Logo
আজঃ রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

সাধারণ মানুষ ভালো নেই, বললেন কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | ২৪৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পেঁয়াজ-রসুনের দাম বেশি হওয়ায় সাধারণ মানুষ ভালো নেই বলে দাবি করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সে এক সেমিনারে তিনি দাবি করেন। 

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রতিদিনই আমরা খবরে দেখছি পেঁয়াজ ও রসুনের দাম বেশি। বিশেষ করে কম আয়ের মানুষ যারা রিকশাওয়ালা, ভ্যানওয়ালা- তাদের পেঁয়াজ ও রসুন কিনতে গিয়ে অনেক খরচ করতে হচ্ছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এই প্রতিকূল পরিবেশ কীভাবে মোকাবিলা করা যাবে, এটিই এখন চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তার জন্য বিজ্ঞানীদের নতুন নতুন বিষয় উদ্ভাবন করতে হবে যে, কোন ফসল বাংলাদেশে ফলানো সম্ভব। সার্বিক উন্নয়নে আমরা একটি বিপ্লব শুরু করবো। কৃষিকে গুরুত্ব দেওয়ার ফলে খাদ্য ব্যবস্থাপনায় দেশ খুব ভালো অবস্থায়।

বিএনপির উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, আমরা সবসময় শক্তিশালী বিরোধীদল চাই। আন্দোলন সংগ্রাম করে সরকারকে হটাতে পারবেন না। গত ১৪ বছরে পারেননি, এক-দেড় মাসেও পারবেন না। জনগণ যে রায় দেবে আমরা মেনে নিতে প্রস্তুত। তাই বলছি আপনারা নির্বাচনে আসুন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, দেশের ১৭ কোটি মানুষের খাদ্যের ব্যবস্থা করা যে কত বড় চ্যালেঞ্জ আমাদের জন্য এটা বলার ভাষা জানা নেই। তারপরও আমরা কিন্তু ১৭ কোটি মানুষকে খাওয়াচ্ছি। 

এ সময় তিনি বলেন, মিলাররা খুব খারাপ অবস্থায় আছেন, কারণ তারা চাল কিনেছিলেন, ধান কিনেছিলেন, মনে করেছিলেন অনেক বেশি লাভবান হবেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত দাম আরও কমের দিকে। এখন সব মিলার সরকারকে চাল দেওয়ার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। 

বাজারে চালের দাম সরকার ঘোষিত দামের চেয়ে আরও কম। আবার অনেক বছর এমন হয়, আমি নিজেও খাদ্যমন্ত্রী ছিলাম, মিলাররা আমাদের সঙ্গে চুক্তি করেও চাল সরবরাহ করেননি। তাদের লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হয়, বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেওয়া হয়। অনেক সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিয়োজিত করা হয়। এরপরও তারা চাল দেন না, কারণ বাজারে দাম বেশি থাকে, যোগ করেন কৃষিমন্ত্রী। 


আরও খবর



নাসিরনগরে ধর্ষণের শিকার চার বছরের শিশু

প্রকাশিত:সোমবার ০১ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | ১৫৫জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর,ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার  নাসিরনগর উপজেলার পূর্বভাগ ইউনিয়নে  চার বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২৬ মার্চ ২০২৪ রোজ  মঙ্গলবার বেলা অনুমান দুই ঘটিকার সময়।এ ঘটনায় জড়িত ধর্ষক বকুল মিয়া কে আসামী করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালতে মামলা করা হয়েছে। যার মামলা নং পি১৩২/২৪ তারিখ ৩১ মার্চ ২০২৪।জানা গেছে, উপজেলার পূর্বভাগ উত্তরপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে বকুল মিয়া (১৯) প্রতিবেশী চার বছরের এক  শিশুটিকে  চকােলেটের লোভ দেখিয়ে একই গ্রামের হাবিব মিয়ার পরিত্যক্ত  ঘরে ডেকে নেয়।

সেখানে তাকে ধর্ষণ করে রক্তাক্ত করে।  এতে শিশুটির চিৎকারে আশপাশের  লোকজন এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে। পরিবারের লোকজন শিশুটিকে গুরুতর অবস্থায়  ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।জানা গেছ ধর্ষণের শিকার শিশুটির ইনফেকশন দেখা দিয়েছে এবং সে খুবই সংকটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালের গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে।ভিকটিমের মা আসামী বকুল মিয়ার  অভিভাবকগণের নিকট বিচারপ্রার্থী হলে তারা বাদিনী ও তার লোকদের হুমকি ধামকি দিয়ে বিদায় করে দেয়।নিরূপায় হয়ে বাদিনী গত ৩১ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজ্ঞ নারী ও  শিশু নির্ষাতন দমন ট্রাইবুন্যালে-১ এ  মামলা দায়ের করে।বিজ্ঞ আদালত থানায় মামলাটি এফ আই আর  হিসেবে গন্য করার  জন্য ওসি নাসিরনগর থানাকর নির্দেশ প্রদান করেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর

স্বাগত ১৪৩১, আজ পহেলা বৈশাখ

রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪




রেললাইনের প্যাচানো ক্লিপ খোলার সময় দুই যুবক আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image
সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:রেললাইনের প্যাঁচানো ক্লিপ খোলার সময় দুই যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্হানীয়রা। ওইসময় তাদের কাছ থেকে ১৬টি ক্লিপ উদ্ধার করা হয়।মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম নুরুল ইসলাম।সোমবার দিবাগত গভীর রাতে নীলফামারি সদর উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের খয়রাত নগর এলাকা থেকে ক্লিপ খোলার সময় তাদের আটক করা হয়। রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা জানিয়েছেন নাশকতার উদ্দেশ্যেই ক্লিপগুলো খোলা হচ্ছিল। তবে ঘটনার প্রায় ১৫ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও থানায় মামলা দায়ের না হওয়ায় ঘটনাটি নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। আটককৃতরা হলেন সোনারায় ইউনিয়নের জয়চন্ডী পুটিহাট এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে আল আমিন (২৬) ও উত্তর মুসশুর কুখাপাড়া এলাকার আবুল কালাম আজাদের ছেলে মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ওরফে বেলাল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আটককৃত দুইজন উচ্চ শিক্ষিত বেকার যুবক। ওদিন রাতে তারা রেললাইনের ফাঁকা জায়গায় ক্লিপ খুলছিলেন। এ সময় স্থানীয়রা টের পেয়ে তাদের আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

সৈয়দপুর রেলওয়ের উর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী (পথ) সুলতান মৃধা বলেন, যদি স্থানীরা বিষয়টি না দেখতেন তাহলে বড় ধরণের দুর্ঘটনা হওয়ার সম্ভাবনা ছিল । ধারনা করছি ওই দুই যুবক নাশকতার উদ্দেশ্যেই ক্লিপগুলো খুলেছে। তবে তাদের জিজ্ঞাসা করলেই সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।এ বিষয়ে সৈয়দপুর রেলওয়ে থানার ওসি এম নুরুল ইসলাম বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের পরে বলা যাবে তাদের উদ্দেশ্য নাশকতা নাকি অন্য কিছু। এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে।

আরও খবর



"মোটরসাইকেলে বাড়িতে যেতে ডিএমপির নিষেধ"

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশে সড়ক দুর্ঘটনার অর্ধেকের বেশি মোটরসাইকেলে হয়,বলেছেন ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান । তাই ঈদে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়িতে যাওয়ার ব্যাপারে নিষেধ করা হয়েছে। আমরা আমাদের পুলিশ সদস্যদেরও নিজেদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে মোটরসাইকেলে বাড়ি যাওয়ায় নিষেধ করেছি।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাজধানীর পান্থপথ মোড়ে শপিংমল ও বাজার পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঈদের সময় গাড়ির চাপ থাকে অনেক বেশি। তাই এসময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই ঈদে সবাইকে মোটরসাইকেলে যাতায়াত না করার অনুরোধ করা হয়েছে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ফিটনেসবিহীন যানবাহন যেন রাস্তায় না চলে সেদিকে সর্বোচ্চ সতর্কতা নেয়া হয়েছে। বাস মালিকদের নিষেধ করা হয়েছে যেন ফিটনেসবিহীন গাড়ি বের না করে। যদি কেউ অমান্য করে তাহলে ট্রাফিক আইনে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সময় ঈদের কেনাকাটায় ঢাকার তীব্র যানজট নিয়ে প্রশ্ন করা হলে কমিশনার বলেন, ঢাকায় যে পরিমাণ মার্কেট ও যানবাহন রয়েছে সেই তুলনায় পর্যাপ্ত বৈধ পার্কিংয়ের ব্যবস্থা নেই। তাই বলে যেখানে-সেখানে গাড়ি পার্কিং করা যাবে না, করলে ট্রাফিক আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে। মার্কেট কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে যেন তারা তাদের করিডরে পর্যাপ্ত পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখেন।


আরও খবর



দয়া করে সামান্য ধৈর্য্য ধরুন: বেনজির আহমেদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দুর্নীতি ও বিপুল সম্পদ নিয়ে সম্প্রতি গণমাধ্যমে পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজির আহমেদের সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে নানা সমালোচনা।

গত দুই দিন ধরে চলা সমালোচনা নিয়ে চুপ ছিলেন পুলিশের সাবেক এই আইজিপি। এখনও সরাসরি কোনো মন্তব্য করেননি তিনি। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ বিষয়ে সবাইকে ধৈর্য্য ধরতে বলেছেন বেনজির।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) নিজের ফেরিফায়েড ফেসবুক পেজের স্ট্যাট্যাসে বেনজির লিখেছেন, ‘দু-একজন অনেক ক্ষিপ্ত, খুব ই উত্তেজিত হয়ে এক্ষুনি সম্পাদকীয়, উপসম্পাদকীয়, প্রবন্ধ লিখে ফেলছেন। দয়া করে সামান্য ধৈর্য্য ধরুন। ঘোষণাই তো আছে ‘কুৎসার কিসসা আভি ভি বাকি হ্যায়।’

উল্লেখ্য, সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের নানা অপকর্ম ও দুর্নীতির তথ্য তুলে ধরে ধারাবাহিক সংবাদ প্রকাশ করেছে কয়েকটি সংবাদমাধ্যম। গত রোববার ‘বেনজীরের ঘরে আলাদীনের চেরাগ’, ‘ মেয়ের বিশ্রামের জন্য সাড়ে তিন কোটি টাকার ফ্ল্যাট’ এবং আজ মঙ্গলবার ‘বনের জমিতে বেনজীরের রিসোর্ট’, ‘সেন্ট মার্টিন কক্সবাজারেও ভূ-সম্পত্তি’ শিরোনামে প্রকাশ হয় অনুসন্ধানী প্রতিবেদন। যা দেশে-বিদেশে তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।


আরও খবর



বিরামপুরে এক কেজি সাপের বিষ উদ্ধার

প্রকাশিত:বুধবার ১০ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image

মিজানুর রহমান মিজান, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃদিনাজপুর জেলার বিরামপুর সীমান্তে ভারতে পাচার কালে এক কেজি সাপের বিষ উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড ঘাসুডিয়া ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা।

জয়পুরহাট-২০ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ তানজিলুর রহমান ভূঁইয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) জয়পুরহাট-২০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ তানজিলুর রহমান ভূঁইয়া জানান, বুধবার (১০ এপ্রিল ) রাত পৌনে তিনটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমার নির্দেশে উপ-অধিনায়ক মেজর আফিক হাসান নেতৃত্বে ও ঘাসুড়িয়া ক্যাম্পের বিজিবি'র  টহল কমান্ডার নায়েক মোঃ আসাদুজ্জামান এর সহযোগিতায় দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলা সীমান্তের নিকটবর্তী এলাকা অভিযান চালান। এসময় হতে অবৈধ পথে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে সাপের বিষ পাচারের চেষ্টাকালে এক কেজি সাপের বিষ উদ্ধার করেন বিরামপুর সীমান্তের ঘাসুড়িয়া ক্যাম্পের বিজিবি'র একটি বিশেষ টহলদল।

তিনি আরো জানান, সীমান্ত পিলার ২৮৯/১-এস হতে আনুমানিক ৪০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ওসমান মোড়, ঈদগাহ মাঠ নামক স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে এক কেজি সাপের বিষ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত সাপের বিষের আনুমানিক মূল্য এক কোটি বিশ লক্ষ টাকা। এবিষয়ে চোরাচালান আইনে বিরামপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। চোরাচালান প্রতিরোধে এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও বিজিবি'র এই কর্মকর্তা নিশ্চিত করেন।


আরও খবর