Logo
আজঃ Monday ২৯ November ২০২১
শিরোনাম
নৌকা পরাজিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান হলো তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু! তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা কুমিল্লায় নৌকা পেয়েও সরে দাড়ালেন বাহালুল, প্রাথমিক সদস্য না হয়েও মনোনীত নূরুল! মাতুয়াইলে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্ধোধন করলেন সংসদ সদস্য কাজী মনু পলো উৎসবে মাছ ধরায় মেতেছে মানুষ, চির চেনা বাংলা গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি হয়নি হাফ পাসের সিদ্ধান্ত,টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব আলেম-ওলামাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা-ভক্তি রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রংপুরের তারাগঞ্জে ট্রাকচাপায় তিন নারী শ্রমিক নিহত কুমিল্লার তিতাস ও মেঘনা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা !
শাহরুখের বাংলোর নাম ‘মান্নত

শাহরুখের বাংলোর নাম ‘মান্নত’ রাখতে গিয়ে কালঘাম ছুটেছিল, জানুন সেই গল্প

প্রকাশিত:Monday ০১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৪৭জন দেখেছেন
বিনোদন ডেস্ক

Image


মুম্বাইয়ের প্রধান দ্রষ্টব্য স্থানগুলির মধ্যে যে অন্যতম মান্নত তা নিয়ে কারো মধ্যে কোনো দ্বিধা নেই। আর মতান্তর থাকবেই বা কেন? মান্নতের বাসিন্দা যে বলিউডের ‘বাদশা’। উঁচু পাঁচিল ঘেরা ছোটখাটো এই প্রাসাদের বাইরে থেকে শাহরুখ খান কিংবা তার পরিবারের সদস্যকে দেখা না গেলেও মান্নত দর্শনটুকুই কম কিছু নয় ‘কিং খান’ এর অনুরাগীদের কাছে।

 

তবে জানেন কি, প্রথম থেকেই শাহরুখের এই বাংলোর নাম কিন্তু মোটেই মান্নত ছিল না! পুরনো সেই নাম হঠিয়ে নিজের স্বপ্নের বাংলোর এই নাম রাখেন ‘বাদশা’।

সেটা ১৯৯৭ সাল। ‘ইয়েস বস’ এর শুটিং করছেন শাহরুখ। সেই শুটিং চলাকালীন প্রথমবার ‘মান্নত’ দর্শন হয় তার। আর প্রথম দেখাতেই প্রেম। সেইদিনই মনে মনে তিনি ঠিক করে ফেলেন যে একদিন এই বাংলোটি তিনি নিজের জন্য কিনবেন। সেইসময় ওই বাংলোর মালিক ছিলেন একজন গুজরাতি। নাম ছিল নারিমান দুবাস। আর ‘মান্নত’ এর পরিচয় ছিল ‘ভিলা ভিয়েনা’ হিসেবে।

 

২০০১ সাল। শাহরুখ তখন খ্যাতির মধ্যগগনে। ততদিনে পেয়ে গেছেন বলিউডের ‘বাদশা’-র খেতাব। অবশেষে একদিন তিনি নিজে গিয়ে দেখা করলেন নারিমান সাহেবের সঙ্গে। দিলেন বাংলো কিনে নেওয়ার প্রস্তাব। প্রথমে একেবারেই সেই প্রস্তাবে রাজি হননি অপর পক্ষ। অবশেষে বহু চেষ্টার পর মন গিলেছিল গুজরাতি ব্যবসায়ীর। রাজি হয়েছিলেন শাহরুখকে তার সাধের বাংলোটি বিক্রি করতে।

 

শোনা যায়, ‘বাই খুরশেদ ভানু সঞ্জনা ট্রাস্ট’ এর তরফে এই বাংলোটি কিনেছিলেন শাহরুখ। তখনকার দিনে ১৩.৩২ কোটি টাকার বিনিময়ে  ‘ভিলা ভিয়েনা’-র অধিকর্তা হয়েছিলেন ‘কিং খান’। বর্তমানে যার মূল্য প্রায় ২০০ কোটি টাকার কাছাকাছি। ওই বাংলোটি কেনার পরের ৪ বছর সম্ভবত আইনি জটিলতার কারণে নাম পাল্টাতে পারেননি শাহরুখ।

শেষ পর্যন্ত ২০০৫ সালে কাগজপত্রে সইসাবুদ করে পাকাপাকিভাবে ‘ভিলা ভিয়েনা’-র নাম বদলে হয় ‘মান্নত’।

-খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর



বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ, সঙ্গে লজ্জার হার

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৫১জন দেখেছেন
স্পোর্টস ডেস্ক

Image


 

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নামার আগে বাংলাদেশের সেমিফাইনালের ক্ষীণ স্বপ্ন বেঁচে ছিল। তবে মাঠের লড়াইয়ে তা উবে যেতে সময় লাগেনি। ব্যাটে বলে হতাশাজনক পারফরম্যান্সে লজ্জার হার হেরেছে টাইগাররা।বাংলাদেশের দেওয়া ৮৫ রানের লক্ষ্য ৪ উইকেট হারিয়েই পেরিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। বাকি ছিল আরো ৩৯ বল।

 

আগে ব্যাট করে প্রোটিয়া বোলারদের তোপে ২০ ওভারও টিকতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৮.২ ওভারে অল আউট হওয়ার আগে টাইগাররা করতে পারে মাত্র ৮৪ রান। নিজেদের বিশ্বকাপ ইতিহাসে এটি তৃতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। এ ম্যাচে বাংলাদেশের পাঁচজন ব্যাটসম্যান কোনো রানই করতে পারেননি।

 

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৭০ রান। ২০১৬ টি-২০ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লজ্জার এই রেকর্ড গড়েছিল টাইগাররা। এছাড়া ২০০৭ বিশ্বকাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৮৩ রানে অল আউট হয়েছিল লাল-সবুজরা।

 

বাংলাদেশের দেওয়া মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নামেন কুইন্টন ডি কক ও রেজা হেন্ড্রিক্স। প্রথম ওভারেই তাসকিনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ৪ রান করা হেন্ড্রিক্স। এরপর নিজের প্রথম ওভারে আঘাত হানেন মাহেদী হাসান। তার বলে বোল্ড হওয়ার আগে কুইন্টন ডি কক করেন ১৬ রান।

 

ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে তাসকিনের বলে ০ রানে এইডেন মার্করাম আউট হলে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় বাংলাদেশ। তবে সেই পর্যন্তই। রাসি ফন ডার ডুসেন ও টেম্বা বাভুমা মিলে দলকে জয়ের বন্দরের কাছে নিয়ে যান।

২২ রান করে ডুসেন যখন আউট হন, জয় থেকে মাত্র ৫ রান দূরে ছিল প্রোটিয়ারা। বাভুমা ও ডেভিড মিলার সহজেই এটুকু পথ বাকী দেন। দুজন অপরাজিত ছিলেন যথাক্রমে ৩১ ও ৫ রানে।

 

বাংলাদেশের হয়ে ২ উইকেট শিকার করেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া নাসুম আহমেদ ও মাহেদী একটি করে উইকেট নেন।

আবু ধাবির জাইয়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা। বাংলাদেশের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন লিটন দাস ও নাইম শেখ। প্রথম ৩ ওভার দেখে খেললেও চতুর্থ ওভারে আর উইকেট পতন ঠেকাতে পারেনি টাইগাররা।

কাগিসো রাবাদা পরপর দুই বলে সাজঘরে ফেরান নাইম ও সৌম্য সরকারকে। নাইম ৯ রান করলেও সৌম্য গোল্ডেন ডাক মারেন। নিজের পরের ওভারে আবারো আঘাত হানেন রাবাদা। এবার মুশফিকুর রহিম রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফেরেন।

সৌম্যের মতো প্রথম বলেই সাজঘরে ফেরেন আফিফ হোসেন। এর আগে ৩ রানে আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। একপ্রান্ত আগলে রেখে ইনিংস এগিয়ে নিচ্ছিলেন লিটন দাস। তবে তার প্রতিরোধ ভেঙে দেন তাবরাইজ শামসি। টাইগার ওপেনার ফেরার আগে করেন ২৪ রান।

বাকী পথে একাই লড়াই করেন মাহেদী হাসান। নবম উইকেট হিসেবে সাজঘরে ফেরার আগে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৭ রান করেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে কাগিসো রাবাদা ও আনরিখ নর্টজে তিনটি করে উইকেট শিকার করেন। এছাড়া তাবরাইজ শামসি দুটি ও ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস একটি উইকেট নেন।

 

-খবর প্রতিদিন /সি.বা 

নিউজ ট্যাগ: টি-২০ বিশ্বকাপ

আরও খবর



কুমিল্লার তিতাস ও মেঘনা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা !

প্রকাশিত:Thursday ১১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ২৮২জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image



বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী দুই উপজেলার ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে জয়ি হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা।দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কুমিল্লার মেঘনার আটটি এবং তিতাসের নয়টি ইউনিয়নে হয়েছে ভোটগ্রহণ।

 

বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী দুই উপজেলার ১২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে জয়ি হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা।অন্য ছয়টি ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করা স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার।

 

মেঘনা উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুর রহমান, মানিকারচরে আওয়ামী লীগের জাকির হোসেন, চালিয়াভাঙ্গায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হুমায়ুন কবির, ভাওরখোলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম, লুটেরচরে নৌকা প্রতীকের সানাউল্লাহ সিকদার, গোবিন্দপুরে আওয়ামী লীগের মাইনুদ্দিন মুন্সি তপন ও বড়কান্দায় স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুক হোসেন রিপন জয়ী হয়েছেন।

 

এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন চন্দনপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আহসান উল্লা।এদিকে তিতাসের সাতানী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সামছুল হক, জগৎপুরে নৌকার প্রার্থী মজিবুর রহমান, বলরামপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুন্নবী, কলাকান্দিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইব্রাহিম সরকার, ভিটিকান্দিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাবুল আহমেদ, নারানদিয়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আরিফুজ্জামান ভুইয়া খোকা, জিয়ারকান্দিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলী আশরাফ ও মজিদপুরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সরকার জয়ী হয়েছেন।এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন সদর কড়িকান্দি ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী সাইফুল আলম মুরাদ।

 

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা

নিউজ ট্যাগ: ইউপি নির্বাচন

আরও খবর



বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ পাসের বিষয়ে পরিষ্কার কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি

হয়নি হাফ পাসের সিদ্ধান্ত,টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব

প্রকাশিত:Saturday ২৭ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ পাসের বিষয়ে পরিষ্কার কোনো সিদ্ধান্ত না হলেও সড়ক-পরিবহন-মালিক-শ্রমিকসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে সমন্বিত করে একটি টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

 

শনিবার রাজধানীর বনানীতে বিআরটিএ কার্যালয়ে বেলা পৌনে ১২টা থেকে দুপুর সোয়া ২টা পর্যন্ত চলা বাস মালিক সমিতি, শ্রমিক ফেডারেশনের সঙ্গে বিআরটিএসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বৈঠকে কয়েকটি প্রস্তাবের সঙ্গে এ প্রস্তাব আনা হয়।

 

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে হাফ পাসের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে কী কী কারণে বা কী উপায় হাফ পাসের দাবি পূরণ করা যায়, সে বিষয়ে সবার মধ্যে বিস্তর আলোচনা হয়। হাফ পাসের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই বৈঠক শেষ হয়েছে। পরিবহন নেতাদের পক্ষ থেকে টাস্কফোর্স গঠনসহ বেশ কয়েকটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। প্রস্তাবগুলো বিবেচনা নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। 

 

বৈঠক শেষে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি যৌক্তিকভাবে সমাধানে চেষ্টা চলছে। ঢাকার ৮০ শতাংশ বাস মালিক গরিব। হাফ ভাড়া নিলে মালিকদের যে ক্ষতি হবে, তা সরকার কীভাবে পূরণ করবে? সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা কিছু প্রস্তাব দিয়েছি। সবার সমন্বয়ে টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব দিয়েছি। 

 

ছাত্রদের অনুরোধ জানিয়ে এ পরিবহন নেতা বলেন, হাফ ভাড়ার দাবিতে বাস ভাঙচুর, শ্রমিকদের মারধর অব্যাহত রয়েছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, তারা যেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরে যায়। 

 

টাস্কফোর্স কবে গঠন করা হবে এ প্রশ্নে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, এটা নতুন প্রস্তাব। টাস্কফোর্স গঠনের বিষয়ে পরে সিদ্ধান্ত হবে। টাস্কফোর্স গঠনের মাধ্যমে যে সিদ্ধান্ত আসবে তা সেভাবে বাস্তবায়ন হবে।

তিনি আরো বলেন, পরিবহন নেতাদের পক্ষ থেকে কনসেশন (সুবিধা) দেওয়ার প্রস্তাব এসেছে। কত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কত ছাত্র, কতজন বাস ব্যবহার করে তার একটা পরিসংখ্যান চেয়েছেন নেতারা। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সেই তথ্য দেবে। 

 

টাস্কফোর্স গঠনের বিষয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ বলেন, বাসে হাফ ভাড়া বাস্তবায়নে পরিবহন নেতারা আন্তরিক। কিন্তু তাদের যে ক্ষতি হবে তা কীভাবে পূরণ করা হবে, কত ভর্তুকি দেবে সেসব বিষয়ে সিদ্ধান্তের জন্য সরকার ও পরিবহনে সম্পৃক্তদের নিয়ে টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব এসেছে। সরকারকে টাস্কফোর্সের বিষয়ে জানাবে।

 

এদিকে বাসে হাফ পাসের সিদ্ধান্ত আসার আগ পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের সড়ক ছেড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরে যাওয়ার আহবান জানিয়েছেন বিআরটিএ চেয়ারম্যান এবং পরিবহন নেতারা।


-খবর প্রতিদিন/ সি.বা   


আরও খবর



নৌকা পরাজিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান হলো তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু!

প্রকাশিত:Sunday ২৮ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৭৮জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


 

 

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার ৬নম্বর ত্রিলোচনপুর ইউনিয়ন নির্বাচনে আনারস প্রতীকের তৃতীয় লিঙ্গের স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম ঋতু জয় লাভ করেছেন।

 

রবিবার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বড় ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন নজরুল ইসলাম ঋতু। নির্বাচনে তিনি নৌকা প্রতীকের নজরুল ইসলাম ছানা ও হাতপাখা প্রতীকের মাহবুবুর রহমানকে পরাজিত করেছেন।

 

উপজেলা নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত ফলে জানা যায়, নজরুল ইসলাম ঋতু ৯ হাজার ৫৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের নজরুল ইসলাম ছানা পেয়েছেন ৪ হাজার ৪০৪ ভোট। বিজয়ী চেয়ারম্যান ঋতু উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের সন্তান।

 

জয়ের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া সাংবাদিকদের ঋতু বলেন, এ জয় ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নবাসীর। প্রতিটি মানুষের কাছে আমি ঋণী। কাজের মাধ্যমে মানুষের ঋণ শোধ করার চেষ্টা করব।

 

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 

নিউজ ট্যাগ: ইউনিয়ন নির্বাচন

আরও খবর



একসঙ্গে পাঁচ ছেলে-মেয়ের জন্ম

৬ মাসেই একসঙ্গে পাঁচ ছেলে-মেয়ের জন্ম দিলেন সাদিয়া

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৪১৩জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 


কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে একসঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন সাদিয়া খাতুন নামে এক প্রসূতি। তাদের মধ্যে চারজন মেয়ে ও একজন ছেলে। গর্ভধারণের মাত্র ছয় মাসের মাথায় শিশুগুলোর জন্ম হয়েছে।

 

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নির্দিষ্ট সময়ের আগে প্রসব হওয়ায় বাচ্চাগুলোর ওজন কম হয়েছে। মা সুস্থ থাকলেও বাচ্চাগুলো ঝুঁকিতে রয়েছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে একসঙ্গে পাঁচ শিশুর জন্ম হয়। প্রসূতি সাদিয়া কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের পান্টি গ্রামের কলেজপাড়া এলাকার সোহেল রানার স্ত্রী।

 

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ৬ মাসের মাথায় সাদিয়া বাচ্চা প্রসব করেছেন। একসঙ্গে পাঁচ বাচ্চা প্রসবে অনেক ঝুঁকি ছিল। তবে মা সুস্থ থাকলেও ওজন কম হওয়ায় ঝুঁকিতে রয়েছে বাচ্চাগুলো।সাদিয়ার ননদ রাবেয়া বলেন, সোমবার রাত ১০টায় হাসপাতালে আসি। ৬ মাস ১০ দিনের মাথায় নরমাল ডেলিভারিতে বাচ্চাগুলোর জন্ম হয়েছে। আমার ভাবি সুস্থ আছেন। আমরা খুবই খুশি।

 

শিশুদের বাবা সোহেল রানা বলেন, ২০১৬ সালের ৩০ জুলাই সাদিয়া খাতুনকে বিয়ে করি। পাঁচ বছর পর আমাদের একসঙ্গে পাঁচ সন্তান হলো। আমরা খুবই খুশি। আমার স্ত্রী সুস্থ আছে, বাচ্চারা শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

 

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শাহীন আক্তার সুমন বলেন, বাচ্চাদের সুস্থ করে তোলার চেষ্টা চলছে। তবে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। তাদের ওজন কম হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজের শিশু বিভাগে অথবা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বাচ্চাগুলোর ওজন ৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম। তবে মা সুস্থ রয়েছেন।

 

-খবর প্রতিদিন / সি.বা 


আরও খবর