সম্মেলনে করে বলেছেন, অতি দ্রুত তার লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট (প্রতিস্থাপন) করা দরকার। যেটা বাংলাদেশ সম্ভব নয়। এজন্য তাকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেওয়ার অনুমতি চেয়ে সরকারের কাছে একাধিকবার আবেদন করে তার পরিবার। এছাড়া বিএনপির পক্ষ থেকে তাকে বিদেশে চিকিৎসা জন্য যেতে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ১ মাসের বেশি সময় ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন খালেদা জিয়া। এর আগেও বেশ কয়েকবার হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসা নিতে হয়েছে তাকে। এরই মধ্যে তার হার্টে ৩ টি ব্লক ধরা পড়লে একটিতে রিং পরানো হয়।


আরও খবর



প্রকৌশলী অপসারণের দাবীতে ঝিনাইদহে সাংবাদিক সমাজের বিক্ষোভ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

কামরুজ্জামান ঝিনাইদহ:ঝিনাইদহের সময় টিভির স্টাফ রিপোর্টার লোটাস রহমান সোহাগকে লাঞ্চিত, মোবাইল ও ক্যামেরার মেমোরী কার্ড ভাংচুর করার প্রতিবাদে এবং ওজোপোডিকোর নির্বাহী প্রকৌশলী রাশেদুল ইসলাম চৌধুরীর অপসারণের দাবীতে এক মানববন্ধন ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব, ঝিনাইদহ টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরাম, রিপোর্টার ইউনিটির আয়োজনে মঙ্গলবার সকাল ১১ ঘটিকা হতে ১২ ঘটিকা পর্যন্ত ঝিনাইদহ পোস্ট অফিস মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাব সভাপতি এম রায়হান, নিজাম উদ্দিন জোয়ার্দ্দার, সাইফুল মাবুদ, স্বপন বাগচী প্রমুখ। মানববন্ধন পূর্বে এক বিক্ষোভ মিছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে।   



আরও খবর



লাদাখে ট্যাংক দুর্ঘটনায় ভারতীয় ৫ সেনা নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:একটি নদী পারাপারের মহড়ার সময় ভারতের লাদাখের লেহের দৌলত বেগ ওল্ডি এলাকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (এলএসি) কাছে একটি টি-৭২ ট্যাঙ্ক দুর্ঘটনায় পাঁচ সেনা নিহত হয়েছেন।

এক সেনা কর্মকর্তার বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, দিবাগত রাতে ১টার দিকে ঘটে যাওয়া এ দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে একজন জুনিয়র কমিশনড অফিসার বা জেসিও রয়েছেন।

সরকারী সূত্র জানিয়েছে, সৈন্যরা এদিন প্রশিক্ষণ মিশনে ছিল এবং তাদের টি-৭২ ট্যাঙ্কে লেহ থেকে ১৪৮ কিলোমিটার দূরে মন্দির মোড়ের কাছে বোধি নদী অতিক্রম করছিল। এ সময় পানির স্তর হঠাৎ বাড়তে শুরু করে। পানির তোড়ে সৈন্যসহ ট্যাঙ্ক নদীতে তলিয়ে যায়।

ঘটনার পর উদ্ধার অভিযান শুরু হয় এবং দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচ সেনার সবার মরদহে উদ্ধার করা হয়েছে।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১২৪জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে সংবাদ সম্মেলনের নামে খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর সাঁওতালদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে বাংলাদেশ খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালনসহ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ রোডস্থ ফুলবাড়ী প্রেসক্লাবের সম্মুখে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর বিভিন্ন বয়সী সাঁওতাল নারী-পুরুষ। 

মানবন্ধন কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন উপজেলা শাখা বাংলাদেশ খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশনের সভাপতি সভাপতি সলোমন মারন্ডী, সাধারণ সম্পাদক সোম কিস্কু, সহ-সাধারণ সম্পাদক যহন টুডুু, সদস্য জুসিপিনা মার্ডী, ফ্রান্সিলিয়া মুর্মু, উপদেষ্টা ফাদার জসিম মুর্মু, কমল কিস্কু, রিন্টু সরেন, কমল হেম্বম প্রমুখ।

মানববন্ধন শেষে বেলা ১১ টায় প্রেসক্লাব সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে খ্রীষ্টিয়ান ধর্মাবলম্বীর সাঁওতালদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমল কিস্কু। এসময় অর্ধশত সাঁওতাল নারী পুরুষসহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 

লিখিত বক্তব্যে কমল কিস্কু বলেন, গত ৭ জুন সারি ধর্ম সংগঠনের ফুলবাড়ী প্রেসক্লাব সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের নামে খ্রীষ্টিয়ান সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে যে অপপ্রচার করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে খ্রীষ্টিয়ান সম্প্রদায় ও খ্রীষ্টিয়ান এসোসিয়েশন প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছে। সে সংবাদ সম্মেলনে পাঠকৃত বক্তব্য সাঁওতালদের নিয়ে মিথ্যা, বানোয়াট ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মনগড়া কাল্পনিক ঘটনার কথা। শুধুমাত্র সাঁওতাদেরকে সামাজিকভাবে বিভ্রান্তি সৃষ্টি ও হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দ্যেশে করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনটি। সেখানে বলা হয়েছিল, ‘সাঁওতাল জাতি যদি খ্রীষ্টিয়ান ধর্ম পালন বা গ্রহণ করে তাহলে তাদের জাতীয়তা বিলুপ্ত হয়ে যায় এবং তারা সাঁওতালদের কোনপ্রকার সংস্কৃতি, কৃষ্টিসহ কিছু পালন করতে পারবে না। যারা সাঁওতাল থেকে খ্রীষ্টিয়ান হয়েছে তারা খ্রীষ্টিয়ান জাতিতে রুপান্তর হয়ে যায়।’ আমরা দৃঢ়ভাবে এই যুক্তির প্রতিবাদ জানাচ্ছি যে, সাঁওতাল জাতি খ্রীষ্টিয়ান হলেও; তারা কোনভাবে কোন জাতিতে রূপান্তির হয়না। কারণ খ্রীষ্টিয়ান কোন জাতি নয়, এটি একটি ধর্ম। তাদের বিশ্বাস বা ধর্মের কর্মকা- শুধু পরিবর্তন হয়। তারা বলেছেন, ‘সাঁওতালদের ধর্মের নাম হচ্ছে সারি ধর্ম।’ কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে যে, বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের রেকর্ডে এমন ধর্মের কোন উল্লেখ নেই। প্রাচীনকালে সাঁওতালদের নিজস্ব কোন ধর্ম গ্রন্থ ছিলনা। সাঁওতাল জাতি খ্রীষ্টিয়ান হওয়ার পূর্বে যুগ যুগ ধরে সাঁওতাল সম্প্রদায় প্রকৃতি পূজারী, অন্যদের ধর্ম অনুসরণ করে মূর্তিপূজা, মারাংবুরু, চাঁন্দু বংঙ্গাতে বিশ্বাসী হিসাবে ধর্ম-কর্ম পালন করে আসছেন। কিন্তু সারি ধর্ম বলে কোন ধর্ম ছিলো না।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫৪ বছর পর এই ধর্মের আর্বিভাব কোথায় থেকে? পূর্বে যেকোন ধর্ম পালন করুক না কেন, খ্রীষ্টিয়ান হওয়ার পর শুধু সেই ধর্মের কর্মকা-ের পরিবর্তন হয়। যারা আজকে প্রতিবাদ করছে, তারা অবশ্যই কোন না কোন মূর্তি পূজা করছে। তাহলে তাদেরকে কেন হিন্দু জাতিতে রূপান্তরিত করা হচ্ছে না? তাদেরকে কেন হিন্দু সম্প্রদায় স্বীকৃতি দিচ্ছে না? যদি কোন সাঁওতাল সারি ধর্ম পালন করে তাদের যুক্তি অনুযায়ী তারা আর সাঁওতাল জাতি হিসাবে দাবি করতে পারে না। তারা সারি জাতিতে পরিণত হয়। যারা খ্রীষ্টিয়ান ধর্ম নিয়ে সংবাদ সংম্মেলন করছে, তারা পূর্বে কি ধর্ম পালন করতো আমরা জানতে চাই? খ্রীষ্টানদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ নিয়ে আসা হয়েছে তাতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, খ্রীষ্টিয়ান মিশনারীরা বিভিন্নভাবে লোভ লালসা দিয়ে সাঁওতালদেরকে খ্রীষ্টিয়ান করছে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও সাম্প্রদায়িক ধর্ম অনুভূতিতে আঘাতও বটে।

তিনি আরো বলেন, খ্রীষ্টিয়ান মিশনারী ফাদার, পালক, পুরোহিত ও প্রচারকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের কাছে অভিযোগ করা হয়েছে যে, তাদের বিরুদ্ধে যেন রাষ্ট্র ব্যবস্থাগ্রহণ করে। স্বাধীনতার পর যখন দেশ ধ্বংশের দ্বারপ্রান্তে তখন অনেক মিশনারীরা বিভিন্নভাবে জাতিকে, সরকারকে এবং পিছিয়ে পড়া জাতিকে সাহায্য ও সহযোগীতা করছে। তাদের সে সংবাদ সম্মেলন পুরোপুরিভাবে সাঁওতাল জাতির মধ্যে দাঙ্গা লাগানোর প্রচেষ্টা। 

তথাকথিত সারি ধর্ম সংগঠনের কার্যক্রম পর্যালোচনা পূর্বক বিভেদ সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাষনিক ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্টি (সাঁওতাল) সম্প্রদায়ের জীবনমান রক্ষার্থে প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেন তিনি। 


আরও খবর



ইসলামপুরে পূর্ব শত্রুতায় কৃষককে কুপিয়ে হত্যা, আটক ৩

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৮জন দেখেছেন

Image
লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর) প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে আসাদ উল্লাহ ওরফে নিদু কাজী (৪৯) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায়  ৩ জনকে আটক করে আদালত প্রেরণ করেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের শিকার নিদু কাজী উপজেলার নোয়ারপাড়া ইউনিয়নের ব্রহ্মত্তোর গ্রামের মৃত আবুল কাসেম কাজীর ছেলে। 

হত্যাকাণ্ডের শিকার নিদু কাজীর বড় ভাই জামাল উদ্দিন কাজী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে।  থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন তালুকদারের নেতৃত্বে র্যাবের সহায়তায় রাতে অভিযান চালিয়ে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকায় ওই তিন জনকে আটক করে।

আটককৃতরা হলো, একই ইউনিয়নের তারতাপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল হাকিম মণ্ডলের ছেলে কবির হাসান চায়না (৪৫), তার বড় ভাই জিয়াউল (৪৮) এবং তার  ভাতিজা মোখলেস (৩০)। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে,পূর্ব থেকে হত্যাকাণ্ডের শিকার কৃষক নিদু কাজীর সঙ্গে কবির হাসান চায়নার মধ্যে পারিবারিক ও সামাজিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো। ঈদের দিন বিকেলে তারতাপাড়া গ্রামের জায়েদা মোড় এলাকায় ধারালো দা দিয়ে নিদু কাজীকে কুপিয়ে জখম করে চায়নাসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় নিদু কাজীকে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। 

মামলা বাদী জামাল উদ্দিন কাজী বলেন, 'পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পাশ্ববর্তী মাহমুদপুর বাজারে যাওয়ার পথে তারতাপাড়ার জায়েদা মোড় এলাকায় আমার ছোটো ভাই নিদু কাজীকে দারালো দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে চায়নাগংরা। 

ইসলামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন তালুকদার বলেন, 'হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত  ৩ জনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

আরও খবর



সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নিলেন জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান সেনাবাহিনীর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন । তিনি জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

রবিবার (২৩ জুন) এ তথ্য জানায় আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)। আগামী তিন বছরের জন্য সেনাপ্রধানের দায়িত্বে থাকবেন তিনি।

গত ১১ জুন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামানকে ২৩ জুন থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে জেনারেল পদে পদোন্নতি দিয়ে তিন বছরের জন্য সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে এক বিজ্ঞপ্তিতে আইএসপিআর জানায়, ওয়াকার-উজ-জামান ১৯৮৫ সালের ২০ ডিসেম্বর ১৩তম দীর্ঘমেয়াদি কোর্সের সঙ্গে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভ করেন। তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ, মিরপুর এবং যুক্তরাজ্যের জয়েন্ট সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ থেকে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন। এ ছাড়া তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘মাস্টার্স অব ডিফেন্স স্টাডিজ’ এবং যুক্তরাজ্যের কিংস কলেজ, ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে ‘মাস্টার্স অব আর্টস ইন ডিফেন্স স্টাডিজ’ ডিগ্রি অর্জন করেন।

ওয়াকার-উজ-জামান সুদীর্ঘ ৩৯ বছরের বর্ণাঢ্য সামরিক জীবনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদের পাশাপাশি নবম পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং এবং সাভার এরিয়ার এরিয়া কমান্ডার, সেনা সদরে সামরিক সচিব এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া তিনি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আর্মড ফোর্সেস ডিভিশনে প্রধানমন্ত্রীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এরিয়া কমান্ডার সাভার এরিয়া ও জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) নবম পদাতিক ডিভিশন হিসেবে ওয়াকার-উজ-জামান টানা তিন বছর অত্যন্ত সফলভাবে বিজয় দিবস প্যারেড ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬-এর প্যারেড কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। বিরল এই কৃতিত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ‘সেনাগৌরব পদক’ (এসজিপি) পান।

ওয়াকার-উজ-জামান স্টাফ হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়োজিত একটি ব্রিগেড, স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড ট্যাকটিকস (এসআইএন্ডটি) এবং সেনা সদরে বিভিন্ন পদবি ও নিয়োগে দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া তিনি প্রতিক্ষণ হিসেবে জেসিও এনসিও একাডেমি (জেএনএ), স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড ট্যাকটিকস ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস সাপোর্ট অ্যান্ড ট্রেনিংয়ে (বিপসট) অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে সব পদবির দেশি-বিদেশি সেনাসদস্যদের প্রশিক্ষণ দেন।

জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান জাতিসংঘের ব্যানারে মিলিটারি অবজারভার হিসেবে অ্যাঙ্গোলা এবং সিনিয়র অপারেশন অফিসার হিসেবে লাইবেরিয়াতে দায়িত্ব পালন করেন। সেনাবাহিনীতে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিনি ‘অসামান্য সেবা পদকে’ (ওএসপি) ভূষিত হন। তার স্ত্রীর নাম সারাহনাজ কমলিকা জামান। এ দম্পতির সামিহা রাইসা জামান ও শাইরা ইবনাত জামান নামে দুই কন্যাসন্তান রয়েছে।


আরও খবর