Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

ঋণের সুদের টাকার জন্য বেচে দেওয়া শিশু উদ্ধার

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৯২জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় ঋণের বিপরীতে সুদের টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে রানি আক্তারের নবজাতককে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।  


রোববার (১৭ এপ্রিল) এ ঘটনায় বিক্রি হওয়া নয় মাসের নবজাতককে মুন্সিগঞ্জ থেকে উদ্ধারের বিষয় নিশ্চিত করেছে পুলিশ।এছাড়া এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


অভিযুক্ত লাকী বেগম ও ভুক্তভোগী রানি আক্তার ফতুল্লার আলীগঞ্জ পিডব্লিউডির কলোনিতে ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। লাকী বেগমের স্বামী হজরত আলী ক্লিনার পদে সরকারি চাকরি করেন। আর রানি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া থানার বাদারতলীর হান্নান চৌকিদারের স্ত্রী। হান্নান চৌকিদার রাজমিস্ত্রির কাজ করেন।


এর আগে, এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী রানি আক্তার। অভিযোগে তিনি বলেছেন, ‘দুই বছর আগে লাকী বেগমের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা ঋণ নেন। গত দুই বছরে ওই টাকার বিপরীতে দুই লাখ ১০ হাজার টাকা দিয়েছি। এমনকি এক বছর আগে সুদের টাকা পরিশোধের জন্য আমার নবজাতককে বিক্রি করে দিয়েও সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাৎ করেন লাকী বেগম। এ বিষয়ে মুখ বন্ধ রাখতে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে আসছিলেন তিনি। এতেও তিনি ক্ষ্যান্ত হয়নি।  


বৃহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল) পুনরায় লাকী বেগম আমার বাড়িতে এসে সুদের আসলসহ এক লাখ ৩ হাজার টাকা দাবি করেন। অন্যথায় মারধর করা হবে বলে হুমকি দেন।


নবজাতককে বিক্রির ব্যাপারে বাদী রানি আক্তার জানান, প্রায় এক বছর আগে ছেলের জন্ম দেন তিনি। ওইদিন বিকেলে সুদের টাকা পরিশোধ নিতে তার নবজাতককে ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন অভিযুক্ত লাকী। বিক্রির টাকার পরিবর্তে লাকী তাকে একটি পুরাতন খাট এবং একটি পুরাতন টিভি দিয়েছিলেন। সেসঙ্গে সুদের টাকা কেটে নিয়েছিলেন। তাকে একটি টাকাও দেওয়া হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।


এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান বলেন, মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর এলাকা থেকে বাচ্চাটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। এর কাছ থেকে বাচ্চাটিকে উদ্ধার করা হয়েছে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হবে।


আরও খবর



জাতীয় ইদগাহে প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮ টায় অনুষ্ঠিত হবে

প্রকাশিত:Tuesday ০৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১১২জন দেখেছেন
Image


নিউজ ডেস্ক 

ঢাকা: মঙ্গলবার (৩ মে) জাতীয় ইদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায় ইদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এতে অংশ নেবেন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা, কুটনীতিবিদ, প্রধান বিচারপতি ও বিচারপতিরা, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তারা।জতীয় জামাতে অংশ নেবেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।


রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ করোনার দুই বছরের মতো এবারও বঙ্গভবনে সকাল সাড়ে ৯টায় ইদের নামাজ আদায় করবেন। প্রতিবার তিনি জাতীয ইদগাহ ময়দানে ইদের নামাজ আদায় করতেন।


ইদের প্রধান জামাতকে কেন্দ্র করে ঢাকা মহানগর পুলিশ ও র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যাব) সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে



-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 



আরও খবর



সরকার প্রকৃত দানশীলও ধনাট্য ব্যাক্তিদের কাছ থেকে জায়গা নেয়ার সিদ্বান্ত গ্রহন করেছে

নাসিরনগরে জায়গা দানকারীদের নামে কমিউনিটি ক্লিনিক হচ্ছে

প্রকাশিত:Monday ২৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ-

সরকার স্বাস্থ্যসেবার মান সাধারণ মানুষের দুরগোড়ায় পৌছে দিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নের যে সমস্ত ইউনিয়নে কমিউনিটি ক্লিনিক সংকট রয়েছে সে সমস্ত ইউনিয়নে পুনরায় কমিউনিটি ক্লিনিক চালুর সিদ্বান্ত নিয়েছে সরকার।


উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নে ৩৯ টি ক্লিনিক থাকার কথা থাকলেও ২২ টি ক্লিনিক চলমান রয়েছে।বাকী আরো নতুন ১৭ টি কমিউনিটি ক্লিনিক চালুর সিদ্বান্ত নিয়েছে সরকার।সেই হিসেবে কমিউনিটি ক্লিনিক নির্মানে সরকার এবার নতুন পদ্বতি অবলম্বন করতে চলেছে।


সরকার প্রকৃত দানশীলও ধনাট্য ব্যাক্তিদের কাছ থেকে জায়গা নেয়ার সিদ্বান্ত গ্রহন করেছে।রাস্তার পাশে ও সহজে  যানবাহন  যাতায়াতের সুবিধা রয়েছে এমন জায়গা থেকে যদি কোন দয়ালু,ধনাট্য ও দানশীল ব্যাক্তি কমিউনিটি ক্লিনিকের জন্য মাত্র( ৮) আট  শতাংশ জায়গা দান করেন তাহলে ওই দানশীল ব্যাক্তির নামে কমিউনিটি ক্লিনিকটির নামকরন করা হবে এবং যাহা সারা জীবণ তার নামেই চলবে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় সুত্রে জানানো হয়েছে।


নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার অফিস সুত্রে এ তথ্য জানা গেছে।আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ অভিজিৎ রায়ের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে।


আরও খবর



ধুপখোলা মাঠকে মাঠ হিসেবে ব্যবস্থাপনা করতে হবে

প্রকাশিত:Saturday ১৪ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

পুরাতন ঢাকার গেন্ডারিয়ার ধুপখোলা মাঠকে সম্পূর্ণরূপে মাঠ হিসেবে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আইনজীবী ও বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।


তিনি বলেছেন, মাঠটিকে মাঠ হিসেবে ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এখানে যত স্থাপনা আছে এগুলো সরিয়ে ফেলতে হবে।



শনিবার (১৪ মে) পরিবেশ ও সংস্কৃতি কর্মী এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা ধূপখোলা মাঠ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।


রেজওয়ান হাসান বলেন, ঢাকা শহরের মাস্টার প্ল্যান ও হাইকোর্টের রায়ে বলা আছে, মাঠের মধ্যে কোনো স্থাপনা হতে পারবে না। আর ধূপখোলা মাঠের মতো এরকম ঐতিহ্যবাহী মাঠ নেই। যে কোনো নির্মাণ কাজ করতে গেলে ওখানে একটা সাইনবোর্ড দিয়ে জনগণকে জানাতে হবে এই নির্মাণ কাজ কে করছে, অর্থায়ন কে করছে, ইঞ্জিনিয়ার কে, অনুমোদনের তারিখ কবে। এখানে এরকম কোনো সাইনবোর্ড আমরা দেখতে পাইনি।



তিনি আরও বলেন, ঢাকা শহরের বেশির ভাগ খেলার মাঠ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে সিটি করপোরেশন। আর সিটি করপোরেশন যদি আইন ভঙ্গ ও হাইকোর্টের রায় উপেক্ষা করে মাঠের মধ্যে স্থাপনা করে তাহলে জনগণ যাবে কোথায়। এখানে ‘রক্ষকই ভক্ষক’ এই উদাহরণ সৃষ্টি করছে সিটি করপোরেশন।


পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সহ-সভাপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, মহানগরী, বিভাগীয় শহর ও জেলা শহরের এলাকাসহ দেশের সব পৌর এলাকার খেলার মাঠ, উন্মুক্ত স্থান, উদ্যান ও প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইন, ২০০০ অনুসারে মাঠে কোনো স্থাপনা করার সুযোগ নেই। এই আইনে বিজিএমইএ ভবন ভেঙে ফেলা হয়েছে। ধূপখোলা মাঠে যে সব অবৈধ নির্মাণ কাজ রয়েছে সেগুলো সরিয়ে ফেলতে হবে। আর এই কাজটি করতে সিটি করপোরেশনকে উদ্যোগ নিতে হবে।



নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসেন বলেন, দেশের আইন ও উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী কোনো মাঠে স্থাপনা তৈরি করা যায় না। খেলার মাঠ খেলার জন্যই উন্মুক্ত থাকবে। ধূপখোলা মাঠ ঢাকার মধ্যে সবচেয়ে বড় খেলার মাঠ। এছাড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররাও এখানে খেলাধুলা করেন।


তিনি নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য সিটি করপোরেশনের প্রতি আহ্বান জানান।


প্রতিনিধি দলে আরও উপস্থিত ছিলেন- গ্রিন ভয়েসের প্রধান সমন্বয়ক আলমগীর কবির, কেন্দ্রীয় সহ-সমন্বয়ক হুমায়ুন কবির সুমন, ময়মনসিংহ বিভাগের সমন্বয়ক শাকিল কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক তারেক রহমান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মিল্টন, পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দীন, ক্যামেলিয়াসহ অন্যান্য নেতারা।



আরও খবর



নাসিরনগরে জোরপূর্বক প্রতিবেশীর জায়গা দখলের অভিযোগে আদালতে মামলা

প্রকাশিত:Saturday ২১ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১২২জন দেখেছেন
Image

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার চাতলপাড় ইউনিয়নের ফেদিয়ারকান্দি গ্রামে জোরপূর্বক প্রতিবেশীর জায়গা দখলের অভিযোগে ৬ জনের বিরোদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের  করা হয়েছে।


 ১৯ মে ২০২২ তারিখে ফেদিয়ার কান্দি গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে মোঃ মাহির ভূঞা বাদী হয়ে প্রতিবেশী আব্দুল কাদিরের ছেলে সৈয়দ মিয়া,সিরাজ মিয়া,রেহমান মিয়া, রেহমানের দুই ছেলে  বিল্লাল মিয়া,খায়ের মিয়া ও ফজলুল হকের ছেলে সফর উদ্দিন এই ৬ জনের বিরোদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পি - ৪৪৩ মামলা দায়ের করে।


মামলা সুত্রে জানা গেছে সকল বিবাদীরা জোটবদ্ধ হয়ে ১৭ মে ২০২২ তারিখ  বিকেল ৪ ঘটিকার সময় দেশীয় প্রাণঘাতি অস্ত্র নিয়ে বাদীর দখলীয় জয়নগর মৌজার ১ দাগের ৪ শতাংশ জায়গা অনধিকার প্রবেশ করে জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালায়।এ সময় স্বাক্ষীদের সহায়তা বাদী তাদের হাত থেকে নিভৃত পায়।পরে বিবাদীরা জায়গা দখলে ব্যর্থ হয়ে বাদী ও তার পরিবারের লোকজনকে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে।


আদালত মামলাটি ফৌজদারী কার্য বিধির ১৪৫ ধারায় আমলে নিয়ে দ্বীতিয় পক্ষকে কারন দর্শানোর ও ওসি নাসিরনগরকে উভয় পক্ষের মাঝে শান্তি শৃংখলা বাজায় রেখে আগামী ১৮ জুলাই ২০২২ তারিখের  মধ্যে সরেজমিন পরিদর্শন পূর্বক দখল বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।


আরও খবর



ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে আল জাজিরার সাংবাদিক নিহত

প্রকাশিত:Wednesday ১১ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১১০জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানের খবর সংগ্রহের সময় কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা করেছে দখলদার বাহিনী। বুধবার (১১ মে) এ তথ্য নিশ্চিত করেছে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।


পশ্চিম তীর থেকে আল জাজিরার আরেক সংবাদদাতা নিদা ইব্রাহিম জানিয়েছেন, জেনিন শহরে ইসরায়েলি অভিযানের খবর সংগ্রহের সময় সাংবাদিক শিরীন আবু আকলেহকে গুলি করে হত্যা করেছে দখলদাররা।




তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা যা জানি তা হলো, ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তার (শিরীন) মৃত্যুর ঘোষণা দিয়েছে। শিরীন জেনিনে সংঘটিত ঘটনাগুলোর খবর সংগ্রহ করছিলেন, বিশেষ করে দখলকৃত পশ্চিম তীরের উত্তরাঞ্চলীয় একটি শহরে ইসরায়েলি অভিযানের বিষয়ে। সেই সময় তিনি মাথায় গুলিবিদ্ধ হন।




নিদা ইব্রাহিমের কথায়, এটি শিরীনের সঙ্গে কাজ করা সাংবাদিকদের জন্য একটি বড় ধাক্কা।


মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, গুলিবিদ্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মারা যান শিরীন আবু আকলেহ। এসময় জেরুজালেমভিত্তিক আল-কুদস পত্রিকায় কর্মরত আরেকজন ফিলিস্তিনি সাংবাদিক আহত হন। তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল।




ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে হতাহতের এ ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরায়েল।



আরও খবর