Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

র‌্যাবের ৪২৮ টহল টিম অবরোধে কাজ করছে

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২১৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিএনপির ডাকা অবরোধকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রাজধানীতে র‍্যাব ফোর্সেসের ১৪০টি টিমসহ সারাদেশে ৪২৮টি টহল টিম মোতায়েন করা হয়েছে।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান।

তিনি জানান, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রাজধানীতে র‍্যাবের ১৪০টি টহল দলসহ সারা দেশে ৪২৮টি টহল দল মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া, যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে নিরাপত্তা দিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে দূরপাল্লার গণপরিবহন ও পণ্যবাহী পরিবহন টহলের মাধ্যমে এস্কর্ট দিয়ে নিরাপদে গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দিচ্ছে র‍্যাব।

যেকোনো ধরনের নাশকতা ও সহিংসতা প্রতিরোধে বাসস্ট্যান্ড, রেলস্টেশনসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে র‍্যাবের গোয়েন্দারা ছদ্মবেশে নজরদারি অব্যাহত রেখেছে বলেও জানান ইমরান খান।


আরও খবর



সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শন করলেন রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image

খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:রেলমন্ত্রী জিল্লুর হাকিম বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশের ন্যায় রেলওয়েতেও স্মার্ট ও দক্ষ জনশক্তির প্রয়োজন। অতি শিগগিরই এ কারখানায় জনবল নিয়োগের পর তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।মন্ত্রী বলেন, সৈয়দপুর রেলের অনেক জমি বেহাত হয়ে গেছে। এ কাজে জড়িত রয়েছে অনেকেই। দখলদারদের কাছ থেকে এসব জমি দখলমুক্ত করে রেলওয়ে কারখানার আধুনিকায়ন করা হবে ।  

শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা সারে ১১টায় দেশের বৃহত্তম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।মন্ত্রী বলেন, সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় জনবল দিনদিন কমে আসছে। ১৮৭০ সালে আসাম বেঙ্গল রেলওয়ের বিশাল কারখানাটির শুরুর দিকে জনবল ছিল প্রায় ১০ হাজার।এরপর ১৯৮৬ সাল থেকে  শ্রমিক ছাটাইয়ে হয় ২৮৫৯ জন। কিন্তু বর্তমানে  ৮৬০ জন কর্মরত রয়েছেন।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্বে রেলওয়ে অনেক উন্নত হয়েছে । আমাদেরও সেই তালে এগিয়ে যেতে হবে। নতুন নতুন রেলপথ স্থাপন ও সেবার মান বৃদ্ধি করে রেলওয়ে যাত্রীবান্ধব করতে হবে।

এরপর কারখানার ২৯টি শপ (উপ-কারখানা) ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলেন মন্ত্রী।  

বর্তমান সরকারের রেলপথ মন্ত্রী হিসেবে এটিই প্রথম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শন। তিনি রেলওয়ে কারখানায় এসে পৌঁছলে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান, কারখানার বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক (ডিএস) সাদেকুর রহমান। এরপর মন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে কারখানায় স্থাপিত অদম্য স্বাধীনতায় শহীদদের স্মরণে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।  

এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক। এছাড়াও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. হুমায়ুন কবীর, মহাপরিচালক (ডিজি) কামরুল হাসান, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার, প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী (সিএমই, পশ্চিম) মুহম্মদ কুদরত-ই খুদা, জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ, পুলিশ সুপার গোলাম সবুর, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও শ্রমিকলীগ নেতা মোখছেদুল মোমিন প্রমুখ।


আরও খবর



ঢাকা দূষিত শহরের তালিকায় দ্বিতীয়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ বিশ্বে দূষিত শহরের তালিকায় ১০০ শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান দ্বিতীয়। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালের দিকে বায়ুমানের সূচক (একিউআই) অনুযায়ী ঢাকায় বাতাসের মান ছিল ১৮১ স্কোর।বায়ুর মান বিচারে এ মাত্রাকে অস্বাস্থ্যকর বলা হয়।

এছাড়া স্কোর ১৮৩ নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছে ভারতের মুম্বাই। ১৭৮ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা এবং ১৭১ স্কোর নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা।

একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ২০০ এর মধ্যে থাকলে অস্বাস্থ্যকর, ২০১ থেকে ৩০০-র মধ্যে থাকলে খুব অস্বাস্থ্যকর এবং স্কোর ৩০১ থেকে ৪০০ এর মধ্যে থাকলে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।

ঢাকায় বায়ুদূষণের জন্য ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলোকে দায়ী করে আসছেন বিশেষজ্ঞরা। ভয়াবহ এ দূষণের ফলে গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। এটা সব বয়সী মানুষের জন্য ক্ষতিকর। বিশেষ করে শিশু, অসুস্থ ব্যক্তি, প্রবীণ ও অন্তঃসত্ত্বাদের জন্য বায়ুদূষণ খুবই ক্ষতিকর।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে রঙিন পাতাকপি চাষ

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৪৫জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী গ্রামে কৃষক মিলন রানা তার জমিতে রঙিন পাতাকপি চাষ শুরু করেছেন। ফুলবাড়ী উপজেলায় এই প্রথম রঙিন পাতাকপি চাষ শুরু হয়েছে। ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিস থেকে রুবি কিং মৌসুম ২৩-২৪ অর্থ বছরের টেকশই কৃষি উন্নয়ন কৃষক গ্রুপ। প্রদর্শনী ক্ষেতে কৃষক মিলন রানার ২০ শতক জমিতে গত ২৯/১০/২০২৩ইং তারিখে রঙিন পাতা কপির চাষ শুরু করেন। জমিতে লাগানোর দুই মাসে মধ্যে এই রঙিন ফুলকপি পরিপুক্ত হয়। যাহা উত্তোলন করে বাজারে বিক্রয় করা সম্ভব। বর্তমান বাজারে এই রঙিন পাতাকপি প্রতি কেজি ৫০টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে। ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ীতে কৃষক মিলন রানা এই প্রথম রঙিন পাতা কপি চাষ করে কৃষকদেরকে তাক লাগিয়েছেন। ২০শতক জমিতে ৭২০ পিচ চারা রোপন করেন সাবলম্বি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোছাঃ রুম্মান আক্তার জানান, ফুলবাড়ীতে এই প্রথম রঙিন পাতা কপির চাষ প্রদর্শনী হিসেবে লাগানো হয়েছে কৃষক মিলন রানা সফল হয়েছে। আমরা কৃষি দপ্তর থেকে সব রকম সহযোগিতা করেছি কৃষক মিলন রানাকে। সরেজমিনে প্রদর্শনীর ক্ষেত দেখতে এসে তিনি খুব আনন্দিত এবং সফলতা বোধ মনে করছেন। খয়েরবাড়ি গ্রামের কৃষক মিলন রানা জানান, আগামীতে ব্যাপক ভাবে রঙিন পাতা কপির চাষ শুরু করা হবে। এই কপি বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিসের অতিরিক্ত কৃষি অফিসার মোঃ শাহানুর। কৃষ প্রদর্শনীর আয়োজনে ছিলেন দিনাজপুর অঞ্চল টেকসই কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প। এ সময় ফুলবাড়ী থানা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক মোঃ আফজাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক উপজেলা মাইটিভি প্রতিনিধি মোঃ ফিজারুল ইসলাম ভুট্টু সহ প্রিন্ট মিডিয়ার সহ সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ফুলবাড়ী সদরদপ্তরে ৭ কোটি ৫৯ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার অবৈধ্য মাদক ধ্বংস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬০জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি ;ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি এবং দিনাজপুর ৪২বিজিবি কর্তৃক মাদক বিরোধী অভিযানে ফুলবাড়ী সদরদপ্তরে ৭ কোটি ৫৯ লক্ষ ৩৬ হাজার  ৪৪৬টাকার মাদক ধ্বংস করণ অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ফুলবাড়ী বিজিবি সদরদপ্তরে ১৬ ডিসেম্বর ২০২২হতে ৩১শে জানুয়ারী ২০২৪ পর্যন্ত, দিনাজপুর ৪২ বিজিবি কর্তৃক ১১ মে ২০২২ হতে ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ ইং পর্যন্ত মালিক বিহীন অবস্থায় ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবির প্রশিক্ষণ মাঠে মাদক ধ্বংস কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপ¯ি’ত থেকে বক্তব্য রাখেন উত্তর ও পশ্চিম রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল খোন্দকার শফিকুজ্জামান, পিএসসি। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর কন্যা মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর প্রদত্ত জিরো টলারেন্স নীতি নিশ্চিত প্রকল্পে বিজিবি বদ্ধপরিকর। সীমান্তে বিজিবি জীবনের ঝুকি নিয়ে মাদক নিমূল অভিযান অব্যহত রেখেছেন। সকলের সহযোগীতা ছাড়া মাদক নিমূল কোন ভাবে সম্ভব নয়। তবু আমরা এই সমাজকে সুন্দর রাখতে মাদক নির্মূল করে যাচ্ছি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কর্নেল রাশেদ, আজগর পিএসসি, জি, সেক্টর কমান্ডার, দিনাজপুর, লে: কর্ণেল মোঃ আহসান উল ইসলাম পিএসসি, অধিনায়ক দিনাজপুর ৪২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন, লে কর্ণেল এবিএম জাহিদুল করিম, অধিনায়ক ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন, ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান।

এছাড়ও উপস্থিত ছিলেন, বিজিবি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, র‌্যাব কর্মকর্তা, গোয়েন্দা কর্মকর্তা, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধিসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকবৃন্দ এবং প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদকিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আয়োজনে ছিলেন, ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




৬ কোটি টাকার বিজনেস সিক্রেট নিয়ে মোড়ক উন্মোচন হল কোচ কাঞ্চনের ক্যাশ মেশিন

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:'একসাথে সমৃদ্ধ' শ্লোগান নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে কোচ কাঞ্চন একাডেমির মিলনমেলা। আর এই মিলন মেলায় ৬ কোটি টাকার বিজনেস সিক্রেট নিয়ে মোড়ক উন্মোচন  হল কোচ কাঞ্চনের 'ক্যাশ মেশিন'। 

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে কোচ  কাঞ্চন বলেন, আমি আমার বইটি আমার এক বন্ধুর জন্য উৎসর্গ করলাম। এখানে বইয়ের ভিতরে বন্ধুর সমস্ত কথা তুলে ধরা হয়েছে। আমাকে ঢাকাতে নিয়েছিল আমার ওই বন্ধু। এমনকি তার মৃত্যুর সময় আমি তার জানাজার ওখানে যেতে পারিনি। এটা আমার জন্য জীবনের সবচেয়ে বড় কষ্ট। আমি অন্য মানুষের থেকে তার জানাজার বর্ণনা শুনেছিলাম। আপনারা সবাই আমার ওই বন্ধুর জন্য  দোয়া করবেন। 
 

অনুষ্ঠানে এক লাখ কোটিপতি তৈরির ঘোষণাও দেন কোচ কাঞ্চন। তিনি মনে করেন দক্ষ উদ্যোক্তা তৈরি করা গেলে দেশের অর্থনীতি পালটে দেয়া সম্ভব।

দশ লক্ষ দক্ষ উদ্যাক্তা তৈরির মিশনে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে কোচ কাঞ্চন টিম। ২০১৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৩০ হাজারেরও বেশি প্রশিক্ষণার্থী কোচ কাঞ্চন একাডেমির বিভিন্ন সেশনে অংশগ্রহণ করে উপকৃত হয়েছে। কোচ কাঞ্চনের বই পড়েছেন ৫০ হাজারেরও বেশি পাঠক। কোচ কাঞ্চন একাডেমির এই মেগা মিলনমেলা ছিল পারস্পারিক সু-সম্পর্ক তৈরি ও হাতে হাত ধরে এগিয়ে যাওয়ার দারুণ সুযোগ।

আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪