Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

রোববার থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস বন্ধ

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৫৩জন দেখেছেন
Image

দেশব্যাপী করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় সশরীরে ক্লাস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক সকল কার্যক্রম চালু থাকবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ। গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রশাসনিক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, রোববার থেকে অনলাইনে ক্লাস চলবে। আবাসিক হলগুলো বন্ধের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে, হলগুলোতে বড় পরিসরে আইসোলেশনের ব্যবস্থা রাখার কথা ভাবা হচ্ছে।

রহিমা কানিজ বলেন, আগামী রোববার থেকে পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত সশরীরে ক্লাস বন্ধ থাকবে। দেশব্যাপী করোনার প্রকোপ বিবেচনায় এই সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। তবে, এ সময় দাপ্তরিক সব কার্যক্রম চালু থাকবে।

তিনি আরও বলেন, স্বল্প সংখ্যক শিক্ষার্থী নিয়ে একাধিক গ্রুপ করে চলমান পরীক্ষা ও ব্যবহারিক ক্লাসগুলো যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অব্যহত থাকবে। প্রয়োজনে একাধিক কক্ষে পরীক্ষাগুলো নেওয়া হবে।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে হল প্রভোস্ট ও ডিনদের বৈঠকে এই বিষয়ে আলোচনা হয়। ওই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে গতরাতে প্রশাসনিক সভায় বিষয়টি উত্থাপিত হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১১ অক্টোবর জাবির হলগুলো খুলে দেওয়া হয় এবং ২১ অক্টোবর থেকে সশরীরে ক্লাস শুরু হয়।


আরও খবর



করোনায় আজও চারজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪৩০

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
Image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ২৬৬ জনে।

একই সময়ে নতুন করে ৪৩০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগী বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ এক হাজার ৭৭৫ জনে।

রোববার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগের ২৪ ঘণ্টাতেও করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ৬১০৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। মহামারির শুরু থেকে দেশে এ পর্যন্ত মোট এক কোটি ৪৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৭২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৭ দশমিক ০৪ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

এদিকে, একদিনে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন এক হাজার ২৭০ জন। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৩৫ হাজার ৯৬৩ জন।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাসে প্রথম আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।


আরও খবর



কিংবদন্তি অভিনেত্রী ববিতার আজ জন্মদিন

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

তার নামের আগে পরে কোনো বিশেষণ লাগে না। এ দেশে একটাই ববিতা। যিনি চলচ্চিত্রের রুপালি পর্দায় মুগ্ধ এক কবিতা হয়ে আছেন। তার অভিনয়ের আলোয় দীর্ঘদিন ধরেই উদ্ভাসিত ঢাকার সিনেমা। তার হাসি, তার সৌন্দর্যের সুরভি ছড়িয়েছে দেশ ছেড়ে বিদেশেও।

আজ আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অভিনেত্রী ববিতার জন্মদিন। নায়িকার পুরো নাম ফরিদা আক্তার পপি।

১৯৫৩ সালের ৩০ জুলাই বাংলাদেশের বাগেরহাট জেলায় জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। তার বাবা নিজামুদ্দীন আতাউব একজন সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন এবং মাতা বি. জে. আরা ছিলেন একজন চিকিৎসক। বাবার চাকরি সূত্রে তারা তখন বাগেরহাটে থাকতেন। তবে তার পৈতৃক বাড়ি যশোর জেলায়। শৈশব এবং কৈশরের প্রথমার্ধ কেটেছে যশোর শহরের সার্কিট হাউজের সামনে রাবেয়া মঞ্জিলে।

তিন বোন ও তিন ভাইয়ের মধ্যে বড়বোন সুচন্দা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী, বড়ভাই শহীদুল ইসলাম ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার, মেজভাই ইকবাল ইসলাম বৈমানিক, ছোটবোন গুলশান আখতার চম্পা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী এবং ছোটভাই ফেরদৌস ইসলাম বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা।

কিংবদন্তি নির্মাতা জহির রায়হানের ‘সংসার’ সিনেমায় শিশুশিল্পী হিসাবে ১৯৬৮ সালে অভিষেক হয় ববিতার। এখানে তিনি রাজ্জাক-সুচন্দার মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন। পরে ফরিদা আক্তার পপি থেকে ‘ববিতা’ হয় ওঠেন জহির রায়হানের উর্দু ছবি ‘জ্বলতে সুরুজ কি নিচে’র মাধ্যমে।

নায়িকা হিসাবে ববিতার প্রথম সিনেমা ‘শেষ পর্যন্ত’ মুক্তি পায় ১৯৬৯ সালের ১৪ আগস্ট, যেদিন ববিতার মা মারা যান। এতে তার নায়ক ছিলেন রাজ্জাক।

আলোচিত সিনেমা ‘টাকা আনা পাই’ ববিতাকে চলচ্চিত্রের শক্ত আসন দিলেও তার জীবনের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সিনেমা বলা হয় সত্যজিৎ রায়ের ‘অশনি সংকেত’কে। এ সিনেমায় অভিনয় করে ববিতা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দারুণ প্রশংসা অর্জন করেন।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে ২৫০টির বেশি সিনেমায় অভিনয় করেন এ অভিনেত্রী। স্বীকৃতিস্বরূপ একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ দেশি-বিদেশি অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন তিনি।

ববিতা অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমার তালিকায় রয়েছে-‘অশনি সংকেত’, ‘নিশান’, ‘মন্টু আমার নাম’, ‘প্রতিজ্ঞা’, ‘লাভ ইন সিঙ্গাপুর’, ‘মায়ের জন্য পাগল’, ‘টাকা আনা পাই’, ‘স্বরলিপি’, ‘তিনকন্যা’, ‘শ্বশুরবাড়ি’, ‘মিস লঙ্কা’, ‘জীবন সংসার’, ‘লাইলি মজনু’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘লাঠিয়াল’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি, ইত্যাদি।


আরও খবর

আসছে ‘গোলমাল ৫’!

Friday ১৯ August ২০২২




সালিশে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ২ যুবক আহত

প্রকাশিত:Monday ০৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সালিশ চলাকালে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে দুই যুবক আহত হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

সোমবার (৮ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার বারদি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের সামনে ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় আহতদের মামা মো. ওয়াহিদ মিয়া বাদী হয়ে বিকেলে সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওয়াহিদ মিয়ার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী আলমগীরচর গ্রামের মো. ইকবালের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ডিম ব্যবসার টাকা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের বিচার দাবি করেন ওয়াহিদ।

সোমবার উভয়পক্ষ তাদের লোকজন নিয়ে সালিশে উপস্থিত হন। সালিশ চলাকালে ইকবালের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন দেনাদার ওয়াহিদ। এক পর্যায়ে ইকবালের নেতৃত্বে হারুন অর রশিদ, কবির হোসেন, সাইদুল, মুছা, হানিফাসহ ১০-১২ জনের একটি দল ওয়াহিদের ভাগিনা মো. মাসুম ও সালাউদ্দিনকে ছুরিকাঘাত করেন।

ওয়াহিদ মিয়া বলেন, ‘ইকবালের সঙ্গে ডিমের ব্যবসা ছিল। ব্যবসার হিসাব শেষে আমার কাছ থেকে আড়াই লাখ পাওনা হয়। এক লাখ টাকা পরিশোধও করেছি। বাকি টাকা পর্যায়ক্রমে পরিশোধ করা জানালেও ইকবাল আদালতে আমার বিরুদ্ধে মামলা করে। অতিষ্ঠ হয়ে পরিষদ কার্যালয়ে বিচার দাবি করি। ওই সালিশ চলাকালে বাইরে আমার ভাগিনাদের পেয়ে ছুরিকাঘাত করে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইকবালের মোবাইল নম্বরে কল দিলে হামলায় তিনি জড়িত না বলে দাবি করেছেন। তার লোকজন উত্তেজিত হয়ে ঘটনা ঘটাতে পারে।

বারদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন বাবুল জাগো নিউজকে বলেন, ‘সালিশ শুরু হওয়ার আগে বাইরে হামলার ঘটনা ঘটে। তবে এ সালিশে স্থানীয় মেম্বার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত থাকার কথা ছিল।’

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



পাকিস্তানে বাস-তেলের ট্যাঙ্কারে সংঘর্ষ, নিহত ২০

প্রকাশিত:Tuesday ১৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানে একটি যাত্রীবাহী বাস এবং তেলের ট্যাঙ্কারে সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে আরও ছয়জন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকালে পাঞ্জাব প্রদেশের মুলতান-সুকুর মটরওয়েতে (এ-৫) ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

মুলতানের ডেপুটি কমিশনার তাহির ওয়াতো এক বিবৃতিতে ওই দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, যাত্রীবাহী বাসটি লাহোর থেকে করাচির দিকে যাচ্ছিল। পরে জালালপুর পিরওয়ালায় পেছন দিকে বাসটির সঙ্গে একটি তেল ট্যাঙ্কারের পেছন দিকে ধাক্কা লাগে।

এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, সংঘর্ষের পরেই বাস এবং ট্যাঙ্কারে আগুন ধরে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ২০ জন প্রাণ হারায়।

পরবর্তীতে মুলতানের কমিশনার আমির খাতাক এক টুইট বার্তায় দুর্ঘটনার খবর নিশ্চিত করেন। তিনি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার ভোর ৪টায় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

তিনি ঘটনাস্থলের বেশ কিছু ছবি প্রকাশ করেছেন। সেখানে বাস এবং ট্যাঙ্কারের ধ্বংসাবশেষ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

এক পুলিশ মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ডনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ওই ট্যাঙ্কারে কয়েক হাজার লিটার পেট্রল ছিল। তিনি জানিয়েছেন, যাত্রীবাহী বাসটির চালক ঘুমিয়ে পড়ায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

মুলতানের নিশতার হাসপাতালের মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. আমজাদ চান্দিও ডনকে জানিয়েছেন, আহত চারজনকে ওই হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন, হাসপাতালের মর্গে ২০টি মরদেহ রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ এই দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, দুর্ঘটনায় ২০ জনের নিহতের খবরে আমি শোকাহত। হতাহতদের পরিবারের প্রতি আমার গভীর সমবেদনা।


আরও খবর



টাকা পাচারের তথ্য যদি চেয়েই থাকেন, প্রমাণ দেখান: মান্না

প্রকাশিত:Friday ১২ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, সুইস রাষ্ট্রদূত বলেছেন তাদের কাছে বাংলাদেশ টাকা পাচারের তথ্য চায়নি। কিন্তু পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন তারা সুইস ব্যাংকের কাছে টাকা পাচারের হিসাব চেয়েছিলেন। যদি টাকা পাচারের তথ্য চেয়েই থাকেন, তাহলে তার দলিল দেখান। জনগণ দেখতে চায়।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে বহুমাত্রিক প্রভাব ও বাংলাদেশের গন্তব্য কোন পথে শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, একজন রাষ্ট্রদূত মিথ্যা বলছেন তার বিরুদ্ধে এমন প্রচারণা আপনারা চালাবেন। তারা তথ্য দেয়নি এমন কথা বলার আগে নিজেরা প্রমাণ দেন যে, আপনারা তথ্য চেয়েছেন।

‘কতো বড় মিথ্যাচার বর্তমান সরকার করতে পারে। পেট্রোল-অকটেন নাকি আমরা আমদানি করি না। অথচ এটা আমাদের আমদানি করতে হয়। যদিও গ্যাসের উত্তোলনের সঙ্গে সঙ্গে পেট্রোল-অকটেন তৈরি করা যায়। গ্যাসও তো আমদানি করতে হয়। অথচ আমাদের মাটির নিচে অনেক গ্যাস রয়ে গেছে। একটা কথা আমাদের মাথায় রাখতে হবে, আমাদের সবই ঠিক আছে, শুধু টাকা পাচারের কারণেই সব সংকট।’

মান্না বলেন, শুধু আবেগ দিয়ে সমাধান হবে না। আমাদের রাস্তায় নামতে হবে। এক লক্ষ লোক ঢাকায় নেমে যদি সরকারকে বলি, তুমি না গেলে আমরা যাবো না। দেখি সরকার কি করে। আমরা তো সেটা পারলাম না। সরকার যতোই চেষ্টা করুক, গায়ের জোরে আর ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। তারা কোনো ধাক্কা সামলানোর মতো কোনো শক্তি এখন নাই। যদি রাজনৈতিক দলগুলো যার যার জায়গা থেকে একত্র হয়ে আন্দোলনে নামতে পারতো, তাহলে সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারত না। এই মুহূর্তে সংকট কাটাতে সরকারের কোনো সক্ষমতা নেই। কিন্তু এই মুহূর্তে যদি তার বিরুদ্ধে না দাঁড়ানো যায়, তাহলে সে কি করবে তা বলা যায় না। আমরা শুধু ভালো সময়ের জন্য অপেক্ষা করি। এর চাইতে ভালো সময় আর কবে হতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগকে দেখতে পারে, এমন লোক আমি দেখি না এখন আর। যারা তাদের কাছ থেকে লাভ করতে পেরেছে, তারাই বর্তমান পরিস্থিতিতেও পক্ষে কথা বলছেন। কিন্তু তাদেরও দুই চারটা কথা বলুন, আটকে যাবে। মানুষ অনেক বিক্ষুব্ধ। অনেকেই আমাকে জিজ্ঞাসা করে, ভাই সরকার যাবে কবে। আমি বলি সরকার তো নামতে চায় না। কারণ বাঘের পিঠে উঠলে নামা যায় না। সরকার আজ বাঘের পিঠে চড়েছে।

নাম উল্লেখ না করে মান্না বলেন, আমাদের গণতন্ত্র মঞ্চ হবার পর একজন মন্ত্রী বললেন যতো সব পরিত্যক্ত লোক নিয়ে মঞ্চ গঠন হয়েছে। আমি বলবো, ভাই আপনাদের থেকে একজন প্রতিষ্ঠিতলোক দেন। যার সঙ্গে আমাদের সবচেয়ে নিম্ন অবস্থানেরও লোক ভোট করবেন। অনলাইনে ভোট হবে। দেখি কে জেতে।

জাগপার সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধানের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদসহ জামায়াতে ইসলামি, জাগপা ও বিএনপির অন্যান্য শরিক দলের নেতাকর্মীরা।


আরও খবর