Logo
আজঃ সোমবার ০৫ জুন ২০২৩
শিরোনাম

সেই টাইটানিক, যা আগে দেখেনি কেউ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ১২৬জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত জাহাজ দুর্ঘটনায় টাইটানিক নামের যে বিলাসবহুল জাহাজটি সমুদ্রে ডুবে গিয়েছিল এই প্রথম তার একটি পূর্ণাঙ্গ চিত্র পাওয়া গেছে। এসব ছবি আটলান্টিকের তিন হাজার ৮০০ মিটার (১২ হাজার ৫০০ ফুট) নিচে ডুবে থাকা জাহাজটির ধ্বংসাবশেষের প্রথম ডিজিটাল স্ক্যান যা ‘গভীর সমুদ্র ম্যাপিং’ পদ্ধতি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে।

এর ফলে পুরো টাইটানিকের ত্রিমাত্রিক বা থ্রিডি অর্থাৎ দৈর্ঘ্য, প্রস্থ এবং উচ্চতা! এই তিন মাত্রার দৃশ্য পাওয়া যাচ্ছে, যা আগে কখনো দেখা যায়নি। ছবিগুলো দেখলে মনে হয় আটলান্টিক থেকে সব পানি সরিয়ে যেন সমুদ্রের তলদেশে পরিত্যক্ত বিশাল আকারের এই জাহাজটির দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে।

ছবিতে টাইটানিকের খুঁটিনাটি জিনিসও দেখা যাচ্ছে

আশা করা হচ্ছে, ১৯১২ সালে ডুবে যাওয়া এই জাহাজটিতে কী ঘটেছিল এসব দৃশ্য থেকে সে সম্পর্কে নতুন কিছু জানা যাবে। জাহাজটি তার উদ্বোধনী যাত্রায় সমুদ্রে ভাসমান বিশালাকৃতির বরফ বা আইসবার্গের সঙ্গে ধাক্কা খাওয়ার পর ডুবে গিয়েছিল। এ দুর্ঘটনায় দেড় হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। টাইটানিক যুক্তরাজ্যের সাউদাম্পটন থেকে যাত্রা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যাচ্ছিল।

টাইটানিক বিশেষজ্ঞ পার্কস স্টিফেনসন বলেন, ‘জাহাজটির বিষয়ে এখনো অনেক প্রশ্ন আছে, মৌলিক কিছু প্রশ্ন। যেসবের উত্তর জানা প্রয়োজন। টাইটানিকের বিষয়ে জল্পনা-কল্পনার ওপর ভিত্তি করে কোনো গবেষণা নয়, বরং তথ্যপ্রমাণ ভিত্তিক গবেষণাকে সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য এই মডেল বড় ধরনের প্রথম কোনো পদক্ষেপ।’

শতাধিক বছর ধরে পানির নিচে পড়ে থাকার পরেও টাইটানিকের সামনের অংশ দেখলেই চেনা যায়

সমুদ্রের তলদেশে টাইটানিকের ধ্বংসাবশেষের প্রথম সন্ধান পাওয়া যায় ১৯৮৫ সালে। এরপর থেকে জাহাজটি নিয়ে ব্যাপক গবেষণা হয়েছে। কিন্তু এটি এতো বিশাল ও সমুদ্রের গভীরে এতো অন্ধকার যে ক্যামেরা দিয়ে এতদিন এর যেসব ছবি তোলা হয়েছে সেগুলোর সবই ছিল এই ক্ষয়িষ্ণু জাহাজের কিছু অংশের ছবি বা স্ন্যাপশট। তবে কখনোই ডুবে যাওয়া পুরো জাহাজের ছবি পাওয়া যায়নি। এখন এই নতুন অনুসন্ধানে সমগ্র টাইটানিকের ছবি পাওয়া গেল।

সমুদ্রের তলায় যেভাবে পড়ে আছে

দেখা যাচ্ছে, সমুদ্রের তলায় জাহাজটি দুটো অংশে ভাগ হয়ে পড়ে আছে। জাহাজের অগ্রভাগ যেখান থেকে বাঁকা হতে শুরু করে ওই অংশ এবং জাহাজের পশ্চাদভাগ। এই দুটো অংশের মধ্যে দূরত্ব ৮০০ মিটার (দুই হাজার ৬০০ ফুট)। ভেঙে যাওয়া জাহাজটির আশপাশে প্রচুর ধ্বংসাবশেষ পড়ে আছে।

২০২২ সালের গ্রীষ্মকালে ম্যাগেলান লিমিটেড নামে একটি ডিপ-সি ম্যাপিং কোম্পানি এবং আটলান্টিক প্রোডাকশন্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান যারা এ বিষয়ে একটি তথ্যচিত্র তৈরি করছে তারা যৌথভাবে এসব ছবি তুলেছে।

নিমজ্জনযোগ্য একটি বিশেষ জাহাজে করে একদল কর্মী এই জরিপ পরিচালনা করেছে যা রিমোট কন্ট্রোলের সাহায্যে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ মিলিয়ে পুরো টাইটানিকে ছবি তুলতে তারা ২০০ ঘণ্টারও বেশি সময় ব্যয় করেছে।

নিমজ্জিত জাহাজের প্রত্যেকটি কোণ থেকে তারা সাত লাখেরও বেশি ছবি তুলেছে যেগুলোর সাহায্যে পুরো টাইটানিকের একটি ত্রিমাত্রিক বা থ্রিডি ছবি তৈরি করা হয়েছে।

জাহাজের পেছনের অংশ

এই অভিযানের পরিকল্পনায় নেতৃত্ব দিয়েছেন ম্যাগেলান লিমিটেডের গেরহার্ড সেফার্ট। তিনি বলেন, এখনো পর্যন্ত পানির নিচে ছবি তোলার যতো প্রকল্প তিনি পরিচালনা করেছেন তার মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড়।

তিনি আরও বলেন, ‘গভীরতা প্রায় চার হাজার মিটার। আমাদের সামনে ছিল এক বিশাল চ্যালেঞ্জ। একইসঙ্গে সেখানে পানির স্রোতও আছে। আমাদের কোনো কিছু স্পর্শ করার অনুমতি ছিল না, যাতে জাহাজের ধ্বংসাবশেষের আরও ক্ষতি না হয়। আরেকটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে আপনাকে প্রত্যেক বর্গসেন্টিমিটারের ম্যাপিং করতে হবে। এমনকি জাহাজের যেসব অংশ আগ্রহ-উদ্দীপক নয় সেগুলোরও। যেমন যেখানে ধ্বংসাবশেষ ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে সেখানকার মাটির ছবি। কারণ জাহাজের বিভিন্ন অংশকে জোড়া দেওয়ার জন্য এগুলোও ছবি প্রয়োজন।

টাইটানিকের যা কিছু দেখা যাচ্ছে

ছবিতে টাইটানিকের বিশালত্বের পাশাপাশি এই জাহাজের একটি প্রপেলারের সিরিয়াল নম্বরের মতো ছোটখাটো বিষয়ও ধরা পড়েছে। জাহাজটির সম্মুখভাগে মরিচা ধরে ঢাকা পড়ে গেছে। তার পরেও শতাধিক বছর আগে ডুবে যাওয়া এই জাহাজটিকে চেনা যায়। এর ওপরেই রয়েছে জাহাজের ডেক যেখানে একটি গর্ত রয়েছে। সেখান থেকে একটা শূন্যতা দেখতে পাওয়া যায় যেখানে একসময় ছিল জাহাজের বিশাল সিঁড়ি।

আর জাহাজের পশ্চাদভাগে বিভিন্ন ধাতব পদার্থের জঞ্জাল। জাহাজের এই অংশটি সমুদ্রের তলদেশে পড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ধসে পড়ে। টাইটানিকের আশপাশে বিভিন্ন জিনিস ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। এসবের মধ্যে রয়েছে জাহাজ থেকে খসে পড়া অলঙ্কৃত ধাতব বস্তু, মূর্তি এবং মুখ খোলা হয়নি এরকম শ্যাম্পেনের বোতল। সেখানে ব্যক্তিগত জিনিসপত্রও রয়েছে। ছবিতে দেখা যায়, সমুদ্রের তলানির ওপর অসংখ্য জুতা পড়ে আছে।

পার্কস স্টিফেনসন, যিনি বহুবছর ধরে টাইটানিকের ওপর গবেষণা করছেন। তিনি বলছেন, ‘এসব ছবি প্রথমবার দেখে তিনি ‘বিস্মিত’ হয়েছিলেন। আপনি জাহাজের এমন ধ্বংসাবশেষ দেখতে পাচ্ছেন যা কখনও দেখা সম্ভব হয়নি। এবং আপনি ডুবন্ত পুরো জাহাজটিকে দেখতে পাচ্ছেন। আশপাশের পরিবেশসহ বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে আপনি এটাকে দেখতে পাচ্ছেন। আপনি যা দেখতে পাচ্ছেন এটাই এখন এই জাহাজের সত্যিকারের অবস্থা।

তিনি বলেন, ‘এসব ছবি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখলে ১৯১২ সালের ওই ভয়াবহ রাত্রিতে টাইটানিকের ক্ষেত্রে মূলতই কী ঘটেছিল ওই বিষয়ে নতুন কিছু ধারণা পাওয়া যেতে পারে। আইসবার্গের সঙ্গে কেমন করে সংঘর্ষ হয়েছিল ওই বিষয়ে মূলত আমাদের ধারণা নেই। আমরা এও জানি না, সিনেমাতে যেমন দেখানো হয়েছে সেরকম করে জাহাজের সামনের একপাশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছিল কী না। জাহাজের পেছনের অংশ গবেষণা করলে টাইটানিক কিভাবে সমুদ্রের তলদেশে আঘাত হেনেছিল সে বিষয়েও ধারণা পাওয়া যেতে পারে।’

সমুদ্রের তলায় পড়ে থাকা টাইটানিকের ধ্বংসাবশেষ, পেছনের অংশ

সমুদ্রের পানিতে ডুবে যাওয়া জাহাজের ক্ষয় অব্যাহত রয়েছে। পানিতে থাকা অণুজীব বা জীবাণু ক্রমশই এটিকে খেয়ে ফেলছে। এ ছাড়া এর বিভিন্ন অংশ ক্রমশই আলাদা হয়ে খসে পড়ছে।

সমুদ্রে এ রকম একটি দুর্ঘটনার কারণ বুঝতে সময় যে ক্রমশ ফুরিয়ে আসছে ইতিহাসবিদরা এ বিষয়েও সচেতন। কিন্তু এখন যেসব ছবি পাওয়া গেল, সেখান থেকে জাহাজের খুঁটিনাটি বিষয়ও বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা করে দেখতে পারবেন। আশা করা হচ্ছে যে এখন হয়তো টাইটানিকের আরও অনেক গোপন বিষয় বের হয়ে আসবে। সূত্র: বিবিসি বাংলা


আরও খবর



ইউনিয়ন পরিষদ ঘরে দরিদ্র দের ১৫ বস্তা চাল মজুদ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ১২০জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোর উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদ ( ইউপির) হলরুমে দরিদ্র দের মাসিক ভিজিডির চাল বিতরন না করে মজুদ করে রেখেছেন চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন বলে অভিযোগ উঠেছে। ধনীদের নাম দেওয়ার কারনেই আসেন নি চাল নিতে বলে মনে করছেন ইউপির দরিদ্র জনগোষ্ঠী।  এতে করে চেয়ারম্যানের এমন কান্ডে এলাকায় বইছে সমালোচনার ঝড়, সেই সাথে তালিকা যাচাই বাছায়ের জন্যও তদন্তের জোরালো দাবি উঠেছে। বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে চালের বস্তা রাখা আছে। হলরুমের ভিতরের পূর্বদিকের দেয়াল সংলগ্ন ১৫ বস্তা চাল রাখা হয়েছে। অনেক বস্তা ছিড়ে চাল পড়ে আছে মেঝেতে। পড়ে থাকা চালে আবর্জনা প্রচুর। স্থানীয়রা জানান, প্রকৃত দরিদ্র দের তালিকা করা হয়নি। তালিকা হয়েছে দলীয় বিবেচনায়।যারা প্রকৃত দরিদ্র তারা সঠিক সময়ে চাল নিয়ে যান। কারন তাদের পেটে ক্ষুধা আছে। তাদের চালের প্রয়োজন। যে সব চাল পড়ে আছে হয়তো ধনীদের হবে। তাছাড়া চাল পড়ে থাকার কথা না। তারা ইচ্চেমত তালিকা করার করনেই চালের এঅবস্থা।

সুত্রে মতে, মাসিক ভিজিডির চাল বিতরনের সময় ট্যাগ অফিসার থাকতে হবে। কিন্ত বিতরনের সময় ট্যাগ অফিসার ছিলেন না।এদিকে নিয়ম বহির্ভুত ভাবে চেয়ারম্যান মতিন পরিষদে এসি ব্যবহার করে থাকেন। অথচ পরিষদে এসি ব্যবহারের কোন এখতিয়ার নেই, এটা সম্পূর্ন রুপে ক্ষমতার অপব্যবহার।চেয়ারম্যান মতিন জানান, গত সোমবারে চাল বিতরন করা হয়েছে। ১৫ জন ব্যক্তি না আসার কারনে পরিষদে আছে। চালের বস্তা ছিড়ে আবর্জনার মধ্যে পড়ে আছে এবং এভাবে চাল রাখা যায় কিনা ও ট্যাগ অফিসার ছিল কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কি তাদেরকে ডেকে আনব, সমস্যার কারনে ট্যাগ অফিসার আসেননি বলে দাম্ভিকতা দেখান তিনি। ট্যাগ অফিসার উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা  মশিউর রহমান  বলেন চাল বিতরনে থাকতে পারিনি, পরিক্ষার ডিউটিতে ছিলাম। আপনার কোন প্রতিনিধি ছিল কিনা ও মাস্টার রোল জমা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতিনিধি ছিল না এবং মাস্টার রোলও জমা দেয়নি। ১৫ বস্তা চালের মধ্যে কয়েক বস্তা ছিড়ে আবর্জনার মধ্যে আছে চাল কিভাবে পুরুন হবে প্রশ্ন করা হলে উত্তরে বলেন বৃহস্পতিবার বিতরন করবে আর এক সপ্তাহের মধ্যে মাস্টার রোল জমা হবে।গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানোর উপজেলার অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত ইএনওর সরকারী মোবাইলে একাধিকবার ফোন দিলেও রিসিভ করেন নি। জেলা প্রশাসক(ডিসি) শামিম আহম্মেদ বলেন, ভিজিডির চাল এভাবে রাখা ঠিক না। ট্যাগ অফিসার ছাড়াই বিতরন এবং মাস্টার রোল জমা হয়নি জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

আরও খবর



মধুপুরে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালনায় ঝরে গেলো আরও একটি তাজা প্রান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ২৪০জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা, মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের মধুপুরে পিকআপের ধাক্কায় স্বপন মিয়া (২৪) নামের এক ব্যবসায়ির মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় অপর দুই জন আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে আজ  মঙ্গলবারে(৯মে) বেলা পৌনে তিনটায় মধুপুরের কাকরাইদ-গারোবাজার আঞ্চলিক সড়কের ইদিলপুর গোরস্থান এলাকায়।নিহত স্বপনের বাড়ি মধুপুরের অরণখোলা ইউনিয়নের রামকৃষ্ণবাড়ি গ্রামে।

সে মধুপুরের কাকরাইদ বাজারে মা হার্ডওয়ার এন্ড ইলেকট্রনিক্সে তার মামা মফিজ উদ্দিনের সাথে ব্যবসা করতেন। তিনি গারোবাজার এলাকায় ব্যবসায়ী কাজ শেষে মটরসাইকেলে কাকরাইদ বাজারে দোকানে ফিরছিলেন। ফেরার পথে কাকরাইদ-গারোবাজার সড়কের ইদিলপুর গোরস্থানের কাছে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী পিকআপ তাদের ধাক্কা দেয়। এসময় স্বপন মিয়া রাস্তায় পড়ে গিয়ে মাথা থেতলে মগজ বেড়িয়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

মটরসাইকেলের অপর দুই যাত্রী অপু কুমার দাস (২৫) ও মনির হোসেন (১৭) গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।এ ব্যাপারে মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন বিপিএম জানান, দুর্ঘটনার খবর জেনেছি তবে এখন পর্ষন্ত এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



টানা চতুর্থবার বর্ষসেরা কিলিয়ান এমবাপ্পে

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো কিলিয়ান এমবাপ্পে টানা চতুর্থবারের মতো ফরাসি লিগ ওয়ানের বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন। পিএসজির এই ফরোয়ার্ড সতীর্থ লিওনেল মেসিকে হটিয়ে পুরস্কারটি জেতেন।

১৯৯৪ সাল শুরু হওয়া এই পুরস্কারে প্রথমবারের মতো কোনো ফুটবলার টানা চারবার জিতলেন। এর আগে পিএসজির সাবেক ফরোয়ার্ড জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ টানা তিনবার জিতেছিলেন।

এই মৌসুম শেষ হতে এখনো এক ম্যাচ বাকি। তবে ইতোমধ্যে ২৮ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন এমবাপ্পে।

পুরস্কার জয়ের পর এই ফরোয়ার্ড বলেন, ‘এটা আনন্দের বিষয়, আমি সবসময়ই জিততে চাই, লিগের ইতিহাসে নিজের নাম লিখতে চাই। কিন্তু এতো দ্রুত জিততে পারব বলে আশা করিনি। আমি আগামী মৌসুমে আবার এখানে আসব।’

বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার পেয়েছেন লসের ফ্রাঙ্ক হাইস। তিনি গত দুই দশকের মধ্যে প্রথমবার ক্লাবটিকে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে তুলে এনেছেন। সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কারও গিয়েছে লসের ঘরে। এবারের আসরে ১৫ টি ম্যাচে কোনো গোল হজম করেননি ক্লাবটির গোলরক্ষক ব্রাইস সাম্বা।

এছাড়া সেরা তরুণ খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতেন পিএসজির লেফট-ব্যাক নুনো মেন্ডেস।


আরও খবর



পত্নীতলায় দুর্নীতিবিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও আলোচনা ও অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ জুন ২০২৩ | ৬২জন দেখেছেন

Image

দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি : "রুখবো দুর্নীতি. গড়বো দেশ, হবে সোনার বাংলাদেশ" এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে - নওঁগা দুর্নীতি দমন কমিশন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি পত্নীতলার আয়োজনে সোমবার পত্নীতলা উপজেলা অডিটেরিয়াম হল রুমে উপজেলার আট টি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা এবং এ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পত্নীতলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব সামসুর রহমান চৌধুরী বুলবুল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ রুমানা আফরোজ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দুর্নীতি দমন কমিশন নওগাঁর উপ-পরিচালক মোহাম্মদ মাহমুদুর রহমান, পত্নীতলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজিজুল কবির, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজাতুল কোবরা মুক্তা, উপজেলা শিক্ষা অফিসার এ টি এম জিল্লুর রহমান, দুর্নীতি দমন কমিশন নওগাঁর  উপ সহকারী পরিচালক আল মামুন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিচারক মন্ডলীর সদস্য  সহকারী সমাজ সেবা অফিসার সহিদুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষা অফিসার আমিনুল ইসলাম, একাডেমীক সুপারভাইজার জাকির হোসেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদিন, সহ-সভাপতি স্বদেশ কুমার মন্ডল, তসলিম উদ্দিন মিয়া, বাবু অজিত কুমার রায় সহ অন্যান্য সুধীজন প্রমূখ । পরে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারী বিজয়ী চাম্পিয়ন গ্রুপ নজিপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, রানার্স আপ গ্রুপ গাহন উচ্চ বিদ্যালয় ও শ্রেষ্ঠ বক্তা গাহন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কবিতার হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

আরও খবর



জলঢাকায় বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন বিভাগীয় কমিশনার হাবিবুর রহমান, শাহজাহান কবির লেলিন

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | ২০জন দেখেছেন

Image
জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর জলঢাকায় পরিদর্শনে এসে ভূমি অফিসে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী সহ বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কাজের উদ্বোধন করেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার হাবিবুর রহমান। রোববার (৪ জুন) দুপুরে উপজেলা ভূমি অফিস প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী ও উপজেলা পরিষদে  বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ময়নুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিন্নাতুল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী শিশির চন্দ্র দাস, পৌরসভার মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু, থানা পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বিশ্বদেব নাথ, ইউপি চেয়ারম্যান সাদেকুল সিদ্দিক সাদেক ও মানিক প্রমুখ। 
পরে, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যদের ব্যারাক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার হাবিবুর রহমান।

আরও খবর