Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
৫০০ বোতল ফেনসিডিলসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, ০১ টি ইজিবাইক ও ০১টি প্রাইভেটকার জব্দ

র‌্যাব-১১ অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধার করেছে

প্রকাশিত:Monday ২৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১২০জন দেখেছেন
Image

শরীফ আহমেদ : 

র‌্যাব-১১ এর পৃথক অভিযান পরিচালনা করে আড়াইহাজার ও সোনারগাঁ হতে ৫০০ বোতল ফেনসিডিলসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, ০১ টি ইজিবাইক ও ০১টি প্রাইভেটকার জব্দ করেছে।



গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি, আদমজীনগর, নারায়ণগঞ্জের আভিযানিক দল অদ্য ২৩ মে ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানাধীন রামচন্দ্রদী এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ২০০ বোতল ফেনসিডিলসহ মোঃ শহিদুল ইসলাম (৪৮) নামক ০১ মাদক ব্যবসায়ীকে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় গ্রেফতারকৃত আসামীর হেফাজত হতে মাদক পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ০১টি ইজিবাইক জব্দ করা হয়। 



এদিকে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি, আদমজীনগর, নারায়ণগঞ্জের অপর একটি আভিযানিক দল অদ্য ২৩ মে ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানাধীন মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে ঢাকাগামী ০১টি প্রাইভেটকার তল্লাশী করে ৩০০ বোতল ফেনসিডিলসহ মোঃ মিজানুর রহমান (২৮) নামক অপর ০১ মাদক ব্যবসায়ীকে হাতে-নাতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।


 উক্ত অভিযানে আসামীর হেফাজত হতে মাদক পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ০১টি পিকআপ জব্দ করা হয়।


আরও খবর



অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ, হোয়াইট হল রেস্টুরেন্টকে দুই লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

নামীদামি রেস্টুরেন্ট কিন্তু ভেতরের পরিবেশ অপরিচ্ছন্ন। নেই কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সনদ। আবার যেসব বিদেশি পণ্য ব্যবহার করে খাবার তৈরি হচ্ছে সেগুলোর আমদানিকারকের প্রমাণক পাওয়া যায়নি।

এসব কারণে ধানমন্ডির ২৭ নম্বর এলাকার হোয়াইট হল বুফে অ্যান্ড রেস্টুরেন্টকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ।

বুধবার কর্তৃপক্ষের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব হাসানের নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে এ জরিমানা করা হয়।

এসময় অভিযানকালে বেশকিছু পণ্যে আমদানিকারকের প্রমাণক পাওয়া যায়নি। ফায়ার লাইসেন্স পাওয়া যায়নি, প্রেমিসেস লাইসেন্স, কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সনদ পাওয়া যায়নি ও পরিবেশ অপরিচ্ছন্ন পাওয়া যায়।

এসব অপরাধে ওই রেস্টুরেন্টকে নিরাপদ খাদ্য আইন, ২০১৩ এর বিধান অনুযায়ী ২ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে এক মাসের জেল প্রদান করা হয়। জেনারেল ম্যানেজার তার অপরাধ স্বীকার করে অর্থদণ্ড তাৎক্ষণিক পরিশোধ করেন।

অভিযানকালে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আনসারী, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পরিদর্শক সানোয়ার হোসেন, অন্যান্য সাপোর্ট স্টাফ এবং আনসার সদস্যের একটি দল উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



অর্থনৈতিক মন্দায় ঝুঁকছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

করোনা মহামারির পর রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধকে কেন্দ্র করে অর্থনৈতিক অস্থিতিশীলতা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্রে। সবার মনে একটাই প্রশ্ন আমরা অর্থনৈতিক মন্দায় প্রবেশ করতে যাচ্ছি না তো। কারণ দেশটির শেয়ারবাজারের অবস্থা ভালো নেই, লাফিয়ে বাড়ছে মূল্যস্ফীতি। এদিকে সুদের হার বাড়ানোর ফলে অর্থনীতিতে ধীর গতি দেখা দিয়েছে। তাছাড়া ভোক্তাদের প্রত্যাশা সূচকও রেকর্ড পরিমাণ কমেছে। সব পণ্যের মূল্য বাড়ায় ভোক্তাদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে।

জুনে যুক্তরাষ্ট্রে ভোক্তা মূল্যসূচক বেড়ে ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ হয়। সরকারের প্রাথমিক হিসেবে দেখা গেছে, গত ১২ মাসে পণ্যের দাম বেড়েছে আট দশমিক ছয় শতাংশ। বর্তমানে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদের হার বাড়াচ্ছে দ্রুত গতিতে। এতে অর্থনীতিতে ধীর গতি চলে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে তামার দাম ১১ শতাংশ কমার পর ১৬ মাসের মধ্যে সর্ব নিম্ন হয়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের জন্য খারাপ খবর। কারণ তারা তামার দামকে বৈশ্বিক অর্থনীতির জন্য একটি বেলওয়েদার হিসেবে দেখেন। নির্মাণ উপাদান হিসেবে তামার ব্যাপক ব্যবহার রয়েছে। কিন্তু অর্থনীতি সংকুচিত হলে এটির চাহিদা কমে যায়।

জুনে পার্চেজিং ম্যানেজার ইনডেক্স প্রকাশ করেছে এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল। সেখানে দেখা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারিখাতে উৎপাদন কমেছে। এসএন্ডপি গ্লোবাল মার্কেট ইন্টেলিজেন্সের প্রধান ব্যবসায়িক অর্থনীতিবিদ ক্রিস উইলিয়ামসন বলেছেন, ভোক্তারা ক্রমবর্ধমান দামের সঙ্গে লড়াই করার কারণে অ-প্রয়োজনীয় পণ্যের উৎপাদকদের অর্ডার হ্রাস পাচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুদের হার বাড়ানো ফলে এ সমস্যা আরও বেড়েছে।

মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয় শুক্রবার অর্থনীতির ওপর ভোক্তাদের প্রত্যাশার বিষয়ে তথ্য প্রকাশ করেছে। সেখানে দেখা যায় ভোক্তাদের প্রত্যাশা গত ৭০ বছরের মধ্যে সর্ব নিম্ন হয়েছে। জ্বালানিতেও দেশটিতে স্বস্তির খবর নেই। এরই মধ্যে পেট্রলের দাম বেড়ে রেকর্ড হয়েছে।

দেশটির আবাসনখাতেও ধস নেমেছে। তবে ধারণ করা হচ্ছে, এটি অর্থনীতি ও শেয়ার বাজারে তেমন প্রভাব ফেলবে না। তবে বাড়ি কেনা আমেরিকানদের নাগালের বাইরে চেলে গেছে। সুদরে হার বাড়ানোর ফলে মর্টগেজ হারও বেড়েছে।


আরও খবর



পরিবারে শিশুর সংখ্যা বেশি হলে মানসিক বিকাশ ত্বরান্বিত হয়: গবেষণা

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

পরিবারে এক শিশুর তুলনায় দুই বা ততোধিক শিশু থাকলে তাদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। শুধু তাই নয়, শিশুর প্রাথমিক শৈশব বিকাশ পরিবারে শিশুর সংখ্যাধিক্যের ওপর নির্ভর করে। প্রত্যেক নতুন শিশুর জন্মে এ উন্নয়ন পাঁচ শতাংশ হারে বাড়তে থাকে।

গত ৫ এপ্রিল আমেরিকান বহুজাতিক প্রকাশনা সংস্থা উইলিতে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে এ তথ্য জানানো হয়।

‘আরলি চাইল্ডহুড ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ইটস অ্যাসোসিয়েশন উইথ ম্যাটারনাল প্যারিটি’ শিরোনামে গবেষণাটি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার লা ট্রোব বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ বিভাগের শিক্ষক এম মফিজুল ইসলাম এবং বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের শিক্ষক ড. নুরুজ্জামান খান।

বাংলাদেশ মাল্টিপল ইন্ডিকেটর ক্লাস্টার সার্ভে ২০১৯ এর তথ্য ইউনিসেফ নির্দেশিত চারটি ডোমেইন বিশ্লেষণ করে শিশুর প্রাথমিক বিকাশের ক্ষেত্রে এ তথ্য তুলে ধরেন গবেষকরা। ডোমেইনগুলো হলো শারীরিক বিকাশ, সাক্ষরতা ও সাংখ্যিক বিকাশ, শিখন ক্ষমতা ও সামাজিক আবেগ-অনুভূতির বিকাশ।

বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ৩৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী (৩ থেকে ৫ বছর) ৯ হাজার ৩৮০টি শিশুর ওপর এ গবেষণা চালানো হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, দেশের ২৫ শতাংশ শিশুর প্রাথমিক শৈশব বিকাশ ঠিকমতো হচ্ছে না। ৭১ শতাংশ শিশুর সাক্ষরতা ও সাংখ্যিক বিকাশ বিঘ্নিত হচ্ছে, ২৭ শতাংশ শিশু সামাজিক আবেগের দিক থেকে অবিকশিত থেকে যাচ্ছে। ৯ শতাংশ শিশু শেখার দিক থেকে পিছিয়ে পড়ছে। আর ১ শতাংশ শিশু শারীরিকভাবে বিকশিত হচ্ছে না। এ সমস্যাগুলোর উল্লেখযোগ্য অংশ ঘটছে পরিবারে শিশুর সংখ্যা তুলনামূলক কম হওয়ার কারণে।

গবেষণা বলছে, শিশুদের প্রাথমিক বিকাশের ওপর তাদের মা কত সংখ্যক সন্তান গ্রহণ করছেন তার একটি সম্পর্ক রয়েছে। শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ নির্ভর করে মায়েদের সন্তান গ্রহণের ওপর। একজন মা একের অধিক সন্তান গ্রহণ করলে শিশুদের বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। এক্ষেত্রে মায়েরা যদি মাধ্যমিক অথবা উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করে থাকেন তাহলে অন্যদের তুলনায় সেই মায়ের শিশু সঠিকভাবে বিকশিত হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গবেষক ড. নুরুজ্জামান খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘মূলত তিনটি কারণে সমস্যাগুলো হচ্ছে। প্রথমত, বাংলাদেশে শিক্ষিত পরিবারগুলো সন্তান কম নিতে আগ্রহী। বাবা-মা শিক্ষিত হওয়ায় তারা চাকরিক্ষেত্রে প্রবেশ করেন। এতে তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। যে কারণে ওই পরিবারের শিশুটি মা-বাবার কাছ থেকে পর্যাপ্ত সময় পাচ্ছে না। ফলে শিশুটি বেড়ে উঠছে বাড়ির কাজের মানুষটির সঙ্গে অথবা বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইসে বুঁদ হয়ে, যেটা সবচেয়ে বেশি হয়। এতে ওই শিশুটির বিকাশ বিঘ্নিত হচ্ছে।’

‘দ্বিতীয়ত, বাংলাদেশে শিশুদের প্রাথমিক বিকাশ নিয়ে তেমন কোনো একাডেমিক পড়াশোনার ব্যবস্থা নেই। এ সম্পর্কে বাবা-মায়েদের জ্ঞান নেই বললেই চলে। তারা বেশিরভাগই অসচেতন। জাতীয় পর্যায়েও এ ব্যাপারে সচেতনামূলক কোনো ক্যাম্পেইন লক্ষ্য করা যায় না। তৃতীয়ত, দেশে যৌথ পরিবারগুলো ভেঙে যাচ্ছে। ফলে শিশুদের একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগের পথ রুদ্ধ হচ্ছে। এটি একটি বড় সমস্যা।’

‘মূলত, পরিবারে সন্তান বেশি থাকলে শিশুরা নিজেদের সঙ্গে মিশতে পারে। একে অন্যের সঙ্গে সময় কাটালে উৎফুল্লতা বাড়ে। ফলে উন্নয়ন ঘটে’, যোগ করেন এ গবেষক।

সমস্যাগুলোর সমাধান কী জানতে চাইলে ড. খান বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত শিশুদের প্রাথমিক বিকাশ সম্পর্কে পড়াশোনার ফিল্ড তৈরি করা। প্রি-প্রাইমারি (প্রাক-প্রাথমিক) লেভেলে জোর দিতে হবে। বাবা-মায়েদের সন্তানদের সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বাবা-মা যেন পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের সঙ্গে বেশি সময় দেন সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি জরুরিভাবে ডিভাইস ডিপেন্ডেন্সি কমাতে হবে। হোক বাবা-মা কিংবা শিশু। সন্তানদের সমবয়সী শিশুদের সঙ্গে পর্যাপ্ত সময় কাটানোর ব্যবস্থা করতে হবে।’


আরও খবর



‘মাদকাসক্ত হয়ে মা-বাবার স্বপ্নকে ধ্বংস করবে না’

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
Image

মাদকের কুফল উল্লেখ করে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেছেন, জীবনে ভুল করেও কখনো মাদকের সঙ্গে জড়িত হবে না। কোনো মাদকাসক্ত ব্যক্তি জীবনে সফল হয়েছে এমন নজির নেই।

তিনি বলেছেন, মাদকাসক্ত হয়ে মা-বাবার স্বপ্নকে ধ্বংস করা যাবে না। কোনোভাবেই মাদক নেওয়ার মতো পাপের রাস্তায় পা বাড়ানো যাবে না।

শনিবার (৪ জুন) রাজারবাগের বাংলাদেশ পুলিশ অডিটোরিয়ামে ৭৮৪ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়ার অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার।

‘সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ হতে হবে’ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এ বাণীকে প্রতিপাদ্য হিসেবে ধারণ করে ডিএমপি পরিবারের মেধাবী সন্তানদের অনুপ্রেরণা জোগাতে শিক্ষাবৃত্তি-২০২১ দিচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম।

jagonews24

এইচএসসি, এসএসসি, ও-লেভেল, উচ্চ শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষাসহায়তা বৃত্তি ক্যাটাগরিতে বৃত্তি দেওয়া হয়। ভালো ফলাফলের জন্য এইচএসসিতে ২৭৫ জন, এসএসসিতে ৩৩৬ জন, ও-লেভেলে দুইজন, উচ্চ শিক্ষাবৃত্তি ৮৩ জন ও শিক্ষাসহায়তা বৃত্তি পেয়েছে ৮৮ জন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিনন্দন জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, জাতিকে যদি উন্নত করতে হয় শিক্ষা ছাড়া উপায় নেই। আমরা যে অবস্থায় আছি তার চেয়ে একটু ভালো অবস্থানে আমাদের সন্তানদের দেখতে চাই। আর এর জন্য তাদের সুশিক্ষিত করার কোনো বিকল্প নেই।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কমিশনার বলেন, তোমাদের আজকের এ সফলতা জীবনের একটা ক্ষুদ্র পদক্ষেপ। তবে প্রতিটা পদক্ষেপে সফল হওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। কেউ তোমাকে তার অবস্থান ছেড়ে দেবে না। তোমাকেই তোমার অবস্থান অর্জন করে নিতে হবে। জীবনে সফলতার শর্টকাট কোনো রাস্তা নেই, জ্ঞান অর্জনের কোনো বিকল্প নেই। কর্মক্ষেত্রে জ্ঞানের ঘাটতি নিয়ে সফল হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, বাবাকে বাবা হিসেবে মূল্যায়ন করতে হবে তার পদমর্যাদার হিসেবে নয়। প্রত্যেক বাবা-মায়েই তার সন্তানকে মানুষ করার সর্বাত্মক চেষ্টা করে থাকেন। বাবা-মায়ের সেই চেষ্টাকে ব্যর্থ হতে দেওয়া যাবে না। সন্তান যেন মানুষ হয় সে চেষ্টায় বাবা-মা কঠোর পরিশ্রম করেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর প্রতিরোধে প্রথম বুলেটটি নিক্ষেপ করা হয় পুণ্য ভূমি রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স থেকে। একজন পুলিশ সদস্য হিসেবে রাজারবাগে এলে গর্বে আমার বুক ভরে যায়। আমি এর জন্য খুবই গর্ববোধ করি।

শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অ্যাডমিন) মীর রেজাউল আলম। স্বাগত বক্তব্যে তিনি বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ পুলিশ ইউনিট। এখানে প্রায় ৩৪ হাজার পুলিশ সদস্য কর্মরত আছেন। এ ইউনিটে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের সন্তানদের সুশিক্ষায় উৎসাহিত করার লক্ষে ২০১৭ সালে চালু হয় এই শিক্ষা বৃত্তি কার্যক্রম। বর্তমান কমিশনার মহোদয় বৃত্তি প্রাপ্তদের সংখ্যা ও অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি করেন।

jagonews24

তিনি বলেন, এ শিক্ষাবৃত্তি শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের জন্য একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে। আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য এ শিক্ষাবৃত্তি বৃত্তিপ্রাপ্তদের উদ্বুদ্ধ করবে। বৃত্তিপ্রাপ্তরা ভবিষ্যৎ জীবনে দেশপ্রেমিক মানুষ হিসেবে গড়ে উঠলে সেটাই হবে আমাদের সফলতা।

বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে অনুভূতি ব্যক্ত করে একজন শিক্ষার্থী বলেন, এ রকম সুন্দর একটি অনুষ্ঠানের অংশীদার হতে পেরে আমি নিজেকে সত্যি সৌভাগ্যবতী মনে করছি। সব শিক্ষার্থী বন্ধুদের পক্ষ থেকে ডিএমপিকে এরকম সুন্দর একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। এটি ভবিষ্যতে আমাদের অনুপ্রেরণা জোগাবে। তাই আশা রাখবো এ ধরনের আয়োজন ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে এবং আমাদের মতো যত শিক্ষার্থী আছে তাদেরও অনুপ্রেরণা জোগাবে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস্) কৃষ্ণপদ রায়, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ কশিনার (ট্রাফিক) মো. মুনিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (সিটিটিসি) মো. আসাদুজ্জামান, ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বৃত্তিপ্রাপ্ত ছাত্রছাত্রী এবং তাদের অভিভাবক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



‘স্পিড মাস্টার’ তকমা নিয়ে বাজারে আসছে ইনফিনিক্সের ‘নোট ১২’

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশের বাজারে দ্রুতই জনপ্রিয়তা পাওয়া ও প্রসিদ্ধ ‘নেক্সট-জেনারেশন’ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স শিগগিরই ‘নোট ১২’ সিরিজের সর্বশেষ প্রিমিয়াম ফোন বাজারে উন্মুক্ত করতে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে উচ্চ মান-সম্পন্ন পারফরম্যান্স ও নান্দনিক ডিজাইনের ডিভাইস তৈরির মাধ্যমে ইন্ডাস্ট্রিতে মানদণ্ড তৈরির সুখ্যাতি কুড়িয়েছে।

কাঙ্ক্ষিত এই মোবাইল নিয়ে টেকপাড়ায় রয়েছে নানা গুঞ্জন, ধারণা করা হচ্ছে ‘নোট ১২’ এর নতুন ভ্যারিয়েন্টটিতে থাকবে দ্রুতগতির ও শক্তিশালী প্রসেসর, মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৬ আল্ট্রা গেমিং প্রসেসর ও আকর্ষণীয় অ্যামলেড ডিসপ্লে।

বলা বাহুল্য, মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৬ আল্ট্রা গেমিং প্রসেসর ব্যবহার করে সহজেই কোনো রকম বিঘ্ন ছাড়াই ‘হাই এফপিএস’ এর উচ্চমাত্রার কনফিগারেশনের গেমগুলো খেলা যায়। আশা করা হচ্ছে, ‘নোট ১২ জি৯৬’ ভ্যারিয়েন্টের এই অত্যাধুনিক স্মার্টফোনের মাধ্যমে ইনফিনিক্স আধুনিক পেশাদারদের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে- কারণ হালকা ও সহজে বহনযোগ্য এই ডিভাইস একইসঙ্গে উচ্চ মানের পারফরম্যান্স প্রদানেও সক্ষম।

বিভিন্ন সূত্র আরো জানাচ্ছে, শক্তিশালী গেমিং প্রসেসর ছাড়াও ইনফিনিক্সের সর্বশেষ এই ডিভাইসে থাকছে অধিকতর বৃহৎ বর্ধিত র্যাম সুবিধা, যেটির মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের ব্যবহারকারীরা দরকারি মাল্টি-টাস্কিং করতে পারবেন; পাশাপাশি ডিভাইসটি ব্যবহারকারীদের সারাদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও দৈনন্দিন উৎপাদনমুখী অ্যাপ সমূহ একনাগাড়ে ব্যবহারেরও সুযোগ করে দেবে। নতুন এই ডিভাইসটিতে থাকতে পারে দ্রুত গতির ৬.৭” এফএইচডি+ অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যেটিতে ব্যবহার করা হয়েছে গ্লাস টেক্সার এবং কার্বন ফাইবারের শক্তিশালী সমন্বয়ে ‘এরোস্পেস-গ্রেড আল্ট্রা-থিন গ্লাস ফাইবার’।

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স কেমন করে প্রিমিয়াম ফিচার সমূহ এমন সাশ্রয়ী মূল্যে ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছে দেয়- তাই এখন দেখার বিষয়। নান্দনিকতা, গতি ও শক্তিশালী পারফরম্যান্সের মিশেলে ইনফিনিক্স ‘নোট ১২ জি৯৬ সমন্বিত র্যাম ও রম ব্যবহারের মাধ্যমে বাজারে আসতে পারে ৮জিবি থেকে ১৩জিবি বর্ধিত মেমোরির সুবিধা নিয়ে, এতে গ্রাহকরা সহজেই ৫জিবি বর্ধিত র্যাম সুবিধা পাবেন।

‘নোট ১২ জি৯৬’ ডিভাইসে আরো থাকতে পারে অকল্পনীয় প্রসেসিং স্পিড, পারফরম্যান্স এবং ৩৩ ওয়াটের সুপার চার্জযুক্ত ৫০০০এমএইচ সক্ষমতার ব্যাটারি। আরো গুঞ্জন রয়েছে স্মার্টফোনটিতে থাকবে শক্তিশালী চিপসেট, ‘ডেপথ অ্যান্ড এআই লেন্স’ এর সমন্বয়ে ট্রিপল সিনেম্যাটিক ৫০ মেগাপিক্সেল আল্ট্রানাইট ক্যামেরার আকর্ষণীয় গড়ন। ‘জি৯৬’ এর এই ভ্যারিয়েন্ট আন্তর্জাতিক বাজারে কবে আসবে তা নিয়ে ইনফিনিক্সভক্তদের মধ্যে ইতোমধ্যে তুমুল আগ্রহ দেখা দিয়েছে।

সর্বোচ্চ প্রযুক্তি ও অভিনব ফিচারের এই জমজমাট স্মার্টফোনকে বলা হচ্ছে ‘নেক্সট-লেভেল’ স্পিড মাস্টার। ‘নোট ১২ জি৯৬’ বাজারে আসতে পারে ‘স্যাফায়ার ব্লু’, ‘ফোর্স ব্ল্যাক’, ‘স্নো-ফল টোন’ রঙে ও সাথে থাকবে সর্বশেষ হালনাগাদের ‘অ্যান্ড্রয়েড ১২’ অপারেটিং সিস্টেম। ইনফিনিক্সের এই সিগনেচার ডিভাইসের দাম জানা যাবে খুব শিগগিরই!


আরও খবর