Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১২৪জন দেখেছেন
Image

শরীফ আহমেদঃ 

২ টি পৃথক অভিযানে কুমিল্লা জেলার বুড়িচং, সদর দক্ষিণ,কোতোয়ালি এবং দাউদকান্দি থানা থেকে ৯৬ কেজি গাঁজা ১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬জন মাদক ব্যবসায়ী  গ্রেফতার। দুইটা ট্রাক একটি পিকআপ জব্দ।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১১,সিপিসি-২ কুমিল্লার একটি আভিযানিক দল ২৩ জুন এবং ২৪জুন ২০২২ ইং তারিখে বুড়িচং থানা , সদর দক্ষিণ, কোতোয়ালি এবং দাউদকান্দি থানা এলাকায় আভিযান পরিচালনা করে উক্ত অভিযানে ৯৬কেজি গাঁজ ১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ছয়জন মাদক  ব্যাবসায়ীকে  হাতে নাতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় ।


 গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যাবসায়িরা হলো ১। মোঃ হৃদয় আলী (২২)  ২। মোঃ রফিকুল ইসলাম ( ৩৫),৩। মোঃ ইব্রাহিম খলিল @বাবু(২৫),৪। রবিউল ইসলাম (৩৫),৫। মোঃ বেলাল হোসেন (৩৪) এবং ৬। মোঃ আক্তার হোসেন। উক্ত অভিযানে একটি পিকআপ ও দুইটি ট্রাক  জব্দ করা হয়,এ বিষয়ে পৃথক থানায় মামলা হয়েছে।


আরও খবর



ভোক্তা অধিকারের অভিযানে ১০৯ প্রতিষ্ঠানকে ১১ লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী বিভিন্ন অপরাধে ঢাকাসহ দেশের ১০৯টি প্রতিষ্ঠানকে ১১ লাখ ১৩ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) অধিদপ্তরের ঢাকার প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়ের ৫৩ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ৪৬টি জেলায় বাজার তদারকি কার্যক্রম চালানো হয়। এসব অভিযানে এসব জরিমানা করা হয়।

ঢাকার কাপ্তান বাজার, স্টেডিয়াম মার্কেট, শান্তিনগর, আনন্দ বাজারসহ আরও বেশ কয়েকটি এলাকায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের এ অভিযান চলে।

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভোক্তা অধিকার বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে ভোক্তা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে লিফলেট, প্যাম্ফলেট বিতরণসহ হ্যান্ডমাইকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, স্বাস্থ্য বিভাগ, কৃষি বিভাগ, মৎস্য বিভাগ, কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশসহ (ক্যাব) সংশ্লিষ্ট শিল্প বণিক সমিতির প্রতিনিধিরা এ অভিযানে সহযোগিতা করেন।


আরও খবর



‘গোপনে’ বিদেশ ভ্রমণ করা দুদক কর্মকর্তা প্রত্যাহার

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে প্রেষণে নিয়োজিত জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব ইমরুল কায়েসকে। অনুমতি ছাড়া ভারত ভ্রমণ করায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তিনি দুদকে উপ-পরিচালক হিসেবে অভিযোগ যাচাই-বাছাই বিভাগে কর্মরত ছিলেন।

বুধবার (২৭ জুলাই) বিষয়টি নিশ্চিত করে দুদক সূত্র। জনপ্রশাসন বিভাগের উপ-সচিব আবু ফতেহ মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম সই করা এক আদেশ সূত্রেও তার প্রত্যাহারের বিষয়টি জানা গেছে। যেখানে ইমরুল কায়েসকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এপিডি অনুবিভাগে ন্যস্তের কথা বলা হয়েছে।

দুদক সূত্র জানায়, সরকারি আদেশ অমান্য করে অনুমতি ছাড়া বিদেশ ভ্রমণ করায় তার বিরুদ্ধে সরকারি চাকরিবিধি অনুসারে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তাকে ফেরত পাঠানো হয়েছে জনপ্রশাসনে।

দুদকের একটি সূত্রে জানা যায়, দুদকের প্রধান কার্যালয় প্রেষণে নিয়োজিত উপ-পরিচালক (জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব) ইমরুল কায়েস জালিয়াতির মাধ্যমে সরকারি আদেশ তৈরি করে ভারত ভ্রমণ করেন। যদিও তিনি গত ২৯ মার্চ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ১০মে থেকে ১৮ মে ব্যক্তিগত সফরে ভারত যাবেন বলে অনুমতি নিয়েছিলেন। তবে ওই সময়ে ভারতে না গিয়ে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া গোপনে ভারত ভ্রমণ করেন। যা সরকারি চাকরিবিধি পরিপন্থী।


আরও খবর



স্বামীর বাড়ি থেকে নববধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

মানিকগঞ্জের ঘিওরে স্বামীর বাড়ি থেকে সুমি আক্তার (২২) নামে এক নববধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার হাত বাঁধা ছিলো।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বিকেলে উপজেলার বানিয়াজুড়ি ইউনিয়নের শোলধারা গ্রামের স্বামীর বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত সুমি আক্তার একই ইউনিয়নের কাকজোর গ্রামের দিনমজুর রহম আলীর মেয়ে। মাত্র দুই মাস আগে শোলধারা গ্রামের মৃত রশিদ মোল্লার ছেলে মানিকগঞ্জ জজকোর্টের আইনজীবীর সহকারী রাসেল মোল্লা ওরফে রুপকের সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়।

মানিকগঞ্জের শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরজাহান লাবনী জানান, দুপুরে এক আইনজীবী থানায় ফোন করে জানান তার এক আত্মীয়কে ছেলের বউ ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। হাসপাতালে ভর্তির জন্য থানায় জিডি করা লাগতে পারে। ঘটনা জানার পর ছেলের বউকে ধরতে পুলিশ সেখানে গেলে বাড়ি ফাঁকা পাওয়া যায়। এরপর ঘরের একটি রুমে সুমি আক্তারের গলাকাটা মরদেহ পাওয়া যায়।

কয়েকজন প্রতিবেশি জানান, দুপুরে রুপ তার মাকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি থেকে বের হতে দেখেছেন। ওই বাড়িতে আশপাশের লোকজনের তেমন যাতায়াত ছিল না। এ কারণে কেউ ঘটনা টের পাননি। তবে সকালে ঝগড়ার শব্দ পেয়েছেন বলে জানান কয়েকজন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরজাহান লাবনী আরও জানান, ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। রুপক তার মাকে নিয়ে সাভারের একটি হাসপাতালে আছেন বলে জানা গেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলেই রহস্য জানা যাবে।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজুদ্দিন আহমেদ বিপ্লব জানান, এ ঘটনায় হত্যা মামলার প্রস্ততি চলছে।


আরও খবর



১৪ দিনের জেল হেফাজতে পার্থ-অর্পিতা

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

ইডি (এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট) হেফাজতের মেয়াদ শেষে পশ্চিমবঙ্গে নিয়োগ কেলেঙ্কারির ঘটনায় সাবেক মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তার ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের করা জামিন আবেদন খারিজ করে এই নির্দেশ দেন কলকাতার ব্যাঙ্কশাল আদালত। আগামী ১৮ আগস্ট পর্যন্ত জেল হেফাজতে থাকবেন তারা।

তবে জেলে গিয়ে পার্থ ও অর্পিতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি পেয়েছে ইডি। দুজন ইডি অফিসার তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে জেলে যেতে পারবেন। ইডির আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত এমন নির্দেশনা দিয়েছেন।

আদালতের ওই নির্দেশনায় বলা হয়, জেলের একটি বিশেষ সেলে নিরাপত্তা দিয়ে অর্পিতাকে রাখতে হবে। সেই সঙ্গে জেলের অভ্যন্তরে তার ওপর বাড়তি নজরদারি থাকবে। অন্যদিকে, পার্থ চ্যাটার্জিকে প্রেসিডেন্সি জেলে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে এ দিন পার্থ চ্যাটার্জির আইনজীবী বলেন, তিনি (পার্থ) আজ একজন সাধারণ মানুষ। প্রয়োজনে তিনি এমএলএ (মেম্বার অব লেজিসলেটিভ অ্যাসেম্বলি) পদ থেকে ইস্তফা দিতে পারেন। তিনি কোথাও পালিয়ে যাবেন না। ইডি যেসব কাগজপত্র পেশ করেছে, তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও ভুয়া।

এ সময় পার্থের আইনজীবী আরও বলেন, যে টাকা উদ্ধার হয়েছে তা পার্থ চ্যাটার্জীর নয়। তাকে টাকা নিতে দেখা যায়নি।

অন্যদিকে, অর্পিতার আইনজীবী আদালতকে বলেন, তিনি (অর্পিতা) উচ্চশিক্ষিতা। সুতরাং তাকে প্রথম শ্রেণির আসামির মর্যাদা দেওয়া হোক। তার খাবার ও পানি যেন পরীক্ষা করে দেওয়া হয়। কারণ তার প্রাণ সংশয়ের ভয় আছে।

গত ২২ জুলাই ভারতের ইডি একই সঙ্গে ১৩ জায়গায় অভিযান চালিয়ে কোটি কোটি টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, বিদেশি মুদ্রা উদ্ধার করে। পার্থ চ্যাটার্জীর বান্ধবী অর্পিতা মুখার্জির ফ্লাট থেকেও বিপুল অঙ্কের টাকা ও স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

পরে ইডির জেরায় অর্পিতা দাবি করেন, তার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া সব টাকাই পার্থের। ওই ফ্ল্যাটে পার্থের ঘনিষ্ঠরাই টাকা রেখে যেতেন। তবে পার্থ চ্যাটার্জি এমন দাবি অস্বীকার করে বলেন, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।


আরও খবর



ইসির সংলাপে ট্রেন-বিমানের টিকিটে অগ্রাধিকার চাইলো গণফ্রন্ট

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

আগামী জাতীয় নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে মতামত নিতে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ সংলাপে অংশ নিয়ে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের নেতাদের জন্য বাংলাদেশ বিমান, ট্রেনের টিকিট, হাসপাতালের কেবিন ও কারাগারের ডিভিশনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়ার দাবি জানিয়েছে গণফ্রন্ট।

এছাড়া বর্তমান নির্বাচন কমিশন সবার কাছে গ্রহণযোগ্য, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু একটি জাতীয় নির্বাচন জাতিকে উপহার দিতে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন দলটির নেতারা।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) নিবন্ধিত এ দলটি নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে গিয়ে এ প্রস্তবনা দেন। দলের চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের নেতৃত্বে গণফ্রন্টের ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেয়। সংলাপে চারজন নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

সংলাপে গণফ্রন্টের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি প্রস্তাব দেওয়া হয়। সেগুলো হলো-

>> সংসদের আসন বাড়িয়ে ৩৫০-৪৫০ করা।

>> প্রতি জেলা ও মহানগরী হতে একজন করে মহিলা সাংসদ সংরক্ষিত মহিলা আসন নিশ্চিত ও রাজনৈতিক দলগুলোর সব স্তরে এক-তৃতীয়াংশ মহিলা সদস্য রাখার বিধান চালু রাখা।

>> সব নিবন্ধিত দলকে হালনাগাদ একটি নির্ভুল ভোটার তালিকা সরবরাহ।

>> একই পোস্টারে সব প্রার্থীর পরিচয় ও প্রতীক এবং একই মঞ্চে সকল প্রার্থীর নির্বাচনী জনসভার ব্যবস্থা।

>> নির্বাচনী ব্যয়ের সীমারেখা সঠিকভাবে মেনে চলা হচ্ছে কি না, তা কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ।

>> নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা।

>> স্বাধীনতাবিরোধী, বিদেশি নাগরিক, এনজিওর প্রধান ও দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি দলের নেতৃত্বে না থাকার বিধান।

>> আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন বাহিনীর পাশাপাশি প্রয়োজনবোধে সেনাসদস্য মোতায়েন।

>> ঋণ, কর ও বিল খেলাপিকে নির্বাচন করার সুযোগ না দেওয়া।

>> নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব কর্মকর্তাদেরকে রির্টানিং অফিসার করা।

>> নির্বাচনকালীন রাজনৈতিক সরকার গঠন।

>> অনিবন্ধিত দল নিবন্ধিত দলের সঙ্গে জোট করতে না পারার বিধান।

>> নির্বাচনের আগে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের প্রধানের নিরাপত্তা ও দলীয় অফিসের নিরাপত্তার প্রদান।

>> অধিকাংশ রাজনৈতিক দলের আপত্তি থাকলে নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করা

>> নির্বাচনকালীন সময়ে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নির্বাচন কমিশনের ওপর ন্যাস্ত করা।


আরও খবর