Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী

প্রকাশিত:Friday ১০ December ২০২১ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ২৪৬জন দেখেছেন
Image

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে এবার সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী। আজ শুক্রবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. আব্দুল জলিল।

তিনি বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে মেয়র আব্বাস আলীর সাময়িক বরখাস্ত সম্পর্কিত একটি প্রজ্ঞাপন পেয়েছি। ৮ ডিসেম্বর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ফারজানা মান্নান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি জারি করা হয়েছে। সেখানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে তাকে বহিষ্কারের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, কাটাখালী পৌরসভার মেয়র মো. আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে বোয়ালিয়া মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে এবং তিনি গ্রেপ্তার হওয়ায় কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সাধারণ মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। যা পৌরসভার স্বার্থের পরিপন্থী ও প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণ থেকে সমীচীন নয় বলে প্রতীয়মান হওয়ায় পৌর মেয়রের পদ থেকে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা যুক্তিযুক্ত। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর ধারা ৩১ (১) এর ক্ষমতাবলে কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

এর আগে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের গেটে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন পৌর মেয়র আব্বাস আলী। এরপরই তার বিরুদ্ধে মাঠে নামেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার পাশাপাশি ১২ কাউন্সিলর তার প্রতি অনাস্থা জানিয়ে জেলা প্রশাসককে চিঠি দেন।


আরও খবর



হারানো ইমেইল খুঁজতে গিয়ে পেলেন ২৬ কোটি টাকা

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

অনলাইন ডেস্ক: পুরোনো ইমেইল খুঁজতে গিয়ে লটারিতে জেতা ৩০ লাখ ডলারের সন্ধান পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানের এক নার্স। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২৬ কোটি টাকার সমপরিমাণ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে জানা যায়, তার ইনবক্সের স্পাম ফোল্ডারেই ছিল লটারিতে তার ৩০ লাখ ডলার জয়ের খবরটি।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিশিগানের বাসিন্দা লরা স্পিয়ার্স (৫৫) পেশায় একজন নার্স। গত ৩১ ডিসেম্বর ওই লটারির টিকিট কেটেছিলেন তিনি, কিন্তু ভুলেই গিয়েছিলেন ওই টিকিটের কথা। স্পাম ফোল্ডারে পাওয়া মেসেজের সূত্রেই পরে জানতে পারেন যে, তার কাটা টিকিটের নাম্বারটিই ড্রতে সর্বোচ্চ পুরস্কার পেয়েছে।

মিশিগানের ওকল্যান্ড কাউন্টির বাসিন্দা লরা জানান, আমি শুনছিলাম মিশিগান লটারির মেগা মিলিয়ন ড্রতে অনেকেই পুরস্কার পাচ্ছেন, তাই আমিও বছরের শেষ দিনে হঠাৎ ঝোঁকের বশেই একটা টিকিট কিনে নিয়েছিলাম। আমি এর আগে কখনো লটারির টিকিট কাটিনি।

তিনি আরও জানান, টিকিট কাটার প্রায় ১৫ দিন পরও ইনবক্সে কোনো ইমেইল না আসায় ভেবেছিলাম হয়তো কোনো পুরস্কার জিতিনি আমি। তবে এক বন্ধুর প্রয়োজনেই পুরোনো ইমেইল খুঁজতে স্পাম বক্সে ঢুকে আবিস্কার করি যে পুরস্কার জিতেছি।

লটারি সংস্থাটি জানিয়েছে, লরার টিকিটের নম্বর ছিল ২-৫-৩০-৪৬-৬১। লাকি ড্রয়ে নম্বর মিলে যাওয়ায় লটারির সর্বোচ্চ পুরস্কার ৩০ লাখ ডলার পেয়ে যান লরা।

আকস্মিক এমন লটারি জয়ের পর স্তম্ভিত লরা জানান, আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। তাই আবারও নিশ্চিত হতে আমি লটারির অ্যাকাউন্টে লগ ইন করি। আমি এখনো বিশ্বাস করতে পারছি না যে, আমি আসলেই ৩০ লাখ ডলার পুরস্কার পেয়েছি! তবে আমি আমার ইমেইলের সেটিংস অবশ্যই পরিবর্তন করবো, যাতে ভবিষ্যতে লটারি জয়ের খবর আর মিস না হয়।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে লরা জানিয়েছেন, এখন আগেভাগেই চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার কথা ভাবছি। পরিবারের সাথে পুরস্কারের অর্থ ভাগাভাগির পরিকল্পনাও আছে।


আরও খবর



রোববার থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস বন্ধ

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১১৯জন দেখেছেন
Image

দেশব্যাপী করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় সশরীরে ক্লাস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক সকল কার্যক্রম চালু থাকবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ। গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রশাসনিক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, রোববার থেকে অনলাইনে ক্লাস চলবে। আবাসিক হলগুলো বন্ধের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে, হলগুলোতে বড় পরিসরে আইসোলেশনের ব্যবস্থা রাখার কথা ভাবা হচ্ছে।

রহিমা কানিজ বলেন, আগামী রোববার থেকে পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত সশরীরে ক্লাস বন্ধ থাকবে। দেশব্যাপী করোনার প্রকোপ বিবেচনায় এই সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। তবে, এ সময় দাপ্তরিক সব কার্যক্রম চালু থাকবে।

তিনি আরও বলেন, স্বল্প সংখ্যক শিক্ষার্থী নিয়ে একাধিক গ্রুপ করে চলমান পরীক্ষা ও ব্যবহারিক ক্লাসগুলো যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অব্যহত থাকবে। প্রয়োজনে একাধিক কক্ষে পরীক্ষাগুলো নেওয়া হবে।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে হল প্রভোস্ট ও ডিনদের বৈঠকে এই বিষয়ে আলোচনা হয়। ওই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে গতরাতে প্রশাসনিক সভায় বিষয়টি উত্থাপিত হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১১ অক্টোবর জাবির হলগুলো খুলে দেওয়া হয় এবং ২১ অক্টোবর থেকে সশরীরে ক্লাস শুরু হয়।


আরও খবর



বাংলাদেশ স্কাউটস ঢাকা মেট্রোপলিটন যাত্রাবাড়ী থানার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন জিয়াউদ্দিন জিয়া

বাংলাদেশ স্কাউটস ঢাকা মেট্রোপলিটন যাত্রাবাড়ী থানার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন জিয়াউদ্দিন জিয়া

প্রকাশিত:Monday ১০ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১০৯জন দেখেছেন
Image


সোহরাওয়ার্দীঃ

বাংলাদেশ স্কাউটস ঢাকা মেট্রোপলিটনের থানাভিত্তিক কাউন্সিলে যাত্রাবাড়ী থানা থেকে এস.এম.জিয়াউদ্দিন জিয়া সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন।


যাত্রাবাড়ী থানা আওতাধীন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও ইউনিট লিডারগণের উপস্থিতিতে নির্বাচন পক্রিয়ার মাধ্যমে জিয়া উদ্দিন (জিয়া) সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।ইমপিসা ওপেন স্কাউট গ্রুপের গ্রুপ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘদিন যাবত দ্বায়িত্ব পালন করছেন এস.এম.জিয়াউদ্দিন জিয়া।


ইমপিসা ওপেন স্কাউট গ্রুপ গত লকডাউনে জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ, নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে বাজার করা, চলাচল করা এবং মাস্ক সঠিকভাবে পরিধান করার বিষয়ে ধলপুর বাজার, মানিকনগর বাজার, গোপীবাগ বাজার ও বিভিন্ন স্থানে  নানা কর্মসুচী পালন করেছে।


এছারাও করোনা দুর্যোগে দুর্দশাগ্রস্ত মানুষকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করে।ভোট ও সমর্থন দিয়ে নির্বাচিত করায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও ইউনিট লিডারগণের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়েছেন এস.এম.জিয়াউদ্দিন জিয়া।


আরও খবর



ডেমরা যাত্রাবাড়ি এলাকায় ইটিপিবিহীন শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিবেশের জন্য মারাত্বক হুমকি

ডেমরা যাত্রাবাড়ি এলাকায় ইটিপিবিহীন শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিবেশের জন্য মারাত্বক হুমকি

প্রকাশিত:Tuesday ১৮ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image


সোহরাওয়ার্দীঃ

রাজধানীর ডেমরা যাত্রাবাড়ি এলাকার ডগাইর ছোট মুরগীর ফার্ম এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তরে দায়সারা আবেদন করেই  ইটিপিবিহীন প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে বিসমিল্লাহ ওয়াশিং প্লান্টের মালিক গোলাম সারোয়ার খান।সরেজমিন অনুসন্ধান করে দেখাগেছে প্রতিষ্ঠানটিতে বড়ধরনের একটি শেড ভাড়া নিয়ে পরিবেশ ছাড়পত্র না নিয়েই কারখানা স্থাপন করে ব্যবসা পরিচালনা করছে গোলাম সারোয়ার।


বিসমিল্লাহ ওয়াশিং প্লান্ট ছারাও ডেমরা এলাকার বেশ কিছু ডাইং কারখানা ও ওয়াশিং প্লান্ট গড়ে উঠেছে যেগুলোতে পরিবেশ ছাড়পত্র নেই এমন কি ইটিপি নেই।যাত্রাবাড়ি এলাকার ৬৫ নং ওয়ার্ডের ইসলাম নগর হেদায়তুল্লাহর বাড়ির ভাড়াটিয়া রুবেলের ওয়াশিং কারখানা এবং স্বপন মিয়ার আবাসিক বাড়ির মধ্যে চলছে রবির কারখানা।


এসব কারখানাতে তিতাসের বৈধ কোন সংযোগ নেই বলেও জানাগেছে।একদিকে তিতাসের অবৈধ গ্যাস লাইনের সংযোগ অন্যদিকে তরল মিশ্রিত ক্যামিকেলের পানি বাইরে নির্গত হওয়ায় চরম স্বাস্থ্যঝুকিতে রয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা।এসব কারখানায় বিষাক্ত রাসায়নিকের ব্যাবহার রয়েছে এবং অনুসন্ধানে পাওয়াগেছে নানা লোমহর্ষক তথ্য।অবৈধ কারখানাগুলো প্রতিষ্ঠা করে সরকারী নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে পরিবেশেরদিক বিবেচনা না করেই সরকারী প্রশাসনকে চোখে ধুলো দিয়ে রাতারাতি লক্ষ লক্ষ টাকা রোজগার করছে তারা।


এসব অবৈধ পরিবেশ ছারপত্র বিহীন প্রতিষ্ঠানের মালিকদের সাথে কথা বললে তারা জানায়,"আমরা পরিবেশ অধিদপ্তরে ইটিপি স্থাপনের জন্য এবং পরিবেশ ছারপত্র পাওয়ার জন্য আবেদন করেছি"।এসব অবৈধ কলকারখানাগুলোর বিষয়ে কথা বললে পরিবেশ অধিদপ্তেরের সহকারী পরিচালক (ঢাকা মহানগর কার্যালয়) মুক্তাদির হাসান এর সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান,"বিসমিল্লাহ ওয়াশিং প্লান্ট নামক একটি প্রতিষ্ঠান পরিবেশ অধিদপ্তরে ছাড়পত্রের জন্য আবেদন করে,আমরা তাদের কে সেখানে সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান না থাকায় ছারপত্র দিতে অপারগতা প্রকাশ করি এবং তিন মাসের মধ্যে কারখানাটি অন্যত্র সরিয়ে নিতে পরামর্শ দেই"।তিনি আরো বলেন তরল বর্জ্য নির্গত হয় এমন কোন প্রতিষ্টান ইটিপি ছারা পরিচালনা করতে পারবেন না।

পরিবেশ অধিদপ্তরের জনবল কম থাকায় সব সময় অভিযান পরিচালনা করতে তাদের হিমশিম খেতে হয় বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর বন্ধ দোকানপাট "খুলনায়"

প্রকাশিত:Friday ০৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১০৮জন দেখেছেন
Image

খুলনায় করোনার সংক্রমণ রোধে মার্কেট ও দোকানপাটের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর নগরীতে খোলা রাখা যাবে না মার্কেট ও দোকান। তবে, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য পরিবহণ ও কাঁচামালের আড়তের ক্ষেত্রে এই সময়সীমা প্রযোজ্য হবে না।

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক জেলা ও মহানগর করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির এক সভায় গতকাল বৃহস্পতিবার এ কথা জানান। সভার সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, ‘করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ছড়িয়ে পড়ার আগেই আমাদের সচেতন হতে হবে। আগামী মঙ্গলবার থেকে রাত ৮টার পর নগরীতে মার্কেট ও দোকান খোলা রাখা যাবে না। তবে, নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচামাল পরিবহণ ও কাঁচামালের আড়তের ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা নেই।’

সভায় সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, গত নভেম্বরে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। ডিসেম্বর মাসে করোনায় জেলায় কোনো প্রাণহানি হয়নি। হঠাৎ সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় স্বাস্থ্যবিধি মানা ও মাস্ক পরার বিকল্প নেই।

সিভিল সার্জন আরও বলেন, ‘টিকা নেওয়ার পর করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে মৃত্যুহার অনেক কম। তাই টিকা গ্রহণে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করা প্রয়োজন।’

সিভিল সার্জনের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে খুলনা জেলায় করোনা শনাক্ত হওয়া একজন রোগী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত জেলায় এক লাখ ৬১ হাজার ৭২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৮ হাজার ১৯ জন রোগী কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছেন


আরও খবর