Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে

সিলেটে ১৫ লাখ মানুষ পানিবন্দী

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৭৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিলেট নগরসহ পুরো জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। সুরমা নদী উপচে সিলেট নগরেই হাঁটু সমান পানি হয়েছে।

বাসাবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানেও পানি উঠছে। বন্যায় সিলেট জেলা ও মহানগরের প্রায় ১৫ লাখ মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন।


এসব মানুষের জন্য মোট ২১৫টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এরমধ্যে ১৯৯টি জেলা প্রশাসন ও ১৬টি আশ্রয়কেন্দ্র সিলেট সিটি করপোরেশন খুলেছে।



সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তরে জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, সিলেটে ও এর উজানে আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। এ কারণে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।



গত সোমবার (১৬ মে) দুপুর ১২টা থেকে সিলেট নগরের নিম্নাঞ্চলগুলোতে পানি প্রবেশ করতে শুরু করে। মঙ্গলবার নগরের প্রায় অর্ধেকেরও বেশি এলাকা পানির নিচে চলে গেছে। দ্রুত পানি বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষজন।


বন্যার পানি বাড়া অব্যাহত থাকায় যত সময় যাচ্ছে ততই সিলেট নগরের নতুন নতুন এলাকার বাসাবাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট তলিয়ে যাচ্ছে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র মরহুম বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের নগরের ছড়ারপারস্থ বাসভবনসহ নগরের প্রায় ৬০ ভাগ বাসাবাড়ি ও দোকানে বন্যার পানিতে হাঁটুজল দেখা দিয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসী।



আরও খবর



মিরসরাইয়ে আগুনে পুড়ে গেছে দুই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে অগ্নিকাণ্ডে দুটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দিনগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার ৬ নম্বর ইছাখালী ইউনিয়নের চরশরত বাংলাবাজারে এ ঘটনা ঘটেছে।

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা হলেন- মো. রহিম উল্লাহ ও আব্দুল মান্নান। রহিম উল্লাহর মুদি ও মান্নানের কুলিং কর্নার ছিলো। এতে অন্তত ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্ত দুই ব্যবসায়ীর।

মিরসরাইয়ে আগুনে পুড়ে গেছে দুই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান

এলাকার বাসিন্দা সালাউদ্দিন ও শাহজালাল জানান, রাত আনুমানিক ৩টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তে রহিম উল্লাহ ও আব্দুল মান্নানের দোকান পুড়ে যায়। ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মীরা ঘটনাস্থলে আসার আগেই নগদ টাকা, পণ্য সামগ্রী, আসবাবপত্র পুড়ে যায়।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা ইমাম হোসেন পাটোয়ারী জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আমাদের অফিস অনেক দূর। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই দুটি দোকান পুড়ে গেছে।


আরও খবর



জিভে জল আনা দই চিকেনের রেসিপি

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

মুরগির মাংস দিয়ে মুখরোচক সব পদ তৈরি করা যায়। চিকেন ফ্রাই থেকে শুরু করে চিকেন ঝাল ফ্রাই, চিকেন তান্দুরি, রোস্ট, চিকেন মালাইকারি, গ্রিল চিকেনসিহ বিভিন্ন পদ সবাই কমবেশি খেয়ে থাকেন প্রায়ই।

চাইলে স্বাদ পাল্টাতে তৈরি করতে পারেন দই চিকেন। গরমে এই পদ খেলে একদিকে যেমন পেট ঠান্ডা থাকবে তেমনই ভরপেট মাংস খাওয়ার আনন্দও উপভোগ করতে পারবেন। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক রেসিপি-

উপকরণ

১. মুরগির মাংস আধা কেজি
২. টকদই ১ কাপ
৩. পেঁয়াজ কুচি ৩টি
৪. আদার টুকরো এক ইঞ্চি
৫. রসুন ১০ কোয়া
৬. কাজুবাদাম ৬-৭টি
৭. বাদাম ৬-৭টি
৮. লবঙ্গ ৩টি
৯. এলাচ ১টি বড়
১০. সবুজ এলাচ ৪টি
১১. গোলমরিচ ৭-৮টি
১২. দারুচিনি ২ টুকরো
১৩. মরিচের গুঁড়া ২ টুকরা
১৪. হলুদ ১ চা চামচ
১৫. ধনে গুঁড়ো ১ চা চামচ
১৬. গরম মসলার গুঁড়া ১ চা চামচ
১৭. লবণ স্বাদ অনুযায়ী
১৮. তেল পরিমাণমতো ও
১৯. ধনেপাতা ১ টেবিল চামচ।

jagonews24

পদ্ধতি

প্রথমে একটি পাত্রে টকদই নিয়ে তাতে এক চা চামচ মরিচের গুঁড়া, হলুদ, আধা চা চামচ গরম মসলার গুঁড়া, আধা চা চামচ ধনে গুঁড়া ও লবণ দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিন। এবার দইয়ের মিশ্রণে মুরগির মাংস মিডিশয়ে ৩ ঘণ্টা মেরিনেট করার জন্য ফ্রিজে রেখে দিন।

অন্যদিকে একটি প্যানে তেল নিয়ে মাঝারি আঁচে গরম করুন। তেল গরম হওয়ার পর মেরিনেট করা মাংস দিয়ে ৭-৮ মিনিট ধরে নাড়ুন। এরপর মাংসের টুকরোগুলো একটি প্লেটে উঠিয়ে নিন।

মাঝারি আঁচে অন্য একটি প্যানে তেল গরম করে। পেঁয়াজ ভেজে নিন। তারপর তা নামিয়ে বেটে নিন। একে একে মিক্সারে রসুন, আদা, বড় ও সবুজ এলাচ, দারুচিনি, কালো গোলমরিচ ও লবঙ্গ দিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন।

চাইলে সব উপকরণ পাটায় পিষে নিতেও পারেন। এরপর পোস্ত, বাদাম ও কাজু পেস্ট করে নিন। এবার একটি প্যানে মাঝারি আঁচে তেল গরম করে রসুন-আদার পেস্ট, লাল মরিচ গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, গরম মসলার গুঁড়া ও লবল মিশিয়ে কিছুক্ষণ নাড়ুন।

তারপর পেঁয়াজের পেস্ট ও দই মিশিয়ে ৫ মিনিট ধরে নাড়ুন। তারপর এই গ্রেভিতে পোস্ত বাটা মিশিয়ে কম আঁচে আরও ৫ মিনিট নেড়ে চিকেন দিয়ে দিন।

২ কাপ পানি দিয়ে মাংস ১০ মিনিট ঢেকে রেখে সেদ্ধ করুন। মাংস ভালভাবে সেদ্ধ হয়ে গেলে ঢাকনা খুলে আঁচ বাড়িয়ে আরও ২ মিনিট ধরে আরও রান্না করুন।

ব্যাস তৈরি হয়ে গেল জিভে জল আনা দই চিকেন। রুটি, পরোটা, নান কিংবা পোলাও সব উপকরণের সঙ্গেই দারুন মানিয়ে যায় এই পদ।


আরও খবর



জামালপুরে অপহরণ-ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

জামালপুরে স্কুলছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আদনান শাকিল (২৩) নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় অন্য ধারায় তাকে আরও ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর দুই আসামি জুমান তালুকদার ও সবুজ মিয়াকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) দুপুরে জামালপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদনান শাকিল বকশীগঞ্জ উপজেলার চর কাউরিয়া সীমারপাড় এলাকার মৃত আব্দুস সালামের ছেলে। রায় ঘোষণার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. আকরাম হোসেন বলেন, অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার একটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। ওই ছাত্রীকে স্কুলে যাওয়া আসার পথে আদনান উত্যক্ত করতো। ২০২০ সালের ৩ মার্চ সকালে ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়ার জন্য চরকাউরিয়া সীমারপাড় এলাকায় যাওয়ার পথে আদনান শাকিলসহ কয়েকজন যুবক তাকে অপহরণ করে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনার ছয়দিন পর ৯ মার্চ ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অপহরণকারী আদনান শাকিলকে প্রধান আসামি ও অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করে বকশীগঞ্জ থানায় মামলা করেন। পরে কুড়িগ্রাম থেকে আসামি আদনান শাকিলকে গ্রেফতার ও ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

অ্যাডভোকেট আকরাম আরও বলেন, মামলাটিতে ১২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে আসামি আদনান শাকিলের বিরুদ্ধে ওই ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ৭ ধারায় ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ৯(১) ধারায় যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন বিচারক। উভয় সাজা একইসঙ্গে চলবে বলে রায়ে উল্লেখ করেন বিচারক। মামলাটির অপর আসামি জাহিদুল ইসলাম ওরফে জুমান তালুকদার ও সবুজ মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে খালাস দেন বিচারক।


আরও খবর



ছাত্রলীগ নেতা পলাশ হত্যার ১৯ বছর

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

‘যতবার হত্যা করো জন্মাবো আবার, দারুণ সূর্য হবো, লিখবো নতুন ইতিহাস’। জীবনের শেষ বক্তৃতায় এ কথাগুলো বলেছিলেন ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এস আর পলাশ।

২০০৩ সালের আজকের এই দিনে (১৬ জুন) রাজধানীর কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ডে সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে নিহত হন জনপ্রিয় এই ছাত্রনেতা।

ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ তথা ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের একটি জনপ্রিয় নাম ছিল এস আর পলাশ। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে। নব্বই দশক থেকেই যুক্ত হন ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে। সাধারণ ছাত্রদের কাছে ছিলেন জনপ্রিয় মুখ। অন্যদিকে টেন্ডারবাজ, সন্ত্রাসীদের কাছে পলাশ ছিলেন মূর্তিমান আতঙ্ক।

ভালো বক্তা আর মেধাবী এ ছাত্রনেতা ঢাকা কলেজে উচ্চমাধ্যমিক পড়া অবস্থায় জড়িয়ে পড়েন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে। ছাত্র রাজনীতিতে আসার আগে বিটিভিতে প্রচারিত জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘জ্ঞান জিজ্ঞাসা’র উপস্থাপনা করতেন তিনি। শিক্ষক বাবার এই সন্তান উচ্চমাধ্যমিকের গণ্ডি পেরিয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েও ভর্তি হননি।

jagonews24

ঢাকা কলেজ আর ছাত্রলীগের রাজনীতিকে ভালোবেসে স্নাতকে ভর্তি হন এ কলেজের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে। ১৯৯৮ সালে গঠিত ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পান তিনি। এ পদে ছিলেন ২০০২ সালের শেষ পর্যন্ত। ২০০৩ সালে পলাশ ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হন।

তবে বেশিদিন আর সেই দায়িত্ব পালন করতে পারেননি তিনি। ২০০৩ সালের আজকের এই দিনে (১৬ জুন) রাজধানীর কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ডে সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে নিহত হন জনপ্রিয় এ ছাত্রনেতা। তার মৃত্যুর খবর ঢাকা কলেজে পৌঁছানোর পর শুরু হয় আন্দোলন। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশে সারাদেশে আন্দোলন চলতে থাকে। ১৮ ও ১৯ জুন সারাদেশে হরতাল পালিত হয়।

পলাশ হত্যার পরদিন তার বড় ভাই মোস্তাকুর রহমান বাদী হয়ে রাজধানীর মিরপুর থানায় একটি মামলা করেন। অধিকতর তদন্তের জন্য মামলাটি ডিবিতে স্থানান্তর হয়। তদন্ত শেষে ২০০৫ সালে ডিবি মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দেন।

এস আর পলাশ যখন ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তখন ওই কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন রাউফুর রহমান চৌধুরী সানী। তিনি বলেন, ‘তিনি এমন একজন মানুষ ছিলেন, কারও নাম একবার শুনলেই আর ভুলতেন না। যখনই দেখা হতো তাকে নাম ধরে ডাকতেন।’

রাউফুর রহমান চৌধুরী সানী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় ক্লাস শেষে আমরা মিছিল বা অন্যান্য কর্মসূচি করে গভীর রাতে হলে ফিরতাম। সবাই ক্ষুধার্থ। সারাদিন প্রোগ্রাম করে ক্লান্ত-শ্রান্ত হয়ে ওই রাতে নিউমার্কেট বা নীলক্ষেতে গিয়ে খাবার খাওয়ার ইচ্ছে শক্তি থাকতো না। ওনার খাবারের প্লেটে আলাদা একটা ডিম রাখা হতো। ওনি ডিম না খেয়ে ঝোল খেতেন আর আমাদেরকে ডিম ভেঙে ভাগ করে দিতেন। কোনো গরিব শিক্ষার্থী সম্পর্কে জানতে পারলে হলে সিটের ব্যবস্থা করে দিতেন। দল-মত নির্বিশেষে ওনাকে সবাই ভালোবাসতো। সবার আস্থা ভালোবাসা অর্জন করতে পেরেছিলেন।’

jagonews24

পলাশের সঙ্গে একই কমিটিতে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন ফিরোজ আল আমিন। বর্তমানে তিনি কেন্দ্রীয় যুবলীগের উপশিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক।

এস আর পলাশের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, ‘আমি ও পলাশ একই ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলাম। যখন ওর সঙ্গে আমার পরিচয় হয়, তখন আমি ছাত্রলীগের কর্মী। তখন থেকেই আমরা ঘনিষ্ঠভাবে একসঙ্গে রাজনীতি করতাম। ঢাকা কলেজে ভর্তির পর থেকেই আমরা ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় হই। তখন চরম দুঃসময় ছিল। আমরা ১০-১৫ জন মিছিল করতাম। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি সক্রিয় রাজনীতিতে ছিলেন। মেধাবী ছাত্র ছিলেন। একজন বন্ধু হিসেবেও তাকে কাছ থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে।’

১৯৯৮ সালে ঢাকা কলেজের ওই কমিটির ক্রীড়া সম্পাদক ছিলেন মো. সায়েম ইবন ইসলাম অনিক। পরে তিনি ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হন।

অনিক জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাজনীতির জন্য রাজনীতি করা, দেশের জন্য রাজনীতি করা, রাজনীতিকে ভালোবেসে রাজনীতি করা- এ সবকিছু মিলিয়ে তিনি স্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে রাজনীতি করেছেন। দলের জন্য কাজ করেছেন, দলকে কীভাবে গোছানো যায় সেই কাজগুলো করে গেছেন।’

এদিকে, এস আর পলাশের মৃত্যুবার্ষিকীতে বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সকাল ১০টায় রাজধানীর মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী করবস্থানে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাবে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতারা। বাদ জোহর ঢাকা কলেজ জামে মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ। এতে ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেবেন।


আরও খবর



এসআই নিয়োগের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ৮৭৫

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ পুলিশের ক্যাডেট সাব-ইন্সপেক্টর অব পুলিশ (নিরস্ত্র) পদে নিয়োগের লিখিত ও মনস্তত্ত্ব পরীক্ষাসহ বুদ্ধিমত্তা ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ৮৭৫ জন প্রার্থী প্রাথমিকভাবে নিয়োগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন।

বাংলাদেশ পুলিশের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.police.gov.bd-এ ফলাফল পাওয়া যাবে।

এসআই নিয়োগের চূড়ান্ত ফল দেখতে এখানে ক্লিক করুন।


আরও খবর