Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

সিদ্ধিরগঞ্জে ইমন হত্যাকান্ডের ঘটনায় মামলা-আসামী ১৩

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৯৯জন দেখেছেন
Image

স্টাফ রিপোর্টারঃ মোঃআবু কাওছার মিঠু 


নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে যুবক ইমন হত্যাকান্ডের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। শুক্রবার (২৯ জুলাই) সকালে নিহতের বোন নাদিয়া আক্তার বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ ৮ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। 


এর আগে বুধবার (২৭ জুলাই) রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের বাঘমারা এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ওই যুবক খুন হন। অভিযুক্তরা হলেন মশিউর রহমান রাজু (২২) মোঃ রাসেদুজ্জামান রাসেল (২৭), মোঃ খলিল (১৮), স্বপন (১৯) ও ইব্রাহিম (২০)।


মামলাসূত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার ভাই ইমন ও শাহরিয়ার জয়কে অভিযুক্তরা আঘাত করে। তার ডাক-চিৎকার করলে অভিযুক্তরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। 


পরবর্তীতে এলাকার স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থল থেকে তার ভাই ও আমার ভাইয়ের বন্ধু জয়কে রক্তাক্ত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ইমনকে মৃত ঘোষণা করে। 


অপরদিকে শাহরিয়ার আহমেদ জয়ের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।  


মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানান, এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করে আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



অগ্রিম টিকিটেই ২ কোটি আয় করলো রণবীরের ‘শামসেরা’

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

রণবীর কাপুরের বহুল আলোচিত সিনেমা 'শামসেরা'। আজ ২২ জুলাই এটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে। ২০ জুলাই শুরু হয় এর অগ্রিম টিকিট বিক্রি। জানা গেছে, অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে প্রথম দিনেই দুই কোটি রুপি আয় হয়েছে সিনেমাটির।

'শামসেরা' দিয়ে দীর্ঘ বিরতির পর পর্দায় প্রত্যাবর্তন হলো অভিনেতা রণবীরের।

অনেক দিন ধরেই আলোচনায় রয়েছে সিনেমাটি। এটি ২০১৮ সালে ঘোষণা করা হয়েছিল। শুটিং শেষ হয় ২০২০ সালে। মহামারি করোনার কারণেই সিনেমার মুক্তি পিছিয়ে যায় কয়েক দফা। অবশেষে এটি হলে এসেছে।

রণবীর কাপুরকে শেষ দেখা গিয়েছিলো ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া 'সাঞ্জু'তে। এদিকে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার 'ব্রহ্মাস্ত্র' সিনেমা। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন আলিয়া ভাট।


আরও খবর



সফর শেষে ঢাকা ছাড়লেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই দুই দিনের সফর শেষে ঢাকা ছেড়ে গেছেন। রোববার (৭ আগস্ট) বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন তিনি। বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শনিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে ঢাকায় আসেন ওয়াং ই। সন্ধ্যায় তিনি রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এরপর রোববার সকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে রাজধানীর একটি হোটেলে বৈঠক করেন। বৈঠকে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বিষয়ে চারটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

এগুলো হলো- পিরোজপুরে অষ্টম বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ সেতুর হস্তান্তর সনদ, দুর্যোগ মোকাবিলা সহায়তার জন্য পাঁচ বছর মেয়াদি সমঝোতা স্মারকের নবায়ন, ২০২২-২৭ মেয়াদে সাংস্কৃতিক সহযোগিতা সমঝোতা স্মারকের নবায়ন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও চীনের ফার্স্ট ইনস্টিটিউট অব ওশেনোগ্রাফির মধ্যে মেরিন সায়েন্স নিয়ে সমঝোতা স্মারক।

পরে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে চীন আরও এক শতাংশ বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। সে কারণে বাংলাদেশ এখন থেকে চীনের বাজারে ৯৯ শতাংশ পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে। এর মধ্যে পোশাক শিল্পসহ অন্যান্য পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে।

সূত্র জানায়, বৈঠকে আলোচনায় উঠলে ওয়াং ই শিগগির আটকে পড়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের চীনের ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেন। এজন্য দ্রুতই ভিসা ইস্যু শুরু হবে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীনের উত্তেজনা ও তাইওয়ান ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান প্রসঙ্গে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা জানি যে তাইওয়ান ইস্যুতে আন্তর্জাতিক রীতি-নীতি মানার বিষয়টিতে তারা জোর দেয়। তারা আমাদের কাছে তাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছে। ‘এক চীন’ নীতি নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থানের জন্য তারা ধন্যবাদ জানিয়েছে। আমরা আমাদের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেছি বলে তিনি (ওয়াং ই) কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

ড. মোমেনের সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ওয়াং ই।


আরও খবর



গ্যাটকো দুর্নীতি: আইনজীবীর মাধ্যমে খালেদা জিয়ার হাজিরা

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০২ August 2০২2 | ১৮জন দেখেছেন
Image

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাজিরা দাখিল করেছেন তার আইনজীবী। রোববার (২৪ জুলাই) কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ আদালতের বিচারক আলী হোসেনের আদালতে মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। এদিন খালেদা জিয়ার পক্ষে তার আইনজীবী মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার হাজিরা প্রদান করেন।

এরপর আসামি জুলফিকার আলী, এ এম সানোয়ার হোসেন ও এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদের পক্ষে তাদের আইনজীবী অব্যাহতি চেয়ে অভিযোগ গঠনের শুনানি করেন। বিচারক খালেদা জিয়াসহ অন্য ১০ আসামির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য ৩১ আগস্ট দিন ধার্য করেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী জিয়া উদ্দিন জিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৭ জুলাই একই আদালতে মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। এদিন খালেদা জিয়া আইনজীবীর মাধ্যমে হাজিরা দেন। এরপর দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করতে শুনানি করেন। দুদকের শুনানি শেষে ২৪ জুলাই আসামিপক্ষের শুনানির জন্য দিন ধার্য করা হয়।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী তৎকালীন চারদলীয় জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এ মামলা করেন।

মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেফতার করা হয়। ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয় জরুরি ক্ষমতা আইনে। পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলার ২৪ আসামির মধ্যে ১১ জন এরই মধ্যে মারা গেছেন। মারা যাওয়া অন্য আসামিদের মধ্যে রয়েছেন- সাবেক মন্ত্রী এম সাইফুর রহমান, আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া, এম কে আনোয়ার, এম শামছুল ইসলাম, এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির মতিউর রহমান নিজামী, চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান অর্থ ও হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আহমেদ আবুল কাশেম ও বিএনপি চেয়ারপারসনের ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো।

মামলার জীবিত আসামিরা হলেন- সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান কমোডর জুলফিকার আলী, প্রয়াত মন্ত্রী কর্নেল (অব.) আকবর হোসেনের স্ত্রী জাহানারা আকবর, দুই ছেলে ইসমাইল হোসেন সায়মন ও এ কে এম মুসা কাজল, এহসান ইউসুফ, সাবেক নৌসচিব জুলফিকার হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক সদস্য এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদ, গ্লোবাল অ্যাগ্রোট্রেড প্রাইভেট লিমিটেডের (গ্যাটকো) পরিচালক শাহজাহান এম হাসিব, গ্যাটকোর পরিচালক সৈয়দ তানভির আহমেদ ও সৈয়দ গালিব আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান এ এস এম শাহাদত হোসেন, বন্দরের সাবেক পরিচালক (পরিবহন) এ এম সানোয়ার হোসেন ও বন্দরের সাবেক সদস্য লুৎফুল কবীর।


আরও খবর



ক্ষমা চাইলেন সিইসি

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

ভোটের মাঠে রাজনৈতিক দলগুলোকে ‘রাইফেল অথবা তলোয়ার নিয়ে দাঁড়াতে’ বলা বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে ইসলামী ঐক্যজোটের সঙ্গে সংলাপ শেষে তলোয়ার, রাইফেল প্রসঙ্গ উঠে আসলে ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি। কৌতুক করে ওই কথা বলেছেন বলে জানান তিনি। এসময় তিনি আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন।

রাজনৈতিক দলগুলোর উদ্দেশে সিইসি বলেন, আপনারা মাঠে থাকবেন। মাঠটা নিয়ন্ত্রণ করবেন আপনারা, যারা যারা প্রার্থী থাকবেন। আপনাদের সহযোগিতা ও সমর্থন আমি একান্তভাবে কামনা করছি।

নির্বাচনে অর্থশক্তি ও পেশিশক্তিসহ অস্ত্রশক্তির প্রসঙ্গ টেনে সিইসি বলেন, একটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। গত পরশু বলেছিলাম, যদি কেউ তলোয়ার নিয়ে আসে আপনারা রাইফেল নিয়ে দাঁড়াবেন। এটা আপনাদের বুঝতে হবে যে, একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এই কথাটা কখনো মিন করে বলতে পারেন না। আমি হয়তো অল্পশিক্ষিত। অল্পশিক্ষিত মানুষ হলেও এ ধরনের কথা বলতে পারে না। ববি হাজ্জাজ নামের এক ভদ্রলোক, ওনার কথার পিঠে আমি হেসে বললাম, তলোয়ার নিয়ে দাঁড়ালে আপনি একটা বন্দুক নিয়ে দাঁড়াবেন।

‘এটা হচ্ছে কথার পিঠে কথা, এটা কখনো একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার মিন করতে পারেন না। আর যদি মিন করতাম তাহলে তো প্রথমদিন থেকেই আমি সবাইকে বলতাম অস্ত্র সংগ্রহ করতে। আপনারা অস্ত্র সংগ্রহ করে নিজেদের শক্তিশালী করুন। এই কথা কিন্তু আমি কখনো বলিনি। আমরা অনেক সময় ইংরেজিতে একটি শব্দ আছে, হিউমার অর্থাৎ রস বা কৌতুক করে বলি।’

তিনি বলেন, এটাকে একেবারে জাতীয় পর্যায়ে অকাট্য সত্য ঐশরিক একটা বাণী হিসেবে প্রচার করা হয়েছে। মিডিয়াকে আমি খুব সম্মান করি। মিডিয়াকে অবাধ সুযোগ দিয়েছি। আমরা কোনো রাগঢাক করি নাই। আমাদের কথা এবং ছবি দুটোই ওখানে (মিডিয়া) আসে। কেন আমাদের সাংবাদিকরা এটা করলেন, বুঝে নাকি না বুঝে? ওনাদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা অক্ষুণ্ন আছে। এটা করে আমার মর্যাদাটাকে একেবারে ক্ষুণ্ন করে দেওয়া হয়েছে।

সিইসি বলেন, আপনারা বিশ্বাস করছেন, আমার বাবা বেঁচে থাকলে উনি হয়তো বিশ্বাস করতেন আমার ছেলে এ রকম বাজে পরামর্শ দিলো কেন? আমার মা বেঁচে থাকলে বিশ্বাস করতেন, বলতেন বাবা এত খারাপ পরামর্শ দিলে কেন? কারণ, তারা পেপার পড়তেন। আমি এজন্য বলবো কখনো কখনো আমরা ভুল করে থাকি। আমি হিউমার করতে গিয়েছিলাম, এটা রস। এটাকে যদি ওইভাবে প্রচার না করে বস্তুনিষ্ঠভাবে প্রচার করা যেতো যে, উনি (আমি) হিউমার করে বলেছেন। কারণ আমার ভাই এটা বিশ্বাস করেছেন, বলেছেন আমি যেন এ রকম কথা না বলি। আমি কিন্তু আপনাদের অস্ত্র নিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলতাম না, সেটা আমি মিন করি নাই। আমাকে ক্ষমা করবেন। ক্ষমা করবেন।

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে বৈঠকের শুরুর দিনে রোববার (১৭ জুলাই) জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক দলের (এনডিএম) সঙ্গে সংলাপের সময় ‘তলোয়ারের বিপরীতে রাইফেল নিয়ে দাঁড়ানো’র পরামর্শ দিলেও ওইদিন বিকেলে বাংলাদেশ কংগ্রেসের সঙ্গে সংলাপে ‘তলোয়ার-রাইফেল নিয়ে যুদ্ধ না করা’র পরামর্শ দেন তিনি। বাংলাদেশ কংগ্রেসের সঙ্গে সংলাপে এমন পরামর্শ দেন তিনি।

এনডিএমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে সিইসি বলেন, ভোটের মাঠে নিয়ম লঙ্ঘন করে কেউ যদি তলোয়ার নিয়ে দাঁড়ায়, তাহলে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলগুলোকেও রাইফেল অথবা তলোয়ার নিয়ে দাঁড়ানোর পরামর্শ দেবো।


আরও খবর



লক্ষ্মীপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
Image

লক্ষ্মীপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে মো. হোসেন আহমেদ (৫৫) নামের এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) দুপুরে সদর উপজেলার দিঘলী ইউনিয়নের উত্তর রমাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। আটকরা হলেন- জাহানারা বেগম, আব্দুর রহিম ও মেহেদি হাসান বাবুল।

নিহত হোসেন উত্তর রমাপুর গ্রামের মৃত আলী আহমেদের ছেলে। আহতরা হলেন- আমির হোসেন (৫০), তার ছেলে আকরাম হোসেন (১৯), নাজমুল ইসলাম (১৫), মনির আহমেদের ছেলে কামরুল হোসেন (২৩)।

jagonews24

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উত্তর রমাপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তার মাস্টারের পরিবারের সঙ্গে ইউনুস মাস্টারের জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। সকালে ইউনুসের ছেলে সাইফুর রহমান দুলাল, সাইদুর রহমান মিলন ও লিটন ভাড়াটে লোকজন নিয়ে বিরোধীয় জমিতে ঘর নির্মাণ করতে যান। এতে বাধা দিলে তারা সাত্তারের মেয়ে জামাই হোসেন আহমেদসহ আহতদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে আনার পথে হোসেন আহমেদ মারা যান। আহত আমির, আকরাম, নাজমুল ও কামরুলকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এদিকে ঘটনার পর থেকেই হামলাকারীরা পলাতক। এ জন্য কারো বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শামিম মোহাম্মদ আফজাল বলেন, নিহতের গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। আহতদের হাত-পা, মাথা ও পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্রে আঘাত রয়েছে। তাদের এখানে রেখে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব নয়।

লক্ষ্মীপুর শহর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (তদন্ত) জহিরুল আলম বলেন, হামলার ঘটনায় একজন মারা গেছেন। আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠানো হয়েছে৷

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) পলাশ কান্তি নাথ বলেন, ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।


আরও খবর