Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

রুমে রুমে চা-শিঙাড়া খাওয়া বন্ধ করুন: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৯৭জন দেখেছেন
Image

কৃষিপণ্যের জাত উদ্ভাবন হচ্ছে কিন্তু সম্প্রসারণ ঠিক ভাবে হচ্ছে না। এ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক কৃষি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সহকর্মীদের রুমে রুমে গিয়ে চা-শিঙাড়া খাওয়া বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এসময় তিনি ডিজিকে (মহাসচিব) উদ্দেশ্য করে বলেন, নিজ কক্ষে বসে বসে শুধু চা-শিঙাড়া খাওয়ার আর খোশগল্পের ট্র্যাডিশন বন্ধ করতে হবে। আপনাদের (ডিজি) বলছি, আমি এমন নির্দেশ দেখতে চাই।

পাশাপাশি দেশে ফলের উৎপাদন বাড়াতে কৃষি কর্মকর্তাদের কর্মসূচি ঘোষণা করারও নির্দেশনা দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটশনে (কেআইবি) জাতীয় ফলমেলা উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে তিনি এমন কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বেনজীর আলম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কৃষি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, কৃষি অফিসে গেলে ডিজিকে ছাড়া আর কাউকে পাওয়া যায় না। পিডি (প্রকল্প পরিচালক) ছাড়া প্রকল্পে কী হচ্ছে ডিপিডি (সহকারী প্রকল্প পরিচালক) জানে না। তরুণদের-তো আরও বেশি কাজ করার কথা। তাদের আরও বেশি কাজে লাগাতে হবে। কে কী কাজ করে?'

তিনি বলেন, একজন আরেকজনের রুমে বসে শুধু চা খায়। আমি বহুদিন বলেছি, আবারও বলছি- বারি (বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট), ব্রি (বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট), বিএডিসি (বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন)-তে রুমে রুমে বসে চা খাওয়া বন্ধ করে দিন।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কেউ কারো রুমে গিয়ে চা খেতে পারবেন না। কেউ কারো রুমে গিয়ে শিঙাড়া খেতে পারবেন না। বিদেশি কিংবা বড় কোনো উদ্যোক্তা আসলে তাদের আপ্যায়ন করবেন, তাকে আপনি চা খাওয়ান। কিন্তু পাশের রুমের বিজ্ঞানী আসলো আপনি তার জন্য চা-শিঙাড়া অর্ডার দেবেন, সেগুলো একদম আইন করে, অর্ডার দিয়ে- আমি সব ডিজিদের বলছি তা বন্ধ করুন।

তিনি বলেন, খামারবাড়িতে (কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর) কেউ কএনা কর্মকর্তাকে চা-শিঙাড়া খাওয়াতে পারবেন না। একদম চিঠি দিয়ে তা বন্ধ করুন। আমি এই অর্ডার দিচ্ছি। আমাদের আরও বেশি করে কাজ করতে হবে। করোনার কারণে আমরা দুই বছর কাজ করতে পারিনি, আমরা অনেক পিছিয়ে গেছি।


আরও খবর



ভারতে প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ২ পাইলট নিহত

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

ভারতে প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে দুই পাইলট নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) দিনগত রাত ৯টার দিকে রাজস্থানের বারমার জেলায় দেশটির বিমান বাহিনীর একটি মিগ-২১ নামের একটি প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হলে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বারমারের ভিমদা গ্রামে প্রায় আধা কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিমানটির ধ্বংসাবশেষ পড়ে আছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বারমারের জেলা প্রশাসক লোক বান্দু।

এদিকে বিমান বিধ্বস্তের খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে গেছেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও বিমান বাহিনীর কর্মকর্তারা।


আরও খবর



‘তামাকবিরোধী কার্যক্রমে বাংলাদেশের এমপিরাই সবচেয়ে এগিয়ে’

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

সংসদ সদস্যদের নিয়ে গঠিত ‘বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফোরাম ফর হেলথ অ্যান্ড ওয়েলবিং’ তামাকমুক্ত বাংলাদেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন সংশোধনে কাজ করছে। এ ধরনের কাজে বাংলাদেশের সংসদ সদস্যরাই সবচেয়ে এগিয়ে থাকবেন।

শনিবার (৩০ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশন এবং ‘ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস’-এর উদ্যোগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাত।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনে আছে। সেই আইনে পাবলিক প্লেসে ধূমপান করলে মাত্র ৩০০ টাকা জরিমানা হয়। এটা বন্ধ করা জরুরি। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১৫৩ জন সংসদ সদস্যের সই করা একটি চিঠি দিয়েছি। এটা বিশ্বের আর কোথাও হয়নি।

হাবিবে মিল্লাত বলেন, একটা সময় সংসদ সদস্যরা তামাকের পক্ষে চিঠি দিতেন। সেই অবস্থা পরিবর্তন হয়েছে। তামাকের কর বাড়ানোর সুপারিশ জানিয়ে অর্থমন্ত্রীর কাছে ৮৬ জন সংসদ সদস্যের সই করা চিঠি দিয়েছি। আমরা ৪০ জন সংসদ সদস্য নিয়ে কক্সবাজারে তামাকবিরোধী কনফারেন্স করেছি। আমরা আশাবাদী, খুব দ্রুতই কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন করতে পারবো।

mp-2

এরআগে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপনায় তামাক আইন সংশোধনের গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলো উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. নিজাম আহমেদ।

তিনি বলেন, প্রতি বছর দেশের মোট মৃত্যুর ৬৭ শতাংশ মানুষ অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। যার অন্যতম কারণ তামাক ও তামাকপণ্যের ব্যবহার। বিদ্যমান আইনের কিছু ফাঁকফোকরও।

সংবাদ সম্মেলনে বেশ কিছু সুপারিশও তুলে ধরা হয়। এরমধ্যে জনসম্মুখে ধূমপান পুরোপুরি নিষিদ্ধ করা, বিক্রয়কেন্দ্রে তামাকজাত দ্রব্য প্রদর্শন নিষিদ্ধ করা, বিড়ি-সিগারেট খুচরা বিক্রি নিষিদ্ধকরণ, ই-সিগারেট ও হিটেড টোব্যাকো নিষিদ্ধ করার মতো বিষয়গুলো উল্লেখযোগ্য।

এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস বাংলাদেশের লিড পলিসি অ্যাডভাইজার মোস্তাফিজুর রহমান, স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. রফিকুল ইসলাম, রত্নগর্ভা ফরিদা জামান স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ফরিদা জামান।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন তামাকবিরোধী সংগঠনের প্রতিনিধি, স্কুল-শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



পামঅয়েলে রং মিশিয়ে সরিষা তেল বলে বিক্রি, লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

পামঅয়েলের সঙ্গে বিষাক্ত রং মিশিয়ে ভেজাল সরিষা তেল উৎপাদন ও বিপণনের দায়ে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার বনগ্রাম বাজারের একটি অয়েল মিলকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বুধবার (২০ জুলাই) দুপুরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর পাবনার সহকারী পরিচালক জহিরুল ইসলাম এ অভিযান পরিচালনা করেন।

তিনি জানান, বনগ্রাম বাজারে অবস্থিত ইমারুল অয়েল মিলে পামঅয়েলের সঙ্গে রং মিশিয়ে সরিষার তেল তৈরি করা হয় বলে অভিযোগ ছিল। অভিযোগ পেয়ে
দুপুরে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এ সময় হাতেনাতে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। পরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে অয়েল মিলকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান পরিচালনা করতে সহায়তা করেন জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মাহমুদ আলম। নিরাপত্তা কাজে নিয়োজিত ছিল আতাইকুলা থানা পুলিশের একটি টিম।


আরও খবর



যেসব আমলে কাটবে মুমিনের জুমার দিন

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১০জন দেখেছেন
Image

ইয়াওমুল জুমাকে গরিবের হজের দিন বলা হয়। মুসলমানদের জন্য সপ্তাহের সেরা বিশেষ ইবাদতের দিন এটি। জুমার দিনে রয়েছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত ও আমল। এ সব আমলের রয়েছে অসামান্য ফজিলত ও মর্যাদা।

জুমার দিন সুরা কাহফ তেলাওয়াত, মনোযোগসহ ইমামের খোতবা শোনা, দরূদ পাঠ করা এবং আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত আল্লাহর জিকির ও ইবাদতে অতিবাহিত করার নির্দেশ দিয়েছেন স্বয়ং বিশ্বনবি।

১. সুরা কাহফ তেলাওয়াতের আমল

জুমার দিনের বিশেষ আমলসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো সুরা কাহাফ তেলাওয়াত করা। তা হোক জুমার আগে অথবা পরে। যারা এ দিনের সুরা কাহাফ তেলাওয়াত করবে কেয়ামতের দিন তা পাঠকারীর জন্য আসমানসহ নূরে পরিণত হবে। হাদিসে এসেছে-

> হজরত আবু সাঈদ খুদরি রাদিয়াল্লাহু আনহু রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণনা করেন, যে ব্যক্তি জুমার দিন সুরা কাহফ পাঠ করবে তার জন্য এক জুমা থেকে পরবর্তী জুমা পর্যন্ত নূর হবে।

> হজরত আলি রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি জুমার দিন সুরা কাহফ তেলাওয়াত করবে, সে আট দিন পর্যন্ত সব ধরণের ফেতনা থেকে মুক্ত থাকবে। যদি দাজ্জালও বের হয় তবে সে দাজ্জালের ফেতনা থেকেও মুক্ত থাকবে।

> অন্য বর্ণনায় এসেছে, ‘এক জুমা থেকে পরবর্তী জুমা পর্যন্ত তার সব গোনাহ মাফ হয়ে যাবে। তবে উল্লিখিত গোনাহ মাফ হওয়ার দ্বারা ছোট গোনাহ উদ্দেশ্য। কারণ ওলামায়ে কেরামের ঐকমত্য যে, কবিরা গোনাহ তওবাহ করা ছাড়া মাফ হয় না।’

২. বেশি বেশি দরূদ পড়ার আমল

হজরত আওস ইবনে আওস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, তোমাদের সবদিন অপেক্ষা জুমার দিনটিই হলো শ্রেষ্ঠ। এ দিনে  হজরত আদম আলাইহিস সালামকে সৃষ্টি করা হয়েছে। এ দিনেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এ দিনেই বিশ্ব ধ্বংসের জন্য শিঙ্গায় ফুঁক দেয়া হবে এবং এ দিনের পুনর্জীবিত করার জন্য দ্বিতীয়বার ফুঁক দেয়া হবে। আর এ দিন তোমরা আমার প্রতি বেশি বেশি দরূদ পাঠ কর।

তোমাদের দরূদ নিশ্চয় আমার কাছে উপস্থিত করা হবে। সাহাবাগণ জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আমাদের দরূদ আপনার কাছে কেমন করে উপস্থিত করা হবে অথচ আপনি তখন মাটি হয়ে যাবেন?

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উত্তরে বললেন, ‌আল্লাহ তাআলা নবিদের শরীর জমিনের জন্য হারাম করে দিয়েছেন।’ (আবু দাউদ, নাসাঈ, ইবনে মাজাহ, বায়হাকি)

৩. আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত দোয়া করার আমল

জুমার দিন দোয়া কবুলের জন্য একটি সময় আছে, যখন বান্দার কোনো দোয়া ফেরত দেয়া হয় না। যাদুল মাআদ গ্রন্থে এসেছে, ‘এ মর্যাদাবান মুহূর্তটি হলো- জুমার দিন আছরের নামাজ আদায়ের পর (মাগরিব পর্যন্ত)।’

এ মতে পক্ষে একটি দীর্ঘ হাদিস রয়েছে। জুমার দিন সূর্য উদয় হওয়ার পর (দুনিয়ায়) মানুষ এবং জিন ব্যতিত প্রত্যেক প্রাণীই কেয়ামতের ভয়ে আতংকিত থাকে। জুমার দিনে এমন একটি বরকতময় সময় আছে, যাতে মুসলিম বান্দা নামাজরত অবস্থায় আল্লাহর কাছে যা প্রার্থনা করবে, আল্লাহ তাকে তা দান করবেন-

কা’ব বিন মালিক এ হাদিসের বর্ণনাকারী হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহুকে জিজ্ঞেস করলেন, এটি কি প্রত্যেক বছরে হয়ে থাকে?

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বললেন, বরং তা (এ সময়টি) প্রত্যেক জুমাতেই রয়েছে। অতঃপর কা’ব বিন মালিক তাওরাত (কিতাব) খুলে পাঠ করলেন এবং বললেন, আল্লাহর রাসুল সত্য বলেছেন।

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন যে, অতঃপর আমি (তাওরাত কিতাবের পারদর্শী) হজরত আব্দুল্লাহ বিন সালামের সঙ্গে সাক্ষাৎ করি। এবং তাঁকে কা’ব বিন মালিকের সঙ্গে আমার বৈঠকের কথা জানাই। তখন তিনি (হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে সালাম) বললেন, আমি সেই সময়টি সম্পর্কেও অবগত আছি।

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু তার কাছ থেকে সেই সময়টি সম্পর্কে জানতে চান। তিনি বলেন-‘এটি (দোয়া কবুলের সেই সময়টি) হচ্ছে জুমার দিনের শেষ মুহূর্ত।’

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, ‘আমি আবার জিজ্ঞাসা করলাম, এটি কি করে সম্ভব? রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তো বলেছেন, ‘মুসলিম বান্দা তখন নামাজরত অবস্থায় আল্লাহর কাছে যা চাইবে আল্লাহ তাকে তা-ই দান করবেন।’

আর (জুমার) দিনের শেষ মুহূর্তের সময়টিতে নামাজ পড়া বৈধ নয় (আসর নামাযের পর থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত নামায পড়া নিষিদ্ধ)। সুতরাং উহা তো নামাজের সময় নয়।

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে সালাম তখন বললেন-

‘রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কি বলেন নি যে ব্যক্তি কোনো মজলিসে বসে নামাজের অপেক্ষায় থাকে সে ব্যক্তি নামাজ পড়া (নামাজের ওয়াক্ত হওয়া) পর্যন্ত নামাজেই মশগুল থাকে?

সর্বোপরি মুসলিম উম্মাহর জন্য জুমার দিন যেহেতু ইবাদত-বন্দেগির দিন হিসেবে সাব্যস্ত; তাই জুমার দিন আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে অতিবাহিত করাই হবে সব মুসলমানের একান্ত কাজ। আর উল্লেখিত বিশেষ আমলগুলো জুমার দিনের জন্য সুনির্ধারিত।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে জুমার দিনে সুরা কাহফ পড়ার, ইমামের খোতবা শোনার এবং আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত সময়ে বেশি বেশি দরূদ ও ইবাদতে আত্মনিয়োগ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



ভৈরবে সার কেলেঙ্কারির ঘটনায় বিএডিসির ২ কর্মকর্তার যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে সার কেলেঙ্কারির ঘটনায় দুদকের করা মামলায় বিএডিসির কর্মকর্তাসহ পাঁচজনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এরমধ্যে দুজনকে যাবজ্জীবন ও তিনজনকে অর্থদণ্ডসহ সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রোববার (২৪ জুলাই) বিকেলে ময়মনসিংহের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. শাহাদত হোসেন এ রায় ঘোষণা করেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কিশোরগঞ্জ বিএডিসির সাবেক যুগ্ম-পরিচালক আহাদ আলী ও ভৈরবের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম। এছাড়াও সাত বছরের দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- নরসিংদীর হাজিপুর নয়াপাড়ার মৃত ফজলু মিয়ার ছেলে মো. হারিছুল হক, কিশোরগঞ্জ অষ্টগ্রাম বাঙ্গালপাড়ার মৃত চুনীলাল রায়ের ছেলে লিটন রায় ও নরসিংদীর বেলাবোর মো. মজিবুর রহমান খানের ছেলে সারোয়ারুল আলম সবুজ।

দুদকের পিপি সঞ্জিব সরকার বলেন, ২০১৪ সালের ১৬ নভেম্বর কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মজুদকৃত সার না থাকায় বিএডিসির যুগ্ম-পরিচালক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ শেখ বাদী হয়ে সাতজনকে আসামি করে মামলাটি করেন।

এরপর ২০১৫ সালের ১০ জুলাই দুদক মামলাটি তদন্ত করে আসামিদের অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেয়। এরপর মামলার দীর্ঘ শুনানিতে বিজ্ঞ আদালত ১৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ রায় ঘোষণা করেন।

তবে মামলা চলা অবস্থায় দুই আসামি খোরশেদ আলম ও রতন মিয়া মৃত্যুবরণ করায় আদালত তাদের মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।

মামলায় আসামি আহাদ আলীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. ফজলুল হক বলেন, আমরা ন্যায়বিচার বঞ্চিত হয়েছি। ন্যায় বিচারের জন্য আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

একই বক্তব্য দিয়েছেন রেজাউল করিমের শ্বশুর মো. ইউসুফ আলী। তিনি বলেন, এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট না। এ রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে যাব।


আরও খবর