Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: পরিচয় শনাক্তে ডিএনএ পরীক্ষা শুরু আজ

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৬৭জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের ডিএনএ পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ সোমবার (৬ জুন)। এরপরই স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে। ডিএনএ সংগ্রহে ইতোমধ্যে বুথ স্থাপন করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে জেলা প্রশাসনে সহায়তা সেলের পাশে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহযোগিতায় এ বুথ স্থাপন করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান জানিয়েছেন, দাফন-কাফনের জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা এবং আর আহতদের প্রাথমিকভাবে ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। নিহতদের মাঝে ২১ জনের পরিচয় শনাক্ত করা গেছে। এদের মাঝে রাত ১০টা পর্যন্ত ১২ জনকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অনেক মরদেহ শনাক্ত করা যাচ্ছে না। তাই নিহতদের ময়নাতদন্ত ও ডিএনএ টেস্ট করা হবে।

তিনি বলেন, ডিএনএ পরীক্ষার জন্য সোমবার থেকে নমুনা সংগ্রহ করা শুরু হবে। তারপর নিয়ম অনুসরণ করে পরিবার ও স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

এদিকে আগুন এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। আগুন নেভাতে সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা একযোগে কাজ করছেন। ঘটনাস্থলে যৌথভাবে কাজ করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন, সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রশাসন, র্যাব, সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, রেড ক্রিসেন্ট, সিপিপি ও স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক ও মানবাধিকার সংগঠনের কর্মীরা।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াস হোসেন চৌধুরী জানান, নিহতদের মধ্যে ডিপোর শ্রমিকদের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যও রয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কন্টেইনারে একের পর এক বিকট বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহু দূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে। আগুন নেভাতে সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা একযোগে কাজ করছেন। অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জন হয়েছে। তবে জেলা প্রশাসনের তথ্য মতে মৃতের সংখ্যা ৪৬ জন। দগ্ধ ও আহত ১৬৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাতেই শনাক্ত হওয়া নিহতদের পরিবারে জেলা প্রশাসনের সহায়তার টাকা হস্তান্তর হয়েছে।


আরও খবর



শরণার্থী হয়ে আসা আফগান তরুণী হলেন অস্ট্রেলিয়ার সিনেটর

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image

অস্ট্রেলিয়ার সংসদে সিনেটর হয়েছেন আফগান তরুণী ফাতিমা পায়মান। তার বয়স ২৭ বছর। অস্ট্রেলিয়ার সংসদে প্রথম হিজাব পরিহিত সিনেটর হিসেবে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন তিনি। জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

বাবার কথা মনে করে সংসদে বক্তৃতা দিতে যেয়ে ভেঙে পড়েন এই আফগান তরুণী। কারণ তার বাবা পরিবারের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন, যিনি একজন শরণার্থী হিসেবে পরিবার নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় এসেছিলেন। ২০১৮ সালে পায়মানের বাবা ক্যানসারে মারা যান।

পায়মান বলেন, কে ভেবে ছিল আফগানিস্তানে জন্ম নেওয়া একটি শিশু ও শরণার্থীর মেয়ে একদিন অস্ট্রেলিয়ার সংসদের সিনেটর হবে।

পায়মান ২০০৩ সালে বাবা-মা ও তিন সহোদরের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় আসেন। সে সময় তার বয়স ছিল আট বছর। প্রথমে তিনি পার্থের অস্ট্রেলিয়ান ইসলামিক কলেজে ভর্তি হন। এরপর ডাক্তার হওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে যান। এক পর্যায়ে নিজেকে রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে ফেলেন।

পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে নিজের হিজাব পরা নিয়েও কথা বলেন পায়মান। নিজের পছন্দেই হিজাব পরছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, যারা আমার কী পোশাক পরা উচিত, সেই উপদেশ দিতে কিংবা আমার বাহ্যিক অবস্থা দেখে আমার যোগ্যতা বিবেচনা করতে পছন্দ করেন, জেনে রাখুন, হিজাব আমার পছন্দ।


আরও খবর



বন্যায় ভেসে গেছে পুকুর, ঋণ আতঙ্কে মৎস্যচাষিরা

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

নেত্রকোনায় বন্যায় ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর ও জলাশয়ের মাছ ভেসে গেছে। এতে কপাল পুড়েছে জেলার মৎস্যচাষিদের। তারা বিভিন্ন ব্যাংক ও ব্যক্তির কাছ থেকে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করায় এখন কিভাবে সেই টাকা শোধ করবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। ঋণ আতঙ্কে অনেকের চোখের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

প্রশাসনের তথ্যমতে, জেলার ১০ উপজেলার ৭৫টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। ওই সময় ৩৪২টি আশ্রয়কেন্দ্রে সোয়া লাখ বানভাসি মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। জেলার ক্ষতিগ্রস্ত লোকসংখ্যা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৫৫০ জন।

জেলা মৎস্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, জেলার ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এর মধ্যে নেত্রকোনা সদরের ১ হাজার ৪৬৮ জন খামারির ৩২৫০টি পুকুরের মাছ, মোহনগঞ্জের ১ হাজার ৭২৩ জনের ২ হাজার ৪০টি পুকুর, বারহাট্টার ১ হাজার ৭২২ জনের ৩ হাজার ৬৮৭টি পুকুর, কেন্দুয়ার ১ হাজার ১৬০ জনের ২ হাজার ২৩৫টি পুকুর, আটপাড়ার ৯৩৫ জনের ১ হাজার ৬৭০টি পুকুর, পূর্বধলার ৬৮৫ জনের ৭৬৪টি পুকুর, মদনের ১ হাজার ৫৫২ জনের ৪ হাজার ২৪৫টি পুকুর, খালিয়াজুরীর ৩৯১ জনের ৪১৪টি পুকুর, কলমাকান্দার ২ হাজার ৩৪০ জনের ৩ হাজার ১১২টি পুকুর, ও দুর্গাপর উপজেলার পাঁচ হাজার পুকুরের মাছ ভেসে গেছে।

জেলা মৎস্য বিভাগ আরও জানায়, মোট ৩ হাজার ৫৩৮ হেক্টর জমিতে ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর/জলাশয়ের ১৫ হাজার ৮২৬ জন খামার মালিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ কোটি ৮০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা।

এদিকে, মৎস্যচাষিরা মাছ ভেসে যাওয়ায় পড়েছেন বিপাকে। খামারিরা ব্যাংকসহ বিভিন্ন পর্যায়ে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করেছিলেন। স্বপ্ন বুনেছিলেন তাদের উৎপাদিত মাছ বিক্রি করে নিজেদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটাবেন এবং তাদের ঋণ শোধ হবে। কিন্তু আকস্মিক বন্যায় ভেসে গেছে তাদের স্বপ্নও। বর্তমানে বন্যার পানি নেমে গেলেও এর ক্ষতচিহ্ন নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করছেন মৎস্য চাষিরা। এর মধ্যেই মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা হয়ে ঝুলে আছে ঋণের বোঝা। তারা এখন বুঝে উঠতে পারছেন না কিভাবে এই ঋণ শোধ করবেন।

জেলার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের নিপা এগ্রো ফিশারিজের সত্ত্বাধিকারী মো. রোকনুজ্জামান খান খোকন জানান, তিনি ৭০ কাঠার পুকুরে পাবদা, তেলাপিয়া, শিং, রুই, কাতলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের চাষ করেছিলেন। মাছ প্রায় বিক্রির উপযোগীও হয়ে উঠেছিল। বিক্রি শুরু হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন। আশা করেছিলেন প্রায় ৩০ লাখ টাকার মাছ ও পোনা বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু এর আগেই আকস্মিক বন্যায় সব মাছ ভেসে গেছে। পুকুরের চারপাশে কলা ও সবজি চাষ করেছিলেন। সেগুলোও নষ্ট হয়ে গেছে। এদিকে, মার্কেন্টাইল ব্যাংক থেকে তিনি ঋণ নিয়েছিলেন ১২ লাখ টাকা। ভেবেছিলেন মাছ বিক্রি করে ঋণ শোধ করবেন কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি। এখন ভেবে পাচ্ছেন না কিভাবে এই ঋণ শোধ করবেন।

মৎস্য খামারি মো. আরিফুর রহমান ও মোখলেছুর রহমান মিলে বাউসি, আসমা ও সাহতা ইউনিয়নে মোট ৩৪ একর পুকুরে পাবদা, গুলশা, তেলাপিয়া, শিং, রুই, কাতলা ও সিলভার মাছের চাষ করেছিলেন। তারা জানান, কিছু কিছু মাছ তারা বিক্রি শুরু করেছিলেন। তবে দুই কোটি টাকার ওপরে মাছ বন্যার কারণে খামার থেকে বেরিয়ে গেছে। তারা এখন প্রায় নিঃস্ব। ইসলামী ব্যাংক ও আল-আরাফা ব্যাংক থেকে মাছ চাষের জন্য তারা ১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছেন। এই ঋণ তারা কবে কিভাবে শোধ করতে পারবেন তা বুঝে উঠতে পারছেন না।

বারহাট্টার বাউসি ইউনিয়নের আরেক মৎস্যচাষি মো. ইলিয়াছ তালুকদার বলেন, আমরা এখন ঋণের আতঙ্কে আছি। সব শেষ হয়ে গেছে। ভেবেছিলাম ঘুরে দাঁড়াবো। সে আশা তো এখন বাদ। কিভাবে কী যে হবে! কৃষি ব্যাংক থেকে ১১ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছিলাম। ব্যক্তি পর্যায়ে অন্য জায়গা থেকেও ঋণ নিয়েছি। মোট ৩০ লাখ টাকা ইনভেস্ট করেছিলাম। বন্যার কারণে সব মাছ পুকুর থেকে বেরিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, পাঁচটি পুকুরে তেলাপিয়া, পাবদা ও গুলশা মাছ চাষ করেছিলাম। ভেবেছিলাম বিক্রি করে ঋণ শোধ করে লাভবান হবো। এখন দেখছি, ঋণ শোধ করতে করতেই জীবন পার করতে হবে। ঋণ শোধের আতঙ্কে ঠিকমতো ঘুমাতে পারছি না।

ইলিয়াছ তালুকদার আরও বলেন, ব্যাংক যদি বর্তমান পরিস্থিতি আমলে নিয়ে আমাদের দীর্ঘমেয়াদি সুযোগ দেয় তাহলে খুব ভালো হতো।

জেলা মৎস্য অফিসার মোহাম্মদ শাহজাহান কবীর জানিয়েছেন, বন্যার কারণে জেলার ১৫ হাজার ৮২৬ জন মৎস্যচাষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। মোট ২৬ হাজার ৪১৭টি পুকুর ও জলাশয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ কোটি ৮০ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।


আরও খবর



মাউশির নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস: শিক্ষক রাশেদুল বরখাস্ত

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) কর্মচারী নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অপরাধে পটুয়াখালী সরকারি কলেজের মৃত্তিকাবিজ্ঞান বিষয়ের প্রভাষক মো. রাশেদুল ইসলাইকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দীক সাক্ষরিত এক নির্দেশে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, মাউশির নিয়োগ পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারের শিক্ষক রাশেদুল ইসলামের বিরুদ্ধে লালবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলায় তার সম্পৃক্ততার অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় রাশেদুল ইসলামকে পটুয়াখালী সরকারি কলেজের চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখান্ত করা হলো।

আরও বলা হয়, বিধি মোতাবেক তিনি বরখাস্তকালীন খোরপোষ ভাতা পাবেন। জনস্বার্থে জারি করা এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর করতে বলা হয়েছে।


আরও খবর



খাটের ওপর গৃহবধূর মরদেহ, পাশে কাঁদছিল শিশু

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

নওগাঁর মহাদেবপুরে ভাড়া বাসা থেকে শিউলি আক্তার (৩০) নামের এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলা সদর ইউনিয়নের কাচারিপাড়া বেড়িবাঁধ সংলগ্ন রবিউল আলম লিটনের বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় মরদেহের পাশে তার আড়াই বছরের মেয়েকে পাওয়া যায়। তবে তার স্বামী আল-আমিন পলাতক রয়েছেন।

আল-আমিন জেলার সাপাহার উপজেলার জিরোপয়েন্ট এলাকার বকুল হোসেনে ছেলে। গৃহবধূ শিউলি আক্তার পার্শ্ববর্তী পত্নীতলা উপজেলার খিরসিন গ্রামের হযরত আলীর মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত এক সপ্তাহ থেকে উপজেলা সদর ইউনিয়নের কাচারিপাড়া বেড়িবাঁধ সংলগ্ন রবিউল আলম বাড়িতে আল-আমিন তার স্ত্রী শিউলি আক্তার ও আড়াই বছরের মেয়েকে নিয়ে ভাড়া ছিলেন। আল-আমিন মহাদেবপুর বাজারে দর্জির কাজ করতেন।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঘরের মধ্যে শিশুটির কান্না শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে যান। তারা দেখেন ঘরের বাইরে থেকে তালাবদ্ধ কিন্তু ভেতরে শিশুটি কান্না করছিল। বিষয়টি দেখার পর থানায় সংবাদ দেওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তালা ভেঙে খাটের ওপর শিউলির মরদেহ দেখতে পান। এ সময় শিশুটি তার মায়ের মরদেহের পাশে বসে কাঁদছিল।

স্থানীয়দের ধারণা পারিবারিক কলহের জেরে দুপুরে কোনো এক সময় আল-আমিন তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর ঘর তালাবদ্ধ করে পালিয়ে যান।

মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজম উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের পর সঠিক কারণ জানা যাবে।


আরও খবর



দেশের প্রথম পুলিশ ডে কেয়ার সেন্টার ফরিদপুরে

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

ফরিদপুরে নারী পুলিশ সদস্যদের কর্মস্পৃহা বাড়াতে

দেশে প্রথমবারের মতো চালু হলো পুলিশ ডে কেয়ার সেন্টার। রোববার (২৪ জুলাই) দুপুর ১২টায় ফরিদপুর পুলিশ লাইনের মহিলা হোস্টেলে এ সেন্টারের উদ্বোধন করেন জেলা পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান।

ডে কেয়ার সেন্টারটিতে শিশুদের বিনোদনের জন্য বিভিন্ন ধরনের খেলনা, পড়ার সুযোগ এবং দেওয়ালে স্বরবর্ণ-ব্যঞ্জন বর্ণসহ দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যনির্ভর নানান ছবি রাখা হয়েছে।

শিশুদের ঘুম ও খাওয়ার সুব্যবস্থাও রয়েছে এই ডে কেয়ার সেন্টারে। শিশুদের সার্বক্ষণিক পরিচর্যার জন্য দুজন কর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া দুজন নারী পুলিশ সদস্য থাকবেন তাদের সহায়তা করার জন্য। পুলিশ লাইনস হাসপাতালের একজন চিকিৎসক এই ডে কেয়ার সেন্টারে সংযুক্ত থাকবেন শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায়।

পুরো ডে কেয়ার সেন্টারটি সিসি ক্যামেরা আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। যেসব পুলিশ সদস্যদের বাচ্চারা এই ডে কেয়ার সেন্টারে থাকবে তারা ইচ্ছা করলে মোবাইলে সিসিটিভির মাধ্যমে বাচ্চার অবস্থা দেখতে পারবেন।

এ বিষয়ে ফরিদপুর পুলিশ সুপার মো. আলীমুজ্জামান বলেন, বাসায় বাচ্চাদের রেখে যাওয়ার কারণে কর্মক্ষেত্রে বিশেষ করে নারী পুলিশ সদস্যদের নানা সমস্যা হয়। বিভিন্ন সময়ে নারী পুলিশদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি, এ ধরনের একটি ডে কেয়ার সেন্টার করা হলে তাদের জন্য সুবিধা হয়। নারী পুলিশ সদস্যদের সুবিধার কথা চিন্তা করেই এই ডে কেয়ার সেন্টার করা হয়েছে।

পুলিশের বাচ্চাদের জন্য দেশে এ ধরনের সেন্টার এই প্রথম বলেও জানান এসপি।


আরও খবর