Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

সিলেটে পাম্প বন্ধ, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত:Saturday ০৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির খবরে সিলেটের পেট্রলপাম্পগুলো শুক্রবার রাত ৯টা থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় মোটরসাইকেলসহ যানবাহনগুলোতে তেল ক্রয় করতে আসা ভোক্তারা পড়েছেন চরম বিপাকে। এ নিয়ে পাম্পগুলোতে ঘটছে হুলুস্থুল কাণ্ড। নগরের প্রত্যেকটি পাম্পে গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালকদের ব্যাপক ভিড় দেখা গেছে।

এর প্রতিবাদ সিলেট নগরের পাঠানটুলা এলাকায় ‘নর্থইস্ট ওয়েল পেট্রলপাম্প ও নর্থইস্ট সিএনজি রি-ফুয়েলিং স্টেশন’ এ তেল না পেয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখেছেন কয়েক শতাধিক যানবাহন ও মোটরসাইকেল চালক। একই অবস্থা নগরের বন্দরবাজার, সোবহানীঘাট ও আম্বরখানা এলাকায় পেট্রলপাম্পগুলোতে। এর ফলে নগরের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ হওয়ায় শত শত যানবাহন সড়কগুলোতে আটকেপড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকে।

জ্বালানি তেল নেই- এই অজুহাতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দিয়ে এর মালিকরা নিজেদের মুঠোফোন বন্ধ করে দিয়েছেন। আর তেল ক্রয় করতে আসা যানবাহনের চালক ও মালিকরা বলছেন অধিক মুনাফার লোভে ভোক্তাদের জিম্মি করেছেন জ্বালানি ব্যবসায়ীরা। পাম্পগুলো বন্ধ থাকায় গ্যাসচালিত যানবাহনগুলো গ্যাস পাচ্ছে না। এ নিয়ে এক ধরনের অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নগরের পাঠানটুলাস্থ ‘নর্থইস্ট ওয়েল পেট্রলপাম্প ও নর্থইস্ট সিএনজি রি-ফুয়েলিং স্টেশন’ বন্ধ করেন মালিকপক্ষ। এরপরই সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের পাঠানটুলা পেট্রলপাম্পের সামনে রাস্তায় টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে লোকজন সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এসময় বিক্ষোভকারীরা ‘দে দে তেল দে’, ‘পেট্রলপাম্প বন্ধ কেন’, ‘হঠাৎ করে জ্বালানি তেলের দাম বাড়লো কেন জবাব দে, নইলে গদি ছেড়ে দে’সহ বিভিন্ন স্লোগান দেন।

রাত সাড়ে ১২টায় ঘটনাস্থলে থাকা সিলেট নগরের দক্ষিণ বাগবাড়ি এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী সাজন রায় সাজু জাগো নিউজকে জানান, তিনি মোটরসাইকেল নিয়ে রাত পৌনে ১০টায় নগরের পাঠানটুলাস্থ ‘নর্থইস্ট ওয়েল পেট্রলপাম্প ও নর্থইস্ট সিএনজি রি-ফুয়েলিং স্টেশন’ এ মোটরসাইকেলে পেট্রল নিতে এসেছি। কিন্তু পাম্পটি বন্ধ পেয়েছি। পাম্প কর্তৃপক্ষ এটি বন্ধ করে চলে গেছেন। কিন্তু মূল কথা হচ্ছে তেলের দাম বাড়ার খবরে অধিক মুনাফার লোভেই পাম্পটি বন্ধ করা হয়েছে। তেল না থাকলে তো তারা মেশিন অন করে দেখাতে পারতেন জ্বালানি তেল শেষ। এই পাম্পে সিএনজিও বিক্রি করা হয়। কিন্তু পাম্প বন্ধ থাকায় গ্যাস নিতে আসা যানবাহনগুলোর চালকরাও বিপাকে পড়েছেন।

একটি বহুমুখী প্রাইভেট কোম্পানির সেলস রিপ্রেজেনটেটিভ হিসেবে কাজ করা মো. আরিফুজ্জামান রবিন জাগো নিউজকে বলেন, সরকার হঠাৎ করে পেট্রলের দাম ৩৫ থেকে ৪০ টাকা প্রতি লিটারে বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে, যা অস্বাভাবিক। এরপর থেকে পাম্পগুলোতে জ্বালানি তেলও পাওয়া যাচ্ছে না। পেট্রল ফুরিয়ে যাওয়ায় বাইক নিয়ে বিপাকে পড়েছি।

jagonews24

সড়ক অবরোধের কারণে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের পাঠানটুলা এলাকায় যানজটে আটকেপড়া ট্রাকচালক সোহেল রানা জাগো নিউজকে বলেন, রাত সোয়া ১০টা থেকে অবরোধের কারণে এখানে আড়াই থেকে তিন ঘণ্টা ধরে বসে আছি। ঢাকা থেকে বোতলজাত পানি নিয়ে সিলেটের কাজিরবাজার যাচ্ছি। কিন্তু অবরোধের কারণে পাঠানটুলা থেকে বের হতে পারছি না।

এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে থাকা সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ মিঞা জাগো নিউজকে রাত সোয়া ১২টায় বলেন, পেট্রলপাম্প বন্ধ থাকায় অনেক লোক সড়ক অবরোধ করে রেখেছেন। ‘নর্থইস্ট ওয়েল পেট্রলপাম্প ও নর্থইস্ট সিএনজি রি-ফুয়েলিং স্টেশন’ বন্ধ করে মালিকপক্ষ মুঠোফোন বন্ধ করে রেখেছেন। এ অবস্থায় পাম্পের মালিক জুবায়ের আহমদ চৌধুরীকে পাচ্ছি না। আবার কিছু পাম্পের মালিকরা বলছেন কোম্পানি থেকে তেল কম পাওয়ায় তাদের তেল শেষ হয়ে গেছে। এ অবস্থা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। সরকার বিষয়টি দেখছে। আমরা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ করছি। আশা করি আগামীকাল এই সমস্যার সমাধান হবে।

এ বিষয়ে জানতে ‘নর্থইস্ট ওয়েল পেট্রলপাম্প ও নর্থ ইস্ট সিএনজি রি-ফুয়েলিং স্টেশন’র মালিক জুবায়ের আহমদ চৌধুরীর মুঠোফোনে রাত ১২ থেকে একাধিকবার কল করা হলও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।


আরও খবর



নতুন ভোটার তালিকা হালনাগাদ

কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

নির্বাচন কমিশন বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহের মধ্য দিয়ে নতুন ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচি শুরু করেছে৷ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের ৬৫ নং ওয়ার্ডে লতিফ ভুইয়া কলেজে হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রনয়ন কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেছেন কাউন্সিলর আলহাজ্ব সামশুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু।


তিনি শেষদিনে হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রনয়ন কর্মসুচীতে ৬৫ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের আবেদন শনাক্ত করেন।এ সময় নারী ভোটারদের যাতে কোন প্রকার হয়রানী হতে না হয় সেদিকে বিশেষ লক্ষ্য রাখেন।বুথগুলিতে শৃঙ্খলারক্ষায় বিশেষ ভুমিকা রাখেন তিনি।


 এবার ১৫ বছর ও তার বেশি বয়সি নাগরিকদের তথ্য নেবে নির্বাচন কমিশন বা ইসি৷ ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম, তারা এবার নিবন্ধনের সুযোগ পাবে৷গত ১০ জুন থেকে দেশে শুরু হয়েছে ভোটার তালিকা নিবন্ধন।সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে স্বাক্ষর দিতে হবে এবং তার ১০ আঙুলের ছাপ, চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি এবং ছবি তুলে নিবন্ধন সম্পন্ন করা হবে৷


ভোটারদের তথ্য সংগ্রহ ও নিবন্ধনের কার্যক্রম চলবে এ বছরের ২০ নভেম্বর পর্যন্ত৷যাদের জন্ম ২০০৫ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভুক্ত করে ভোটার ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে ২০২৩ সালের ২ মার্চ৷যাদের জন্ম ২০০৬ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভূক্ত করে ভোটার তালিকা প্রকশ করা হবে ২০২৪ সালের ২ মার্চ৷যাদের জন্ম ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভূক্ত করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকশ করা করা হবে ২০২৫ সালের ২ মার্চ৷


প্রায় ৫৬ হাজার তথ্য সংগ্রহকারী এবং ১১ হাজার ৩০০ জন সুপারভাইজার এবারের হালনাগাদ কার্যক্রমে যুক্ত থাকবেন৷ দেশের নাগরিকদের মধ্যে ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম এবং বাদ পড়া নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে এই হালনাগাদে৷


আরও খবর



দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানিয়েছ সরকার: ফখরুল

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
Image

বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার দেশকে ‘ব্যর্থ রাষ্ট্রে’ পরিণত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দেশের কোনো প্রতিষ্ঠান ভালোভাবে গড়ে ওঠেনি। ভালো স্বাস্থ্য ও শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি। শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি। ফলে আমাদের বাংলাদেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এর পেছনে বড় অবদান আওয়ামী লীগের। স্বাধীনতার পর তারাই ক্ষমতায় এসেছিলো। কিন্তু সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পরিবর্তে একদলীয় শাসনব্যবস্থা কায়েম করেছিলো। মানুষের বাক-স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় আজও আওয়ামী লীগ একদলীয় শাসনব্যবস্থা কায়েম করার চেষ্টা করছে।

রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপিপন্থি চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের দর্শনকে ধারণ করে ড্যাব প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যারা দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করছে, মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেশের নানা প্রান্তে ছুটে যাচ্ছে। বিশেষত করোনাকালীন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

ড্যাবকে আরও বেশি সুসংগঠিত হতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পেশাজীবীরা রাজনীতি সচেতন হবেন, কিন্তু রাজনীতির সঙ্গে তাদের মিশে যাওয়াটা উচিত নয়। দেশ আজ সম্পূর্ণ ভয়াবহ সংকটে। অবৈধ সরকার রাষ্ট্রক্ষমতায় চেপে বসেছে। গোটা বিশ্বকে বোকা বানিয়ে ক্ষমতা দখল করে আছে তারা।

ক্ষমতাসীনদের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০০৮ সালে কারচুপির নির্বাচন করেছে। ২০১৪ সালে ভুয়া নির্বাচন করেছে। ২০১৮ সালে কী হয়েছে তা সবার জানা। সংসদ হলো রাবার স্ট্যাম্প। একজন কথা বলেন আর বাকিরা বলেন ‘বেশ বেশ’। জনগণকে নির্বাচনবিমুখ করেছে সরকার।

তিনি বলেন, আজকে অবিশ্বাস্য হারে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। মানুষ এমনিতেই হিমশিম খাচ্ছে। এমনই এক সংকটকালে জ্বালানির দাম বাড়ানো চরম অমানবিক কাজ। এ সরকার ভয়াবহ।

সরকারের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, তারা দেশকে নিজেদের পৈতৃক সম্পত্তি মনে করছে। বিএনপির ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা। খালেদা জিয়া-তারেক রহমানের নামে মিথ্যা মামলা। এসবের অবসান হতে হবে। সরকার জেনেশুনে দেশকে ধ্বংস করছে।

তিনি বলেন, বিএনপির শাসনামলে দেশে ইউরিয়া সার ৩০০ টাকায় (৫০ কেজির বস্তা) মিলতো। এখন একই বস্তার দাম ১৩০০ টাকারও বেশি। তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ সবকিছুর দাম বাড়ায় মানুষ ফসল উৎপাদন কমিয়ে দিচ্ছে। কৃষকেরা পেশা পরিবর্তন করছে। এতে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা হুমকিতে পড়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশে এমন এক সময় জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হলো যখন আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমেছে। সরকার জ্বালানির দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট কাটছে। মানুষের পিঠ আজ দেয়ালে ঠেকেছে। জ্বালানির দাম বাড়ায় সবকিছুর ব্যয় বাড়বে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের যে আন্দোলন তা শুধু বিএনপির নয়। এ আন্দোলনে সবাইকে সম্পৃক্ত হতে হবে। দেশে যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। খালেদা জিয়ার মুক্তির পাশাপাশি তারেক রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করতে হবে। এ লক্ষ্যে সব পেশাজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

ড্যাব সভাপতি অধ্যাপক ডা. হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ডা. মেহেদী হাসান ও ডা. মো. আবুল কালামের যৌথ পরিচালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন এগ্রিকালচারিস্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এ্যাব) রিয়াজুল ইসলাম রিজু, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের কাদের গণি চৌধুরী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শামীমুর রহমান শামীম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া, তারেক রহমান এবং ড্যাবের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার ও দেশবাসীর জন্য সুস্থতা কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১৭৯২ মৃত্যু, শনাক্ত ৮ লাখ ২২ হাজার

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ১৭৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৮ লাখ ২২ হাজার ৪৬৬ জন। এছাড়া একদিনে সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ২৭ হাজার ৩৬২ জন।

এ নিয়ে বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৪ লাখ ১৪ হাজার ২৫৩ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭ কোটি ৯৪ লাখ ৩৯ হাজার ৬৮৬ জনে। এছাড়া করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৫৪ কোটি ৯৪ লাখ ১৫ হাজার ৭১২ জন।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি করোনা শনাক্ত হয়েছে জাপানে, ২ লাখ ৭ হাজার ২৩৬ জনের। দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১২২ জন। এ সময়ে সবেচেয়ে বেশি ২৭৬ জন মারা গেছেন ব্রাজিলে। এই ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৪৫ হাজার ৩০৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ২৬০ জন। দেশটিতে এ সময়ে ৯৩ হাজার ২১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকার শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৯ কোটি ২৯ লাখ ১৭ হাজার ৬৫৮ জনে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১০ লাখ ৫৪ হাজার ৪২২ জন। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন আট কোটি ৭৯ লাখ ৮ হাজার ৪৯ জন।

এছাড়া ফ্রান্সে একদিনে মারা গেছেন ১১২ জন, ইতালিতে ১৯৯ জন, অস্ট্রেলিয়ায় ১২৫ জন, মেক্সিকোয় ১৫১ জন, তাইওয়ানে ৬২ এবং চিলিতে ৭২ জন মারা গেছেন।

এসময়ে বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ২৮৪ জনে। এসময়ে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৬১৮ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ৪ হাজার ১৮৮ জনে।


আরও খবর



এপেক্সে চাকরির সুযোগ

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

এপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেডে ‘এক্সিকিউটিভ’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৬ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: এপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেড
বিভাগের নাম: ইনবাউন্ড সাপ্লাই চেইন/কমার্শিয়াল (ইউনিট-১)

পদের নাম: এক্সিকিউটিভ
পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিএসসি
অভিজ্ঞতা: ০২-০৫ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: ২৬-৩২ বছর
কর্মস্থল: যে কোনো স্থান

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ২৬ আগস্ট ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর



টি-টোয়েন্টিতে পাওয়ার প্লে এবং পাওয়ার হিটিং নিয়ে কী ভাবছেন সোহান!

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

স্কিল, টেকনিক, ট্যাকটিস কিংবা সাহস এবং সময়মতো ব্যাট ও বল হাতে জ্বলে ওঠার পাশাপাশি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে পাওয়ার প্লে’র সঠিক ব্যবহারে পাওয়ার হিটিংয়ের রয়েছে বিরাট গুরুত্ব।

ইনিংসের শুরুতে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ফিল্ডিংয়ের বিধিবদ্ধতা কাজে লাগানোর মত দক্ষতা থাকতে হয়। যার ওপর নির্ভর করে প্রতিপক্ষ ফিল্ডারদের মাথার ওপর দিয়ে হাত খুলে ব্যাট চালিয়ে রানের গতি বাড়ানোর দারুন সুযোগ থাকে। এই সুযোগটা কাজে লাগাতে প্রাণপন চেষ্টা থাকে সব দলের।

এমনিতে ওভার পিছু রান তোলার গতি যেমনই থাকুক না কেন, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বেশিরভাগ দলের লক্ষ্য থাকে পাওয়ার প্লে‘র ৬ ওভারে অন্তত ৮ রান করে তুলে রানকে পঞ্চাশের আশপাশে নিয়ে যাওয়া। তাহলে পরের ১৪ ওভারে সাড়ে ৬ আর ৭ রান করে তুললেও ২০ ওভার শেষে দেড়শো পেরিয়ে চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড়িয়ে যায়। এ কারণে পাওয়ার প্লে কাজে লাগানোটা এখন প্রতিটি দলের গেম প্ল্যানেই থাকে।

পাশাপাশি বিগ ও পাওয়ার হিটিং নেয়াটাও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যাটিং সাফল্যের পূর্বশর্ত বলে ধরা হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তান এবং ইংল্যান্ড এই পাওয়ার প্লে‘তে বেশ সিদ্ধহস্ত।

কিন্তু সে তুলনায় পাওয়ার প্লে‘র মত পাওয়ার হিটিংয়েও রাজ্যের দুর্বলতা বাংলাদেশের ব্যাটারদের। এই দুই জায়গার ঘাটতিটাই দিনকে দিন টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে পিছিয়ে দিচ্ছে টাইগারদের।

শুরুতে পাওয়ার প্লে কাজে লাগিয়ে ৬ ওভারে ৪৮ থেকে ৫০ রান তোলা বহুদুর, ওই সময়ের মধ্যে বেশিরভাগ ম্যাচে ৩০-৩৫ রানে ৩ থেকে ৪ উইকেট খুইয়ে উল্টো খাদের কিনারায় পড়ে যায় বাংলাদেশ। যে কারণে শেষ দিকে যে কেউ ১৫০ প্লাস থেকে ২০০ স্ট্রাইকরেটে ঝড়ো ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডটাকে একটু মোটা তাজা করবেন, সে কাজটাও হয় না। তাই ঘুরেফিরে বাংলাদেশের স্কোর থাকে জীর্ন-শীর্ণ।

জিম্বাবুয়ে সফরে সে দুই ঘাটতি পোষাতে কী ভাবছেন নতুন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান? পাওয়ার প্লে আর পাওয়ার হিটিং নিয়ে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের ভাবনা কী?

আজ রোববার মধ্যাহ্নে অফিসিয়াল প্রেস মিটেও উঠলো প্র্শ্ন। জবাব দিতে গিয়ে সোহান অকপটে স্বীকার করেছেন , টি-টোয়েন্টিতে অবশ‍্যই পাওয়ার প্লে‘র অনেক বড় গুরুত্ব থাকে। আমরা এই জায়গায় উন্নতির অনেক চেষ্টা করছি। আশা করছি, আমরা ভালো করতে পারব। ’

এর বাইরে আরও যোগ করে সোহান বলেন , একটা প্রক্রিয়ার ভেতরে অবশ্যই থাকবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে আমরা মাত্রই এসেছি, সবার সঙ্গে সামনের সিরিজ নিয়ে কথা হয়নি। জিম্বাবুয়ে গেলে নিশ্চয়ই এটা নিয়ে আলোচনা হবে। ’

পাওয়ার হিটিং নিয়ে সরাসরি কোন মন্তব্যে না গিয়ে সোহান ভীতিহীন ক্রিকেট খেলা কথা বলেন। তার অনুভব, টি টোয়েন্টি ফরম্যাটে ভয় ডরহীন ক্রিকেট খেলাটা খুব জরুরি।

তাই মুখে এমন সংলাপ, ‘আমার কাছে মনে হয়, ভীতিহীন ক্রিকেট খেলাটা খুব গু রুত্বপূর্ন। অবশ‍্যই চেষ্টা থাকবে, সেটা যেন করতে পারি। ফল নিয়ে আগে থেকে চিন্তা অনেক সময় প্রক্রিয়া ঠিক থাকে না। প্রক্রিয়টিও খুব গুরুত্বপূর্ণে। ফল নিয়ে খুব বেশি কিছু চিন্তা করছি না। ভীতিহীন ক্রিকেট খেললে ইতিবাচক কিছু হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।


আরও খবর